শুক্রবার , ১৯শে অক্টোবর, ২০১৮ ইং , ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ , ৯ই সফর, ১৪৪০ হিজরী
NEWSPOST24

ঐশ্বারিয়ার আত্মহত্যার ‘চেষ্টা’!

বিভাগঃ বিনোদন ০৪/১২/২০১৬ নিউজ পোস্ট ডেস্ক

ঐশ্বারিয়ার আত্মহত্যার ‘চেষ্টা’! ঐশ্বারিয়ার আত্মহত্যার ‘চেষ্টা’!
বিনোদন ডেস্ক : পরিবারের ভিতরে তাঁকে নিয়ে যে পরিমাণ অসন্তোষ জমা হয়েছিল, তাতে সুস্থ, স্বাভাবিক জীবন চালানো কোনমতেই সম্ভব হচ্ছিল না। তাই আর কোনও... ঐশ্বারিয়ার আত্মহত্যার ‘চেষ্টা’!

বিনোদন ডেস্ক : পরিবারের ভিতরে তাঁকে নিয়ে যে পরিমাণ অসন্তোষ জমা হয়েছিল, তাতে সুস্থ, স্বাভাবিক জীবন চালানো কোনমতেই সম্ভব হচ্ছিল না। তাই আর কোনও উপায় না দেখে প্রাক্তন বিশ্বসুন্দরী ঐশ্বারিয়া রায় নিজেকে শেষ করে দেওয়ার খেলায় মেতে ওঠেন। আত্মহত্যা করতে উদ্যত হন অভিষেক বচ্চনের স্ত্রী, আরাধ্যার মা।

সব তো ঠিকঠাকই চলছিল। তাহলে হঠাৎ কী এমন হল যে আত্মহত্যা করতে গেলেন ঐশ্বারিয়া? জীবনের প্রতি সব মোহ হারিয়ে ফেললেন এক নিমেষে? খবরের ভিতরকার খবর বলছে অন্য কথা।

‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’ ছবিটি মুক্তি পাওয়ার আগে থেকেই ঐশ্বারিয়ার সঙ্গে ঠোকাঠুকি চলছিল তাঁর পরিবারের। জয়া বচ্চন প্রকাশ্যে সমালোচনা করেছিলেন প্রাক্তন বিশ্বসুন্দরীর। রণবীর কপূরের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ অভিনয় ভালভাবে নিতে পারেনি বচ্চন পরিবার। স্বামী অভিষেক বচ্চন ঐশ্বারিয়া অভিনীত ‘অ্যায় দিল হ্যায় মুশকিল’ ছবিটি দেখতে যাননি বলে খবর একসময়ে ছড়িয়ে পড়েছিল পত্রপত্রিকায়। ঐশ্বারিয়াকে নিয়ে বচ্চন পরিবারের অসন্তোষ এমন জায়গায় পৌঁছে গিয়েছিল যে, এই ডাকসাইটে সুন্দরী জীবন সম্পর্কে সব আশা-আকাঙ্ক্ষা হারিয়ে ফেলেন। অতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহননের পথ বেছে নিতে গিয়েছিলেন। এই খবর জানার পরে বচ্চন পরিবার সুন্দরী অভিনেত্রীকে হাসপাতালেও নিয়ে যায়নি।

হাসপাতালে ঐশ্বারিয়াকে নিয়ে যাওয়া হলে খবরটা ছড়িয়ে পড়বে দাবানলের মতো। তাই লোক জানাজানির ভয়ে বচ্চন পরিবার পারিবারিক চিকিৎসককে বাড়িতে ডেকে পাঠায়। সেখানেই ঐশ্বারিয়া চিকিৎসা হয়। কোনওমতে সেই যাত্রায় চিকিৎসক উদ্ধার করেন প্রাক্তন বিশ্বসুন্দরীকে।

এত পর্যন্ত পড়ে অনেকেই বিস্ময়ে, ক্ষোভে, ক্রোধে উন্মাদ হয়ে যেতে পারেন। এত বড় একটা খবর হয়ে গেল অথচ কাকপক্ষী টের পেল না! আসল ঘটনা কিন্তু অন্য। সেলিব্রিটিদের মৃত্যুর ভুয়ো খবর ছড়িয়ে পড়া আজকের দুনিয়ায় নতুন কোনও ব্যাপার নয়। ইন্টারেনেট, স্মার্টফোন, সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে অমিতাভ বচ্চনের ছেলের বউ আত্মহত্যা করার পথ বেছে নিয়েছিলেন, এই খবর ভাইরাল হওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়। হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে অনেকের কাছেই এ হেন খবর হয়তো পৌঁছেও গিয়েছে ইতিমধ্যেই।

আসল ঘটনা হল, ‘আউটলুক পাকিস্তান’ শীর্ষক একটি ব্লগের মাধ্যমে এই খবরটি ছড়িয়ে পড়ে। সেখানে লেখা হয়, আত্মহত্যা করতে গিয়েছিলেন ঐশ্বারিয়া। তাঁর আত্মহত্যা করতে যাওয়ার পিছনে কারণ একটাই। তা হল পারিবারিক অশান্তি। সেই ব্লগে এমনও লেখা হয়েছে, নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক চিকিৎসক জানিয়েছেন, ঐশ্বারিয়া নাকি বলেছেন, ‘আমাকে মরতে দিন। এরকম ঘৃণ্য জীবন কাটানোর থেকে মরে যাওয়াও ভাল।’ গত বুধবার সন্ধেয় এত বড় একটা মিথ্যে ছড়িয়ে পড়েছিল গোটা দেশে। দেশের বেশ কয়েকটি ট্যাবলয়েডেও সেই খবরটি স্থান পেয়েছিল।

Comments

comments

Send this to a friend