শিরোনাম

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের হয়রানি করা হচ্ছে না: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৮৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে এখন পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দায়িত্বের সঙ্গে ডিউটি করে যাচ্ছে। অ্যাম্বুলেন্স থেকে শুরু করে জরুরি কোনো যানবাহন চলাচলে বাধা সৃষ্টি হলে সেগুলো চলাচলে সহযোগিতা করছে তারা

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের কোনো রকম হয়রানি করা হচ্ছে না। যদি সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ পাওয়া যায় সেক্ষেত্রে তদন্ত করা হবে।

রোববার (২৮ নভেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর উত্তরখানের কাঁচকুড়া শিক্ষা কমপ্লেক্সে ঢাকা মহানগর উত্তরের ৪৪নং ওয়ার্ডের ত্রি-বার্ষিক ইউনিট আওয়ামী লীগের সম্মেলন-২০২১ এ সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে এখন পর্যন্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দায়িত্বের সঙ্গে ডিউটি করে যাচ্ছে। অ্যাম্বুলেন্স থেকে শুরু করে জরুরি কোনো যানবাহন চলাচলে বাধা সৃষ্টি হলে সেগুলো চলাচলে সহযোগিতা করছে তারা।

রাজধানীর উত্তরখানে একটি ফায়ার সার্ভিস ও একটি পুলিশ ফাঁড়ির জন্য নেতাকর্মীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, নতুন থানা হতে সময় লাগবে। দুবার কাগজপত্র প্রধানমন্ত্রীর কাছে পাঠাতে হবে। তাই আমি ডিসিকে বলবো, এলাকার জনগণের নিরাপত্তার জন্য পুলিশ ক্যাম্প করে দেওয়ার জন্য। একইসঙ্গে ডিজি ফায়ারকে বলবো- তারা যেন ইন্সপেকশন করে সুবিধাজনক স্থানে এটার একটা ব্যবস্থা করেন।

রাজধানীর উত্তরখান ও দক্ষিণখানের সড়কে ইজিবাইকের কারণে সৃষ্ট যানজট নিরসন প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, আমি উত্তরা বিভাগের ডিসিকে (উপ-পুলিশ কমিশনার) বলবো- যিনি ট্রাফিকের দায়িত্বে আছেন আপনি ওনার সঙ্গে আলোচনা করে যানজট কন্ট্রোল করার ব্যবস্থা করেন।

স্কুল অ্যান্ড কলেজ মাঠের জনসমাগম দেখে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ইউনিট আওয়ামী লীগের এ দৃশ্য, এ অভিজ্ঞতা আমি কোনো দিন দেখিনি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বদলে গেছে। প্রধানমন্ত্রী যা বলেন তা-ই করেন। সেজন্যে আজ তার আকাশচুম্বী জনপ্রিয়তা। এ জায়গায় কাউকে ভাড়া করে আনা হয়নি, কাউকে পয়সা দিয়ে আনা হয়নি। আপনারা আওয়ামী লীগকে ভালোবাসেন, এটাই প্রমাণ করে।

তিনি বলেন, আজ বাংলাদেশে কোনো খাদ্যের অভাব নেই। কোনো কিছুরই অভাব নেই। সারাদেশের গৃহহীনদের তালিকা করে তাদের বাসস্থানের ব্যবস্থা করছেন প্রধানমন্ত্রী।


আরও খবর



ড্যাপ চূড়ান্ত, প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের অপেক্ষা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৭৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ডিটেইল্ড এরিয়া প্ল্যান (ড্যাপ) চূড়ান্ত করা হয়েছে। এখন ড্যাপ পর্যালোচনা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটি চূড়ান্ত প্রতিবেদনটি প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদনের জন্য পাঠানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রিসভা কমিটির আহ্বায়ক ও স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) সচিবালয়ে ড্যাপ পর্যালোচনা সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে তাজুল ইসলাম সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন পেলে এটি গেজেট আকারে প্রকাশ করা হবে।

স্থানীয় সরকারমন্ত্রী বলেন, আজ ড্যাপ চূড়ান্ত করা হয়েছে। ড্যাপে কেউ যদি ক্ষতিগ্রস্ত হয় বা কারও ওপর যদি অবিচার করা হয়েছে বলে মনে হয়, তবে সেসব সংশোধন করা হবে। কোনো পক্ষের ক্ষতি করার জন্য ড্যাপ পাস করা হচ্ছে না।

সভায় পরিবেশ বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ, স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত সচিব মো. শহীদ উল্লা খন্দকারসহ অন্যান্য কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর



রাষ্ট্রপতির মতবিনিময় সভার আমন্ত্রণ গ্রহণে অপারগতা প্রকাশ সিপিবির

প্রকাশিত:শনিবার ০১ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | ৬৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নির্বাচন কমিশন (ইসি) গঠনে রাষ্ট্রপতির সংলাপে অংশগ্রহণের আমন্ত্রণ রক্ষায় অপরাগতা প্রকাশ করেছে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)।

নতুন জাতীয় নির্বাচন কমিশন গঠনের প্রাক্কালে রাজনৈতিক দলসমূহের মতামত গ্রহণের প্রক্রিয়ায় রাষ্ট্রপতি সোমবার (৩ জানুয়ারি) সিপিবিকে আমন্ত্রণ জানান।

শনিবার (১ জানুয়ারি) সিপিবি কর্তৃক রাষ্ট্রপতি বরাবর পাঠানো চিঠিতে এ অপারগতার বিষয়ে জানানো হয়। 

এতে বলা হয়, নিরপেক্ষ নির্বাচনের স্বার্থে, গণতন্ত্রের স্বার্থে দেশে একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন থাকা একান্তভাবে প্রয়োজন। কিন্তু অবাধ-সুষ্ঠু-নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য সেটাই যথেষ্ট নয়। নির্বাচন ব্যবস্থার মৌলিক গলদ দূর করতে না পারলে অবাধ-নিরপেক্ষ নির্বাচন নিশ্চিত করা যাবে না। এ মৌলিক বিবেচনা থেকে সিপিবি নির্বাচন ব্যবস্থার আমূল সংস্কারের জন্য 'সংখ্যানুপাতিক প্রতিনিধিত্ব সহ ৫৩টি সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপের সুপারিশমালা ২০১৭ সালের জানুয়ারি মাসে আপনার কাছে প্রদান করেছিল। এ অবস্থায় হুবহু একই আলোচ্য সূচিতে ও একই প্রকরণের আরেকটি সংলাপে যোগ দিয়ে সিপিবির নতুন কোনো কথা বলার নেই। সে কারণে তাতে যোগদান করার প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করছি না।

আমন্ত্রণ জানানোর জন্য রাষ্ট্রপতিকে ধন্যবাদ জানিয়ে সিপিবি নেতারা চিঠিতে মতবিনিময় সভায় অংশগ্রহণের অপারগতার কথা অবহিত করেন।

রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো চিঠিতে নির্বাচন কমিশন আইন প্রণয়নের গুরুত্বের কথা উল্লেখ করে আরও বলা হয়, অবাধ-নিরপেক্ষ নির্বাচনের ব্যবস্থা করার জন্য সংবিধানসম্মতভাবে একটি নির্বাচন কমিশন মনোনীত করা জরুরি বিধায় আপনার কাছে আমাদের বিনীত অনুরোধ, আপনি জাতীয় সংসদকে জরুরি বার্তা পাঠিয়ে আগামী এক মাসের ভেতরে নির্বাচন কমিশন আইন প্রণয়ন করে তা স্বাক্ষরের জন্য আপনার কাছে পাঠাতে বলুন। তাহলে নির্বাচন কমিশন মনোনয়নের আগে সে বিষয়ে পরামর্শ নেওয়ার জন্য রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে আপনার বৈঠকের প্রয়োজন পড়বে না।


আরও খবর



বিমান সংস্থায় অংশীদারি থেকে পোলো ক্লাব, কত টাকার মালিক রাম চরণ

প্রকাশিত:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হায়দরাবাদের ধনী পরিবারগুলির মধ্যে প্রথম সারিতে রয়েছে তাঁদের পরিবার। তবে পারিবারিক সম্পত্তি ছাড়াও প্রায় একার জোরেই ১,৩০০ কোটি টাকার মালিক কোনিডেলা রাম চরণ তেজা। তেলুগু ফিল্মের ভক্তদের কাছে যিনি রাম চরণ নামে পরিচিত।

বাবার পথ অনুসরণ করে তেলুগু ফিল্মে পা রেখেছিলেন। সেটি ছিল ২০০৭ সাল। পি জগন্নাথের পরিচালনায় চিরুতা ফিল্মে অভিষেক। তার পর থেকে পর পর কম হিট ফিল্ম করেননি। মাত্র ৩৬ বছর বয়সেই জনপ্রিয়তায় যেন বাবাকেও ছাপিয়ে গিয়েছেন রাম চরণ। এই মুহূর্তে তেলুগু ফিল্ম তো বটেই, রোজগারের নিরিখে বহু বলিউড তারকাকে ছাপিয়ে গিয়েছেন চিরঞ্জীবী-পুত্র।

তবে ফিল্মে অভিনয় ছাড়াও রাম চরণের আয়ের একাধিক উৎস রয়েছে। বিমান সংস্থায় অংশীদারি, আস্ত একটি পোলো ক্লাব পড়ে শোনালে তালিকা ক্রমশই দীর্ঘ হতে থাকে।

ফিল্মের কত তারকারই তো নিজস্ব বিমান রয়েছে। তবে এ দেশের কজন তারকার বিমান সংস্থায় অংশীদারিত্ব রয়েছে? বিশেষ চিন্তা-ভাবনা করতে হবে না। মগধীরা-র নায়কের সম্পত্তির তালিকায় তা-ও রয়েছে।

ফিল্মে অভিনয়ের পাশাপাশি হায়দরাবাদের টার্বো মেঘা এয়ারওয়েজ প্রাইভেট লিমিটেড নামে একটি বেসরকারি বিমান সংস্থার চেয়ারম্যান হিসাবেও দায়িত্ব সামলাচ্ছেন রাম চরণ। ট্রুজেট নামে ওই সংস্থাটির নিজস্ব উড়ান ছাড়াও অন্যান্য বিমান সংস্থার পরিষেবার কাজ করে।

ফিল্মের পর্দায় বহু বার ঘোড়ায় চড়েছেন। তবে পর্দায় বাইরেও ঘোড়ায় চড়ার শখ রাম চরণের। সেই ছোটবেলা থেকেই ঘোড়ার প্রতি ভালবাসা তাঁর। নিজের আস্তাবলে বাদশা এবং কাজল নামে দুটি ঘোড়াও রয়েছে বলে জানিয়েছেন রাম চরণ।

ছোটবেলার কোনও কোনও শখ যে অভিনয় জীবনেও কত কাজে আসে! বস্তুত, এস এস রাজামৌলির নির্দেশে ঘোড়ার পিঠে বসেই মগধীরা-র বহু দৃশ্যের শ্যুটিং করেছিলেন রাম চরণ। তিনি যে একটি পোলো ক্লাবের মালিক হবেন, তা আর নতুন কথা কী! হায়দরাবাদ পোলো ক্লাবের মালিক রাম চরণের আবার নিজের দলও রয়েছে।

ফি মাসে নাকি চার কোটি টাকারও বেশি রোজগার রাম চরণের। অন্যান্য শখের মধ্যে দামি গাড়িও নেশা রয়েছে। ঘোড়াশালে ঘোড়ার পাশাপাশি হাতিশালে হাতি না থাকলেও গ্যারাজে একাধিক দামি গাড়ি রয়েছে। অ্যাস্টন মার্টিন বা রোলস রয়েস ফ্যান্টম থেকে মার্সিডিজের জিএল৩৫০ মডেল কোটি কোটি টাকার একাধিক গাড়ির মধ্যে শুধু এ কটির নাম শুনলেই চোখ কপালে ওঠার জোগাড়।

ঘোড়া এবং গাড়ি তো হল। কিন্তু বাড়ি? মুম্বইয়ে একটি অভিজাত পেন্টহাউসের মালিক তেলুগু ছবির সুপারস্টার। রাজামৌলির ফিল্ম আর আর আর-এর শ্যুটিংয়ের জন্য মুম্বই গেলে এই পেন্ট হাউসে স্ত্রী উপসনার সঙ্গে থাকেন রাম চরণ। ছিমছাম ইউরোপীয় ধাঁচের এই পেন্টহাউসটিকে দেখলে হলিউড ফিল্মের বিলাসবহুল সেট বলে ভুল হতে পারে।

মুম্বই ছাড়াও হায়দরাবাদের অভিজাত এলাকা জুবিলি হিলসে ৩০ কোটিরও বেশি অর্থমূল্যের একটি বাড়ি রয়েছে রাম চরণের। ২৫ হাজার বর্গফুটের ওই বাড়িতে রয়েছে সমস্ত রকমের আধুনিক সুযোগসুবিধা। সুইমিং পুল, জিম মায় একটি টেনিস কোর্টও!

নিজের পরের দুটি ফিল্মের জন্য ১০০ কোটি টাকা করে পারিশ্রমিক চেয়েছেন রাম চরণ। অন্তত, ফিল্মি পাড়ায় তেমনই কানাঘুষো চলছে। কিয়ারা আডবাণীর সঙ্গে শঙ্করের পরিচালনায় আরসি ১৫। তার পরের ফিল্মে গৌতম তিন্নানুরির পরিচালনায় দিশা পাটানির সঙ্গে রোম্যান্স করতে দেখা যেতে পারে তাঁকে।

ফিল্মের পারিশ্রমিক ছাড়াও একাধিক বিজ্ঞাপনে মুখ দেখিয়ে কম আয় করেন না রাম চরণ। আর এক বার তাতে মুখ দেখালেই হল! রয়্যালটি বাবদ ফি মাসে বেশ মোটা অঙ্কই জমা পড়ে রাম চরণের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে!

নিউজ ট্যাগ: রাম চরণ

আরও খবর



ইসি গঠনে রাষ্ট্রপতিকে তিন দফা প্রস্তাব বিএনএফের

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

একটি স্বাধীন নিরপেক্ষ এবং গ্রহণযোগ্য নির্বাচন কমিশন গঠনের লক্ষ্যে চলমান সংলাপের সপ্তম দিনে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদকে তিন দফা প্রস্তাবনা দিয়েছেন বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ)।

সংলাপ শেষে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন সাংবাদিকদের ব্রিফ কালে জানান, আজ বুধবার বিকেলে বিএনএফ এর প্রসিডেন্ট এসএম আবুল কালাম আজাদের নেতৃত্বে সাত সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বঙ্গভবনের দরবার হলে অনুষ্ঠিত আলোচনায় অংশ নেয়। বিএনএফের নেতৃবৃন্দ সংবিধানের ৫৬ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে নির্বাচনকালীন সরকার গঠনের প্রস্তাব দেন।

তারা নির্বাচন কমিশন গঠনে অনুসন্ধান (সার্চ) কমিটি মাধ্যমে গঠনের প্রস্তাব করেন এবং এই কমিটিতে অনধিক পাঁচ জনকে নিয়োগ করতে পারেন এ কমিটিতে তারা পাঁচজনের নাম প্রস্তাব করেন।

বিএনএফ এর প্রতিনিধিদল নির্বাচন কমিশন গঠনে রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে আলোচনার উদ্যোগ নেয়ার জন্য রাষ্ট্রপতিকে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান।

প্রতিনিধি দলকে বঙ্গভবনে স্বাগত জানিয়ে রাষ্ট্রপতি বলেন, গ্রহণযোগ্য একটি নির্বাচন কমিশন যাতে গঠন করা যায় সে জন্য রাজনৈতিক দলগুলোর সুচিন্তিত মতামত খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

রাষ্ট্রপ্রধান বলেন, গণতন্ত্রের স্বার্থে রাজনীতিতে আর্থিক বিষয়কে প্রাধান্য না দিয়ে নেতাকর্মীদের ত্যাগ-তিতিক্ষা এবং দলের নীতি-আদর্শকে মূল্যায়ন করতে হবে।

গণতন্ত্রকে কেবল নির্বাচনের মধ্যে সীমাবদ্ধ না রেখে প্রতিনিয়ত চর্চার মাধ্যমে ছড়িয়ে দিতে হবে, তিনি যুক্ত করেন।

রাষ্ট্রপতি এ ব্যাপারে  জনগনকে উদ্বুদ্ধ করতে রাজনৈতিক দলগুলোকে উদ্যোগ নেওয়ার ও আহ্বান জানান। রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এস এম সালাহ উদ্দিন ইসলাম, রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মোঃ জয়নাল আবেদীন এবং সচিব (সংযুক্ত) মোঃ ওয়াহিদুল ইসলাম খান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

গত ২০ ডিসেম্বর প্রথম দিনে সংসদে প্রধান বিরোধী দল জাতীয় পার্টির সাথে সংলাপে বসে রাষ্ট্রপতি হামিদ। এ পর্যন্ত মোট সাতটি রাজনৈতিক দলের সাথে সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়। চলমান সংলাপের আগামী ২ জানুয়ারি  বৈঠক হবে গণফোরামের সাথে সন্ধ্যা ছয়টায় এবং বিকল্প ধারা বাংলাদেশ এর সাথে সন্ধ্যা সাতটায়, আগামী ৩ জানুয়ারি সংলাপ হবে গণতন্ত্রী পার্টির সাথে সন্ধ্যা ৭ টায় এবং বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির সাথে সন্ধ্যা সাতটায়। অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলোর সাথে আলোচনার তারিখ এখনো নির্ধারিত হয়নি।

এর আগে নবম, দশম ও একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে রাজনৈতিক দলগুলোর অংশগ্রহণে সংলাপ অনুষ্ঠিত হয়েছিল। রাষ্ট্রপতিকে সিইসি এবং অনধিক চারজন নির্বাচন কমিশনার নিয়োগের ক্ষমতা দেওয়া হয়েছে। গত কয়েকটি মেয়াদে রাষ্ট্রপতি 'সার্চ কমিটি'র সুপারিশের ভিত্তিতে নির্বাচন কমিশন গঠন করেছেন।

বর্তমান ইসির পাঁচ বছরের মেয়াদ শেষ হচ্ছে আগামী বছরের ১৪ ফেব্রুয়ারি। এ সময়ের মধ্যেই রাষ্ট্রপতি নতুন কমিশন গঠন করবেন, যাদের অধীনে অনুষ্ঠিত হবে দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন।


আরও খবর



টাঙ্গাইলে পিকআপ-অটোরিকশার সংঘর্ষে মা মেয়েসহ নিহত ৩

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২২ | ৫২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

টাঙ্গাইলের মধুপুরে পিকআপ-সিএনজিচালিত অটোরিকশার সঙ্গে সংঘর্ষে মা, মেয়েসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। একই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও পাঁচজন।

শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে টাঙ্গাইল-জামালপুর সড়কের মধুপুর পৌর এলাকার কাইতকাই রূপালী ফিলিং স্টেশনের পাশে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

হতাহতরা সবাই সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও পিকআপের যাত্রী ছিলেন বলে জানা গেছে। হতাহতদের উদ্ধার করে ১০০ শয্যার মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

দুর্ঘটনায় নিহতরা হলেন জামালপুর জেলার দেওয়ানগঞ্জের জনৈক সাইদুর রহমানের স্ত্রী শারমিন (৩১), মেয়ে সোহাগী (৩) এবং শেরপুরের শ্রীবরদীর বড়বাড়ীর মিনার হোসেনের ছেলে রাসেল (২২)।

 সিএনজিচালিত অটোরিকশার যাত্রী আহত আবু জাফর যাচ্ছিলেন শেরপুরে একটা পরীক্ষায় অংশ নিতে।

তিনি জানান, সকাল ৭টার দিকে যাত্রী নিয়ে সিএনজিচালিত অটোরিকশা মধুপুর বাসস্ট্যান্ড থেকে জামালপুরের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে। এক থেকে দেড় কিলোমিটার যাওয়ার পর রূপালী ফিলিং স্টেশনের পাশে মহাজন সরকারের বাড়ির মোড়ে পৌঁছামাত্র বিপরীত দিক থেকে দ্রুতবেগে আসা পিকআপভ্যানের সঙ্গে মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। তাদের অটোরিকশা রাস্তা থেকে খাদে ভুট্টাক্ষেতে পড়ে যায়। রাস্তায় উল্টে যায় পিকআপভ্যান।

এদিকে খবর পেয়ে মধুপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে দুর্ঘটনায় কবলিতদের উদ্ধার করে স্থানীয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক হাসান শিশু সোহাগী ও রাসেলকে মৃত ঘোষণা করেন। 

ডা. হাসান জানান, বাকি আহতদের মধ্যে শারমিন ও রাহেনা (৫৫) নামে  দুজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করার সময়ই নিহত সোহাগীর মা শারমিনের মৃত্যু হয়। চারজনকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয় মধুপুর থানার ওসি তারিক কামাল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। পিকআপভ্যান ও সিএনজি পুলিশি হেফাজতে আছে। মামলার প্রক্রিয়া চলছে।


আরও খবর