Logo
শিরোনাম

বাজারে আসছে স্মার্ট গ্লাস

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ০৮ মার্চ ২০২১ | ৮৮জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রযুক্তির জগতে প্রতিনিয়তই এমন চমক আসছে, যা হয়তো বছর পাঁচেক আগেও কল্পনা করতে পারত না । বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির অগ্রগতি আমাদের অবাক করছে বটে। তবে আমরাও এই অগ্রগতির সঙ্গে পা মেলাচ্ছি। এবার আরও একটি অসাধারণ আবিষ্কারের কথা শোনা যাচ্ছে। স্মার্টফোনের পর বাজারে আসতে চলেছে স্মার্ট গ্লাস।

অ্যাপল, স্যামস্যাং, অপোর মতো সংস্থাগুলো ইতোমধ্যে স্মার্ট গ্লাস তৈরির কাজ শুরু করেছে। এই চশমায় এআর (Augmented Reality) প্রযুক্তি থাকবে বলে মনে করা হচ্ছে। এবার একই পথে স্মার্ট গ্লাস তৈরির কাজ শুরু করল চীনা সংস্থা শাওমি। এই চশমা ভার্চুয়াল তথ্য দেবে। ফোনে যেমন ফটো ও ভিডিও আলাদা করে রাখা ও দেখা যায়, এই চশমাতেও তেমনই অপশন থাকবে। ফোনের নোটিফিকেশনও চশমায় দেখা যাবে। এছাড়া হোডফোন ছাড়াই এই চশমায় গান শোনা যাবে।

শাওমি তাদের স্মার্ট গ্লাস এ ফটোথেরাপি ফিচার দিতে পারে। যার ফলে এই চশমার মাধ্যমে মানসিকভাবে অসুস্থ ও ডিপ্রেশন এ ভোগা ব্যক্তিদের চিকিত্সাও সম্ভব হবে। সাউন্ড ও ভিজুয়াল, দু’রকম সিগনাল এই চশমার মাধ্যমে পাঠানো যাবে।

নিউজ ট্যাগ: স্মার্ট গ্লাস
Share

আরও খবর



নিরাপত্তা আইনে ৪৭ গণতন্ত্রপন্থির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

প্রকাশিত:সোমবার ০১ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৪১জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগ এনে ৪৭ জন গণতন্ত্রপন্থির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেছে হংকংয়ের পুলিশ। একে চীনশাসিত বিশেষ অঞ্চল হংকংয়ের বিতর্কিত নিরাপত্তা আইনের সবচেয়ে বড় ব্যবহার হিসেবে মনে করা হচ্ছে। সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে এ কথা বলা হয়।

গত মাসের এক ভোরের অভিযানে আটক ৫৫ জন গণতন্ত্রপন্থির মধ্য থেকে ৪৭ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। পরে তাঁদের ছেড়ে দেওয়া হয়। আজ সোমবার তাঁদের থানায় হাজির হতে বলা হয়েছে। এদিন তাঁদের আদালতে নেওয়া হবে। এঁদের মধ্যে ৩৯ জন পুরুষ আর আটজন নারী, যাঁদের বয়স ২২ থেকে ৬৩ বছর।

হংকং পুলিশের এক বিবৃতিতে বলা হয়, রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্রে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ ৪৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জ গঠন করেছে।

গত বছরের জুনে এই গণতন্ত্রপন্থিরা ২০২০ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে দলের প্রার্থী বাছাইয়ে প্রাইমারি ভোট আয়োজন করে। পরে যদিও নভেল করোনাভাইরাসের প্রকোপের কারণে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়নি।

চীন ও হংকং কর্তৃপক্ষ এই প্রাইমারি ভোটকে সরকার পতনের উদ্যোগ হিসেবে আখ্যায়িত করে।

হংকংয়ে স্থিতিশীলতা আনার কথা বলে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগের বিচার করতে হংকংয়ে নিরাপত্তা আইন জারি করে চীন সরকার। সমালোচকেরা বলে আসছেন, এই আইন ভিন্নমতাবলম্বীদের কণ্ঠরোধ করেছে এবং হংকংয়ের স্বায়ত্তশাসনের মর্যাদা ভূলুণ্ঠিত করেছে। মূলত হংকংয়ে ২০১৯ সালে গণতন্ত্রপন্থিদের টানা আন্দোলনের পরই এই আইন চালু করে চীন।

বিদেশি শক্তির সঙ্গে আঁতাত করে বিচ্ছিন্নতাবাদ, রাষ্ট্রীয় নিয়ম ভঙ্গ, সন্ত্রাসবাদ ও ধ্বংসযজ্ঞের অভিযোগে অভিযুক্তদের জাতীয় নিরাপত্তা আইনে বিচার করে চীনের আদালত। এই আইনে কারও আজীবন কারাদণ্ডের শাস্তিও হতে পারে। শুরু থেকেই মানবাধিকার সংগঠনগুলো আইনটির সমালোচনা করে আসছে।

নিউজ ট্যাগ: হংকং
Share

আরও খবর



সামিসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন ফেরত দিলেন আদালত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৪ মার্চ ২০২১ | ৫৯জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কাতারভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল আলজাজিরায় প্রচারিত 'অল দ্য প্রাইম মিনিস্টারস মেন' শিরোনামের প্রতিবেদনের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট চার ব্যক্তির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে করা মামলার আবেদন ফেরত দিয়েছেন আদালত।

আজ মঙ্গলবার ঢাকা মহানগর হাকিম শহিদুল ইসলামের আদালত এ আদেশ দেন।

এ মামলার আসামিরা হলেন ব্রিটিশ সাংবাদিক ডেভিড বার্গম্যান, সুইডেনপ্রবাসী সাংবাদিক তাসনিম খলিল, হাঙ্গেরিপ্রবাসী বাংলাদেশি জুলকারনাইন সামি এবং আলজাজিরার ডিরেক্টর জেনারেল ও প্রধান সম্পাদক মোস্তফা স্যোয়াগ।

গত ১৭ ফেব্রুয়ারি ঢাকার মহানগর হাকিম মো. আশেক ইমামের আদালত বঙ্গবন্ধু ফাউন্ডেশনের নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট মশিউর মালেক আদালতে এ মামলার আবেদন করেন। একইদিন আদালত মামলার বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করেন। তারপর আদালত শুনানি শেষে মামলাটি গ্রহণের বিষয়ে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি আদেশ দেবেন বলে জানান। তবে ওইদিন মামলাগ্রহণের বিষয়ে আদেশ না দিয়ে আজ আদেশের জন্য নতুন দিন ধার্য করেন।

মামলার এজহারে বলা হয়েছে, 'আসামিরা পরস্পর যোগসাজসে একই উদ্দেশ্যে বাংলাদেশ সরকার ও রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে সুনাম হানি করে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে অপপ্রচার চালিয়ে বাংলাদেশ রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ড চালিয়ে রাষ্ট্রদ্রোহিতামূলক অপরাধে লিপ্ত আছে। তারা যৌথভাবে তাদের অজ্ঞাতনামা সহযোগীদের নিয়ে ভুয়া মিথ্যা তথ্য সম্বলিত প্রতিবেদন তৈরি করে গত ১ ফেব্রুয়ারি রাতে 'অল দি প্রাইম মিনিস্টার্স মেন' শিরোনামে বাংলাদেশ রাষ্ট্র ও সরকারবিরোধী প্রতিবেদনটি প্রচার করে এবং ওই প্রতিবেদন ইউটিউবেও ব্যাপকভাবে প্রচারিত হয়, যা পরেরদিন বিভিন্ন মুদ্রিত ও অনলাইন পত্রিকাসমূহে ব্যাপকভাবে প্রচারিত হয়েছে।'

এজাহারে আরো উল্লেখ করা হয়, 'আসামিরা ওই প্রতিবেদনে কোনো সুনির্দিষ্ট ও সুস্পষ্ট বক্তব্য না দিয়ে এবং তথ্য উপাত্ত বা দলিলাদি উপস্থাপন না করেই ষড়যন্ত্রমূলক ও উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে কেবল কিছু ব্যক্তিগত পারিবারিক অনুষ্ঠানাদি ও সাক্ষাৎকারের ছবি ব্যবহার করে কণ্ঠস্বর সম্পাদনা করে একটি কাল্পনিক ভুয়া, মিথ্যা ও সাজানো কল্পিত তথ্যচিত্রের প্রতিবেদন তৈরি করে তথ্য প্রযুক্তির অপব্যবহারের মাধ্যমে আল জাজিরা টেলিভিশনসহ ইউটিউবের মাধ্যমে সমগ্র বিশ্বে অপপ্রচার করেছে। যা দেশ-বিদেশে বাংলাদেশের সরকার ও রাষ্ট্রের সুনাম ও মর্যাদার হানি ঘটিয়েছে। এ কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে আসামিরা বাংলাদেশের দণ্ডবিধির ১২৪/১২৪(এ)/১০৯/৩৪ ধারায় অপরাধ করেছে।'

Share

আরও খবর



বেরোবি’র তদন্ত সম্পূর্ণ স্বাধীন ও বস্তুনিষ্ঠভাবে হয়েছে

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৪১জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ শিক্ষামন্ত্রী ও তদন্ত কমিটি নিয়ে ব্যক্তিগত বিশোদগার করেছেন তা অনভিপ্রেত ও অনাকাঙ্ক্ষিত। উপাচার্যের মতো দায়িত্বশীল পদে অধিষ্ঠিত একজন ব্যক্তির কাছ থেকে

শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির পরামর্শে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) তদন্ত করেছে, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের (বেরোবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহর এমন অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছে ইউজিসি। এই তদন্ত কার্যক্রম সম্পূর্ণ স্বাধীন ও বস্তুনিষ্ঠভাবে হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। আজ শনিবার (০৬ মার্চ) ইউজিসির পরিচালক (জনসংযোগ) ড. শামসুল আরেফীন স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বিষয়টি বিস্তারিতভাবে তুলে ধরা হয়।

ওই বিবৃতিতে বলা হয়েছে, গত ৪ মার্চ (বৃহস্পতিবার) সংবাদ সম্মেলন করে বেরোবির ভিসি শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি ও বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) নিয়ে যেসব মন্তব্য করেছেন গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদনের মাধ্যমে তা কমিশনের দৃষ্টিগোচর হয়েছে।

এ বিষয়ে ইউজিসির বক্তব্য হলো-

বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন দেশের উচ্চশিক্ষার বিস্তার, গুণগত ও মানসম্পন্ন শিক্ষা ও গবেষণা নিশ্চিত করতে প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে কাজ করে যাচ্ছে। দেশের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর দেখভাল, আর্থিক মঞ্জুরি ও গবেষণা সহায়তা দিয়ে আসছে। ইউজিসি সব সময় নিজস্ব স্বকীয়তা বজায় রেখে কাজ করছে এবং কখনোই এর ব্যত্যয় ঘটেনি।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিকল্পনা অনুবিভাগে বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষ উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে বড় ধরনের অনিয়মের অভিযোগ উত্থাপিত হলে তা তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ইউজিসিকে দায়িত্ব দেওয়া হয়।

অনিয়মের অভিযোগটি পরিকল্পনা সংক্রান্ত হওয়ায় ইউজিসির পরিকল্পনা ও উন্নয়ন বিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত সদস্য, পরিচালক ও অতিরিক্ত পরিচালকের সমন্বয়ে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। পদমর্যাদা অনুসারে তারা কমিটির আহ্বায়ক, সদস্য ও সদস্য সচিব হয়েছেন। তদন্ত কমিটি পেশাদার মনোভাব নিয়ে প্রাপ্ত তথ্য উপাত্ত বিশ্লেষণ, সরেজমিন পরিদর্শন ও সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে কথা বলে সম্পূর্ণ প্রভাবমুক্ত হয়ে একটি বস্তুনিষ্ঠ ও নিরপেক্ষ তদন্ত প্রতিবেদন তৈরি করে। পরবর্তী কার্যার্থে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি তদন্ত প্রতিবেদন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে পাঠায়। তদন্তটি দীর্ঘ সময় ধরে হয়েছে। এতে কোনো পর্যায়ে শিক্ষামন্ত্রী বা অন্য কেউ প্রভাব বিস্তার করার কোনো ধরনের সুযোগ নেই।

কমিশন দ্ব্যর্থহীনভাবে বলতে চায় যে, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষ উন্নয়ন প্রকল্পের অনিয়মের অভিযোগের তদন্ত সম্পূর্ণ স্বাধীন ও প্রভাবমুক্তভাবে সম্পন্ন করা হয়েছে। এক্ষেত্রে নিরপেক্ষ এবং বস্তুনিষ্ঠ প্রতিবেদন তৈরি করা হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে উপাচার্য অধ্যাপক ড. নাজমুল আহসান কলিমউল্লাহ শিক্ষামন্ত্রী ও তদন্ত কমিটি নিয়ে ব্যক্তিগত বিশোদগার করেছেন তা অনভিপ্রেত ও অনাকাঙ্ক্ষিত। উপাচার্যের মতো দায়িত্বশীল পদে অধিষ্ঠিত একজন ব্যক্তির কাছ থেকে কোনোভাবেই এটি প্রত্যাশিত নয়। শিক্ষামন্ত্রী দায়িত্ব নেওয়ার পর তিনি কখনো কোনো বিষয়ে প্রভাব বিস্তারের বিন্দুমাত্র চেষ্টা করেননি। কোনো উপাচার্য বা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগের তদন্ত প্রভাবিত হতে পারে এমন কোনো ধরনের পরামর্শ বা নির্দেশনা তিনি কখনোই দেননি। বরং তিনি বিভিন্ন সভা-সেমিনারে গুণগত ও মানসম্পন্ন উচ্চশিক্ষা, গবেষণা ও দক্ষ মানবসম্পদ উন্নয়ন ও টেকসই উন্নয়নের গুরুত্ব দিয়েছেন। ইউজিসি জাতির পিতার হাতে গড়া একটি স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠান। দেশের উচ্চশিক্ষার মানোন্নয়নে কমিশন সবার সহযোগিতা প্রত্যাশা করে। সবাইকে এক্ষেত্রে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখার জন্য ইউজিসির পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে।

Share

আরও খবর



সোফা কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে দুই ভাই সহ মদিনায় ৬ বাংলাদেশির মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৮৯জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সৌদি আরবের মদিনায় একটি সোফা কারখানায় অগ্নিকাণ্ডে ছয় বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে। স্থানীয় সময় বুধবার দিবাগত রাতে এ অগ্নিকাণ্ড ঘটে। সৌদিতে বাংলাদেশ দূতাবাসের লিগ্যাল অ্যাসিস্ট্যান্ট মোহাম্মদ মহসীন হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহত ছয়জনের মধ্যে মিজান ও আরাফাত নামের দুই ভাই রয়েছেন। তাঁরা চট্টগ্রামের লোহাগাড়া উপজেলার দক্ষিণ সুখছড়ী চাম্বিরপাড়া এলাকার সুলতান আহমদের ছেলে বলে জানা গেছে। বাকিরা অতিমাত্রায় দগ্ধ হওয়ায় এখন পর্যন্ত তাঁদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

এদিকে, কীভাবে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে, তা এখনো জানাতে পারেনি স্থানীয় পুলিশ। নিহত ব্যক্তিদের মরদেহ শনাক্তে সার্বক্ষণিক কাজ চলছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ দূতাবাস।

নিউজ ট্যাগ: মদিনা মুনাওয়ারা
Share

আরও খবর



পুকুরে মাটি খুঁড়তে গিয়ে মিলল ৪০০ বছরের পুরনো মূর্তি

প্রকাশিত:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৪২জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সাতক্ষীরার তালা উপজেলার ইটভাটার জন্য পুকুর থেকে মাটি খোঁড়ার সময় ৪০০ বছরের একটি পুরনো সোনালি রঙের মূর্তি পাওয়া গেছে। মূর্তিটির ওজন এক কেজি ৪২০ গ্রাম। লম্বায় পৌনে আট ইঞ্চি।

শনিবার তালা উপজেলার কুমিরা গ্রামের বাবুর পুকুর থেকে ওই মূর্তিটি উদ্ধার করা হয়। তবে মূর্তিটি ৪০০ বছরের পুরনো বলে স্থানীয়রা ধারণা করছেন।

তালার পাটকেলঘাটা থানার ওসি কাজী ওয়াহিদ মুর্শেদ জানান, স্থানীয় মোল্লা ব্রিকসের লোকজন এক্সাভেটর মেশিন দিয়ে ইটভাটার জন্য মাটি খোঁড়ার সময় একটি সোনালি মূর্তি পেয়েছেন।

মূর্তিটি পুলিশ হেফাজতে আছে। মূর্তিটি স্বর্ণের কিনা, তা জানতে পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে মূর্তিটি ৪০০ বছরের পুরনো বলে স্থানীয় লোকজনের ধারণা।

তবে স্বর্ণকাররা জানান, এটি পিতলের তৈরি মূর্তি। মূর্তিটির ওজন এক কেজি ৪২০ গ্রাম। লম্বায় পৌনে আট ইঞ্চি।

নিউজ ট্যাগ: সাতক্ষীরা
Share

আরও খবর