শিমুলিয়া ঘাট এলাকায় পদ্মার ভাঙন

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

পবিত্র ঈদুল আজহার বাকি আর মাত্র তিন দিন। দেশে চলছে করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাবকালীন পরিস্থিতি। তাও থেমে নেই নাড়ির টানে ঘরে ফেরা মানুষের আনাগোনা। দক্ষিণবঙ্গের ২৩ জেলার প্রবেশ পথ শিমুলিয়া কাঠালবাড়ি নৌ-রুট এলাকায় তাই ব্যাপক প্রস্তুতি নিচ্ছিল সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। এর মধ্যেই এলাকার ৩ নম্বর ফেরিঘাটের ৫০ গজ দূরে ভাঙন শুরু হয় পদ্মায়।

গতকাল মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে এ ভাঙন শুরু হয়। দ্বিতীয়বারের মতো ভাঙন শুরু হওয়ায় পরিস্থিতি ভয়াবহ রূপ ধারণ করলে শিমুলিয়া ৩ নম্বর ফেরিঘাট বন্ধ করে দেন বিআইডব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ।

গতকাল রাত ৮টার দিকে শিমুলিয়া প্রান্তের এক ও দুই নম্বর ঘাট ৫টি ফেরি দিয়ে নৌরুট সচল রাখা হলেও ভাঙন পরিস্থিতির কারণে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটের ফেরি চলাচল মারাত্বক বিপর্যয়ের মুখে পড়ে গেল বলে জানান বিআইডব্লিউটিসির কর্মকর্তা আহমেদ আলী। তিনি আরও জানান, ভাঙনের ফলে শিমুলিয়া ঘাটের ৩ নম্বর ঘাটের পল্টুন ও অ্যাপ্রোচ সড়ক মারাত্বক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

শিমুলিয়া ঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) মো. সাফায়েত আহমেদ বলেন, ‘পদ্মায় তীব্র স্রোত থাকায় এখন ৫টি ফেরি চলাচল করছে। সকালে ৮টি ফেরি চলতে পেরেছিল। ৩ নম্বর ফেরিঘাট বন্ধ আছে। মাত্র ৫টি ফেরি চলার কারণে ২ নম্বর ঘাটটিও ব্যবহারের প্রয়োজন পড়ছে না। এখন শুধু ১ ও ৪ নম্বর ফেরিঘাট ব্যবহার করা হচ্ছে।’

তিনি আরও জানান, ঈদের ছুটিতে ইতোমধ্যে যাত্রীরা গ্রামের বাড়িতে যাওয়া শুরু করেছেন। বর্তমানে ঘাটে দুইশ থেকে আড়াইশ যানবাহন নদী পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে।

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

Comments

comments