গৃহবধূকে নির্যাতনের পর চুল কেটে দিলেন শ্বশুর

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

বাবার বাড়ি লিখে না দেওয়ায় সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলায় নার্গিস খাতুন (৩০) নামের এক পুত্রবধূকে নির্যাতনের পর মাথার চুল কেটে দিয়েছেন শ্বশুর ও দুই ভাশুর। গুরুতর আহত অবস্থায় নার্গিসকে সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যার বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নার্গিস উল্লাপাড়ার উধুনিয়া ইউনিয়নের মহেশপুর গ্রামের ইব্রাহিমের মেয়ে ও একই গ্রামের শফিকুল ইসলামের স্ত্রী।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন নার্গিস খাতুন আজ মঙ্গলবার সকালে অভিযোগ করে জানান, প্রায় ১১ বছর আগে ভালোবেসে বিয়ে করেন তাঁরা। শ্বশুর হাবিবর রহমান, ভাশুর জামাল ও শাহাদত যৌতুকের দাবিতে ও নার্গিসের বাবার বাড়ি তাঁদের নামে লিখে দিতে নির্যাতন করে আসছিলেন। এরই জের ধরে গত রবিবার রাতে যৌতুক হিসেবে নার্গিসের বাবার বাড়ি লিখে দেওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করেন শ্বশুর ও তাঁর স্বজনরা। অস্বীকার করায় শ্বশুর ও দুই ভাশুর নার্গিসকে মারধর করেন। একপর্যায়ে কাঁচি দিয়ে তাঁর চুল কেটে দেন। গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয়রা তাঁকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করেন।

স্বামী শফিকুল ইসলাম জানান, ভালোবেসে নিজের পছন্দের মেয়েকে বিয়ে করার কারণেই ক্ষুব্ধ বাবা হাবিবর রহমান। যার কারণে তাঁদের ওপর প্রায়ই নির্যাতন চালান তাঁর বাবা ও পরিবারের অন্যরা।

সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যার বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক শামিমুল ইসলাম জানান, রোগীর মাথা, হাতসহ বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

উল্লাপাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দীপক কুমার দাস বলেন, ‘গৃহবধূ নির্যাতনের বিষয়টি জানতে পেরে হাসপাতালে গিয়ে খোঁজ-খবর নিয়েছি। এ বিষয়ে এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। তবে গৃহবধূর বাবা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি নিচ্ছেন।’

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

Comments

comments