বিদেশে টাকা পাচারের মামলায় কর কমিশনার নুরুল গ্রেপ্তার

265

দর্পণ ডেস্ক : প্রসাধনী পণ্য আমদানির আড়ালে সাড়ে চার কোটি টাকা বিদেশে পাচারের মামলায় গ্রেপ্তার হয়েছেন কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট অ্যাপিলেট ট্রাইব্যুনালের সদস্য এবং মোংলা কাস্টম হাউসের সাবেক কর কমিশনার মো. নূরুল ইসলাম। আজ বুধবার সন্ধ্যায় রাজধানীর সেগুনবাগিচা এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। দুদকের পরিচালক মীর জয়নুল আবেদিনের নেতৃত্বে সংস্থাটির উপপরিচালক জালাল উদ্দিন আহমেদ ও এস এম রফিকুল ইসলারে একটি দল গ্রেপ্তার কাজে অংশগ্রহন করে।

২০১১ সালের ৪ জুলাই বাগেরহাটের মোংলা থানায় নূরুল ইসলামসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়। মামলার অন্য আসামিরা হলেন মিডিয়া এন্টারপ্রাইজের মালিক হুমায়ন কবীর, বরগুনার আমতলী থানার বাসিন্দা আবুল কালাম আজাদ, প্রফেসি শিপিং লাইনসের মালিক জুলফিকার মালেক এবং একই প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপক আবদুর রাজ্জাক, জানায় দুদক।

সেই মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, আসামিরা মিথ্যা ও প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে মিডিয়া এন্টারপ্রাইজের নামে পূবালী ব্যাংকের খুলনা শাখায় ঋণপত্র (এলসি) খুলে ২০০৯ সালের ২৯ সেপ্টেম্বর ওই ঋণপত্রের বিপরীতে ৪ হাজার ৫৫ মার্কিন ডলার মূল্যের সাবান ও বডি স্প্রে–জাতীয় প্রসাধন পণ্য দুবাই থেকে আমদানি করে। কিন্তু মোংলা বন্দর দিয়ে ওই সব পণ্য আমদানির আড়ালে অবৈধভাবে ২৪ হাজার ২৪০ বোতল অনুমোদনবিহীন বিভিন্ন ধরনের বিদেশি মদসহ দুই কনটেইনার ভর্তি ইলেকট্রনিক ও অন্যান্য পণ্য আমদানি করেন। এভাবে তাঁরা মোংলা বন্দর দিয়ে ঘোষণাবহির্ভূত মালামাল আমদানি করে সাড়ে চার কোটি টাকা বিদেশে পাচার করেছেন বলে দুদকের অনুসন্ধানে প্রমাণিত হয়েছে। ওই সময়ে মোংলা কাস্টম হাউসের কমিশনার ছিলেন নূরুল ইসলাম।

দুদকের উপপরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য নূরুল ইসলামের গ্রেপ্তারের বিষয়টি  নিশ্চিত করেছেন।  তিনি বলেন, গ্রেপ্তারের পর নূরুল ইসলামকে রমনা থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। আগামীকাল সোমবার তাঁকে আদালতে হাজির করা হতে পারে।

Comments

comments