Logo
শিরোনাম

বাস ও ট্রাকের মুখোমুখী সংঘর্ষে ড্রাইভার হেলপার নিহত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১৯৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নওগাঁ  প্রতিনিধি:

নওগাঁর মান্দায় যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে একটি মিনি-ট্রাকের মুখোমুখী সংঘর্ষে ড্রাইভার ও হেলপার নিহত হয়েছেন। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার (২৪ জুন) সকাল সাড়ে ৭টায় উপজেলার নওগাঁ-রাজশাহী মহাসড়কের পঞ্চমীতলা মোড়ে। এ ঘটনায়  নিহতরা হলেন, মিনি-ট্রাকের চালক রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার মৌগাছি ইউনিয়নের টেমা গ্রামের আবদুর রাজ্জাকের ছেলে মাসুদ রানা (২৮) ও তার সহযোগী নোয়াখালী জেলার সুবর্ণচর উপজেলার চকরশিদ গ্রামের বাবর আলী ছেলে রাসেল (২০)।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, নাহার এগ্রো গ্রুপের একটি মিনি-ট্রাক বাড়ন্ত মুরগীর বাচ্চা নিয়ে রাজশাহী থেকে নওগাঁর দিকে যাবার সময় নওগাঁ-রাজশাহী মহাসড়কের পঞ্চমীতলা মোড়ের অদুরে পৌঁছলে নওগাঁ থেকে ছেড়ে আসা শ্যামলী পরিবহণের একটি যাত্রীবাহী বাসের সঙ্গে মুখোমুখী সংঘর্ষে মিনি-ট্রাকের সামনের অংশ দুমড়ে মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান মিনি-ট্রাকের চালক মাসুদ রানা।

মান্দা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শাহিনুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, মিনি-ট্রাকের হেলপার রাসেলকে উদ্ধার করে মান্দা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান তিনি।

দুর্ঘটনা কবলিত বাস ও মিনি-ট্রাক হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও তিনি জানান।


আরও খবর

নওগাঁয় গরু ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা

বৃহস্পতিবার ১৫ জুলাই ২০২১

নওগাঁয় করোনা আক্রান্ত ১০৭

সোমবার ১৪ জুন ২০২১




‘করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় রেখে কোরবানির সুশৃঙ্খল ব্যবস্থাপনা করা হবে’

প্রকাশিত:রবিবার ২৭ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ৯৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় রেখে কোরবানির সুশৃঙ্খল ব্যবস্থাপনা করা হবে। স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে যাতে কোরবানি হয় সে জন্য স্থানীয় সরকার ইউনিটসহ প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তর ও মাঠ প্রশাসন সমন্বিতভাবে কাজ করবে। প্রশাসনকে সহায়তা করার জন্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কাজ করবে। কোন এলাকায় প্রয়োজন হলে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োজিত হবে। কোনভাবেই শৃঙ্খলা যাতে ভঙ্গ না হয় সেজন্য যেখানে যা ব্যবস্থা নেওয়া দরকার, সেটা করা হবে।

রবিবার (২৭ জুন) বিকেলে রাজধানীর ফার্মগেটে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের সম্মেলন কক্ষে আসন্ন ঈদ উল আযহা উপলক্ষ্যে কোরবানির পশুর চাহিদা নিরূপণ, সরবরাহ এবং দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে কোরবানির পশুর অবাধ চলাচল ও পরিবহণ নিশ্চিতকরণ সংক্রান্ত আন্তঃমন্ত্রণালয় সভায় সভাপতির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী আরো বলেন, কোরবানির পশু পরিবহনে যাতে ফেরিতে বা রাস্তায় যাতে সমস্যা সৃষ্টি না হয় সে বিষয়টি কঠোরভাবে মনিটরিং করা হব। পশু পরিবহনের ক্ষেত্রে সড়কে চাঁদাবাজি অথবা ফেরি ঘাটে দীর্ঘ সময় আটকে থাকা অথবা অন্য কোনভাবে সমস্যা যাতে না হয়, সে জন্য সকল ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রয়োজনবোধে প্রতিকূল অবস্থার তাৎক্ষণিক সমাধানে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরে মনিটরিং সেল থাকবে এবং কন্ট্রোল রূম চালু করা হবে। খামারিদের চাহিদার আলোকে সড়ক পথের পাশাপাশি রেলের মাধ্যমে পশু পরিবহনের ব্যবস্থা করা হবে।

কোরবানির ব্যবস্থাপনা করোনা পরিস্থিতির উপর নির্ভর করবে উল্লেখ করে মন্ত্রী আরো যোগ করেন, কোরবানি দিতে গিয়ে ভয়ঙ্কর পরিস্থতির ভিতর কেউ না পড়ুক, এটা আমরা চাইবো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চান করোনা মহামারির মধ্যে সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে কোরবানিসহ অন্যান্য ধর্মীয় আনুষ্ঠানিকতা চালিয়ে নিতে। আশা করছি এবছর কোরবানির ব্যবস্থাপনা অন্যান্য বছরের তুলনায় আরো সুশৃঙ্খল হবে। এবছরও সম্পূর্ণ দেশীয় গবাদিপশু দিয়ে কোরবানির পশুর চাহিদা মেটানো সম্ভব হবে। দেশে চাহিদার তুলনায় উদ্বৃত্ত পশু রয়েছে। বিদেশ থেকে গবাদিপশু আমদানির কোন প্রয়োজন নেই। সীমান্ত পথে বিদেশ থেকে অবৈধভাবে যাতে গবাদিপশু আসতে না পারে নে ব্যাপারে কঠোর পদক্ষে নেওয়া হবে।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব রওনক মাহমুদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শাহ্ মোঃ ইমদাদুল হক, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডাঃ শেখ আজিজুর রহমানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, জননিরাপত্তা বিভাগ, স্থানীয় সরকার বিভাগ, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়, রেলপথ মন্ত্রণালয়, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ পুলিশ, র‌্যাব, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ, সংশ্লিষ্ট অন্যান্য দপ্তরের প্রতিনিধিগণ এবং ডেইরি অ্যাসোসিয়েশনের প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন। এছাড়া বিভাগীয় কমিশনারগণ, জেলা ও উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তাগণ সভায় ভার্চুয়ালি অংশগ্রহণ করেন।

 

 


আরও খবর



বাংলাদেশি তরুণীকে গণধর্ষণের ঘটনায় বেঙ্গালুরুতে গ্রেপ্তার ১২

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ৬৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে ১১ জনই বাংলাদেশের নাগরিক। গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের নাম ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো উল্লেখ করেনি। তবে জানানো হয়ে, গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের মধ্যে দুজন নারী। বেঙ্গালুরুর পুলিশ কমিশনার কমল পন্থ এ বিষয়ে টুইট করেছেন। টুইটে তিনি বলেছেন, মাত্র পাঁচ সপ্তাহের মধ্যে তদন্ত শেষ করা হয়েছে। আদালতে অভিযোগপত্রও দাখিল করা হয়েছে। এনডিটিভি

তদন্ত দ্রুত শেষ করে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিলের জন্য তদন্তকারী দলের প্রশংসা করেছেন বেঙ্গালুরুর পুলিশ কমিশনার। তদন্তকারী দলের জন্য ১ লাখ রুপি পুরস্কার অনুমোদন দেওয়ার কথাও জানান তিনি। ওপিআই ইন্ডিয়া

গত মে মাসে বাংলাদেশের ওই তরুণীকে নির্যাতন করা হয়। এই ঘটনার ভিডিও যোগাযোগের সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। ২২ বছর বয়সী ওই তরুণীকে নির্যাতনের পর গণধর্ষণ করা হয়েছিল বলেও অভিযোগ।

এর আগে গত ২৮ মে ভিডিও ভাইরাল হওয়ার ঘটনায় ছয়জনকে গ্রেপ্তার করে বেঙ্গালুরু পুলিশ। তাদের মধ্যে টিকটক হৃদয়সহ দুজন পালাতে গিয়ে গুলিবিদ্ধ হয়। রিফাদুল ইসলাম হৃদয় ওরফে টিকটক হৃদয় নামের ওই যুবক ঢাকার মগবাজার এলাকার বাসিন্দা। নির্যাতনের শিকার মেয়েটিও ঢাকার একই এলাকার বাসিন্দা।

এ ঘটনায় হাতিরঝিল থানায় হৃদয়সহ পাঁচজনকে আসামি করে মানব পাচার ও পর্নোগ্রাফি আইনে মামলা করেছিলেন মেয়েটির বাবা। তিনি মামলায় বলেছেন, তার মেয়েকে মধ্যপ্রাচ্যে পাঠানোর কথা বলে ভারতে নিয়ে যান হৃদয়।

নিউজ ট্যাগ: গণধর্ষণ ভারত

আরও খবর



করোনায় প্রাণ গেল আরও ২২৫ জনের

প্রকাশিত:রবিবার ১৮ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৬৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
করোনায় আক্রান্ত হিসেবে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরও ১১ হাজার ৫৭৮ জন। এ নিয়ে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১ লাখ ৩ হাজার ৯৮৯ জনে

মহামারি করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) আঘাতে সংক্রমণ ও মৃত্যুর মিছিল ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এ ভাইরাসে সারা দেশে আরও ২২৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে করোনায় দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ১৭ হাজার ৮৯৪ জনে।

একই সময়ে করোনায় আক্রান্ত হিসেবে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরও ১১ হাজার ৫৭৮ জন। এ নিয়ে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১১ লাখ ৩ হাজার ৯৮৯ জনে।

রবিবার (১৮ জুলাই) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

গত ১১ জুলাই দেশে সর্বোচ্চ মৃত্যুর রেকর্ড হয়।সেদিন ২৩০ জন মারা যান।আর গত ৭ জুলাই দেশে প্রথমবারের মতো ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু ২০০ ছাড়িয়ে যায়।সেদিন ২০১ জনের মৃত্যুর তথ্য দেয় সরকারের স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।তার পর থেকেই প্রতিদিন রেকর্ড মৃত্যু হতে থাকে।শনাক্তেও রেকর্ড হতে থাকে।

গত ১৫ জুলাই দেশে মৃত্যু হয়েছিল ২২৬ জনের।আগের দিন (১৪ জুলাই) ২১০ জন, ১৩ জুলাই ২০৩ এবং ১২ জুলাই ২২০ জনের মৃত্যু হয়।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



ঠাকুরগাঁওয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় অটোরিক্সার ৩ যাত্রী নিহত

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | ৬৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধিঃ

ঠাকুরগাঁওয়ে ট্রাকের ধাক্কায় ব্যাটারীচালিত অটোরিক্সার তিনজন যাত্রী নিহত হয়েছেন। এছাড়াও এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও দুইজন।

বৃহস্পতিবার(১৫ জুলাই) দুপুর ১টার দিকে উপজেলার আউলিয়াপুর ইউনিয়নের বোর্ড অফিস নামক এলাকার ঠাকুরগাঁও-পঞ্চগড় মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন, ঠাকুরগাঁও সদর উপজেলার সালান্দর ইউনিয়নের বাসিন্দা মজিবর রহমান (৪৫), আউলিয়াপুর ইউনিয়নের কচুবাড়ি এলাকার বাসিন্দা চঞ্চল (৩৫) ও কচুবাড়ি এলাকার সুরজ আলীর ছেলে গোলাম মোস্তাফা (৪৫)।

আহতরা হলেন: কচুবাড়ি এলাকার মোটাই মিয়ার ছেলে জহিরুল ইসলাম (৪০) ও সদরের সালন্দর ইউনিয়নের শিংপাড়া গ্রামের সফির উদ্দীনের ছেলে রবিউল ইসলাম (৩৩)।

প্রত্যক্ষদর্শীর বলেন, দুপুরে ঠাকুরগাঁও শহর থেকে একটি ট্রাক পঞ্চগড়ে যাচ্ছিল। পথে সদরের আউলিয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদের পূর্ব দিকের সড়ক থেকে একটি মোটরসাইকেল পঞ্চগড় মহাসড়কে উঠছিল। অপরদিকে আউলিয়াপুর ইউনিয়ন পরিষদের পশ্চিম দিকের সড়ক থেকে একটি ট্রাক পঞ্চগড় মহাসড়কে উঠছিল। এসময় ঠাকুরগাঁও শহর থেকে ছেড়ে যাওয়া ট্রাকটি ওই মোটরসাইকেলটিকে বাঁচাতে গেলে মহাসড়কের উপর দাঁড়িয়ে থাকা ব্যাটারীচালিত অটোরিক্সাকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে অটোরিক্সার যাত্রী মজিবর রহমান ও চঞ্চল মারা যায়।

পরে স্থানীয় লোকজন আহত অবস্থায় অটোরিক্সার যাত্রী জহিরুল ইসলাম,রবিউল ইসলাম ও গোলাম মোস্তফাকে উদ্ধার করে ঠাকুরগাঁও আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এসময় চিকিৎসাধীন অবস্থায় গোলাম মোস্তফার মৃত্যু হয়।

হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডাঃ রকিবুল আলম চয়ন বলেন, সড়ক দুর্ঘটনায় আহত তিনজনের মধ্যে একজনের মৃত্যু হয়েছে। বাকী দুইজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক, তাদেরকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। অবস্থার অবনতি হলে তাদেরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হবে।

ঠাকুরগাঁও পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ঘটনাস্থল থেকে দুইটি ট্রাককে আটক করা হয়েছে। তবে দুর্ঘটনার পর ট্রাকের চালকরা পালিয়ে গেছে, তাকে আটক করতে আমাদের অভিযান চলছে। এ দুর্ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার প্রস্তুতি চলছে।


আরও খবর



দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় গবেষণা অপরিহার্য : মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

প্রকাশিত:শনিবার ২৬ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ৬১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় গবেষণা অপরিহার্য বলে মন্তব্য করেছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম। শনিবার (২৬ জুন) রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট (বিএলআরআই) কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন পোল্ট্রি গবেষণা ও উন্নয়ন জোরদারকরণ প্রকল্পের ইনসেপশন, অগ্রগতি ও পর্যালোচনা কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ মন্তব্য করেন।

এ বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, দেশের উন্নয়ন ও সমৃদ্ধিতে প্রাণিসম্পদ খাতের ব্যাপক ভূমিকা রাখার সুযোগ রয়েছে। এ খাতের বর্তমান অবস্থাকে ছাড়িয়ে আরো সামনে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে। পোল্ট্রি খাতের উন্নয়ন জোরদার করার জন্য গবেষণাকে সম্প্রসারিত করতে হবে, আরো গভীরে যেতে হবে। বিজ্ঞানী ও গবেষকদের মেধাকে আরো বিকশিত করতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা প্রতিটি খাতে গবেষণায়ে জোর দেওয়ার কথা বলেন। গতানুগতিকতার বাইরে যখনই গবেষণায় গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে তখনই সারাদেশে পোল্ট্রি খাত বিকশিত হয়েছে। এতে পুষ্টি চাহিদা পূরণের মাধ্যমে মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়েছে, গড় আয়ু বেড়েছে, মাতৃমৃত্যু কমেছে, শিশু মৃত্যু কমেছে। এমনকি করোনায় সৃষ্ট বেকাররা পোল্ট্রি খাতে নিজেদের সম্পৃক্ত করে তাদের বেকারত্ব দূর করছে, উদ্যোক্তা হচ্ছে। এতে গ্রামীণ অর্থনীতি সচল হচ্ছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতির পিতার স্বপ্ন ও সাধনাকে বাস্তবায়নে পরিশ্রম করে যাচ্ছেন উল্লেখ করে এসময় মন্ত্রী বলেন, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতের উন্নয়নে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অসাধারণ দূরদৃষ্টি ছিল। যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশ পুনর্গঠনে বঙ্গবন্ধু প্রাণিসম্পদ খাতকে গুরুত্ব দিয়েছিলেন। তাঁর দৃষ্টি অত্যন্ত পরিকল্পিত ও বিজ্ঞানসম্মত ছিল। তাঁর সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি মাংস, দুধ, ডিম সংক্রান্ত খাতকে সম্প্রসারণের লক্ষ্যে পোল্ট্রি গবেষণা ও উন্নয়ন জোরদারকরণ প্রকল্পসহ এ খাতের সকল প্রকল্পকে গুরুত্ব দিচ্ছেন।

বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. মোঃ আবদুল জলিলের সভাপতিত্বে কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ। সম্মানীয় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ তৌফিকুল আরিফ এবং প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডাঃ শেখ আজিজুর রহমান। স্বাগত বক্তব্য ও প্রকল্পের কার্যক্রম উপস্থাপন করেন প্রকল্প পরিচালক ড. মোঃ সাজেদুল করিম সরকার। মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ, বিএলআরআই ও প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের প্রাক্তন ও বর্তমান কর্মকর্তা ও বিজ্ঞানীগণ এবং পোল্ট্রি খাতের বিশেষজ্ঞ ও বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিবৃন্দ কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ প্রাণিসম্পদ গবেষণা ইনস্টিটিউট পোল্ট্রি গবেষণা ও উন্নয়ন জোরদারকরণ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। জুলাই ২০১৯ থেকে জুন ২০২৪ মেয়াদে ১২৭ কোটি ৮৫ লক্ষ টাকা ব্যয়ে এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। প্রকল্পটি রাজশাহী জেলার গোদাগাড়ি, বান্দরবান জেলার নাইক্ষ্যংছড়ি, যশোর জেলার সদর উপজেলা, ফরিদপুর জেলার ভাংগা এবং নীলফামারী জেলার সৈয়দপুরে বাস্তবায়িত হচ্ছে। প্রকল্পের অন্যতম উদ্দেশ্য হচ্ছে পোল্ট্রি প্রজাতি সংগ্রহ, সংরক্ষণ, জাত উন্নয়ন এবং অধিক মাংস ও ডিম উৎপাদনশীল স্ট্রেইন উদ্ভাবন, অপ্রচলিত ও বিদ্যমান পোল্ট্রি খাদ্য উপাদানসমূহের পুষ্টিমান নিরূপণ এবং গবেষণার মাধ্যমে সাশ্রয়ী মূল্যে পোল্ট্রির মাংস ও ডিমের প্রক্রিয়াজাতকরণ ও মূল্য সংযোজন, গবেষণার মাধ্যমে নিরাপদ মাংস ও ডিমের উৎপাদন বৃদ্ধি, পোল্ট্রি খামারিদের প্রযুক্তিগত সহযোগিতা প্রদান ও আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন এবং বিএলআরআই-এর পোল্ট্রি বিষয়ক গবেষণা কার্যক্রমের গুণগতমান বৃদ্ধির লক্ষ্যে দেশি-বিদেশি বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান ও ল্যাবের সাথে সমন্বিত গবেষণা কার্যক্রম পরিচালনার সুযোগ সৃষ্টি।


আরও খবর