Logo
শিরোনাম

বাংলাদেশে ঢুকতে পারবে না রাশিয়ার ৬৯ জাহাজ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাশিয়ার একটি জাহাজের খবর বেশ কয়েকদিন ধরে আলোচিত। স্পার্টা-৩’ ওরফে উরসা মেজর’ নামের জাহাজটি রুপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের নির্মাণসামগ্রী বহন করে মোংলা বন্দরে ভেড়ার অপেক্ষায় ছিল গত ২৪ ডিসেম্বর থেকে। তার আগেই ২০ ডিসেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বাংলাদেশকে জানানো হয়- এটি মার্কিন নিষেধাজ্ঞার তালিকায় থাকা স্পার্টা-৩’ জাহাজ। এ নিয়ে শুরু হয় আলোচনা-সমালোচনা। পরে বিষয়টি যাচাই করে বাংলাদেশ সরকার নিশ্চিত হয়ে জাহাজটিকে বন্দরে ভিড়তে নিষেধ করে দেয়।

এরপর জাহাজটি ভারতের পশ্চিমবঙ্গের হলদিয়া বন্দরে গিয়ে সরাঞ্জাম খালাসের চেষ্টা করে। কিন্তু জাহাজটি নয়াদিল্লির অনুমতি পেতে ব্যর্থ হলে পণ্য খালাস করতে পারেনি। এ অবস্থায় ১৬ জানুয়ারি ভারত ছেড়ে যায় জাহাজটি।

এদিকে, যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার কবলে থাকা রাশিয়ার আরও ৬৯টি বাণিজ্যিক জাহাজ মোংলা বন্দরে পণ্য নিয়ে আসতে পারছে না। বিশ্বের শিপিং সংস্থার সাতটি কোম্পানির এসব জাহাজকে বন্দরে প্রবেশ, নিবন্ধন, জাহাজ বাঙ্কারিং (তেল সরবরাহ), শ্রেণিকরণ, সনদায়ন, রক্ষণাবেক্ষণ, পুনঃসরবরাহ, রিফুয়েলিং, বীমা এবং অন্যান্য সামুদ্রিক পরিসেবা নিষেধাজ্ঞার আওতায় এনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় থেকে মোংলা বন্দরকে চিঠি দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া পতাকা রেজিস্ট্রেশনকারী সংস্থাকে জাহাজগুলোর জন্য স্থায়ী ও অস্থায়ী যে কোনো রেজিস্ট্রেশন না দিতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বলা হয়েছে।

গত ৫ জানুয়ারি উপসচিব এস এম মোস্তফা কামাল স্বাক্ষরিত চিঠিতে এ নিষেধাজ্ঞার তথ্য বন্দরকে অবহিত করা হয়। নিষেধাজ্ঞার সেই চিঠি এরই মধ্যে দৈনিক ইত্তেফাকের হাতে এসেছে।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের হারবার মাস্টার ক্যাপ্টেন শাহীন মজিদ দৈনিক ইত্তেফাককে চিঠিতে নিষেধাজ্ঞার উল্লেখিত তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

ক্যাপ্টেন শাহীন মজিদ বলেন, মন্ত্রণালয় থেকে আসা মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষে এই চিঠিতে আমেরিকার শিপিং সংস্থার নিষেধাজ্ঞা অনুযায়ী সাতটি কোম্পানি ও ৬৯টি জাহাজের নাম উল্লেখ করা হয়েছে। এরই মধ্যে এই নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়ন করতে ৬৯টি জাহাজের তালিকা বন্দর সংশ্লিষ্ট এজেন্ট ও ব্যবসায়ীদের কাছে পাঠিয়ে দিয়ে এসব জাহাজ মোংলা বন্দরে যেন প্রবেশ করতে না পারে, সেজন্য পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞার কবলে থাকা রাশিয়ার উল্লেখযোগ্য জাহাজগুলোর মধ্যে রয়েছে এম ভি স্পার্টা-১, স্পার্টা-২, বেলোমোরস্কাই, সিজহোবকা, ডিভিনস্কাই জালিভ, ইনযিনার টারবিন, ইনযিনার ভেসনিয়াকব, আইহোহান মাহমাসতাল, ক্যাপ্টেন কোকোভিন, রাইনসিন, মেখানিক আরভেস, মিকালইল লোমোনোসোভ, এস কুজনিসোভ, সাইয়ানি সেভারা, এস এমপি নোভোডিভিনেস্ক ও এস এমপি সেভারোডিভিনেস্ক। রাশিয়ার এসব জাহাজে মেশিনারিজ পণ্য আনার কথা ছিল।

মোংলা বন্দর ব্যবহারকারী এইচ এম দুলাল বলেন, নিষেধাজ্ঞার কবলে থাকা রাশিয়ার ৬৯টি জাহাজের তালিকা বন্দর কর্তৃপক্ষ থেকে হাতে পেয়েছি। আগে থেকে অবহিত করার জন্য কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি, না হলে বড় ধরনের আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হতো।

তিনি আরও বলেন, রাষ্ট্রীয় আদর্শ, মানবাধিকারসহ কিছু মৌলিক বিষয়ে রাষ্টীয়ভাবে স্থিরচিত্ত হওয়া প্রয়োজন। পক্ষ নেওয়ার প্রশ্নে জনমতের প্রতিফলন করা প্রয়োজন, যা গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার উন্নয়ন ছাড়া সম্ভব নয়। এগুলো ফিরে আসলে বাংলাদেশকে আর কেউ ঝুঁকি’র হুমকি দেওয়ার সাহস করবে না।


আরও খবর



হাড়কাঁপানো শীতের কারণে দিল্লিতে স্কুল বন্ধ ঘোষণা

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কনকনে শীতে বিপর্যস্ত ভারতের রাজধানী দিল্লি। এর ফলে সেখানকার সব বেসরকারি স্কুল ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে রাজ্যটির শিক্ষা বিভাগ। এ সময় সরকারি স্কুলগুলোও বন্ধ থাকবে। যদিও শীতকালীন ছুটি শেষে অধিকাংশ স্কুলে আজ সোমবার থেকে পাঠদান কার্যক্রম শুরু করার কথা ছিল।

গতকাল রোববার দিল্লিতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ১ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এটি গত দশ বছরের মধ্যে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা। এরপরই আসে এ ঘোষণা।

এনডিটিভি জানায়, গতকাল শিক্ষা অধিদপ্তরের সার্কুলারে বলা হয়, দিল্লিতে চলমান শৈত্যপ্রবাহের কারণে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত সব বেসরকারি স্কুল বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হলো।

বর্তমানে পুরো উত্তর ভারতে শীতল বাতাসের প্রভাব রয়েছে। দিল্লিতেও শীতের প্রকোপ চলছে। পাঞ্জাব, হরিয়ানা, চণ্ডীগড়, দিল্লি, উত্তরপ্রদেশ, উত্তরাখণ্ড, উত্তর রাজস্থান, বিহার, পশ্চিমবঙ্গ, সিকিম, আসাম, ত্রিপুরা, মধ্যপ্রদেশে কুয়াশা দুই থেকে তিন দিন ধরে জেঁকে বসেছে। যার কারণে ভারতের আবহাওয়া দপ্তর একাধিক সতর্কবার্তাও জারি করেছে।

দিল্লিতে প্রতিদিনই সর্বনিম্ন তাপমাত্রার রেকর্ড ভাঙছে। রোববার ছিল মৌসুমের শীতলতম দিন। এর আগে ২০২১ সালের ১ জানুয়ারি তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল ১ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।


আরও খবর



যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশের গুলিতে বাংলাদেশি তরুণ নিহত

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৬ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টনের কেমব্রিজে পুলিশের গুলিতে সৈয়দ ফয়সাল (২০) নামে এক বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত তরুণ নিহত হয়েছেন। স্থানীয় পুলিশ বিভাগের উদ্ধৃতি দিয়ে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম এনবিসি বোস্টন।

ফয়সালের জন্ম যুক্তরাষ্ট্রেই। তিনি দি ইউনিভার্সিটি অব ম্যাসাচুসেটস আমহার্স্টের শিক্ষার্থী ছিলেন। যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশিরা জানিয়েছেন, ফয়সাল পরিবারের একমাত্র সন্তান ছিলেন।

এনবিসি বোস্টন জানায়, বুধবার দুপুরে চেস্টনাট স্ট্রিটে এ ঘটনা ঘটে। এদিন পুলিশের কাছে ফোন আসে সন্দেহভাজন এক তরুণ একটি অ্যাপার্টমেন্টের জানালা ভেঙে বেরিয়ে যায় এবং তার হাতে ছোরা রয়েছে।

পুলিশের দাবি, তারা ঘটনাস্থলে গিয়ে একটি ভবনের পেছনে ফয়সালকে খুঁজে পায়। পুলিশকে দেখে তিনি দৌড় দিলে পুলিশ সদস্যরাও তাকে ধাওয়া করে।

মিডলসেক্সের ডিস্ট্রিক্ট অ্যাটর্নি মারিয়ান রায়ান বলেন, পুলিশ ধাওয়া করে চেস্টনাট স্ট্রিটে তাকে (ফয়সাল) ঘিরে ফেলে। তখন ফয়সালকে ছুরি ফেলে দিতে বলেন কর্তব্যরত পুলিশ কর্মকর্তা। কিন্তু এই তরুণ ছুরি হাতে নিয়ে পুলিশের দিকে তেড়ে আসছিলেন। তখন পুলিশ বাধ্য হয়ে গুলি ছোড়ে। গুলিবিদ্ধ ফয়সালকে হাসপাতালে নেওয়ার পর চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে পুলিশের গুলিতে ফয়সাল নিহত হওয়ার ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশিরা। বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব নিউ ইংল্যান্ড প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে এবং কেমব্রিজের মেয়র সুমবুল সিদ্দিকীর সঙ্গে দেখা করে প্রতিবাদ জানানোর কর্মসূচি নিয়েছে। দ্রুত ঘটনার তদন্ত করে বিচার দাবি করেন তারা। যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী বাংলাদেশিদের অভিযোগ, ফয়সাল শ্বেতাঙ্গ পুলিশের বর্ণবাদী আচরণের শিকার হয়েছে।


আরও খবর



ছাত্রলীগের সংঘর্ষে রণক্ষেত্র সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৬ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (সিকৃবি) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ চলছে। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৫ জন আহত হয়েছেন। তবে আহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) দুপুরে এই সংঘর্ষের সূত্রপাত ঘটে। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থেমে থেমে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষ চলছে।

সূত্র জানায়, কৃষি অর্থনীতি ও ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদে সম্মেলন ঘোষণাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষের ঘটনায় ইতিমধ্যেই রণক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে সিকৃবি। সংঘর্ষ চলাকালেই ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে সম্মেলন স্থগিত ঘোষণা করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. এমাদুল হোসেন।

সরেজমিন দেখা গেছে, প্রক্টর, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দপ্তরের পরিচালকসহ হল প্রভোস্টদের ওপরও ছাদ থেকে ইট-পাটকেল নিক্ষেপ করা হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছে।

এবিষয়ে বিকেল পৌনে ৫টার দিকে প্রক্টর ড. মনিরুল ইসলাম সোহাগ বলেন, প্রক্টরিয়াল বডি এবং শিক্ষকরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি শান্ত করেছি। এখন শুধু কিবরিয়া হলে কিছু ঝামেলা চলছে। অল্প কিছুক্ষণের মধ্যে আমরা এই হলের পরিস্থিতিও শান্ত করে ফেলবো।

তিনি আরও বলেন, প্রয়োজন পড়েনি বলে আমরা ক্যাম্পাসে পুলিশকে ডাকিনি।


আরও খবর

সিলেটে হোটেল থেকে যুবকের লাশ উদ্ধার

শুক্রবার ২০ জানুয়ারী ২০23




বর্তমান বাজারে ‘সেরা ল্যাপটপ’ যেগুলো

প্রকাশিত:রবিবার ১৫ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নতুন বছরে অনেকেই পুরনো কম্পিউটার পাল্টে নতুন ল্যাপটপ কেনার পরিকল্পনা করেন। বাজারে বর্তমানে বিভিন্ন ধরনের ল্যাপটপ রয়েছে। ফলে প্রয়োজন অনুযায়ী সবচেয়ে ভালো ল্যাপটপটি বাছাই করা সহজ নয়। কোন ল্যাপটপটি কেনা উচিৎ এটি নিয়ে কেউ কেউ দ্বিধায়ও পড়ে যান। এ বছর বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান নতুন নতুন ল্যাপটপ বাজারে এনেছে। ব্র্যান্ড, ফিচার, কনফিগারেশন ইত্যাদি বিবেচনায় দামেরও পার্থক্য রয়েছে এগুলোতে। বর্তমানে বিশ্ববাজার মুদ্রাস্ফীতি মোকাবিলা করছে। ফলে দাম স্বাভাবিকের চেয়ে একটু বেশি মনে হতে পারে। সব মিলিয়ে অসংখ্য ল্যাপটপের মধ্য থেকে কেনার সময় আপনি এই কয়েকটি ল্যাপটপ বিবেচনায় রাখতে পারেন-

সবকিছু বিবেচনায় সবচেয়ে ভালো ল্যাপটপ অ্যাপলের ম্যাকবুক এয়ার এম-২। অনেক উইন্ডোজ ব্যবহারকারীও অ্যাপলের এই ল্যাপটপ (ম্যাকবুক) ক্রয়ের পরামর্শ দেন। ২০২০ সালে বাজারে আসা এম-১ সিরিজের সর্বশেষ ভার্সন ম্যাকবুক এয়ার এম-২। সুন্দর ডিজাইন এবং কর্মক্ষমতার জন্য যে কেউ এটির প্রশংসা করবে। অত্যন্ত দ্রুতগতির এই ল্যাপটপের ব্যাটারি লাইফ সাড়ে ১৬ ঘণ্টা। ফলে দিনের সব কাজ সহজেই করতে পারবেন ব্যবহারকারীরা। ম্যাকবুকটির ১৩ দশমিক ৬ ইঞ্চির লিকুইড রেটিনা ডিসপ্লে রয়েছে। অ্যাপলের এই ল্যাপটপ কিনতে খরচ করতে হবে অন্তত ১ হাজার ১৯৯ মার্কিন ডলার।

শুধু উইন্ডোজ ল্যাপটপের মধ্যে সবচেয়ে ভালো ডেল এক্সপিএস-১৩ প্লাস। যারা ম্যাকবুক কিনবেন না তাদের জন্য এটি হতে পারে সবচেয়ে ভালো বিকল্প। এতে থাকা দ্বাদশ জেনারেশনের ইন্টেল কোর প্রসেসর অসাধারণ কর্মদক্ষতা নিশ্চিত করবে। এই ল্যাপটপের অসুবিধা- এতে হেডফোন জ্যাক নেই। ফলে যাদের হেডফোন জ্যাক প্রয়োজন, তারা ডেলের একই সিরিজের আগের ল্যাপটপগুলো দেখতে পারেন। এছাড়া স্যামসাং গ্যালাক্সি বুক ২ প্রো সিরিজ এবং মাইক্রোসফটের সারফেস ল্যাপটপগুলোও ভালো বিকল্প হতে পারে।

গেমিংয়ের জন্য সবচেয়ে ভালো ল্যাপটপ হতে পারে রেজর ব্লেড ১৫ অ্যাডভান্সড। এতে কোর আই ৭ প্রসেসর এবং এনভিডিয়া আরটিএক্স ৩০৭০ গ্রাফিক্স ব্যবহার করা হয়েছে। এটি কিনতে খরচ করতে হবে প্রায় ২ হাজার ৫০০ মার্কিন ডলার। গেমিং ল্যাপটপের মধ্যে এটি সবচেয়ে ব্যয়বহুল। তবে একটু কমদামে কিনতে চাইলে আসুসের গেমিং ল্যাপটপও বিবেচনায় রাখা যেতে পারে। কম দামে ল্যাপটপ কিনতে চাইলে এইচপি প্যাভিলিয়ন অ্যারো ১৩ ল্যাপটপটি দেখতে পারেন। এতে অন্য অনেক সুবিধার পাশাপাশি রয়েছে রাইজেন ৫০০০ সিরিজ প্রসেসর। এইচপির প্যাভিলিয়ন অ্যারো ১৩ ল্যাপটপের ব্যাটারি লাইফও সন্তোষজনক। এটি কিনতে খরচ করতে হবে ৮০০ মার্কিন ডলারের মতো।


আরও খবর



অস্ট্রেলিয়ার ডেভিড মুরকে আনলো বিসিবি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৯ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাসেল ডোমিঙ্গ পদত্যাগ করায় প্রধান কোচের পদ শূন্য। গুঞ্জন আছে, প্রধান কোচে হিসেবে ফিরতে পারেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। তার আগে অবশ্য বাংলাদেশ ক্রিকেটের হেড অব প্রোগ্রাম হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে ডেভিড মুরকে। বুধবার (১৮ জানুয়ারি) রাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিসিবি বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

৫৮ বছর বয়সী মুর বিসিবির সঙ্গে দুই বছরের চুক্তিতে আগামী মাসেই বাংলাদেশে আসছেন। তিনি বাংলা টাইগার্স, এইচপির প্রোগ্রামগুলোর পরিকল্পনা, কৌশল প্রণয়নে কাজ করবেন বলে বিসিবি জানিয়েছে। ক্রিকেটারদের কোচিং ছাড়াও তিনি স্থানীয় কোচদের মানোন্নয়ন কর্মসূচিও তদারকি করবেন বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানায় বিসিবি।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে পাঠানো এক বার্তায় ডেভিড মুর বলেছেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড়, কোচ ও সাপোর্ট স্টাফদের সঙ্গে কাজ করতে পারবো। দায়িত্ব সামলাবো বিসিবির হেড অব প্রোগ্রামের। তাই আমি বেশ রোমাঞ্চিত। এই কাজ শুরু করার জন্য আমি মুখিয়ে আছি।

অস্ট্রেলিয়ান মুর ক্রিকেট ক্যারিয়ার এতটা প্রসৃদ্ধ নয়। একটি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলার অভিজ্ঞতা আছে। ক্রিকেট ক্যারিয়ার সমৃদ্ধ না হলেও তার কোচিং ক্যারিয়ার বেশ সমৃদ্ধই বলা যায়। নিউ সাউথ ওয়েলস ছাড়াও কাজ করেছেন বারমুডা জাতীয় দলের প্রধান কোচ হিসেবে। এ ছাড়া ২০০৭ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ জাতীয় দলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান কোচ হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেছিলেন তিনি।

নিউজ ট্যাগ: ডেভিড মুর

আরও খবর