Logo
শিরোনাম

আব্বাস দম্পতির বিরুদ্ধে দুদকের চার্জশিট দাখিল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৭৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

২০ কোটি ৭৬ লাখ ৯২ হাজার টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস এবং তার স্ত্রী আফরোজা আব্বাসের নামে চার্জশিট দাখিল করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

মঙ্গলবার (২৭ ডিসেম্বর) সেগুনবাগিচায় দুদক কার্যালয়ে সামনে সাংবাদিকদের এতথ্য নিশ্চিত করেন সংস্থাটির সচিব মাহবুব হোসেন।

দুদক সূত্র জানা যায়, দুদকে দাখিলকৃত আফরোজা আব্বাসের সম্পদ বিবরণী যাচাইকালে তার অস্থাবর সম্পদের মধ্যে ঢাকা ব্যাংক লিমিটেডের শেয়ার ৮ লাখ ৭০ হাজার ৭০৬টি, যার মূল্য ৮ কোটি ৭০ লাখ ৭০ হাজার ৬০০ টাকা, ঢাকা টেলিফোন কোম্পানি লিমিটেডের ১ লাখ শেয়ারের মূল্য ১০ কোটি টাকা, এফডিআর ও ডিপিএসে বিনিয়োগ ১৪ লাখ ৯ হাজার ৯৫৮ টাকা, ঢাকা টেলিফোন কোম্পানিকে ঋণ প্রদান এক কোটি টাকা, আত্মীয়-স্বজনদের ঋণ প্রদান ৪৫ লাখ টাকা, হাতে নগদ ও ব্যাংক ব্যালেন্স ৫ লাখ টাকা এবং স্বর্ণালংকার ক্রয় ৪২ লাখ ১১ হাজার ৮০৫ টাকাসহ মোট ২০ কোটি ৭৬ লাখ ৯২ হাজার ৩৬৩ টাকার সম্পদের তথ্য পাওয়া যায়। মোট ২০ কোটি ৫২ লাখ ৮০ হাজার ৫৫৮ টাকার সম্পদের ঘোষণা দেন তিনি।

আফরোজা আব্বাস ওই সম্পদের উৎস হিসেবে এম এন এইচ বুলুর কাছ থেকে দেড় কোটি টাকা ঋণ গ্রহণ এবং মা-বাবা ও বোনের কাছ থেকে ১ কোটি ১৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা দান হিসাবে প্রাপ্ত হয়েছেন বলে উল্লেখ করেছেন। কিন্তু তার সপক্ষে কোনো দালিলিক তথ্য-প্রমাণ দিতে পারেননি তিনি।

এছাড়া বাকি অর্থ অর্জনের সপক্ষেও কোনো রেকর্ডপত্র অনুসন্ধানকালে দেখাতে পারেননি। প্রকৃতপক্ষে তিনি নিজের অবৈধভাবে অর্জিত জ্ঞাত আয়বহির্ভুত সম্পদ হস্তান্তর, রূপান্তর ও অবস্থান গোপন করার অসৎ উদ্দেশ্যে দালিলিক প্রমাণবিহীন ভুয়া ঋণ গ্রহণ দেখিয়েছেন।

সার্বিক পর্যালোচনায় দেখা যায়, আফরোজা আব্বাসের নামে অর্জিত ২০ কোটি ৭৬ লাখ ৯২ হাজার ৩৬৩ টাকার সম্পদ প্রকৃতপক্ষে তার স্বামী মির্জা আব্বাস উদ্দিন আহমেদের সহায়তায় অবৈধ উৎস থেকে অর্জিত। ১৯৯১ সালের আগে মির্জা আব্বাসের উল্লেখযোগ্য কোনো আয় ছিল না। তিনি ঢাকা সিটি করপোরেশনের মেয়র এবং গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী হওয়ার সুবাদে তারা ঘুষ ও দুর্নীতির মাধ্যমে অবৈধ উপায়ে জ্ঞাত আয়বহির্ভুত ওই টাকার সম্পদ অর্জন করেন।

দুদকের অনুসন্ধানে অবৈধ পন্থায় অর্জিত সম্পদের অবৈধ পন্থায় হস্তান্তর, রূপান্তর ও অবস্থান গোপন করায় দুদক আইন ২০০৪ এর ২৭(১) ধারা, দ-বিধির ১০৯ ধারা এবং মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০০২ এর ১৩ ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন করে বলে প্রমাণিত হয়েছে বলেও মামলায় বলা হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: দুদক ডিএমপি

আরও খবর



সাকরাইনকে ঘিরে শাঁখারী বাজারে কোটি টাকার বাণিজ্য

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ২২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পুরান ঢাকার ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন উৎসব সাকরাইনকে ঘিরে কোটি টাকার বাণিজ্য চলছে শাঁখারী বাজারে। এ উৎসবকে সামনে রেখে গত এক সপ্তাহ আগ থেকেই কেনা-বেচায় চলছে ধুম। ব্যবসায়ীদের দাবি সাকরাইনকে উপলক্ষ করে এবার শাঁখারী বাজারে প্রায় পাঁচ থেকে ছয় কোটি টাকার পণ্যসামগ্রী কেনা-বেচা হবে।

এসব পণ্যসামগ্রীর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন রঙের ঘুড়ি, সুতো, নাটাইসহ বিভিন্ন রকমের আতশবাজি, পটকা সামগ্রী। সাথে চলছে রঙবেরঙ ফানুসের কেনা-বেচাও। সরেজমিনে শাঁখারী বাজারে ঘুরে দেখা যায় চশমাদার, কাউটাদার, পঙ্খিরাজ, প্রজাপতি, চক্ষুদার, ঈগল, সাদা ঘুড়ি, চারবোয়া, দুই বোয়া, টেক্কা,লাভ ঘুড়ি, ৩ টেক্কা, মালাদার, দাবা ঘুড়ি, বাদুর, চিল, অ্যাংগ্রি বার্ডসহ বিভিন্ন নামে ঘুড়ি বিক্রিতে ধুম লেগেছে ব্যবসায়ীদের মধ্যে।

শাঁখারী বাজারে সাধারণ ঘুড়ি বিক্রি হচ্ছে ১৫ থেকে ৪০ টাকা পর্যন্ত। এছাড়া বিদেশি কাগজ ও নানান নকশা করা ঘুড়ি কেনা-বেচা হয় ১৫০ থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত।  কিছু কিছু ঘুড়ির দাম হাজার টাকার ওপরে।

ঘুড়ির সাথে এখানে বিভিন্ন রকমের নাটাই ও সুতা কেনা-বেচাও পড়েছে ধুম। নাটাইয়ের মধ্যে বাটিওয়ালা নাটাই, মুখবান্ধা নাটাই, লোহার নাটাই, কাঠের নাটাই, চাবাডী নাটাই বিক্রি হয় ১৫০ থেকে ১০০০ টাকা পর্যন্ত। সুতোর মধ্যে ড্রাগন সুতা, ভুত সুতা, বিলাই সুতো, ঘুড়ি ওড়ানোর জন্য বিভিন্ন ধরনের সুতা বিক্রি হয়ে থাকে ২০০ থেকে ৮০০ টাকা পর্যন্ত। এছাড়াও এখানে বিভিন্ন আকৃতির আতশবাজি, পটকা ও ফানুস বিক্রি হচ্ছে বিভিন্ন দরে। সর্বনিম্ন ১০০ টাকা থেকে ২৫০০ টাকা পর্যন্ত আতশবাজি পাওয়া যায় এখানে।

উল্লেখ্য, পুরান ঢাকার একটি ঐতিহ্যবাহী উৎসব সাকরাইন। মহাভারতে যাকে মকরক্রান্তি বলা হয়। এদিনে দিনভর ঘুড়ি ওড়ানোর পাশাপাশি সন্ধ্যায় বর্ণিল আতশবাজি ও রঙবেরঙ ফানুশে ছেয়ে যায় বুড়িগঙ্গা তীরবর্তী শহরের আকাশ। এখন পুরান ঢাকা ছাড়াও ঢাকার অন্যান্য এলাকায় এ উৎসব পালন করা হয়। আগে হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা সাকরাইন পালন করলেও এখন বাঙালি সংস্কৃতি হিসেবে সব ধর্মীয় মানুষের কাছে এটি সমাদৃত হচ্ছে।


আরও খবর

শুক্রবার রাজধানীর যেসব মার্কেট বন্ধ

শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩

রাজধানীতে ছাদ থেকে পড়ে শিশুর মৃত্যু

বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩




জেলেনস্কির শান্তি আলোচনার ফর্মুলা প্রত্যাখ্যান মস্কোর

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কিয়েভ বাস্তব অর্থে আলোচনার জন্য প্রস্তুত নয় উল্লেখ করে ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির শান্তি আলোচনার ফর্মূলা প্রত্যাখ্যান করেছেন রুশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই ল্যাভরভ। বৃহস্পতিবার (২৯ ডিসেম্বর) ল্যাভরভকে উদ্বৃত করে এ খবর জানিয়েছে রাশিয়ান বার্তা সংস্থা আরআইএ।

গত নভেম্বরে ইন্দোনেশিয়ার বালিতে জি ২০ সম্মেলনে ভার্চুয়ালি বক্তব্যে ১০ দফা প্রস্তাব রাখেন প্রেসিডেন্ট জেলেনস্কি। তার প্রস্তাবে রয়েছে- পরমাণু নিরাপত্তা, খাদ্য নিরাপত্তা, জ্বালানি নিরাপত্তা, বন্দি বিনিময় ও জাতিসংঘের প্রস্তাবের বাস্তবায়ন। রুশ সেনা প্রত্যাহার, পরিবেশ রক্ষা, সংঘাত নিয়ন্ত্রণ, যুদ্ধাপরাধের বিচার ও যুদ্ধ বন্ধের ঘোষণা।

এ প্রসঙ্গে আরআইএ-কে পুতিনের ঘনিষ্ঠ ল্যাভরভ বলেন, পশ্চিমা সহায়তায় পূর্ব ইউক্রেন ও ক্রিমিয়া থেকে রাশিয়াকে তাড়িয়ে দেওয়া, কিয়েভের একটি বিভ্রম ধারণা ছিল।

সম্প্রতি আবারও জেলেনস্কির শান্তি আলোচনার প্রস্তাবের বিষয়টি সামনে এসেছে। এই প্রস্তাবগুলো গ্রহণ করলে মস্কোর সঙ্গে আলোচনায় বসা যেতে পারে বলে জানিয়েছে কিয়েভ।


আরও খবর



২৪ ঘণ্টায় ৪১ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি

প্রকাশিত:রবিবার ০১ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৪১ জন। তবে এ সময়ে ডেঙ্গু আক্রান্ত কারো মৃত্যু হয়নি। রোববার (১ জানুয়ারি) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে মোট ২৪৯ জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসাধীন আছেন। ঢাকার ৫৩টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে বর্তমানে ১৫২ জন এবং অন্যান্য বিভাগে ভর্তি রয়েছেন ৯৭ জন রোগী। গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়াদের মধ্যে ঢাকায় ২১ জন এবং ঢাকার বাইরে ২০ জন।

অন্যদিকে, এ সময়ে চিকিৎসা শেষে হাসপাতাল থেকে সুস্থ হয়ে ফিরেছেন ২০৮ জন। এর মধ্যে ঢাকায় ১৩১ এবং ঢাকার বাইরে বিভিন্ন স্থানে ৭৭ জন।


আরও খবর

৮ ডেঙ্গুরোগী হাসপাতালে ভর্তি

বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩




বাংলাদেশকে বিপদে ফেলবে না রাশিয়া, আশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

প্রকাশিত:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ১৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা রাশিয়ার জাহাজ নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেছেন, রাশিয়া বাংলাদেশকে কোনো বিপদে ফেলবে না বলে আশা করছি। আজ বুধবার সকালে বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের ২১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে তিনি এ আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের পণ্যবাহী জাহাজ নিয়ে সরকারের মাথাব্যথা নেই। তবে যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা রাশিয়ার ৬৯টি জাহাজের কোনোটিই ভিড়তে দেবে না বাংলাদেশ।

মন্ত্রী বলেন, নিষেধাজ্ঞার আওতায় থাকা জাহাজের মালামাল দেশে আসবে, তবে দেরি হবে।’ এর আগে সংগঠনের নেতাকর্মীদের শপথবাক্য পাঠ করান পররাষ্ট্রমন্ত্রী। পরে সংগঠনটির বিভিন্ন শাখার পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটা হয়।


আরও খবর



‘ভোটার হওয়া ছাড়া এনআইডিতে ইসির সংশ্লিষ্টতা নেই’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভোটার হওয়া ছাড়া অন্যান্য ক্ষেত্রে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) ব্যবহারের বিষয়ে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে প্রশ্নোত্তর পর্বে গণফোরামের সংসদ সদস্য মোকাব্বির খানের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এসব কথা বলেন। স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে টেবিলে প্রশ্নোত্তর উপস্থাপন করা হয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ২০০৭ সালে একটি ত্রুটিমুক্ত ভোটার তালিকা তৈরির জন্য সেনাবাহিনীর অধীনে একটি প্রকল্প গ্রহণ করা হয়। এ প্রকল্পের বাই-প্রোডাক্ট হিসেবে জাতীয় পরিচয়পত্রের কার্যক্রমটি শুরু হয়। এটি ছিল সাময়িক পদক্ষেপ।

জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন কার্যক্রমের ব্যাপ্তি অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন কার্যক্রম শুধু ভোটার বা ১৮ বছরের বেশি নাগরিকের জন্য নয় বরং সব নাগরিকের জন্য প্রাসঙ্গিক। এ ছাড়া ব্যাংক হিসাব খোলা, চাকরির আবেদন, ইউটিলিটি সংযোগ, সরকারের সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির অধীন বিভিন্ন ভাতার আবেদন, খাস জমি প্রাপ্তির আবেদনসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে এনআইডি ব্যবহারের বাধ্যবাধকতা রয়েছে। এর মধ্যে ভোটার হওয়ার বিষয় মাত্র একটি। অন্যান্য ক্ষেত্রে এনআইডি ব্যবহারের বিষয়ে ইসির কোনো সংশ্লিষ্টতা নেই।

জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন কার্যক্রমটি পৃথিবীর প্রায় সব দেশেই নির্বাহী বিভাগের অধীনে হয়ে থাকে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বাস্তবতার নিরিখে অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও এটি নির্বাহী বিভাগের অধীনে হওয়া উচিত এবং এ কারণে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের অধীনে আনার কার্যক্রম চলমান রয়েছে। 


আরও খবর