Logo
শিরোনাম

১০ নভেম্বর: ইতিহাসের এই দিনে

প্রকাশিত:বুধবার ১০ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৭৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
এক নজরে দেখে নিন ইতিহাসের এ দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়

১০ নভেম্বর গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জী অনুসারে বছরের ৩১৫তম (অধিবর্ষে ৩১৬তম) দিন। বছর শেষ হতে আরো ৫০ দিন বাকি রয়েছে। এক নজরে দেখে নিন ইতিহাসের এ দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।


ঘটনাবলি

    ১৪৯৮ - পর্তুগালের বিখ্যাত নাবিক ভাস্কো দা গামার সমুদ্র অভিযান শুরু হয়।

    ১৭৯৩ - শিক্ষাব্রতী ধর্মযাজক উইলয়াম কেরি ইংল্যান্ড থেকে কলকাতায় এসে পৌঁছান।

    ১৭৯৮ -  ব্রিটিশ গভর্নরের আদেশে কলকাতায় রবিবারে ঘোড়দৌড় ও সব রকম জুয়াখেলা নিষিদ্ধ হয়।

    ১৮৬৬ - কেশব চন্দ্র সেনের নেতৃত্বে কলকাতায় ভারতবর্ষীয় আদি ব্রহ্মসমাজ প্রতিষ্ঠিত হয়।

    ১৯০৮ -  এলিজাবেথ ন্যারেথ অ্যান্ডারসন বৃটেনের প্রথম মহিলা নির্বাচিত হন।

    ১৯১৭ -  রাশিয়ায় বিপ্লবের পর লেনিনের নেতৃত্বে গঠিত হয় শ্রমিক-কৃষকের প্রথম সরকার।

    ১৯১৮ - মিত্রশক্তি ও জার্মানির মধ্যে যুদ্ধবিরতি চুক্তি স্বাক্ষরিত। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পরিসমাপ্তি।

    ১৯৪২ - দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় নাৎসিরা ফ্রান্স দখল করে।

    ১৯৫২ - ক্যালিফোর্নিয়ায় প্রথম ভিডিও রেকর্ডারের কার্যক্রম প্রদর্শিতি হয়।

    ১৯৫৩ - পোলিও রোগের ভাইরাস আবিস্কৃত হয়।

    ১৯৬৫ - ব্রিটেনে হত্যার দায়ে মৃত্যুদন্ড আইন রহিত ঘোষণা করা হয়।

    ১৯৬৬ - এডুইন ইউগেন অলড্রিন এবং জেমস এ লোভেল নভোযান জিনিনি-১২ তে চড়ে চারদিনের সফরে মহাশূন্যে যাত্রা করেন।

    ১৯৬৮ - মালদ্বীপের প্রজাতন্ত্র গঠিত হয়।

    ১৯৭০ - ইসলামী সম্মেলন সংস্থা (ওআইসি) প্রতিষ্ঠিত হয়।

    ১৯৭২ - বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রতিষ্ঠা করা হয়।

    ১৯৮২ - দক্ষিণ লেবাননে ঘাঁটি গেড়ে বসা ইহুদীবাদী ইসরাইলের সেনা কমান্ডের সদর দফতরে শহীদ আহমাদ কাসির ভয়াবহ বোমা হামলা চালান।

    ১৯৮৯ - বার্লিন প্রাচীর ভেঙ্গে ফেলার কাজ শুরু হয়।

    ১৯৯০ -  নেপালের রাজা বীরেন্দ্র নতুন সংবিধান চালু করে দলহীন পঞ্চায়েত ব্যবস্থার অবসান ঘটান।

    ১৯৯০ -  মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র উপসাগর এলাকায় দুই লাল সেনা পাঠায়।

    ১৯৯১ - কিউবা থেকে সোভিয়েত ফৌজ প্রত্যাহারের কথা ঘোষণা করা হয়।

    ১৯৯৫ - মানবাধিকার লংঘনের অভিযোগে কমনওয়েলথ থেকে নাইজেরিয়ার সদস্যবাতিল করা হয়।

    ১৯৯৬ - বাংলাদেশ ভারত সীমান্ত বাণিজ্য চালুর সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

    ১৯৯৯ -  জাতিসংঘ সংস্থা ইউনেস্কো নির্বাহী পরিষদের নির্বাচনে বাংলাদেশ এশিয়া প্যাসিফিক গ্রুপ থেকে সদস্য নির্বাচিত হয়।

 

জন্ম

    ১৪৯৩ - পারাচেলসুস, সুইস জার্মান চিকিৎসক, উদ্ভিদবিদ ও জ্যোতিষী।

    ১৭৪৩ - কার্ল পিটার থাউনবেরগ, সুইডিশ উদ্ভিদবিদ, পতঙ্গবিশারদ ও মনোবৈজ্ঞানিক।

    ১৭৭১ - মারি ফ্রাঁসোয়া বিশা, আধুনিক কোষতত্ত্বের জনক।

    ১৮১৮ - রাশিয়ার খ্যাতনামা উপন্যাস লেখক ইভান তুরগেনেভ।

    ১৮২১ - ফিওদোর দস্তয়েভ্‌স্কি, বিখ্যাত রুশ সাহিত্যিক।

    ১৮৩২ - এমিলে গাবরিয়াউ, তিনি ছিলেন ফরাসি লেখক ও সাংবাদিক।

    ১৮৪১ - ব্রিটেন ও আয়ারল্যান্ডের রাজা সপ্তম অ্যাডওয়ার্ড।

    ১৮৬৪ - আলফ্রেড হারমান ফ্রিয়েড, নোবেল পুরস্কার বিজয়ী অস্ট্রিয়ান সাংবাদিক ও সমাজ কর্মী।

    ১৮৭২ - ভারতের খ্যাতনামা হিন্দুস্তানি শাস্ত্রীয় সংগীত শিল্পী আবদুল করিম খাঁ।

    ১৮৭৬ - স্যার আবদুল হালিম গজনভি, বাঙালি রাজনীতিবিদ, শিল্পপতি।

    ১৮৭৭ - আল্লামা মুহাম্মদ ইকবাল, তিনি ছিলেন বিভাগপূর্ব ভারতবর্ষের ফার্সী ভাষী মুসলিম কবি, দার্শনিক ও রাজনীতিবিদ।

    ১৮৮৫ - ডি.এইচ লরেন্স, ইংরেজ সাহিত্যিক।

    ১৮৮৮ - মাওলানা আবুল কালাম আজাদ ভারতীয় স্বাধীনতা আন্দোলনের নেতা ও ভারতের প্রথম শিক্ষামন্ত্রী।

    ১৮৯৭ - রোনাল্ড জর্জ রেফর্ড নোরিশ, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ইংরেজ রসায়নবিদ ও অধ্যাপক।

    ১৯০১ - আলেকসান্দার ফাদায়েভ, সোভিয়েত লেখক।

    ১৯০৭ - সুফী মোতাহার হোসেন, বাঙালি কবি।

    ১৯০৮ - গজেন্দ্রকুমার মিত্র, ভারতীয় কথাসাহিত্যিক ও প্রকাশক।

    ১৯১১ - জ্যোতিরিন্দ্র মৈত্র, বিংশ শতকের অন্যতম প্রধান আধুনিক বাঙালি গায়ক ও কবি।

    ১৯১৩ - হেডি লেমার, তিনি ছিলেন অস্ট্রীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন চলচ্চিত্র অভিনেত্রী।

    ১৯১৪ - হাওয়ার্ড ফাস্ট, মার্কিন লেখক ও চিত্রনাট্যকার।

    ১৯২৮ - হুমায়ূন রশীদ চৌধুরী, বাংলাদেশের জাতীয় সংসদের স্পীকার ও কূটনীতিবিদ।

    ১৯২৮ - কার্লোস ফুয়েন্তেস, মেক্সিকান ঔপন্যাসিক।

    ১৯২৯ - ইমরে কার্তেজ, তিনি নোবেল পুরস্কার বিজয়ী হাঙ্গেরিয়ান লেখক।

    ১৯৩২ - অনিতা বসু , ব্রিটিশ বিরোধী স্বাধীনতা আন্দোলনের একজন ব্যক্তিত্ব

    ১৯৩৫ - রবীন্দ্র সংগীতে ১৯৯৭ সালে সংগীত নাটক অকাদেমি পুরস্কার প্রাপ্ত অর্ঘ্য সেন, বিশিষ্ট রবীন্দ্র সংগীত শিল্পী।

    ১৯৩৬ - মালা সিনহা, নেপালী-ভারতীয় অভিনেত্রী।

    ১৯৩৬ - সুজান কোনার, মার্কিন টেলিভিশন ও চলচ্চিত্র অভিনেত্রী।

    ১৯৩৯ - আব্দেল মাজিদ লাখাল, তিউনিশিয়ার অভিনেতা ও পরিচালক।

    ১৯৪৮ - লুইজ ফেলিপে স্কলারি, তিনি সাবেক ব্রাজিলের ফুটবলার ও ম্যানেজার।

    ১৯৬০ - আনড্রেয়াস ব্রেহমা, তিনি সাবেক জার্মান ফুটবলার ও ম্যানেজার।

    ১৯৬৪ - অ্যালিসন ডোডয়, আইরিশ মডেল ও অভিনেত্রী।

    ১৯৬৭ - রিকি আটর, তিনি ইংরেজ ফুটবলার।

    ১৯৭৪ - লিওনার্ডো ডিক্যাপ্রিও, মার্কিন অভিনেতা ও প্রযোজক।

    ১৯৭৭ - মানিশ, পর্তুগিজ ফুটবলার।

    ১৯৮৩ - ফিলিপ লাম, জার্মান ফুটবলার।

    ১৯৮৪ - সেভেন, তিনি দক্ষিণ কোরিয়ার গায়ক, ড্যান্সার ও অভিনেতা।

    ১৯৯০ - জরজিনিও ওয়িজনাল্ডুম, ওলন্দাজ ফুটবলার।

 

মৃত্যু

    ০৯৫৯ - কনস্টান্টটাইন সপ্তম, তিনি ছিলেন বাইজেন্টাইনের সম্রাট।

    ১০২৮ - কনস্ট্যান্টিন অষ্টম, তিনি ছিলেন বাইজেন্টাইন সম্রাট।

    ১৭৭৮ - গিওভানি বাটিস্টা পিরানেসি, তিনি ছিলেন ইতালিয়ান ভাস্কর ও চিত্রকর।

    ১৮২৩ - অর্থনীতিবিদ ডেভিট রিকার্ডো।

    ১৮৪৮ -  রবার্ট বলুম, তিনি ছিলেন জার্মান কবি ও রাজনীতিবিদ।

    ১৮৫৫ - সারেন কিয়েরকেগর ডেনীয় দার্শনিক এবং তাত্ত্বিক।

    ১৯১৯ - পাভেল খিস্ট্যাকভ, তিনি ছিলেন রাশিয়ান চিত্রশিল্পী ও শিক্ষক।

    ১৯২৩ - সমাজসেবক রাজনীতিক লেখক আশ্বিনীকুমার দত্ত।

    ১৯৪৮ - পাকিস্তানের প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ।

    ১৯৫৩ - ইংরেজ কবি ডিলান টমাস।

    ১৯৫৩ - সৌদি আরবের বাদশাহ আবদুল আজিজ ইবন সৌদ।

    ১৯৭০ - জেনারেল চার্লস দ্য গল, তিনি ছিলেন ফরাসি সাধারণ ও নীতি ও ১৮ তম প্রেসিডেন্ট।

    ১৯৭১ - সোভিয়েত রাষ্ট্রনায়ক নিকিতা ক্রুশ্চেভ।

    ১৯৭৩ - আর্টটুরি ইলমারি ভিরটানেন, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ফিনিশ রসায়নবিদ ও একাডেমিক।

    ১৯৮০ - উপমহাদেশের বিশিষ্ট কমিউনিস্ট নেতা পি সি যোশী।

    ১৯৮৪ - প্রখ্যাত বাঙালি নট ও নাট্যকার মহেন্দ্র গুপ্ত।

    ১৯৮৫ - মারি-জর্জ পাস্কাল, তিনি ছিলেন ফরাসি অভিনেত্রী।

    ১৯৮৭ - প্রগতিবাদী রাজনৈতিক নেত্রী মণিকুন্তলা সেন।

    ১৯৯৯ - মোহাম্মদউল্লাহ, বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ছিলেন।

    ২০০১ - জিওভান্নি লিওন, তিনি ছিলেন ইতালীয় রাজনীতিবিদ ও ৬ষ্ঠ প্রেসিডেন্ট।

    ২০০৪ - আইরিস চ্যাং, তিনি ছিলেন আমেরিকান ইতিহাসবিদ, সাংবাদিক ও লেখক।

    ২০০৪- ইয়াসির আরাফাত, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী ফিলিস্তিন ইঞ্জিনিয়ার, রাজনীতিবিদ, ফিলিস্তিন জাতীয় কর্তৃপক্ষের ১ম প্রেসিডেন্ট।

    ২০০৫ - পিটার ড্রুকের, অস্ট্রিয়ান বংশোদ্ভূত আমেরিকান লেখক, তাত্তিক ও শিক্ষাবিদ।

    ২০০৮ - ইমাম সামুডরা, তিনি ছিলেন ইন্দোনেশিয়ান সন্ত্রাসীর।

    ২০১২ - সের্গেই নিকলস্কয়, তিনি ছিলেন রাশিয়ান গণিতবিদ ও অধ্যাপক।

 

ছুটি ও অন্যান্য

জাতীয় শিক্ষা দিবস (ভারত)


আরও খবর

১৬ নভেম্বর: ইতিহাসের এই দিনে

মঙ্গলবার ১৬ নভেম্বর ২০২১

৬ নভেম্বর: ইতিহাসের এই দিনে

শনিবার ০৬ নভেম্বর ২০২১




হাফ পাস চালুর দাবিতে শিক্ষার্থীদের সড়ক অবরোধ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ২৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হাফ পাস নিশ্চিতের দাবিতে রাজধানীর সাইন্সল্যাব ও নিউমার্কেট এলাকায় সড়ক অবরোধ করেছে কলেজ শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে সিটি কলেজ, ধানমন্ডি আইডিয়াল কলেজসহ আশপাশের কয়েকটি কলেজের শত শত শিক্ষার্থী সড়ক অবরোধ করে।

এ সময় শিক্ষার্থীরা হাফ পাসের দাবিতে বিভিন্ন স্লোগান দেয়।

সড়কে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, গতবারের সড়ক আন্দোলনেও শিক্ষার্থীদের দাবি ছিল হাফ ভাড়া নিশ্চিত করা। কিন্তু দীর্ঘদিনেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। তাই দাবি আদায়ে আবারও সাধারণ শিক্ষার্থীরা সড়কে নেমে এসেছে ।

শিক্ষার্থীরা বলেন, আমাদের দীর্ঘদিনের দাবি ছিল গণপরিবহনে শিক্ষার্থীদের হাফ ভাড়া নিশ্চিত করা। কিন্তু দীর্ঘ দিনেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। বিভিন্ন সময়ে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পরিবহন শ্রমিকরা খারাপ আচরণও করেছে। আমরা এসব ঘটনার বিচার চাই এবং হাফ ভাড়া নিশ্চিত করতে সরকারের প্রজ্ঞাপন চাই।

নিউমার্কেট থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মোহাম্মদ আলী জানান, অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা এড়াতে ঘটনাস্থলে পুলিশ অবস্থান করছে। ঘটনাস্থলে নিউমার্কেট থানা এবং ধানমন্ডি থানার সিনিয়র অফিসাররা এসেছেন। এ বিষয়ে তারা সিদ্ধান্ত নেবেন।

এদিকে একই দাবিতে গত ২০ নভেম্বর রাজধানীর সায়েন্সল্যাব মোড়ে গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। ওইদিন দুপুর ১২টার দিকে স্থানীয় বিভিন্ন কলেজের ইউনিফর্ম পরা শিক্ষার্থীরা সায়েন্স ল্যাবরেটরি মোড়ে জড়ো হয়ে হাফ পাসের দাবিতে মিছিল এবং বিক্ষোভ করে।


আরও খবর



পুঁজিবাজারে শুরুতে সূচকের বড় উত্থান

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৩৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) সূচকের ইতিবাচক ধারায় চলছে লেনদেন।

এ সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বৃহস্পতিবার ডিএসই ও সিএসইসূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

এদিন বেলা ১০টা ৫০ মিনিট পর্যন্ত ডিএসইয়ের সাধারণ সূচক ডিএসইএক্সের লেনদেনে ১২ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ৭ হাজার ৭৩ পয়েন্টে। তবে ডিএসই শরিয়াহ সূচক ১ পয়েন্ট কমে অবস্থান করে ১৪৮২ পয়েন্টে। এ ছাড়া ডিএসই-৩০ সূচক ৫ পয়েন্ট বেড়ে অবস্থান করে ২৬৮৮ পয়েন্টে।

এ সময় পর্যন্ত লেনদেন হওয়া কোম্পানিগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ১৭৩টি কোম্পানির শেয়ারের। দাম কমেছে ১০১টির এবং দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৯টির।

অন্যদিকে একই সময়ে চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সিএএসপিআই সূচক ৪৬ পয়েন্ট বেড়ে ২০ হাজার ৬৮৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

নিউজ ট্যাগ: শেয়ারবাজার

আরও খবর

বিশ্ববাজারে কমেছে স্বর্ণের দাম

শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১




করোনা: বিশ্বজুড়ে আরও সাড়ে ৫ হাজার প্রাণহানি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ নভেম্বর 2০২1 | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ | ৭৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি মৃত্যু ও আক্রান্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে মোট আক্রান্ত হয়েছেন চার কোটি ৬৯ লাখ ২২ হাজার ১০৪ জন

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বজুড়ে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫ হাজার ৬০৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময়ে নতুন আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১ লাখ ৯৪ হাজার ১০১ জন। এর আগের ২৪ ঘণ্টায় চার হাজার ৫৯৫ জনের মৃত্যু হয় এবং আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছিলেন তিন লাখ ৩২ হাজার ১১৩ জন।

মঙ্গলবার (২ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানবিষয়ক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

সর্বশেষ পরিসংখ্যান অনুযায়ী, বিশ্বে এ পর্যন্ত করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫০ লাখ ২০ হাজার ৫৪৮ জনে। মহামারির শুরু থেকে এ পর্যন্ত ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ২৪ কোটি ৭৮ লাখ ৫৪ হাজার ৫৬৮ জনে।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি মৃত্যু ও আক্রান্ত হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে মোট আক্রান্ত হয়েছেন চার কোটি ৬৯ লাখ ২২ হাজার ১০৪ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন সাত লাখ ৬৭ হাজার ৩৮১ জন। এছাড়া সুস্থ হয়ে উঠেছেন তিন কোটি ৬৮ লাখ ৮১ হাজার ৬৭ জন।

তালিকার পরের স্থানগুলোতে রয়েছে ভারত, ব্রাজিল, যুক্তরাজ্য, রাশিয়া, তুরস্ক, ফ্রান্স, ইরান, আর্জেন্টিনা, স্পেন, কলম্বিয়া ও ইতালি।

তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ৩০ নম্বরে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৬৯ হাজার ৭৫৩ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ২৭ হাজার ৮৭০ জন। করোনা আক্রান্ত হওয়ার পর সেরে উঠেছেন ১৫ লাখ ৩৩ হাজার ৬২৫ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহান প্রদেশের হুবেই শহরে প্রথম করোনার অস্তিত্ব শনাক্ত হয়। কয়েক মাসের মধ্যেই ভাইরাসটি বিশ্বের অধিকাংশ দেশে ছড়িয়ে পড়ে। গত বছরের ১১ মার্চ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনাকে বৈশ্বিক মহামারি হিসেবে ঘোষণা করে।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



গাজীপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত-২

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৭৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গাজীপুরে সড়কে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মোটরসাইকেল চালকসহ দুজন নিহত হয়েছেন।

রোববার রাত সাড়ে ৯টার দিকে সিটি করপোরেশনের কাশিমপুর থানার বাড়ইপাড়া এলাকার চন্দ্র-নবীনগর সড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। তাৎক্ষণিকভাবে নিহতদের পরিচয় জানা যায়নি।

সালনা হাইওয়ে থানার ওসি মীর গোলাম ফারুক জানান, রাত সাড়ে ৯টার দিকে বাড়ইপাড়া এলাকায় একটি মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পথচারীকে ধাক্কা দিয়ে উল্টে যায়।

এতে পথচারী ঘটনাস্থলেই মারা যান এবং মোটরসাইকেল চালক গুরুতর আহত হন।

পরে চালককে উদ্ধার করে স্থানীয় একটি হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনিও মারা যান। খবর পেয়ে পুলিশ নিহতদের লাশ উদ্ধার করেছে।

দুর্ঘটনাকবলিত মোটরসাইকেলটি উদ্ধার করে থানায় নেওয়া হয়েছে বলে জানান পুলিশের ওই কর্মকর্তা।

 

নিউজ ট্যাগ: সড়ক দুর্ঘটনা

আরও খবর



ক্যাচ ফেলে দিয়ে ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছে হাসান আলি

প্রকাশিত:শুক্রবার ১২ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ২৩ নভেম্বর ২০২১ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গ্রুপে সব ম্যাচ জিতে সেমিফাইনালে উঠেছিল পাকিস্তান, যার মধ্যে ছিল ভারতের বিরুদ্ধে জয়ও। কিন্তু সেমিফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হেরে গেল পাকিস্তান। আপ্রাণ লড়াই করেও শেষ হাসি হাসতে পারল না বাবর আজমের দল। ফলে এ বারের মতো ফাইনাল অধরা থেকে গেল তাঁদের।

পাকিস্তানের অধিনায়ক ম্যাচের পর দুঃখপ্রকাশ করলেন তাঁদের ফিল্ডিং নিয়েই। বিশেষত শেষ দিকে যে ভাবে ম্যাথু ওয়েডের ক্যাচ ফেলে দেন হাসান আলি, সেটাই ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিয়েছে বলে মনে করেন তিনি।

বাবর বলেছেন, আমার মনে হয় প্রথম ইনিংসে ব্যাট করে যত রান করার পরিকল্পনা করেছিলাম সেটাই করতে পেরেছি। কিন্তু অস্ট্রেলিয়ার ইনিংসের শেষের দিকে ওদের বড্ড বেশি সুযোগ দিয়েছি আমরা। বড় দলকে এ রকম সুযোগ দিলে তার মূল্য চোকাতেই হয়। ক্যাচ হাতছাড়া করাটাই ম্যাচের মোড় ঘোরানো মুহূর্ত। ওটা নিয়ে নিলে ম্যাচের পরিস্থিতি অন্য রকম হতে পারত।

তবে প্রতিযোগিতায় যে ভাবে খেলেছেন তাতে তৃপ্ত বাবর। বলেছেন, গোটা প্রতিযোগিতা জুড়ে যে ধরনের ক্রিকেট আমরা খেলেছি তাতে অধিনায়ক হিসেবে আমি তৃপ্ত। আশা করা যায় এই হার থেকে শিক্ষা নিয়ে পরের বিশ্বকাপে আরও শক্তিশালী হয়ে আমরা নামতে পারব। শুরু থেকে ভাল খেলতে থাকলে এ রকম ছোটখাটো ভুল হয়েই থাকে। সেগুলোই শেষ দিকে বড় প্রভাব ফেলে। আমরা ক্রিকেটারদের কিছু ভূমিকা দিয়েছিলাম এবং সেটা ওরা ভাল ভাবেই পালন করেছে। পাশাপাশি এখানে দর্শকদের সমর্থনও ভালই পেয়েছি।


আরও খবর