রংপুরসারা বাংলা

দিনাজপুরে হারবাল চিকিৎসার নামে প্রতারণা : অশ্লীল পোষ্টারে ছেয়ে গেছে শহর

দিনাজপুর থেকে সিদ্দিক হোসেন :  বাংলাদেশ হারবাল নামে কোন প্রতিষ্ঠানকে ড্রাগ ইনস্টিটিউট কর্তৃক লাইন্স বা অনুমোদন না দিলেও জেলাজুড়ে ব্যাঙ্গের ছাতার মতো গড়ে উঠেছে বিভিন্ন হারবাল প্রতিষ্ঠান। তারা নিজেদের নামিদামি কবিরাজ বলে জাহির করে আসছে। কোনো প্রাতিষ্ঠানিক সার্টিফিকেট না থাকা সত্ত্বেও নিজেরা বিভিন্ন ঔষধের বড়ি তৈরি করে প্রতিনিয়ত ঠোকাছে সাধারণ মানুষ কে। অন্যদিকে প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দিনের পর দিন রমরমা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

সরেজমিনে দেখা যায় বিভিন্ন দাওয়া খানা ও  হারবাল চিকিৎসার নামে একশ্রেণীর প্রতারক চক্র কঠিন রোগের চিকিৎসায় নফলতার কথা বলে বিভিন্ন পত্র-পত্রিকা ও লিফলেটে চটকদারি বিজ্ঞাপন দিয়ে  প্রতারণা করে আসছে সাধারণ মানুষের সাথে।

দিনাজপুরে হারবাল ঔষধ ব্যবসায়ীরা হারবাল ব্যবসার বাজারকে চাঙ্গা করার জন্য শহরের অলিগলি ও অফিস-আদালত থেকে শুরু করে স্কুল কলেজের সামনে ও রাস্তার পাশে বিদ্যু পিলারে নারী-পুরুষের গোপন রোগ বিষয়ক অশ্লীল বক্তব্য দিয়ে শত শত বাহারী রঙের পোস্টার লাগিয়ে দিয়েছে। হারবাল ব্যবসায়ীরা প্রতিযোগিতামূলকভাবে একেরপর এক প্রতিষ্ঠান চালু করে আসছে।

হারবালের উচ্চ মূল্যে ঔষধের মান যাই থাকুক বাহারী রঙের লিফলেট দেখে সাধারণ মানুষ আকৃষ্ট হচ্ছে। শুধু তাই নয় এইসব হারবাল প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞাপনের লিফলেট ১১-১৫বছর প্রাপ্ত বয়স্ক শিশুদের দিয়ে রাস্তার মোড়ে মোড়ে বিলি করানো হয়। যা খুবই অমানবিক।

জেলার কোন বাস স্পপেজে বাস দাড়ালে যাত্রীদের সিটে বা তাদের হাতে ধরিয়ে দেয়। শহরের বিভিন্ন অলিগলিতে এমনভাবে অশ্লীল বক্তব্যের পোষ্টার ও ব্যানার টাঙ্গিয়ে দেওয়া হয়েছে। রাস্তার পাশে যে কোন দেওয়াল, বাস, হোটেলের পাশে এমন কোন জায়গা বাদ নেই যেখানে তার এই অশ্লীল বক্তব্যের পোস্টার গুলো লাগানো হয়নি। যা নিয়ে অনেক সময় স্কুল পড়–য়া ছাত্র-ছাত্রীদের প্রশ্নের সম্মুখিন হতে হয়। মাঝে মাঝে অভিভাবককে অনেক সময় বিষয়টি এড়িয়ে যেতে হচ্ছে।

বিষয়টি নিয়ে কথা হলে  নাম প্রকাশ না করার শর্তে অনেক  অভিভাবক জানান,  হারবাল  চিকিৎসার নামে যে সকল অশ্লীল পোষ্টার দেয়া হয়েছে , তা  এক ধরনের অপরাধ এবং শিশ্টাচার বহির্ভুত । এধরনের  প্রতারনার চিকিৎসা পোষ্টার লাগানো বন্ধে অবিলম্বে ব্যবস্থা নেয়া দরকার ।

Comments

comments

আরো দেখুন

এমন আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button
Scroll Up
Close

Send this to a friend