ভাসানচর দেখতে যাচ্ছেন ৪০ রোহিঙ্গা নেতা

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

কক্সবাজারের শরণার্থী ক্যাম্প থেকে রোহিঙ্গাদের একটি প্রতিনিধি দল নোয়াখালীর হাতিয়ার ভাসানচরে তৈরি করা আশ্রয়ণ প্রকল্প পরিদর্শনে যাচ্ছে।

শনিবার (৫ সেপ্টেম্বর) ভোরে দুটি বাসে করে সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে প্রতিনিধি দলটি উখিয়ার ট্রানজিট ক্যাম্প থেকে যাত্রা শুরু করে। সকালে তাদের চট্টগ্রামে পৌঁছার কথা। সেখান থেকে বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর তত্ত্বাবধানে জলযানে করে যাত্রা শুরু করবেন সেখানে।

ভাসানচরে কি ধরণের সুযোগ সুবিধা গড়ে তোলা হয়েছে বা আবাসন ব্যবস্থা বসবাসের উপযোগী কি না, তা নিজেদের চোখে দেখবে প্রতিনিধি দলটির রোহিঙ্গা নেতারা।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, রোহিঙ্গা প্রতিনিধিরা সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে ভাসানচরে যাচ্ছেন। সরকারের আশা, রোহিঙ্গা নেতারা দেখে এসে অন্যদের বোঝালে ভাসানচর যেতে রাজি হবেন শরণার্থীরা।  এই দলের সঙ্গে রোহিঙ্গাদের সহায়তাকারী জাতিসংঘের কোনো সংস্থার প্রতিনিধি বা গণমাধ্যমর্কীরা থাকছেন না। তবে আগে থেকে ভাসানচরে আরআরআরসি কার্যালয়ের তিন কর্মকর্তা সেখানে অবস্থান করছেন।

জাতিসংঘসহ শরণার্থীদের মানবিক সেবাদানকারী আন্তর্জাতিক সংস্থাগুলোর বিরোধিতা সত্ত্বেও কমপক্ষে এক লাখ শরণার্থীকে ওই দ্বীপে স্থানান্তর করার লক্ষ্যে চলমান প্রচেষ্টার অংশ হিসেবে এই উদ্যোগ নিয়েছে সরকার।

এ বিষয়ে জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থার (ইউএনএইচসিআর) ঢাকাস্থ কার্যালয়ের মুখপাত্র মোস্তফা সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ‘এ সর্ম্পকে আমরা কিছুই জানি না। আমাদের সঙ্গে কোনো আলোচনা হয়নি। তাছাড়া ভাসানচরে থাকা রোহিঙ্গাদের সঙ্গে তাদের স্বজনেরাও যোগাযোগ করতে পারছেন না। এখনো আমরা সরকারের নির্দেশনার জন্য অপেক্ষা করছি।’

জানতে চাইলে সেনাবাহিনীর রামু-১০ পদাতিক ডিভিশনের মুখপাত্র মেজর ওমর ফারুক বলেন, শনিবার ভোরে ৪০ জন রোহিঙ্গার একটি প্রতিনিধি দল ভাসানচরের রওনা দিয়েছেন। তারা মঙ্গলবার ফিরবেন। তবে ভাসানচরের বসবাস উপযোগিতা দেখতে রোহিঙ্গা নেতাদের আগস্টের শুরুতে সেখানে নিয়ে যাওয়ার কথা থাকলেও বৈরী আবহাওয়ার কারণে তা সম্ভব হয়নি।

তিনি আরও বলেন, ‘রোহিঙ্গা প্রতিনিধিরা শুক্রবার রাতে উখিয়ায় ছিলেন, সেখান থেকে শনিবার ভোরে তাদের সড়কপথে চট্টগ্রাম হয়ে জাহাজে করে ভাসানচরে নিয়ে যাওয়া হবে।’

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

Comments

comments