এনু-রুপমের ১২১ ফ্ল্যাট ও ১৯ কোটি টাকা, সিআইডির মামলা

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

‘ক্যাসিনো ব্রাদার’ পুরান ঢাকার আওয়ামী লীগ নেতা এনামুল হক এনু ও রুপম ভূঁইয়ার নামে ১২১টি ফ্ল্যাট ও ব্যাংকে ১৯ কোটি টাকা পেয়েছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ। এছাড়া, ঢাকার বাইরে দুই ভাইয়ের আরো ৬টি জমির সন্ধান পাওয়া গেছে।

দেশে বিপুল সম্পদের পাহাড় গড়ার পাশাপাশি বিদেশেও অর্থ পাচারের অভিযোগ রয়েছে দুই ভাইয়ের বিরুদ্ধে। এ অবস্থায় তাদের বিরুদ্ধে অর্থ পাচারের অভিযোগ এনে আরো একটি মামলা দায়ের করেছে সিআইডি।

সোমবার (৩১ আগস্ট) রাজধানীর বংশাল থানায় মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে মামলাটি (নং-৪৩) দায়ের করা হয়।

সিআইডির সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার জিসান আহমেদ জানান, তদন্তে ক্যাসিনো ব্রাদার এনু ও রুপমের নামে বেনামে বিপুল পরিমান সম্পদের তথ্য পাওয়া গেছে। প্রাথমিক তদন্তের ভিত্তিতে তাদের বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগে আরো একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। অর্থ পাচারের বিষয়গুলো খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এর আগে সিআইডি জানায়, ক্যাসিনো ব্যবসা শুরুর পর সম্পদের পাহাড় গড়েছেন এনামুল হক এনু ও রুপন ভূঁইয়া। তাদের ৯১টি ব্যাংক অ্যাকাউন্টে স্থিতিশীল টাকার পরিমাণ ১৯ কোটি টাকা হলেও গত ৫ বছরে লেনদেন করেছেন ২০০ কোটি টাকার বেশি। এছাড়া, ২০টি বাড়ি, ১২১টি ফ্ল্যাট, জমিসহ বিপুল পরিমান সম্পদের মালিক এই দুই ভাই।

২০১৯ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর এনামুল হক এনু ও রুপন ভূঁইয়াদের পুরান ঢাকার বানিয়ানগরের বাসায় এবং তাদের দুই কর্মচারীর বাসায় অভিযান চালায় র্যাব। সেখান থেকে পাঁচ কোটি টাকা এবং সাড়ে সাত কেজি সোনা উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় সূত্রাপুর ও গেণ্ডারিয়া থানায় তাদের নামে ছয়টি মামলা হয়।

পরে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি এনু-রুপনের লালমোহন সাহা স্ট্রিটের বাসায় অভিযান চালিয়ে ২৬ কোটি ৫৫ লাখ ৬০০ টাকা, ৫ কোটি ১৫ লাখ টাকার এফডিআরের কাগজ এবং এক কেজি সোনা জব্দ করে র্যাব। এ ঘটনায় দুই ভাইয়ের নামে আরও দুটি মামলা দায়ের করা হয়।

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

Comments

comments