Logo
শিরোনাম

১৬৩ ইউনিয়ন পরিষদে ভোট স্থগিত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১০ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ১১৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
নোয়াখালী, কক্সবাজার, চট্টগ্রাম ও খুলনার ইউনিয়ন পরিষদগুলোর নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। ১৬৩ ইউনিয়নের মধ্যে খুলনায়ই ১১৯টি ইউপির নির্বাচন স্থগিত করা হলো

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় সারা দেশের ১৬৩টি আসনে অনুষ্ঠেয় উপনির্বাচন স্থগিত করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। বৃহস্পতিবার সকালে নির্বাচন কমিশনের সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ইসি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।  বিকাল ৩টায় সংবাদ সম্মেলনে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

নোয়াখালী, কক্সবাজার, চট্টগ্রাম ও খুলনার ইউনিয়ন পরিষদগুলোর নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে। ১৬৩ ইউনিয়নের মধ্যে খুলনায়ই ১১৯টি ইউপির নির্বাচন স্থগিত করা হলো। তবে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা থাকায় লক্ষ্মীপুর-২ আসনের উপনির্বাচন আগামী ২১ জুন অনুষ্ঠিত হবে। ঢাকা, কুমিল্লা ও সিলেটের তিনটি আসনে উপনির্বাচনও পিছিয়ে দেওয়া হয়েছে। এই তিনটি আসনে ১৪ জুলাই ভোট না হয়ে হবে ২৮ জুলাই।

ভোট স্থগিত হওয়া ইউনিয়ন পরিষদগুলোর মধ্যে রয়েছে খুলনার কয়রার আমাদি, বাগালী, মহেশ্বরীপুর, মহারাজপুর, কয়রা, উত্তর বেদকাশী ও দক্ষিণ বেদকাশী।  দাকোপের পানখালী, দাকোপ, লাউডোব, কৈলাশগঞ্জ, সুতারখালী, কামারখোলা, তিলডাঙ্গা, বাজুয়া ও বানিশান্তা। বটিয়াঘাটার গংগারামপুর, বালিয়াডাঙ্গা ও আমিরপুর। দিঘলিয়ার গাজীরহাট, বারাকপুর, দিঘলিয়া, সেনহাটা, আড়ংঘাটা ও যোগীপুল। পাইকগাছার ষোলাদানা, রাড়ুলী, গড়ইখালী, চাঁদখালী, দেলুটি, লতা, হরিঢালী, ও কপিলমুনি।

বাগেরহাট ফকিরহাটের বেতাগা, লখপুর, পিলজংগ, ফকিরহাট, বাহিরদিয়া মানসা, নলধা মৌভোগ ও শুভদিয়া। মোল্লাহাটের উদয়পুর, চুনখোলা, কোদালিয়া, গাওলা, কুলিয়া ও আটজুড়ি। চিতলমারীর বড়বাড়ীয়া, হিজলা, শিবপুর, চিতলমারী, কলাতলা, চরবানিয়ারী ও সন্তোষপুর। কচুয়ার গজালিয়া, ধোপাখালী, মঘিয়া, কচুয়া, গোপালপুর, রাড়ীপাড়া, বাধাল। রামপালের গৌরম্ভা, বাইনতলা, হুড়কা, মল্লিকের বেড়, বাঁশতলী, উজলপুর, রামপাল, রাজনগর, পেড়িখালী ও ভোজপাতিয়া। মোংলার চাঁদপাই, বুড়িরডাংগা, চিলা, মিঠাখালী, সোনাইলতলা ও সুন্দরবন। মোরেলগঞ্জের পঞ্চকরন, দৈবজ্ঞহাটী, চিংড়াখালী, হোগলাপাশা, বনগ্রাম, বলইবুনিয়া, হোগলাবুনিয়া, বহরবুনিয়া, নিশানবাড়ীয়া, মোরেলগঞ্জ, খাউলিয়া, তেলিগাতী, পুটিখালী, রামচন্দ্রপুর, জিউধরা ও বারইখালী। শরণখোলার ধানসাগর, খোন্তাকাটা, রায়েন্দা ও সাউথখালী।

বাগেরহাট সদরের বারুইপাড়া, বেতরতা, বিষ্ণুপুর, ডেমা, কাড়াপাড়া, খানপুর ও রাখালগাছি। সাতক্ষীরা কলারোয়ার কয়লা, হেলাতলা, যুগীখালী, জয়নগর, জালালাবাদ, লাঙ্গলঝাড়া, কেঁড়াগাছি, সোনাবাড়িয়া, চন্দনপুর ও দেয়াড়া। তালার ধানদিয়া, তেঁতুলিয়া, তালা, ইসলামকাটি, মাগুরা, খেসরা, জালালপুর, খলিলনগর, নগরঘাটা, সরুলিয়া ও খলিষখালী।

নিউজ ট্যাগ: নির্বাচন কমিশন

আরও খবর



বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড়ের আভাস

প্রকাশিত:শুক্রবার ২১ মে 20২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১৬ জুন ২০২১ | ১১১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বঙ্গোপসাগরে একটি ঘূর্ণিঝড়ের আভাস দেখা দিয়েছে। কয়েকদিনের মধ্যে বঙ্গোপসাগরে একটি লঘুচাপ তৈরি হয়ে তা দ্রুত ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে। আর বিভিন্ন আবহাওয়া দপ্তরের এই পূর্বাভাস ঠিক হলে বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের বাগেরহাট, খুলনা ও সাতক্ষীরা জেলা আক্রান্ত হতে পারে।

ঘূর্ণিঝড়ের প্রাথমিক লক্ষণ হিসেবে বঙ্গোপসাগরের আন্দামান দ্বীপপুঞ্জের কাছে বায়ুর চাপ তৈরি হয়েছে। ওই এলাকাসহ বঙ্গোপসাগরের বাংলাদেশ অংশের তাপমাত্রা অস্বাভাবিকভাবে বেড়ে গেছে। এ ধরনের পরিস্থিতির কারণে আগামী পরশু বা ২৩ মের মধ্যে বঙ্গোপসাগরে একটি লঘুচাপ তৈরি হবে। তা দ্রুত নিম্নচাপ হয়ে ২৬ মের মধ্যে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে।

বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, উত্তর আন্দামান সাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হতে পারে। এটি পরবর্তীতে ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হতে পারে এবং ২৬ মে নাগাদ ভারতের ওড়িশা, পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের খুলনা উপকূলে পৌঁছাতে পারে।

এ ছাড়া আজকের আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, দেশের ঢাকা, রাজশাহী, সিলেট ও রংপুর বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় এবং কুষ্টিয়া, কুমিল্লা অঞ্চলে অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝোড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। এ ছাড়া দেশের অন্যত্র অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলা আকাশসহ আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকতে পারে।


আরও খবর



রোমান্টিক হওয়ার সহজ উপায়

প্রকাশিত:রবিবার ৩০ মে ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ১১৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
ঘরবন্দি সময়ে তো এটা আরও বেশি অনুভব হয়। তাই মাঝে মধ্যেই ক্যান্ডেলনাইট ডিনার, আয়নার সামনে ‘চিরকুটে’ প্রেমের বার্তাসহ অন্যান্য পছন্দের কাজ করে চমকে দিন সঙ্গীকে

বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসের জন্য ২০২০ সালের মার্চ থেকে অফিস-আদালতসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান বন্ধ। তবে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি জারি করে সীমিত আকারে কিছু কিছু অফিস-আদালতসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠান খোলা রাখা হয়েছে। চরম সত্য যে, করোনা সংক্রমণ আসার পর মানুষজন এখন আগের মতো বেশি সময় বাইরে থাকছে না। অধিকাংশ সময়ই বাসা-বাড়িতে সময় কাটান। আর এই দীর্ঘ সময় সঙ্গীর সঙ্গে থাকতে থাকতে বিরক্ত হওয়া স্বাভাবিক। অনেকের ক্ষেত্রে আবার তর্ক-বিতর্ক থেকে ছোট ছোট ঝগড়াও হচ্ছে।

কোনো সম্পর্কই সহজ নয়। একটি সম্পর্ক টিকিয়ে রাখার জন্য দুজনকেই ত্যাগ স্বীকার করতে হয়। লকডাউনের এই সময় সম্পর্ক মজবুত করতে দুজনকেই বেশ কিছু উপায় অবলম্বন করতে হবে। এতে করে সম্পর্ক যেমন মধুর হবে তেমনই দুজনের মধ্যে বাড়বে প্রেম-ভালোবাসা।

একান্তে সময় কাটানো : সারাদিন একসঙ্গে থাকার পরও কি দুজনের একান্তে সময় কাটানো হচ্ছে না। সর্বক্ষণ হয় তো যার যার মতো বাসা-বাড়ি বা অফিসের কাজ করছেন। অবসরে অনলাইনে ড্রামা-সিরিয়াল ইত্যাদি নিয়ে ব্যস্ত। আবার টেবিলে বসে খাওয়ার সময় হাতে ফোন। এসব সময় থেকে কিছু সময় বের করে দুজন একসঙ্গে কিছুক্ষণ সময় কাটান। দুজন একসঙ্গে চা বা কফি খাওয়া, হাতে হাত রেখে হাঁটা কিংবা বাসা-বাড়ির বাইরে একটু ঘুরে আসা। এতে পরস্পর ভালোবাসা বাড়বে।

চমক দেয়া : যেকোনো কিছুর শুরুতে অনেক চমক থাকে। নতুন সম্পর্কের শুরুতে সঙ্গীকে চেনা-জানা এসবই নতুন অভিজ্ঞতা। আর এসবের প্রতি খুবই আগ্রহ থাকে তখন। তবে সম্পর্ক যখন গভীর হয় তখন এসব ধীরে ধীরে হারিয়ে যায়। আর ঘরবন্দি সময়ে তো এটা আরও বেশি অনুভব হয়। তাই মাঝে মধ্যেই ক্যান্ডেলনাইট ডিনার, আয়নার সামনে চিরকুটে প্রেমের বার্তাসহ অন্যান্য পছন্দের কাজ করে চমকে দিন সঙ্গীকে।

একসঙ্গে নতুন কিছু করা : অবসর সময়ে দুজন আলাদা আলাদা না থেকে একসঙ্গে কিছু করার পরিকল্পনা করুন। হতে পারে সঙ্গীকে রান্নায় সহযোগিতা করা, দুজনে গল্প করা, অনলাইনে কোনো কিছু শেখা, বাগানের যত্ন নেয়া ও বাসা-বাড়ির দেয়াল একসঙ্গে সাজিয়ে তোলা। দেখবেন দুজনের মধ্যেই স্বস্তির হাসি ফুট উঠবে।

ডেট করা : ডেট করা বলা মানে এই নয় বাসা-বাড়ির বাইরে যেতে হবে। বারান্দা বা ছাদও হয়ে উঠতে পারে এই রোমাঞ্চের জায়গা। মোমবাতির হালকা আলোয় একজন অপরজনকে ঝাপটে ধরুন। কপালে চুমু দিন। এসময় সঙ্গীর সঙ্গে ফ্লার্ট করা একদম বন্ধ করা যাবে না। এতে মনের সকল ক্ষোভ দূর হয়ে যাবে।


আরও খবর

যে ৫ খাবার লিভারের চর্বি দূর করে

বৃহস্পতিবার ১৭ জুন ২০২১




২৪ ঘণ্টায় নাটোরে করোনা শনাক্তের হার ৬০.৩৯ শতাংশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৫ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৪১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নাটোরে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়ে এক নারীসহ ৪ জন মারা গেছেন। এ সময় ১০১ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৬১ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার ৬০ দশমিক ৩৯ শতাংশ।

মঙ্গলবার (১৫ জুন) জেলার সিভিল সার্জন ডা. মিজানুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সিভিল সার্জন বলেন, করোনাভাইরাসে মৃতদের মধ্যে সিংড়া, বড়াইগ্রামের ১ জন করে এবং সদর উপজেলার ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। জেলায় এ পর্যন্ত করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছে ২ হাজার ৩২৬ জন। আর মৃত্যু হয়েছে ৩৮ জনের।

নিউজ ট্যাগ: নাটোর

আরও খবর

নাটোরে আক্রান্তের হার ৫১.২৬ শতাংশ

বৃহস্পতিবার ১৭ জুন ২০২১




ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলায় ১০ জনের শরীরে করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট সনাক্ত

প্রকাশিত:শনিবার ০৫ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৯৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলায় ১০ জনের শরীরে করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট সনাক্ত হয়েছে। সনাক্ত হওয়া ১০ জনই পেশায় শ্রমিক। তারা চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে নবাবগঞ্জে আশ্রয়ণ প্রকল্পের কাজে এসেছিলেন।

আজ শনিবার (৫ জুন) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মো. শহিদুল ইসলাম।

তিনি জানান, আক্রান্ত বিভিন্ন বয়সী ওই দশজন শ্রমিকের কাজ করেন। গত মাসের ১৮ তারিখে তারা সকলে ট্রাকযোগে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে আশ্রয়ণ প্রকল্পের কাজের জন্য নবাবগঞ্জে এসেছিলেন। বিষয়টি জানতে পেরে ২৬ মে তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য তাদের ঢাকার বক্ষব্যাধী হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। এখনও তারা সেখানে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

তাদের সকলের শরীরে করোনাভাইরাসের ভারতীয় ধরণের ভ্যারিয়েন্ট পাওয়া গেছে বলে নিশ্চিত করেন ডা. শহিদুল।


নিউজ ট্যাগ: নবাবগঞ্জ

আরও খবর



ভারতে ২৪ ঘণ্টায় আবারও রেকর্ড মৃত্যু

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ মে ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ১০৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভারতে কিছুদিন করোনাভাইরাসে মৃত্যুর সংখ্যা কমতির দিকে থাকলেও গত ২৪ ঘণ্টায় আবার রেকর্ডসংখ্যক মৃত্যু হয়েছে। এসময়ে মারা গেছেন চার হাজার ৪৫৫ জন।

এই মৃত্যুর মধ্যে দিয়ে দেশটিতে করোনাভাইরাসে প্রাণহানির সংখ্যা ৩ লাখ ছাড়িয়েছে।

একই সময়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত আরও দুই লাখ ২২ হাজার ৮৩৫ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। দেশটিতে মোট শনাক্ত হয়েছেন দুই কোটি ৬৭ লাখ ৫১ হাজার ৬৮১ জন। সংক্রমণের দিক থেকে বিশ্বের মধ্যে ভারতের অবস্থান বর্তমানে দ্বিতীয়তে।

দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্য অনুসারে, গত ১২ দিনেই দেশটিতে অর্ধলক্ষের বেশি মানুষ মারা গেছেন করোনায়। বিশ্বের একমাত্র দেশ হিসেবে মাত্র ২৬ দিনের মাথায় এক লাখের ওপর মানুষের মৃত্যু হলো ভাইরাসটির সংক্রমণে।

এরমধ্যে প্রাণহানির তালিকায় সবার শীর্ষে মহারাষ্ট্র। শুধু এ রাজ্যেই করোনায় মারা গেছেন ৮৯ হাজারের মতো মানুষ। পরের অবস্থানেই রয়েছে তামিলনাড়ু, কর্ণাটক ও রাজধানী নয়াদিল্লি।

গতকাল রোববারও (২৩ মে) দেশটির দুলাখ ২৩ হাজার মানুষের দেহে শনাক্ত হয় করোনাভাইরাস। মোট সংক্রমিত দুই কোটি ৬৭ লাখের বেশি।

ভারতে এখন পর্যন্ত প্রায় সাড়ে ১৮ কোটি মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া হয়েছে বলে জানানো হয়েছে এনডিটিভির প্রতিবেদনে।

পরিসংখ্যান নিয়ে কাজ করা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, ভারতের মোট জনসংখ্যা ১৩৯ কোটির বেশি। সেখানে প্রতি ১০ লাখ মানুষের মধ্যে গড়ে দুই লাখ ২৭ হাজার ৩৪৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়।

গত বছরের ৩০ জানুয়ারি ভারতে প্রথম করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত হয়। ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, সংক্রমণের দিক থেকে বর্তমানে বিশ্বে ভারতের অবস্থান দুই নম্বরে। ভারতের আগে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও পরে ব্রাজিল।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ১৬ কোটি ৭৫ লাখ ১৮ হাজার ২১৩ জন এবং মারা গেছেন ৩৪ লাখ ৭৮ হাজার ২৪০ জন। এ ছাড়া সুস্থ হয়েছেন ১৪ কোটি ৮৫ লাখ ৩১ হাজার ১৪৪ জন।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর