Logo
শিরোনাম

৪৪তম বিসিএস প্রিলির ফল প্রকাশ, উত্তীর্ণ ১৫৭০৮

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৬৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

৪৪তম বিসিএস প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন ১৫ হাজার ৭০৮ পরীক্ষার্থী। চলতি বছরের ২৭ মে ৪৪তম বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা, চট্টগ্রাম, রাজশাহী, খুলনা, বরিশাল, সিলেট, রংপুর ও ময়মনসিংহ কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত পরীক্ষায় প্রার্থীরা অংশ নেন।

৪৪তম বিসিএসে মোট আবেদন করেন ৩ লাখ ৫০ হাজার ৭১৬ জন।

৪৪তম বিসিএসের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, এই বিসিএসে বিভিন্ন ক্যাডারে ১ হাজার ৭১০ জন কর্মকর্তা নেওয়া হবে। এর মধ্যে প্রশাসন ক্যাডারে ২৫০ জন, পুলিশ ক্যাডারে ৫০, পররাষ্ট্র ক্যাডারে ১০, আনসার ক্যাডারে ১৪, নিরীক্ষা ও হিসাবে ৩০, কর ক্যাডারে ১১, সমবায়ে ৮, রেলওয়ে পরিবহন ও বাণিজ্যিকে ৭, তথ্যে ১০, ডাকে ২৩, বাণিজ্যে ৬, পরিবার পরিকল্পনায় ২৭, খাদ্যে ৩, টেকনিক্যাল ক্যাডারে ৪৮৫ ও শিক্ষা ক্যাডারে ৭৭৬ জন নেওয়া হবে।

৪৪তম বিসিএসের প্রিলিমিনারির ফল দেখতে এই ক্লিক করুন।


আরও খবর



ওয়ান ব্যাংক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৯ জুন ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে ওয়ান ব্যাংক লিমিটেড। ব্যাংকটিতে জুনিয়র অফিসার’ পদে নিয়োগ দেওয়া হবে। আগ্রহী যোগ্য নারী ও পুরুষ প্রার্থীরা অনলাইনে সহজেই আবেদন করতে পারবেন।

পদের নাম:

জুনিয়র অফিসার প্রিন্সিপ্যাল অফিসার।

শিক্ষাগত যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতা:

স্বীকৃত যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিষয়ে বিএসসি পাস প্রার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। প্রার্থীর ন্যূনতম দুই বছরের কাজের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। অ্যান্ড্রয়েড অ্যান্ড আইওএস অ্যাপ্লিকেশন ডেভেলপমেন্ট এর কাজে পারদর্শী হতে হবে।হুয়াহুয়ে ইকো-সিস্টেম, নেটওয়ার্কিং, স্পেসিফিকেশন, এমভিপি, এমভিসি, এমভিভিএম অ্যান্ড ক্লিন অ্যার্কেটেকচার বিষয়ে সম্যক ধারণ থাকতে হবে।গুগল সার্ভিস ও এইচএমএস বিষয়ে জানা-শোনা থাকতে হবে। ২২ থেকে অনূর্ধ্ব ৩৫ বছর বয়স পর্যন্ত আবেদন করা যাবে।

কর্মস্থল:

ঢাকা।

বেতন:

আলোচনা সাপেক্ষে।

আবেদন প্রক্রিয়া:

আগ্রহী প্রার্থীরা বিডিজবস অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন।

আবেদনের শেষ তারিখ:

১৬ জুন, ২০২২।

নিউজ ট্যাগ: চাকুরীর খবর

আরও খবর

মেঘনা গ্রুপে ডিজিএম পদে চাকরি

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




কি হতে পারে কেজিএফ চ্যাপ্টার থ্রি-র গল্প?

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ১৪১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সিনেমাপ্রেমীদের কাছে কেজিএফ এক আবেগের নাম। গোটা বিশ্বজুড়ে মানুষের মধ্যে হাইপ তৈরি করেছে এই সিনেমার দুই সিরিজ। বলতে গেলে একদমই নতুন মুখ ইয়াসকে নিয়ে পরিচালক প্রশান্ত নীল যখন এই সিনেমা বানাচ্ছিলেন তখনও কী তিনি ভেবেছিলেন কোটি কোটি মানুষের কাছে এই সিনেমা এতটা সাড়া ফেলবে!

প্যান ইন্ডিয়ার দর্শক পাগলের মত মাতামাতি করবে রকি ভাইকে নিয়ে। প্রথম থেকেই পরিচালক ঠিক করেছিলেন দুটি ভাগে তিনি গল্প বলবেন। প্রথমভাগে বিপুল সাড়া পাওয়ার পর দ্বিতীয় ভাগেও সমানভাবে এই সিনেমা দর্শকদের প্রত্যাশা পূরণ করেছে। তবে কেজিএফ চ্যাপ্টার টু দেখার পর থেকেই মানুষের মনে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে কেজিএফ চ্যাপ্টার থ্রি নিয়ে। কী হতে পারে তৃতীয় ভাগের গল্প? দ্বিতীয় ভাগের শেষে আমরা দেখেছি গভীর সমুদ্রে তলিয়ে গেছে রকি ভাইয়ের নিথর দেহ।

কিন্তু সত্যিই কি মারা গেছে রকি ভাই?এটাই এখন লাখ টাকার প্রশ্ন। তবে বলে রাখা ভালো, রকি পড়ে যাওয়ার পর তার মৃত্যুর কোন ছাপ পরিচালক দেখায়নি। ফলে খুব সম্ভবত সে হয়তো বেচেঁ থাকতে পারে। প্রথম ভাগে আমরা দেখেছি খুব ছোটবেলায় নিউমোনিয়া থেকে ফিরে এসেছিল রকি ভাই। ফলে এক্ষেত্রে পরিচালক সেই বিষয়টির পুনরাবৃত্তি করতে পারেন। এক্ষেত্রে যদি রকি সত্যিই মারা যায়, তাহলে কেজিএফ চ্যাপ্টার থ্রি এর গল্প এগোতে পারে ফ্ল্যাশব্যাকে। অর্থাৎ কেজিএফ চ্যাপ্টার ওয়ান এবং কেজিএফ চ্যাপ্টার টু এর মধ্যবর্তী সময়কালে বিদেশে রকি যে ব্যবসা করেছে সেই কার্যক্রম নিয়ে তৈরি হতে পারে কেজিএফ চ্যাপ্টার থ্রি। যদিও এর সম্ভাবনা খুবই কম, বরং রকির বেঁচে থাকার সম্ভাবনাই বেশি। এর পেছনে অবশ্য কতগুলো কারণ রয়েছে।

প্রথমত, যদি রকির মৃত্যু হয়ে থাকে তাহলে ভারতীয় দর্শকদের মধ্যে কেজিএফ চ্যাপ্টার থ্রি সেভাবে সফল হওয়ার সম্ভাবনা কম। কারণ, ভারতের বেশির ভাগ দর্শক মৃত হিরোর অতীত দেখতে হলমুখী হবে তা আশা করা যায়না এবং এই বিষয়টি নির্মাতারাও ভালোভাবে জানেন ফলে, ব্যবসার খাতিরে রকিকে ফিরিয়ে

দ্বিতীয়ত, এর আগে নেটফ্লিক্সের 'এক্সট্রাকশন' সিনেমায় এই একই রকম শেষ দেখা গিয়েছিল যেখানে একটি ব্রিজ থেকে ক্রিস হেমসওয়ার্থ পানিতে পড়ে যায়। তবে সেই ছবির দ্বিতীয় ভাগ আসতে চলেছে যেখানে দেখা যাবে ক্রিস বেঁচে গেছেন। এই একই বিষয়টির পুনরাবৃত্তি পরিচালক প্রশান্ত নীলও ভাবতে পারেন।

তৃতীয়ত, গোটা কেজিএফ এর দুটি পার্ট জুড়ে রকিকে পরিচালক যেভাবে তৈরি করেছে, তার কাছে কোন কিছুই অসম্ভব নয় এবং সে ভীষন চালাক ও বেপরোয়া। ফলে সকলকে চিঠি লিখে জানিয়ে মরে যাওয়ার ছেলে সে মোটেই নয়, ফলে কোনভাবেই এই যুক্তি খাটেনা যে দ্বিতীয় ভাগের শেষে রকির মৃত্যু হয়েছে। বরং এমন হতে পারে গোটাটাই তার প্ল্যানের অংশ। সমুদ্রে সে নিজের সমস্ত সোনা লুকিয়ে সেভ প্যাসেজ দিয়ে অন্য কোথাও পালিয়েছে কারণ সে জানত কুড়ি হাজার ফুট নিচে জলের অত গভীরে আন্তর্জাতিক সীমানায় তাকে কেউ খুঁজতে যেতে পারবেনা। চতুর্থত, সেভ প্যাসেজের কথা বলতে গেলে জিমি কার্টারের কথা বলতেই হবে। সিনেমায় যে সময়কাল কে ধরা হয়েছে বাস্তবে সেই সময় আমেরিকার ৩৯ তম প্রেসিডেন্টের নাম ছিল জিমি কার্টার। ফলে পরিচালক এই বিষয়টিকে কোনোভাবে লিংক করে রকিকে বাঁচিয়ে তুলতে পারেন। কেজিএফ চ্যাপ্টার থ্রি তে আমরা দেখতে পারি আমেরিকা কোনভাবে রকিকে সাহায্য করেছে ভারতের হাত থেকে বাঁচাতে। পঞ্চমত, কেজিএফ চ্যাপ্টার থ্রি তে ইনায়াত খলিল বড় ভূমিকা নিতে পারে। আমরা কেজিএফ চ্যাপ্টার টু তে জেনেছি রকি তার সমস্ত সোনা নিয়ে ইনায়াত খলিলের কাছে গেছিল কোন বড় প্ল্যান করতে। এই প্ল্যান রমিকা সেনের হাত থেকে নিরাপদে প্রস্থান কি না তা কে জানে?

পরিচালক অনেক ছোট ছোট ইঙ্গিত দিয়ে রেখেছেন কেজিএফ চ্যাপ্টার টু জুড়ে যার থেকে খুব সহজেই কেজিএফ চ্যাপ্টার থ্রি তে রকি বেঁচে ফিরতে পারে। এগুলো তো ছিল শুধুই অনুমান। হয়তো পরিচালক প্রশান্ত নীলের ভাবনা আরও ভিন্ন কিছু যা আমাদের কল্পনাতীত। এক আর দুই সিরিজের গল্পে যে চমক পরিচালক দেখিয়েছেন, তৃতীয় সিরিজে হয়তো এর চেয়ে বড় ধামাকা আসতে চলেছে। আপাতত এখন শুধুই অপেক্ষা কেজিএফ চ্যাপটার থ্রি এর ট্রেলার।


আরও খবর

২৭ বছরের সম্পর্কে ইতি টানলেন মীর!

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২

বড় পর্দায় বাম-কংগ্রেস সন্ত্রাস

শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২




করোনা বাড়ছে, সতর্ক থাকুন: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গত কয়েকদিন ধরে দেশে আবারও করোনা শনাক্ত বাড়ছে। এজন্য দেশবাসীকে সতর্ক থাকার জন্য আহ্বান জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। সোমবার (১৩ জুন) সচিবালয়ে বেসরকারি মেডিকেল ও ডেন্টালে শিক্ষার্থী ভর্তি প্রক্রিয়া অটোমেশন বিষয়ক সভা শেষে তিনি এ আহ্বান জানান।

মন্ত্রী বলেন, কোভিড কিছুটা বেড়েছে। সতর্ক হতে হবে। মাস্ক পরতে হবে, সামাজিক দূরত্ব ভুলে গেলে হবে না। রোগী বাড়ছে।’ কোভিড এখনো নির্মূল হয়নি উল্লেখ করে তিনি বলেন, কোভিড এখনো আছে। আমরা একটা স্বাভাবিক অবস্থায় আছি, যাতে অস্বাভাবিক অবস্থায় না যাই, সেই বিষয়ে সবার প্রচেষ্টা দরকার।

ইতোমধ্যে মন্ত্রী-এমপিরা আবার আক্রান্ত হচ্ছেন জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ আক্রান্ত হচ্ছেন, হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। তাই সবাইকে অনুরোধ করছি, মাস্ক পরবেন, হাত স্যানিটাইজ করবেন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখবেন।' টিকা না নিয়ে থাকলে দ্রুত নেওয়ার জন্য এসময় অনুরোধ জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোববারের তথ্যানুযায়ী ওইদিন ১০৯ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছিল। এ পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৯ লাখ ৫৪ হাজার ১১৫ জনে। শনাক্তের হার ২ দশমিক ০৬ শতাংশ। শনাক্তের সংখ্যা ও হার দুটোই বেশ কিছুদিন ধরে বাড়ছে। রোববার অবশ্য করোনায় কারো মৃত্যু হয়নি। ফলে মোট মারা যাওয়ার সংখ্যা ২৯ হাজার ১৩১ জন অপরিবর্তিত আছে।

তথ্য বিশ্লেষণে দেখা যায়, গত ৬ জুন করোনা শনাক্ত হয়েছিল ৪৩ জনের । সপ্তাহের ব্যবধানে সেটি সবশেষ ১২ জুন ১০৯ জনের দাঁড়িয়েছে। শনাক্তের হার দশমিক ৯৯ থেকে বেড়ে ২ দশমিক ০৬ শতাংশ হয়েছে।


আরও খবর

করোনায় ৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২১৮৩

বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২




সুনামগঞ্জ জেলাসহ ১৬ উপজেলা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৫৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভয়াবহ বন্যা পরিস্থিতিতে সুনামগঞ্জ জেলাসহ সিলেট বিভাগের ১৬ উপজেলা বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। শুক্রবার সিলেটের বিভাগীয় কমিশনার মুহাম্মদ মোশাররফ হোসেন জানান, গ্রিডে সমস্যা হওয়ায় সুনামগঞ্জের সব উপজেলাসহ বিভাগের ১৬ উপজেলা পুরোপুরি বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

যোগাযোগ ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, সুনামগঞ্জ থেকে সিলেট এখন একেবারেই বিচ্ছিন্ন। পুরো সুনামগঞ্জ জেলাসহ মোট ১৬টি উপজেলায় বিদ্যুৎ নেই। যার কারণে মোবাইল ফোন যোগাযোগও ব্যাহত হচ্ছে। কোনো কোনো জায়গায় কোনরকমে মোবাইল ফোনের নেটওয়ার্ক চালু রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বৃষ্টি আর ভারতের মেঘালয়-আসামের উজানের ঢলে চলতি মৌসুমে তৃতীয় দফা বন্যা দেখা দিয়েছে সিলেট অঞ্চলে।

এর আগে বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের ফেইসবুক পেইজে জানানো হয়েছে, বন্যার পানি ছাতক ও সুনামগঞ্জ গ্রিড উপকেন্দ্রে প্রবেশ করায় নিরাপত্তার স্বার্থে ওই উপকেন্দ্র বন্ধ রাখা হয়েছে। সে কারণে ওই এলাকায় বিদ্যুৎ সরবরাহ বন্ধ। এতে বলা হয়, অব্যাহত বৃষ্টিপাতের ফলে সিলেটের কুমারগাঁও উপকেন্দ্র ঝুঁকির মধ্যে আছে। যে কোনো সময় এই উপকেন্দ্রও বন্ধ করা প্রয়োজন হতে পারে।

বন্যাদুর্গত সিলেট ও সুনামগঞ্জে উদ্ধার ও ত্রাণকাজে সেনা সদস্যদের মাঠে নামানোর পাশাপাশি নৌবাহিনীও মোতায়েন করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র জানিয়েছে, শুক্রবার সকাল ৯টায় সুরমা নদীর পানি সিলেটের কানাইঘাট পয়েন্টে বিপৎসীমার ১০৮ সেন্টিমিটার, সিলেটে ৭০ সেন্টিমিটার এবং সুনামগঞ্জে ১২০ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে বইছিল।

আগামী ৭২ ঘণ্টায় দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং তৎসংলগ্ন ভারতের আসাম, মেঘালয় ও হিমালয় পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গে ভারি থেকে অতিভারি বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস রয়েছে।

সে কারণে সিলেট, সুনামগঞ্জ ও নেত্রকোণা জেলার বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে বলে সতর্ক করা হয়েছে পূর্বাভাসে।

বন্যাকবলিত এলাকার স্থানীয়রা জানিয়েছে, বন্যায় জেলায় যোগাযোগব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। এই মুহূর্তে সুনামগঞ্জের সবার ঘরে খাওয়ার পানি নেই। বিদ্যুৎ নেই। মোবাইল নেটওয়ার্ক বন্ধ। পরিস্থিতি ক্রমে নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাচ্ছে। খাবার ও বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দিয়েছে।

জেলার প্রতিটি উপজেলাই কমবেশি প্লাবিত হয়েছে। অধিকাংশ ঘরেই হাঁটু থেকে গলাসমান পানি। নৌকার অভাবে অনেকে ঘর ছেড়ে নিরাপদেও যেতে পারছে না। এমন অবস্থায় পানিতে আটকে পড়া মানুষকে উদ্ধারে জেলার তিন উপজেলায় সেনাবাহিনী নেমেছে।

সিলেটের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (সার্বিক) দেবজিৎ সিংহ বলেন, সুনামগঞ্জে বন্যার পানিতে আটকে পড়া মানুষদের উদ্ধারে সেনাবাহিনীকে উদ্ধার তৎপরতা চালানোর অনুরোধ জানানো হয়েছে। সুনামগঞ্জ সদর, ছাতক ও দোয়ারাবাজার উপজেলায় শিগগির এ উদ্ধার কার্যক্রম শুরু হবে।


আরও খবর



পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে ২ কিলোমিটার যানজট

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে দুই কিলোমিটার যানজটের সৃষ্টি হয়েছে। আজ রবিবার (২৬ জুন) ভোর ৬টা থেকে পদ্মা সেতু দিয়ে সব ধরনের যান চলাচল শুরু হয়। এদিন সন্ধ্যা ৭ টার দিকে মুন্সিগঞ্জের মাওয়া প্রান্তে সেতুর আগে এই যানজট দেখা গেছে।

যানজটে আটকাপড়া পরিবহনগুলো যাত্রীবাহী। তবে বেশিরভাগই ভ্রমণে এসেছেন। বিশেষ করে মোটরসাইকেলের বেশিরভাগ মানুষ পদ্মা সেতু দেখতে এসেছে।

একটু একটু করে সামনে যাচ্ছে মোটরসাইকেলগুলো। একটু করে সামনে টানছে, আর জোরে হৈচৈ শুরু করছেন সবাই। এমন দৃশ্য দেখা যায় পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে, টোল প্লাজার সামনে। হাজারো মোটরসাইকেল দাঁড়িয়ে আছে একটুখানি টোল পরিশোধের আশায়।

বেলায়েত হোসেন। আগে চাকরি করতেন, এখন ব্যবসা শুরু করেছে। বাড়ি বাগেরহাট। মাছের ব্যবসা শুরু করেছেন। তিনি বলেন, ব্রিজ হওয়াতে চাকরি ছেড়ে দিছি। আমার বাড়ি যেহেতু বাগেরহাট, ওখানে প্রচুর চিংড়ি চাষ হয়। এখন পদ্মা সেতু হওয়ায় অল্প সময়ে চিংড়ি এনে ঢাকায় বিক্রি করে বেশি লাভবান হবো। আজ এখানে এসে ভালো লাগছে অনেক।

উল্লেখ্য, এর আগে গতকাল শনিবার (২৫ জুন) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পদ্মা সেতু উদ্বোধন করেন। এরপর আজ রবিবার ভোর ৬টা থেকে পদ্মা সেতু দিয়ে সব ধরনের যান চলাচল শুরু হয়।


আরও খবর