নীলা হত্যা : মিজানসহ দুই সহযোগীকে ৭ দিনের রিমান্ডে চায় পুলিশ

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

সাভারে স্কুলছাত্রী নীলা রায় হত্যা মামলার প্রধান আসামি মিজানুর রহমানসহ তাঁর দুই সহযোগী সাকিব (২১) ও জয়কে (২০) সাত দিনের রিমান্ড প্রার্থনা করে আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। আনুষ্ঠানিকতা শেষে আজ শনিবার সকালে রিমান্ড প্রার্থনা করে আসামিদের ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে পাঠানো হয়।

এদিকে, দুদিনের পুলিশ হেফাজতে রয়েছেন মিজানের বাবা আবদুর রহমান ও মা নাজমুন নাহার সিদ্দিকী। রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদে তাঁদের কাছ থেকেও বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়ার কথা জানিয়েছেন তদন্তকারী কর্মকর্তা সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাইফুল ইসলাম।

গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে সাভারের তেঁতুলঝোড়া ইউনিয়নের রাজফুলবাড়িয়ার কর্নেল ব্রিকস ফিল্ডের পাশে অভিযান পরিচালনা করে মিজানুর রহমানকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। নীলা হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় এখন পর্যন্ত মিজান ও তাঁর মা-বাবাসহ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হলো।

এ সময় মিজানের দুই সহযোগী সাকিব ও জয়কে আটকসহ  আলামত হিসেবে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত একটি ছুরিও জব্দ করা হয় বলে জানায় পুলিশ। পরে ওই দুজনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। মিজানুর রহমানকে গ্রেপ্তারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মারুফ হোসেন সরদার।

এর আগে গতকাল মিজানের মা-বাবাকে দুদিনের রিমান্ডের আদেশ দেন আদালত। গতকাল ঢাকার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফাইরুজ তাসনীম এ আদেশ দেন। আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) আনোয়ারুল কবির বাবুল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

মিজানের বাবা আবদুর রহমান ও তাঁর স্ত্রী সাভারের ব্যাংক কলোনি এলাকায় ভাড়া থাকতেন। তবে নীলা হত্যাকাণ্ডের পরই মূল আসামি মিজানুর রহমানসহ তাঁরাও আত্মগোপনে চলে যান।

আনোয়ারুল কবির বাবুল বলেন, এর আগে গতকাল বিকেলে ঢাকার চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও সাভার থানার উপপরিদর্শক (এসআই) নির্মল চন্দ্র ঘোষ তাঁদের সাত দিনের রিমান্ড আবেদন করেন। অন্যদিকে আসামিদের পক্ষে তাঁদের আইনজীবী রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে বিচারক জামিনের আবেদন খারিজ করে প্রত্যেকের দুদিন করে রিমান্ডের আদেশ দেন।

র‍্যাব-৪-এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জমির উদ্দিন আহমেদ জানান, তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার চারিগ্রাম থেকে আবদুর রহমান ও নাজমুন নাহার সিদ্দিকীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এর আগে গত বুধবার মানিকগঞ্জের আরিচা থেকে মিজানুর রহমানের সহযোগী সেলিম পালোয়ান নামের একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি সাভার পৌরসভার পালপাড়া এলাকার বাসিন্দা।

এদিকে, মিজানুর রহমানকে গ্রেপ্তারের দাবিতে ২৩টি সংগঠন নিয়ে আন্দোলনে নামা সাভার দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক সালাহউদ্দিন খান নঈম বলেন, ‘এই হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে আমাদের আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।’ তিনি বলেন, ‘মূল আসামি গ্রেপ্তার হওয়ায় আমরা পুলিশের ভূমিকাকে স্বাগত জানাই। নিঃসন্দেহে তা সংক্ষুব্ধ পরিবারের জন্য কিছুটা হলেও স্বস্তি এনে দেবে। তবে হত্যাকাণ্ডের দ্রুত বিচারের দাবিতে আমাদের আন্দোলন জোরদার থাকবে।’

গত ২০ সেপ্টেম্বর রাতে হাসপাতালে যাওয়ার সময় ভাইয়ের সামনে থেকে স্থানীয় অ্যাসেড স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রী নীলা রায়কে (১৪) তুলে নিয়ে উপর্যুপরি ছুরিকাঘাতে হত্যা করে বখাটে মিজানুর রহমান চৌধুরী।

0
0
সর্বমোট
0
শেয়ার

Comments

comments