Logo
শিরোনাম

১০ হাজার টাকার মধ্যে সেরা ৫ স্মার্টফোন

প্রকাশিত:সোমবার ২৩ জানুয়ারী 20২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

স্মার্টফোন এখন হয়ে উঠেছে নিত্যসঙ্গী। প্রতিনিয়তই বাড়ছে স্মার্টফোনের চাহিদা। ছবি তোলা, দূর দুরান্তে ভিডিও কিংবা অডিও কলে কথা বলা, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার সবই হচ্ছে এক স্মার্টফোনে। আবার অনেকেই স্মার্টফোনে কনটেন্ট তৈরি করে মাসে লাখ লাখ টাকা আয় করছেন। এদিকে বাজেটের কারণে নামিদামি স্মার্টফোন কিনতে পারেন না অনেকেই। তবে শুধু নামিদামি স্মার্টফোন নয় কমের মধ্যেও ভালো স্মার্টফোন পাবেন বাজারে। যদি আপনার বাজেট ১০ হাজারের মধ্যে হয় তাহলে দেখে নিন ৫টি স্মার্টফোনের খবর। যেগুলো পাবেন ১০ হাজার টাকার মধ্যেই-

স্যামসাং গ্যালাক্সি এ০৩ কোর: স্যামসাংয়ের এই ফোনটিতে ২জি,৩জি এবং ৪জি নেটওয়ার্ক যুক্ত রয়েছে। ডুয়েল ন্যানো সিম সাপোর্ট, ৬.৫ ইঞ্চি ডিসপ্লের সঙ্গে পাবেন মিনিমাল নচ টাচ স্ক্রিন। রেজোলিউশন থাকছে এইচডি ৭২০x১৬০০ পিক্সেল। বডির ফ্রন্টে গ্লাস এবং ব্যাক সাইড প্লাস্টিক দেওয়া হয়েছে। ফোনটিতে রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল ব্যাক ক্যামেরা এবং ৫ মেগা পিক্সেল সেলফি ক্যামেরা যার ভিডিও রেজোলিউশন থাকছে ১০৮০ পিক্সেল। ফোনটিতে ৫০০০ এমএএইচয়ের ব্যাটারি। অপারেটিং সিস্টেম হিসেবে ফোনটিতে থাকছে অ্যান্ড্রয়েড ১১ অপারেটিং সিস্টেম এবং ইউনিসকের চিপসেট ও প্রসেসর রয়েছে অক্টাকোর। কালো এবং নীল-দুটি রঙে বেছে নিতে পারবেন ফোনটি। বর্তমানে দেশের বাজারে এর দাম থাকছে ২/৩২ জিবি ৯ হাজার ৬৯৯ টাকা।

শাওমি রেডমি ৯এ: শাওমি বাংলাদেশ সহ বিশ্ববাজারে একটি বড় অংশ দখল করে আছে। যারা ১০ হাজারের মধ্যে একটি ভালো স্মার্টফোন খুঁজছেন তাদের প্রথম পছন্দ হতে পারে শাওমি রেডমি ৯এ সেটটি। ৬.৫৩ ইঞ্চি ডিসপ্লে, যার রেজোলিউশন থাকছে ১৬০০x৭২০ পিক্সেল, যেটি থাকছে ফুল এইচডিতে। ফোনটির ফ্রন্ট ক্যামেরা রয়েছে ১৩ মেগাপিক্সেল এবং ব্যাক ক্যামেরা রয়েছে ৫ মেগাপিক্সেল। আরও আছে ৫০০০ এমএএইচ ব্যাটারি এবং চার্জ করার জন্য ১০ ওয়াট এর ফাস্ট চার্জার। ২ জিবি র‍্যামের সঙ্গে এই ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ৩২ জিবি রোম। দাম থাকছে বর্তমানে মাত্র ৮ হাজার ৭৯৯ টাকা।

ভিভো ওয়াই০২: ভিভোর ফোন এখন বাজারের সেরা ফোনগুলোর তালিকায় শুরুতেই রাখা হয়। ১০ হাজার টাকা বাজেট থাকলে নিতে পারেন ভিভো ওয়াই০২ স্মার্টফোনটি। মিনিমাল নচ টাচ স্ক্রিনের পাশাপাশি ফোনটির ডিসপ্লের সাইজ থাকছে ৬.৫১ ইঞ্চি যার রেজোলিউশন থাকছে এইচডি+ ৭২০x১৬০০ পিক্সেল। সেই সঙ্গে ডিসপ্লের প্রযুক্তি হিসেবে থাকছে আইপিএস টাচ স্ক্রিন ও মালটিটাচ ফিচার। ফোনটিতে থাকছে ৮ মেগাপিক্সেল রিয়াম ক্যামেরা ও ৫ মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা। ২জিবি র‍্যাম এবং ৩২জিবি রোম ফোনটির বর্তমানে দাম থাকছে ৯ হাজার ৯৯৯ টাকা।

শাওমি রেডমি এ১: শাওমি রেডমি এ১ স্মার্টফোনটিতে দুটি ৮+০.৮ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরার পাশাপাশি ৫ মেগাপিক্সেলের সেলফি ক্যামেরা। মিনিমাল নচ টাচ স্ক্রিন এবং ১৬৪.৯x ৭৬.৮x ৯.১ মিমি ডাইমেনশনের পাশাপাশি এই ফোনটির সঙ্গে থাকছে বড় মাপের একটি ডিসপ্লে। যার সাইজ ৬.৫২ ইঞ্চি। ডিসপ্লের রেজোলিউশন থাকছে এইচডি+ ৭২০x১৬০০ পিক্সেল। লিথিয়াম পলিমার ৫০০০ এমএএইচ ব্যাটারি এবং সেই সঙ্গে ১০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সুবিধা। ৩জিবি র‍্যাম ও ৩২জিবি রোম ফোনটির দাম থাকছে মাত্র ৯ হাজার ১৯০ টাকা।

রিয়েলমি সি৩০: ১০ হাজার টাকার মধ্যে আরও একটি দুর্দান্ত ফিচারের স্মার্টফোন রিয়েলমির সি৩০। এই মডেলের ফোনটিতে মিনিমাল নচ ডিসপ্লে এবং যার সাইজ থাকছে ৬.৫ ইঞ্চি এবং রেজোলিউশন থাকছে এইচডি+ ৭২০x১৬০০ পিক্সেল। ৮ মেগাপিক্সেল ব্যাক ক্যামেরা এবং সেলফি ক্যামেরা হিসেবে থাকছে ৫ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা। ফোনটিতে দেওয়া হয়েছে লিথিয়াম পলিমার ৫০০০ এমএএইচ ব্যাটারি এবং সেই সঙ্গে ১০ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সুবিধা। লেক ব্লু, ব্যাম্বো গ্রিন- এই দুই রঙে বেছে নিতে পারবেন ফোনটি। বর্তমানে ২/৩২ জিবি রিয়েলমি সি৩০ স্মার্টফোনটির দাম থাকছে ৯ হাজার ৯৯৯ টাকা।

নিউজ ট্যাগ: স্মার্টফোন

আরও খবর



‘ইভিএমের নতুন প্রকল্প না হলে ব্যালটে ভোটের প্রস্তুতি নিতে হবে’

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নির্বাচন কমিশনার বেগম রাশেদা সুলতানা বলেছেন, মধ্য জানুয়ারির মধ্যে ইভিএমের নতুন প্রকল্প পাস না হলে ব্যালটে যেতে হবে। সেজন্য জাতীয় নির্বাচন ব্যালট পেপারে করতে প্রস্তুতি নিতে হবে। সময়মতো হলে তো ভালো। না হলে যা আছে তা নিয়েই নির্বাচন করবো।

রোববার (৮ জানুয়ারি) রাজধানীর নির্বাচন ভবনের নিজ দপ্তরে তিনি সাংবাদিকদের কাছে এমন মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, মধ্য জানুয়ারির মধ্যে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) নতুন প্রকল্প পাস না হলে ১৫০ আসনে এ যন্ত্র ব্যবহার করা যাবে না। এক্ষেত্রে আমাদের ব্যালট পেপারে ভোটগ্রহণের প্রস্তুতি নিতে হবে।

তিনি বলেন, ইভিএম প্রকল্প খুব একটা এগোচ্ছে বলে মনে হয় না। এটা আসলে খুব বেশি আগায়নি। প্রকল্পের অর্থ প্রাপ্তি সাপেক্ষে সর্বোচ্চ ১৫০ আসনে ইভিএম ব্যবহার করবো বলে আমরা বলেছিলাম। এক্ষেত্রে প্রকল্প পাস না হলে আমাদের কাছে বর্তমানে যা আছে তাই দিয়েই ভোট করবো। মধ্য জানুয়ারির মধ্যে নতুন প্রকল্প পাস না হলে ব্যালটে যেতে হবে। সেই প্রস্তুতিও নিতে হবে। সময় মতো হলে তো ভালো। না হলে যা আছে তা নিয়েই করবো।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এসব নীতিনির্ধারকদের (মন্ত্রণালয়/সরকার) সঙ্গে কথা হয়নি। এটার রীতিও নেই। ইসি সচিবালয় হয়তো কথা বলবে। আমাদের সক্ষমতা যা আছে তাই করবো। আমাদের সক্ষমতা তো জানা মতে ৭০-৮০টি আসনে ইভিএম ব্যবহার করার মতো আছে। এখন কি আছে জানি না।

১৫০ আসনে ইভিএম ব্যবহারের লক্ষ্যে সরকারের কাছে আট হাজার ৭১১ কোটি ৪৪ লাখ টাকার নতুন একটি প্রকল্প প্রস্তাব দিয়েছে নির্বাচন কমিশন। সেই প্রস্তাব এখনো পাস হয়নি।

গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ সংশোধনের বিষয়ে এ নির্বাচন কমিশনার বলেন, আরপিও বিল আকারে রেডি করা হচ্ছে। সবকিছু যাচাই-বাছাই করে আমাদের কাছে পাঠাবে বলে আইন মন্ত্রণালয় জানিয়েছে।


আরও খবর



সরকার বিরোধী দলকে কোনো কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৯ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সরকার বিরোধী দলকে রাজনৈতিক কর্মসূচিতে বাধা দিচ্ছে না বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। বৃহস্পতিবার রাজধানীর বাংলা একাডেমিতে এক অনুষ্ঠান শেষে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোর কর্মসূচিতে বাধা দেওয়া প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন তিনি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রাজনৈতিক দলের কোনো কর্মসূচিতে বাধা দেওয়া হচ্ছে না। দল যখনই সমাবেশ করতে চাচ্ছে আমরা বা ডিএমপি কমিশনার তাদেরকে অনুমতি দিয়ে দিচ্ছেন।

তিনি বলেন, আমরা এটুকুই বলি, জনগণের দুর্ভোগ যেন না বাড়ে, রাস্তাঘাট বন্ধ করতে পারবে না, ভাঙচুর করতে পারবে না রাজনৈতিক কর্মসূচিগুলো শান্তিপূর্ণভাবে পালন করবেন যাতে জনগণের দুর্ভোগ না হয়।

এর বাইরে কোনো বাধা দেয়া হচ্ছে উল্লেখ করে সাংবাদিকদেরকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, তাদের (বিএনপি) ইচ্ছামত প্রোপাগান্ডা করছে। যা সত্যি নয় তাকে আরও রংচং দিয়ে এমনভাবে প্রচার করছেন যা আপনারাই ভালো করে জানেন।

প্রধানমন্ত্রী রাজনৈতিক মতাদর্শ প্রচার এবং সমাবেশ করার জন্য কোনো রাজনৈতিক দলকেই বাধা দেননি বলে উল্লেখ করেন আসাদুজ্জামান খান।

রোহিঙ্গা শিবিরে এপিবিএন রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে অর্থ নেওয়া হিউম্যান রাইটস ওয়াচের প্রতিবেদন নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্প আমাদের জন্য বিষফোঁড়া হবে কোনো এক সময়। এই রোহিঙ্গারা তাদের সবকিছু ফেলে এখানে চলে আসছে। যেকোনো প্রলোভনে প্রলুব্ধ হয়ে তারা যে কোনো চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করতে পারে এটা আমরা সব সময় বলেছি। এই রোহিঙ্গারা ক্যাম্পের ভেতরে থেকে ইয়াবার ব্যবসা করে। তারা নিজেরা নিজেরা গোলাগুলি করছে মারামারি করছেন প্রতিদিনই মারামারি করছে। মন্ত্রী বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আমাদের ডিজিএফআইয়ের এক কর্মকর্তাকে তারা মেরে ফেলেছে নৃশংসভাবে তারা হত্যা করেছে। গতকালও গোলাগুলি হয়েছে। বাড়িঘর পুড়িয়ে দিচ্ছে।

রোহিঙ্গাদের মধ্যে বিভিন্ন গ্রুপ ও ছাত্র কাঁটাতারের বেড়া কেটে এখান থেকে বের হয়ে মিয়ানমার থেকে ইয়াবা নিয়ে আসছে জানিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সেখানে আমাদের এপিবিএন কাজ করছে। রুটিন ওয়ার্ক করার জন্য এপিবিএন সেখানে আছে। এপিবিএন নিয়ে হিউম্যান রাইটস ওয়াচ তাদের প্রতিবেদনে যেসব কথা বলেছে, এগুলো আমার মনে হয় তথ্যভিত্তিক নয়।

তাদের আরও বেশি করে দেখে এসে এ সব প্রতিবেদন করা উচিত বলে মনে করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।


আরও খবর



ইরানে আরও তিন বিক্ষোভকারীকে মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ইরানের নৈতিকতা পুলিশ হেফাজতে ২২ বছর বয়সী মাসা আমিনির মৃত্যুর ঘটনায় ইরান জুড়ে ছড়িয়ে পড়া বিক্ষোভে অংশ নেওয়া আরও তিন বিক্ষোভকারীকে মৃত্যুদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আন্তর্জাতিক অঙ্গনে তীব্র সমালোচনা উপেক্ষা করে ইরানের বিচার বিভাগ আল্লাহর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করার’ অভিযোগে ওই তিনজনকে মৃত্যুদণ্ড দিল।সোমবার মিজান সংবাদ সংস্থা এ খবর জানিয়েছে। এর আগে গত শনিবার ইরান মোহাম্মদ মাহদি কারামি এবং সৈয়দ মোহাম্মদ হোসেইনি নামের দুই বিক্ষোভকারীকে ফাঁসি দেয়।

বিক্ষোভের সময় ইরানের আধাসামরিক বাহিনীর এক সদস্যকে হত্যার অভিযোগে তাদেরকে দোষী সাব্যস্ত ক‍রা হয়েছিল। এবার মৃত্যুদণ্ড পাওয়া তিনজন হলেন- সালেহ মিরহাশেমি, মাজিদ কাজেমি এবং সাইদ ইয়াগৌবি।

ইসফাহান নগরীতে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ চলাকালে স্বেচ্ছাসেবী বাসিজ মিলিশিয়ার সদস্যদেরকে হত্যার অভিযোগে ওই তিনজনকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। তবে এই মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবেন।

ইরানের অভিজাত রেভল্যুশনারি গার্ড বাহিনী সংশ্লিষ্ট বাসিজ মিলিশিয়া দেশে বিক্ষোভ দমনের অগ্রভাগে রয়েছে। বিক্ষোভকারীদেরকে মৃত্যুদণ্ড দিয়ে বিক্ষোভ দমনের জন্য সোমবার পোপ ফ্রান্সিস ইরানের নিন্দা করেছেন।

গত মাসে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল বলেছে, ইরানি কর্তৃপক্ষ কমপক্ষে ২৬ বিক্ষোভকারীর মৃত্যুদণ্ডের সাজা চাইছে। দেশ কাঁপানো গণঅভ্যুত্থানে অংশ নেওয়া প্রতিবাদকারীদের ভয় দেখানোর জন্য প্রহসনমূলক বিচারের নীলনকশা করা হয়েছে বলে নিন্দা জানিয়েছে লন্ডনভিত্তিক এই মানবাধিকার সংস্থা।

এইচআরএএনএর প্রতিবেদন অনুযায়ী, সেপ্টেম্বরে শুরু হওয়া ইরানের বিক্ষোভে এখন পর্যন্ত ১৯ হাজার ২৬২ জন বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। দেশটির সরকারি কর্মকর্তারা বলেছেন, বিক্ষোভে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যসহ ৩০০ জনের বেশি মানুষ নিহত হয়েছেন।


আরও খবর



সর্বজনীন পেনশন বিল পাস সংসদে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সব নাগরিককে পেনশনের আওতায় আনতে সংসদে সর্বজনীন পেনশন ব্যবস্থাপনা বিল-২০২৩ পাস হয়েছে। বিলে ১৮ বছর থেকে ৫০ বছর বয়সী সব নাগরিক নির্ধারিত হারে চাঁদা পরিশোধ করে ৬০ বছর পূর্তির পর আজীবন পেনশন সুবিধা ভোগ করতে পারবে।

এছাড়া বিশেষ বিবেচনায় ৫০ বছরের বেশি বয়সীরাও এই আইনের আওতায় নিরবচ্ছিন্ন ১০ বছর চাঁদা পরিশোধ করে পেনশন সুবিধা ভোগ করতে পারবেন। সেক্ষেত্রে স্কিমে অংশগ্রহণের তারিখ থেকে নিরবচ্ছিন্ন ১০ বছর চাঁদা প্রদান শেষে তিনি যে বয়সে উপনীত হবেন, সে বয়স থেকে আজীবন পেনশন প্রাপ্য হবেন। আজীবন বলতে পেনশনারের বয়স ৭৫ বছর পর্যন্ত বিবেচনা করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে জাতীয় সংসদে বিলটি পাস হয়।

এটি পাসের প্রস্তাব করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এর আগে বিলের ওপর আনিত জনমত যাচাই, বাছাই কমিটিতে প্রেরণ ও সংশোধনী প্রস্তাবগুলো কণ্ঠ ভোটে নাকচ হয়ে যায়। তবে কতিপয় সংশোধনী গৃহীত হয়।

পাসের আগে বিলটি সরাসরি সংবিধানের ১৫ অনুচ্ছেদের সঙ্গে সাংঘর্ষিক উল্লেখ করে বিলটি পাস না করে ফেরত পাঠানো বা জনমত যাচাই বা বাছাই কমিটিতে প্রেরণের পক্ষে বক্তব্য রাখেন জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশিদ, ফখরুল ইমাম, জাতীয় পার্টির মহাসচিব মুজিবুল হক চুন্নু, জাতীয় পার্টির পীর ফজলুর রহমান, শামীম হায়দার পাটোয়ারী ও স্বতন্ত্র সদস্য রেজাউল করিম বাবলু।

পেনশন আইনে বলা হয়েছে, চাঁদা দাতা ধারাবাহিকভাবে কমপক্ষে ১০ বছর চাঁদা দিলে মাসিক পেনশন পাবেন। চাঁদা দাতার বয়স ৬০ বছর পূর্তিতে পেনশন তহবিলে পুঞ্জীভূত মুনাফাসহ জমার বিপরীতে পেনশন দেওয়া হবে। বিদেশে কর্মরত বাংলাদেশি কর্মীরা এই কর্মসূচিতে অংশ নিতে পারবে।

আইনে আরও বলা হয়েছে, নিম্ন আয় সীমার নিচের নাগরিকদের অথবা অসচ্ছল চাঁদাদাতার ক্ষেত্রে পেনশন তহবিলে মাসিক চাঁদার একটি অংশ সরকার অনুদান হিসেবে দিতে পারবে।

বিলে বলা হয়েছে, একজন পেনশনার আজীবন পেনশন সুবিধা পাবেন। তবে পেনশনে থাকাকালীন ৭৫ বছর পূর্ণ হওয়ার আগে মারা গেলে তার নমিনি অবশিষ্ট সময়ের জন্য (মূল পেনশনারের বয়স ৭৫ বছর পর্যন্ত) মাসিক পেনশন প্রাপ্য হবেন। চাঁদাদাতা কমপক্ষে ১০ বছর চাঁদা দেওয়ার আগে মারা গেলে জমা করা অর্থ মুনাফাসহ তার নমিনিকে ফেরত দেওয়া হবে।

এতে আরও বলা হয়েছে, পেনশন তহবিলে জমা দেওয়া অর্থ কোনো পর্যায়ে এককালীন তোলার প্রয়োজন পড়লে চাঁদাদাতা আবেদন করলে জমা দেওয়া অর্থের সর্বোচ্চ ৫০ শতাংশ ঋণ হিসেবে তুলতে পারবেন, যা ফিসহ পরিশোধ করতে হবে। আইনে পেনশন থেকে পাওয়া অর্থ আয়কর মুক্ত থাকবে এবং পেনশনের জন্য নির্ধারিত চাঁদা বিনিয়োগ হিসেবে গণ্য করে কর রেয়াতের জন্য বিবেচিত হবে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে।

বিলে বলা হয়েছে, সর্বজনীন পেনশন পদ্ধতিতে সরকারি অথবা আধা সরকারি বা স্বায়ত্তশাসিত অথবা বেসরকারি প্রতিষ্ঠান অংশ নিতে পারবে। এক্ষেত্রে কর্মী ও প্রতিষ্ঠানের চাঁদার অংশ কর্তৃপক্ষ নির্ধারণ করবে। তবে সরকারি সিদ্ধান্ত না দেওয়া পর্যন্ত সরকারি ও আধা সরকারি বা স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানে কর্মরতরা পেনশন ব্যবস্থার আওতা বহির্ভূত থাকবে। সরকার আইনের উদ্দেশ্য পূরণকল্পে প্রজ্ঞাপন জারি করে সার্বজনীন পেনশন ব্যবস্থাপনা প্রবর্তন করবে।


আরও খবর



ভারতের পর এবার শ্রীলঙ্কার পাশে চীন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ২২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চরম অর্থনৈতিক সংকট ও বৈদেশিক ঋণে জর্জরিত শ্রীলঙ্কা এখনও আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) কাছে চাওয়া ২৯০ কোটি ডলারের ঋণ সহায়তা পায়নি। দেশটির অর্থনৈতি দুরবস্থা উত্তরণে ওই ঋণ (বেলআউট) পাওয়ার ক্ষেত্রে ভারতের পর এবার এগিয়ে এসেছে চীনও। দেশটি আইএমএফের প্রয়োজনীয় অর্থায়নের আশ্বাস দিয়েছে। গত সপ্তাহে ভারতের পক্ষ থেকেও এ ধরনের পদক্ষেপের কথা জানানো হয়। আর্থিক সংস্থাটিকে একটি চিঠিও দিয়েছে দিল্লি।

চীনের এক্সিম ব্যাংক জানায়, শ্রীলঙ্কাকে তার ঋণ পরিশোধের জন্য দুই বছরের স্থগিতাদেশ দেওয়া হবে। আইএমএফের বর্ধিত তহবিল সুবিধার (ইএফএফ) সঙ্গে সম্মতি জানিয়ে চীন একটি চিঠি দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন শ্রীলঙ্কার কর্মকর্তারা। ঋণ দেওয়ার আগে আইএমএফ জানিয়েছে, চীন ও ভারত যদি শ্রীলঙ্কার দেনা কমায় তবেই ঋণ দেবে। কারণ, ঋণ দেওয়ার আগে আইএমএফ নিশ্চিত হতে চায়, দেওয়া ঋণ ফেরত পাবে।

শ্রীলঙ্কার প্রকাশিত সরকারি হিসাব বলছে, ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত দেশটির প্রায় ৪ হাজার কোটি ডলারের দেনা রয়েছে। এরই মধ্যে খেলাপিও হয়েছে দেশটি।

নিউজ ট্যাগ: শ্রীলঙ্কা

আরও খবর