Logo
শিরোনাম

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত আকি রহমানের এভারেস্ট জয়

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ নাগরিক আখলাকুর রহমান ওরফে আকি রহমান পৃথিবীর সর্বোচ্চ পর্বত শৃঙ্গ মাউন্ট এভারেস্ট জয় করেছেন। তিনি প্রথম ব্রিটিশ মুসলিম হিসেবে এভারেস্ট জয় করলেন।

শুক্রবার (১৩ মে) আকি রহমানের খালাত ভাই শামীনুর রহমান গণমাধ্যমকে জানান, পবিত্র রমজান মাসে ৪১ বছর বয়সি আকি এভারেস্ট জয়ের যাত্রা শুরু করেন। শুক্রবার সকালে তিনি এভারেস্টের চূড়ায় ওঠেন। নেপাল থেকে শেরপারা তাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শামীনুর আরও বলেন, আকির সঙ্গে তাদের এখনও যোগাযোগ হয়নি । তিনি নিচে নামার পর নেটওয়ার্কের মধ্যে এলে তার এভারেস্ট চূড়ায় আরোহনের ছবি পাওয়া যাবে। এভারেস্টজয়ী আকি নেপাল থেকে লন্ডন যাবেন।


আরও খবর



ভারতে বিমানবন্দরে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, নিহত ২ পাইলট

প্রকাশিত:শুক্রবার ১৩ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ১৮ মে ২০২২ | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভারতের ছত্তিশগড়ে হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত হয়ে দুই পাইলট নিহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার (১২ মে) রাতে ছত্তিশগড়ের রায়পুরের একটি বিমানবন্দরে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পুলিশের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভির প্রতিবেদনে এমনটি বলা হয়েছে।

হিন্দুস্তান টাইমস জানিয়েছে, ছত্তিশগড়ের স্টেট হেলিকপ্টারটি এদিন রাত ৯টা ১০ মিনিটে মানা থানার অধীনে রায়পুরের স্বামী বিবেকানন্দ বিমানবন্দরে একটি অনুশীলনের হেলিকপ্টারটি ভেঙে পড়ে। 

তাৎক্ষণিকভাবে দুর্ঘটনার কারণ জানা যায়নি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে কারিগরি ত্রুটির কারণেই এটি ভেঙে পড়েছে।  সঠিক কারণ খুঁজে বের করার জন্য ডিরেক্টরেট জেনারেল অফ সিভিল এভিয়েশন (ডিজিসিএ) এবং ছত্তিশগড় সরকারের পক্ষ থেকে তদন্ত করা হবে।

এদিকে ঘটনার পরেই ডিজিসিএ ও রাজ্য সরকার এ নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে। মুখ্যমন্ত্রী ভূপেশ বাঘেল মৃতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা ও তার শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, এই দুর্ঘটনায় আমাদের দুজন পাইলটই নিহত হয়েছেন।

পুলিশ জানিয়েছে, দুর্ঘটনায় ক্যাপ্টেন গোপাল কৃষ্ণ পান্ডা এবং ক্যাপ্টেন এপি শ্রীবাস্তব নিহত হয়েছেন। হেলিকপ্টারটিকে অবতরণ করার চেষ্টা সময় এটিতে আগুন ধরে যায়। বাহনটিকে কোনো যাত্রী ছিল না।


আরও খবর



জাফর ইকবালকে হত্যাচেষ্টা মামলায় ফয়জুলের যাবজ্জীবন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৭২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বরেণ্য শিক্ষাবিদ, লেখক এবং শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক অধ্যাপক ড. মুহম্মদ জাফর ইকবাল হত্যাচেষ্টা মামলায় প্রধান আসামি মো. ফয়জুল হাসানের যাবজ্জীবন দিয়েছেন আদালত।

এই মামলায় ফয়জুলের বন্ধু মো. সোহাগ মিয়াকে ৪ বছরের কারাদণ্ড এবং পরিবারের বাকী ৪ সদস্যকে খালাস দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার সিলেটের সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের বিচারক মুহাম্মদ নূরুল আমীন বিপ্লব এ মামলার রায় দেন।

আদালত এসময় ফয়জুলকে ২০ হাজার টাকা এবং সোহাগকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন।

খালাসপ্রাপ্তরা হলেন, ফয়জুলের বাবা আতিকুর রহমান, মা মিনারা বেগম, মামা ফজলুর রহমান ও ভাই মো. এনামুল হাসান। রায় ঘোষণার সময় আসামিরা আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

আদালতের বিশেষ সরকারি কৌঁসুলি মমিনুর রহমান টিটু বলেন, 'এ মামলার ৬২ সাক্ষীর মধ্যে ৩৫ জনের সাক্ষ্যগ্রহণের মাধ্যমে গত ১০ মার্চ সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ করেন আদালত। এরপর গত ২১ ও ২২ মার্চ যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে আদালত মামলার রায় ঘোষণার তারিখ নির্ধারণ করেন।'

মমিনুর রহমান টিটু আরও বলেন, 'মামলার প্রধান আসামি ফয়জুল হাসান আগে থেকেই কারাগারে ছিল। যুক্তিতর্কের শেষ তারিখে বাকি ৫ আসামির জামিন স্থগিত করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আজ সব আসামির উপস্থিতিতে মামলার রায় ঘোষণা করা হয়।'

২০১৮ সালের ৩ মার্চ বিকেল সাড়ে ৫টায় শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের হ্যান্ডবল গ্রাউন্ড সংলগ্ন মুক্তমঞ্চে এক অনুষ্ঠান চলাকালে মঞ্চে বসা অধ্যাপক জাফর ইকবালকে পেছন থেকে মাথায় ছুরিকাঘাত করে এক তরুণ মো. ফয়জুল হাসান।

হামলাকারী ফয়জুলকে তখনই আটক করেন উপস্থিত ছাত্র-শিক্ষকরা। তারপর তাকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা হয়।

গুরুতর আহত অধ্যাপক জাফর ইকবালকে প্রথমে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ও পরবর্তীতে ঢাকায় সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

ঘটনার পরদিন শাবিপ্রবি'র রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইশফাকুল হোসেন বাদী হয়ে সিলেটের জালালাবাদ থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা করেন। মামলাটি তদন্ত করে জালালাবাদ থানার তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও পরিদর্শক শফিকুল ইসলাম।

তদন্ত শেষে সে বছর ৬ মে ফয়জুলকে প্রধান আসামি করে মোট ৬ জনের বিরুদ্ধে সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট ১ম আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন পরিদর্শক শফিকুল ইসলাম।

অভিযোগপত্রের আলোকে সে বছর ৪ অক্টোবর এই ৬ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র গঠন করেন আদালত। পরে ২০২০ সালে সন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনাল গঠিত হলে মামলাটি এই ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়।


আরও খবর



নাটোরে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৬

প্রকাশিত:শনিবার ০৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৬৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নাটোরে দুটি যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে ছয় জন নিহত এবং ২৫ জন আহত হয়েছেন। শনিবার (৭ মে) সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থল থেকে বনপাড়া হাইওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মশিউর রহমান জানান, বনপাড়া-হাটিকুমরুল মহাসড়কের পাটোয়ারী ফিলিং স্টেশনের পাশে ন্যাশনাল ট্রাভেলস এবং জি এম ট্রাভেলস নামে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। তাৎক্ষণিকভাবে জানা গেছে, ঘটনাস্থলে ছয় জন নিহত এবং ২৫ জন আহত হয়েছেন।

বড়াইগ্রাম উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মারিয়ম খাতুন জানান, তিনি এ ঘটনায় পাঁচ থেকে ছয় জন নিহত এবং ২৫ জনের মতো আহত হয়েছেন বলে জানতে পেরেছেন।


আরও খবর



৮ ম্যাচ হেরে লজ্জার রেকর্ড গড়লো মুম্বাই

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৭১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চলতি ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) যেন রোহিত শর্মা ও তার দল মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের কাছে এক দুঃস্বপ্ন। এক এক করে মৌসুমের প্রথম আটটি ম্যাচেই হারের মুখ দেখতে হয়েছে ৫ বারের আইপিএল চ্যাম্পিয়নদের।

লিগে এতদিন মুম্বাইয়ের সাফল্যে রেকর্ড যেমন ছিল সকলের কাছে ঈশ্বর্ণীয়, এবার মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স গড়ল একগুচ্ছ লজ্জার রেকর্ডও।

রবিবার লখনউ সুপার জায়ান্টের বিরুদ্ধে ৩৬ রানে হেরেছে মুম্বাই। এ নিয়ে প্রথম আট ম্যাচের মধ্যে আটটিতেই হেরে আইপিএলের ইতিহাসে লজ্জার রেকর্ড গড়েছে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স। আজ পর্যন্ত আইপিএলে কোনো দল নিজেদের প্রথম আট ম্যাচে হারেনি।

এর আগে ২০১৪ সালে নিজেদের প্রথম পাঁচ ম্যাচে হেরেছিল মুম্বাই। এখনও পর্যন্ত সেটাই ছিল তাদের সব থেকে খারাপ শুরু। যদিও সেই বছর শেষ পর্যন্ত প্লে-অফে ওঠে রোহিতরা। এছাড়া ২০১৩ সালে দিল্লি ক্যাপিটালস (তৎকালীন দিল্লি ডেয়ারডেভিলস) ও ২০১৮ সালে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরু নিজেদের প্রথম ছয় ম্যাচে হেরেছিল।


আরও খবর



পঞ্চগড়ে আবহাওয়া পরিবর্তন, বাড়ছে ডায়রিয়া রোগের প্রকোপ!

প্রকাশিত:সোমবার ২৫ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৫৯জন দেখেছেন

Image

পঞ্চগড় প্রতিনিধি:

পঞ্চগড়ে গত এক সপ্তাহ ধরে ডায়েরিয়া রোগের প্রকোপ বাড়তে শুরু করেছে। গেল ২৪ ঘন্টায় ২৮ জন শিশু ডায়েরিয়া রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিয়েছে। এদিকে প্রতিদিন পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতাল সহ জেলার ৪ উপজেলার সরকারী স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগী ভর্তি হচ্ছে। তবে পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে বেডের অভাবে মেঝেতে চিকিৎসা নিতে দেখা গেছে অধীকাংশ রোগীদের।

রোববার (২৫ এপ্রিল) দুপুর থেকে বিকেল পর্যন্ত পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ঘুরে দেখা গেছে এমন চিত্র।

জানা যায়, এ জেলায় আবহাওয়া পরিবর্তন ও খাদ্যভাসের পরিবর্তনের কারণে দিন দিন ডায়েরিয়া রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। জেলার ৫ উপজেলায় প্রতিদিনই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও জেলার প্রধান চিকিৎসা সেবা কেন্দ্র পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত হয়ে রোগীরা ভর্তি হচ্ছে। তবে ডায়েরিয়ায় বয়স্কের তুলনায় শিশুরাই বেশী আক্রান্ত হচ্ছেন। ফলে দিন দিন বর্হিবিভাগ ও হাসপাতালে রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। ১০০ শয্যা হাসপাতালে শিশু শয্যা/বেড রয়েছে মাত্র ১৬টি কিন্তু প্রতিদিনি তার দ্বিগুন রোগী ভর্তি হচ্ছে। ফলে বেডের অভাবে হাসপাতালে মেঝেতে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছে রোগীরা৷

এদিকে পুরো পঞ্চগড়ের জেলায় একজন মাত্র শিশু বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দিয়ে চলছে চিকিৎসা সেবা। এতে হিমসিম খেতে হচ্ছে হাসপাতাল কতৃপক্ষকে। এছাড়া বাকি চারটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেই কোন শিশু বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক। এছাড়া সময় মতো চিকিৎসক ও নার্সদের ডাকলে পাওয়া যায় না বলে অভিযোগ রোগী ও স্বজনদের। বেশীর ভাগ ওষুধ বাইরে থেকে কিনে নিয়ে আসতে হয় রোগীর স্বজনদের। অনেকেই চিকিৎসা না পেয়ে ভাল চিকিৎসার জন্য পার্শ্ববর্তী জেলা ঠাকুরগাঁওয়ে গিয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তবে হাসপাতাল কতৃপক্ষে বলছে ২৫০ শর্য্যা নির্মাণাধীন হাসপাতালে ভবনের কাজ শেষের দিকে, ভবনের কাজ শেষ হলে সেবার মান আরও বাড়বে ।

চলতি মাসে এ পর্যন্ত প্রায় পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রায় ৫ শতাধিক রোগী ডাইরিয়ার চিকিৎসা গ্রহণ করেছেন। গত ২৪ ঘন্টায় ২৮ জন শিশু ডায়েরিয়া রোগে আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হলেও এর আগে গত মার্চ চিকিৎসা নিয়েছন ২৯৫ জন। 

তেঁতুলিয়া উপজেলার দেবনগড় এলাকার ফারুক হোসেন বলেন, হঠাৎ করে আমার মেয়ের ডায়েরিয়া, পাতলা-পায়খানা ও বমি। বাড়িতে চিকিৎসা করেছি কিন্তু সুস্থ্য না হওয়ায় হাসপাতালে নিয়ে আসছি। তবে আগের চেয়ে অনেকটা সুস্থ্য হয়েছে।

পঞ্চগড় সদর উপজেলার ফাতেমা বেগম বলেন, হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি রাতে আর চিকিৎসক আসলো সকালে। বেড না পেয়ে মেঝেতে থেকে ছেলের চিকিৎসা করাচ্ছি। এখনও কিছু বুঝতেছি না, বমি বন্ধ হলেও পায়খানা বন্ধ হচ্ছে না৷

পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপাতালের জুনিয়র কনসাল্টেন্ট (শিশু বিশেষজ্ঞ) ডা. মনোয়ারুল ইসলাম বলেন, গরম ঠান্ডা মিলে আবহাওয়ার যে বিরুপ প্রভাব তৈরী হয়েছে তা শিশুরা ধারন করতে পারছেনা। এছাড়াও খাদ্যাভাস একটি বড় বিষয়, রমজান মাসে মানুষ তেলে ভাজা ইফতার সামগ্রী খাচ্ছে এসব নানা কারণেই বিভিন্ন পেটের পীড়া দেখা দিচ্ছে। ফলে ডায়েরারি রোগীর আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রতিদিন বর্হি বিভাগ থেকে রোগীদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে । যা বেশী অসুস্থ্য তাদের হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে এবং চিকিৎসার করে সুস্থ্য হয়ে বাড়ি ফিরছন। আমরা আমাদের সাধ্যতো সেবা দিয়ে যাচ্ছি। পাশাপাশি মানুষকে সচেতন থাকার পরামর্শ দিচ্ছি।


আরও খবর