চিকিৎসক তরুণীকে ধর্ষণের দায়ে তিন তরুণের মৃত্যুদণ্ড

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

রাজবাড়ীতে অটোরিকশা থেকে নামিয়ে এক চিকিৎসক তরুণীকে ধর্ষণের দায়ে তিন তরুণের মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। আজ বুধবার রাজবাড়ীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক শারমীন নিগার এই রায় দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ওই আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) উজির আলী শেখ।

ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত তিন তরুণ হলেন-রানা মোল্লা (২৬), মামুন মোল্লা (২২) ও হাসান সরদার (২৮)।

রানা ও হাসান রাজবাড়ী সদর উপজেলার বসন্তপুর ইউনিয়নের মজলিসপুর গ্রামের বাসিন্দা। আর মামুনের বাড়ি খানখানাপুর ইউনিয়নের দত্তপাড়া গ্রামে। রায় ঘোষণার সময় আদালতে আসামিরা ও বাদী উপস্থিত ছিলেন।

আদালতের নথি ও মামলার এজাহার সূত্র জানায়, ২০১৮ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি ঢাকা থেকে বাড়ি যাওয়ার উদ্দেশে ওই তরুণী গোপালগঞ্জের পথে রওনা হন। রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ মোড়ে পৌঁছে বাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন তিনি। সন্ধ্যা সাতটার দিকে বাস ধরিয়ে দেওয়ার কথা বলে তরুণীকে অটোরিকশায় তোলেন চালক রানা মোল্লা। ওই অটোরিকশায় আরও দুই তরুণ ছিলেন। পরে এক নির্জন স্থানে তরুণীকে নামিয়ে চালকসহ তিনজন মিলে ধর্ষণ করেন। এমনকি তারা মুঠোফোনে আরও চারজনকে সেখানে ডেকে আনেন। তারাও তরুণীকে ধর্ষণ করেন। পরদিন সকালে ওই তরুণী ফরিদপুর র‍্যাব ক্যাম্পকে বিষয়টি জানান। ওই দিনই অভিযুক্ত তিন তরুণকে আটক করে র‍্যাব। পরে তাদের রাজবাড়ী সদর থানায় সোপর্দ করা হয়।

তরুণীকে ধর্ষণের দায়ে তিন তরুণকে ফাঁসির রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী উজির আলী শেখ। তিনি বলেন, ‘এ ধরনের নির্যাতন কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না। এই রায় দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।’

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

Comments

comments