Logo
শিরোনাম

বায়তুল মোকাররমে ঈদের ৫ জামাত

প্রকাশিত:সোমবার ০২ মে 2০২2 | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৭৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে ঈদের নামাজের ৫টি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ইসলামিক ফাউন্ডেশন জানিয়েছে, ঈদের দিন সকাল ৭টা, ৮টা, ৯টা, ১০টা ও ১০টা ৪৫ মিনিটে বায়তুল মোকাররমে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বুয়েটে ঈদ জামাত

 ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে ঈদুল ফিতরের প্রধান জামাত সকাল সাড়ে ৭টায় অনুষ্ঠিত হবে। এই জামাতে ইমামতি করবেন বংশাল বড় জামে মসজিদের খতিব শাইখ মুহাম্মাদ মোস্তফা সালাফি।

বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বুয়েট) ঈদুল ফিতরের নামাজের জামাত সোয়া ৭টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের খেলার মাঠে অনুষ্ঠিত হবে।

তবে মাঠে কোনো কারণে জামাত আয়োজন করা সম্ভব না হলে বুয়েটের নির্ধারিত তিনটি মসজিদে ঈদ জামাত আয়োজন করা হবে।

সংসদ ভবনে ঈদের জামাত

জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজের জামাত সকাল সাড়ে ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে। এ জামাত সর্বসাধারণের জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

এছাড়া রাজধানীর ধানমন্ডির তাকওয়া মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায় ও সাড়ে ৯টায়, ধানমন্ডি ঈদগাহ জামে মসজিদে সকাল ৮টায়, মিরপুর দারুস সালাম এলাকার মীর বাড়ি আদি (মাদবর বাড়ি) জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায় ও সকাল ৯টায়, মিরপুর ১২ নম্বর সেকশনের হারুন মোল্লাহ্ ঈদগাহে সকাল সাড়ে ৭টায়, মতিঝিলের আরামবাগের দেওয়ানবাগ শরিফে সকাল ৮টা ও সাড়ে ৯টায়, বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় মারকাজুল ফিকহিল ইসলামী মসজিদে সকাল ৭টায়, বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার সি ব্লকে উম্মে কুলসুম জামে মসজিদ (সি ব্লক) সকাল সোয়া ৭টায়, সকাল সাড়ে ৭টায় এফ ব্লক জামে মসজিদে, সকাল ৮টায় বায়তুল জান্নাত জামে মসজিদ (জি ব্লক), সকাল সাড়ে ৮টায় ফকিহুল মিল্লাত জামে মসজিদে (এন ব্লক) ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া গুলশান সেন্ট্রাল মসজিদে সকাল ৬টা, সাড়ে ৭টা ও ৯টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে।


আরও খবর



বাড়ি আরশোলা-মুক্ত করার ৩ টি উপায়

প্রকাশিত:শনিবার ২১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ২০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

এমনও নারী আছেন যারা একটা আরশোলা দেখলে এতোটা ভায় পান যে, সাপ দেখলেও হয়তো ততটা ভয় পাননা। আরশোলাকে আপাত দৃষ্টিতে নিরীহ গোছের সাধারণ পোকা মনে হলেও এটি কিন্তু অত্যন্ত ক্ষতিকর! কারণ, আরশোলা ময়লা আবর্জনা থেকে উঠে আসে আরশোলার গায়ে বা পায়ের সঙ্গে নানা ক্ষতিকর রোগ-জীবানু বহন করে বেড়ায়।

আপনার সারা ঘরময় ঘুরে বেড়ায়, খাবার-দাবারের উপর হেঁটে বেড়ায়। ফলে আরশোলা গায়ে বা পায়ে লেগে থাকা ক্ষতিকর জীবাণু আমাদের খাবারের সংস্পর্শে আসে আমাদের ক্ষতি করে। নানা রোগ-জীবানু ছড়ায় এই আরশোলার থেকেই। তাই ঘর-বাড়ি থেকে আরশোলা দূর করা অত্যন্ত জরুররি।

আসুন জেনে নেওয়া যাক বাড়ি আরশোলা-মুক্ত করার ৩ টি উপায়।

১) চিনি ও বেকিং সোডার ব্যবহার: আরশোলা বেকিং সোডার গন্ধ একেবারেই সহ্য করতে পারে না। সমপরিমাণ চিনি আর বেকিং সোডা একসঙ্গে মিশিয়ে বাড়ির সব কোনায় কোনায় ছড়িয়ে দিন। চিনির গন্ধে আরশোলা আকৃষ্ট হয়ে বেকিং সোডা মিশ্রিত চিনি খেয়ে মারা পড়বে। সপ্তাহে দু দিন করে অন্তত তিন সপ্তাহ এই পদ্ধতিটি কাজে লাগাতে পারলে আরশোলার উপদ্রব থেকে একেবারে মুক্তি পাওয়া যাবে।

২) বোরিক পাউডারের ব্যবহার: বোরিক পাউডার মূলত একধরণের অ্যাসিডিক উপাদান যা পোকামাকড়ের যন্ত্রণা কমাতে সহায়ক। তবে আরশোলার উপদ্রব বন্ধ করার ক্ষেত্রেও বোরিক পাউডারের ব্যবহার করা চলে। ১ চামচ বোরিক পাউডার, ২ চামচ ময়দা বা আটা আর ১ চামচ কোকো পাউডার এক সঙ্গে ভাল করে মিশিয়ে নিয়ে এই মিশ্রণটি বাড়ির সব কোনায় কোনায় ছড়িয়ে দিন। আরশোলা এই মিশ্রণে আকৃষ্ট হয়ে বোরিক পাউডার খেয়ে মারা পড়বে। সপ্তাহে তিন দিন করে অন্তত দু সপ্তাহ এই পদ্ধতিটি ব্যবহার করতে পারলে আরশোলার উপদ্রব থেকে একেবারে মুক্তি পাওয়া যাবে।

৩) তেজপাতার ব্যবহার: আরশোলা তাড়ানোর সবচেয়ে সহজ ও সস্তা উপাদান হল তেজপাতা। তেজপাতার তীব্র গন্ধ আরশোলা একেবারেই সহ্য করতে পারে না। তেজপাতা গুঁড়ো করে বাড়ির সব কোনায় কোনায় ছড়িয়ে দিন। সপ্তাহে অন্তত দুদিন এই ভাবে তেজপাতা গুঁড়ো ছড়িয়ে দিতে পারলে আরশোলার উপদ্রব থেকে একেবারে মুক্তি পাওয়া যাবে।

নিউজ ট্যাগ: আরশোলা

আরও খবর



ব্যর্থ ম্যানইউতেই থাকতে চান রোনালদো

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৪৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মৌসুমটা একেবারেই ভালো যায়নি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের। প্রতিটি প্রতিযোগিতা শেষ হয়েছে ব্যর্থতায়। এমনকি লিগ টেবিলে সেরা চারে না থাকায় আগামী মৌসুমে খেলা হবে না চ্যাম্পিয়নস লিগেও।

এমন পরিস্থিতিতে দলের সেরা তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর ক্লাব ছাড়ার গুঞ্জনও শোনা যাচ্ছিল। ম্যানইউতে থাকলে চ্যাম্পিয়নস লিগের সবচেয়ে সফল খেলোয়াড়টিকে আগামী মৌসুমে দর্শক হয়েই থাকতে হবে। তবে চ্যাম্পিয়নস লিগে খেলার সুযোগ না হলেও যদি কোচ এরিক টেন হাগ চান তবে ম্যানইউতেই থেকে যেতে চান রোনালদো। সতীর্থদের নাকি এমনটাই বলেছেন তিনি।

ম্যানইউর ভেতরের এক সূত্রের বরাত দিয়ে সান স্পোর্টস জানায়, যেভাবে মৌসুমটা এগিয়েছে, তাতে রোনালদোর চেয়ে বেশি আর কেউ হতাশ নন। তবে তিনি এভাবে হাল ছেড়ে দিয়ে ক্লাব ছাড়তে চান না। তিনি ক্লাবকে আগামী মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগে ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে এবং শিরোপা জয়ের ক্ষেত্রে সহায়তা করতে চান।

তবে দায়িত্ব নেওয়ার অপেক্ষায় থাকা টেন হাগের সবুজ সংকেত পেলেই কেবল ম্যানইউতে থাকবেন রোনালদো। সূত্রটি আরও বলে, তিনি সতীর্থদের বলেছেন, যদি কোচ ভিন্ন পথে যেতে চায়, তবে কোনো কষ্ট না পুষেই ক্লাব ছাড়বেন রোনালদো। পাশাপাশি ওল্ড ট্রাফোর্ডে ফিরে আসা নিয়েও তাঁর কোনো হতাশা নেই।


আরও খবর



আলোচিত জাহাঙ্গীর হত্যা মামলায় ২ জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মানিকগঞ্জের ঘিওরে প্রাইভেটকারচালক জাহাঙ্গীর আলম হত্যা মামলায় দুই আসামিকে মৃত্যুদণ্ড ও চারজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

সোমবার (১৭ মে) বিকেলে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক উৎপল ভট্টাচার্য্য এ রায় ঘোষণা করেন।

নিহত জাহাঙ্গীর আলম ময়মনসিংহের হালুয়াঘাট উপজেলার মুকলেসুর রহমানের ছেলে।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন-ওমর হোসেন সাইফুল (পলাতক) ও আরিফুজ্জামান সজীব (পলাতক)। ফাঁসির পাশাপাশি তাদের ৫০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- আব্দুল্লাহ আল মামুন, ফরহাদ হোসেন, মোহাম্মদ আলী সীমান্ত (পলাতক) ও আজিম খান। তাদের প্রত্যেকের বাড়ি টাঙ্গাইলের নাগরপুরে।  সেই সঙ্গে তাদের ১০ হাজার টাকা করে অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও দুই মাস করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দণ্ডিত করা হয়।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২০১১ সালের ২৮ জানুয়ারি ঘিওর উপজেলার কুসন্ডা এলাকায় চালক জাহাঙ্গীর আলমকে শ্বাসরোধে হত্যা করে প্রাইভেটকার নিয়ে পালিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। খবর পেয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনার দিন রাতেই ঘিওর থানার সেই সময়ের উপ-পরিদর্শক (এসআই) লুৎফর রহমান বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় ছয়জনকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

এরপর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ঘিওর থানার সেই সময়ের এসআই এনামুল হক চৌধুরী ২০১২ সালের ২৬ ফ্রেরুয়ারি ছয়জনের নামে আদালতে চার্জশিট দেন। এ ঘটনায় ১৬ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে অভিযোগ প্রমাণ হওয়ায় অপরাধের মাত্রা অনুযায়ী এ রায় দেন আদালত। রায় ষোঘণার সময় তিনজন আসামি উপস্থিতি ছিলেন, বাকিরা পলাতক।

এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট এপিপি নিরঞ্জন বসাক। আসামিপক্ষে ছিলেন অ্যাডভোকেট জহিরুল ইসলাম ও আহসান হাবীব।


আরও খবর



পাকিস্তানে আত্মঘাতী বোমা হামলায় শিশু, সেনাসহ নিহত ৬

প্রকাশিত:রবিবার ১৫ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৪৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পাকিস্তানের উত্তর ওয়াজিরিস্তানের মিরানশাহে আত্মঘাতী বোমা হামলায় তিন সেনাসহ ছয়জন নিহত হয়েছেন। আজ রোববার পাকিস্তানের আন্তবাহিনী জনসংযোগ পরিদপ্তর (আইএসপিআর) এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানিয়েছে। খবর দ্য ডনের।

আইএসপিআরের বিবৃতিতে বলা হয়, নিহতদের মধ্যে তিন সেনা সদস্য ও তিন শিশু রয়েছে।

নিহতরা হলেন-ল্যান্স হাভালদার জুবায়ের কাদির (৩৩), কাসিম মাকসুদ (২২), উজাইর আসফার (২১), আহমেদ হাসান (১১), আহসান (৮) ও আনুম (৪)।

আইএসপিআরের বিবৃতিতে আরও বলা হয়েছে, পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো আত্মঘাতী ওই হামলাকারী ও তার সহযোগীদের চিহ্নিত করতে তদন্ত শুরু করেছে।

দ্য ডনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরীফ আত্মঘাতী হামলার নিন্দা করেছেন এবং নিহতদের জন্য শোক প্রকাশ করেছেন। তিনি প্রধানমন্ত্রী নিহত সেনা সদস্যদের প্রতি বিশেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন এবং শিশুদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

শেহবাজ শরীফ বলেন, নিরীহ শিশুদের হত্যাকারীরা ইসলাম ও মানবতার শত্রু। এই বর্বরতা নির্মূল না হওয়া পর্যন্ত আমরা বসে থাকব না।’


আরও খবর



নকল স্বর্ণ বিক্রয় করার সময় ধরা খেল দুই প্রতারক

প্রকাশিত:শুক্রবার ২২ এপ্রিল 20২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৭৩জন দেখেছেন

Image

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালীর সেনবাগে নকল স্বর্ণ বিক্রয় করার সময় সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের দুই সদস্যকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী।

গ্রেফতারকৃতরা হলেন আমির হোসেন (২৭) ও আরিফ হোসেন (৩২)। তারা লক্ষ্মীপুর জেলার চন্দ্রগঞ্জ থানার পশ্চিম মান্দারী গ্রামের বাসিন্দা।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২১ এপ্রিল) বিকালে উপজেলার কাবিলপুর ইউনিয়নের ছমিরমুন্সির হাট বাজারে এ ঘটনা ঘটে। নকল স্বর্ণ বিক্রয় করার সময় স্থানীয় জনগণ তাদের আটক করে সেনবাগ থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে যায়।

পুলিশসূত্রে জানা যায়, সংঘবদ্ধ চক্রের সদস্যরা নোয়াখালীসহ  দেশের বিভিন্ন স্থানে স্বর্ণের বার, কানের দুল, স্বর্ণের চেইন ইত্যাদি আছে মর্মে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নিতেন। এরা ট্রেনিং প্রাপ্ত ও দুর্ধর্ষ বলে জানা যায়। বিভিন্ন কৌশলে তারা এলাকার নারীদের প্রতারণার ফাঁদে ফেলে নকল সোনার বিনিময়ে অর্থ আদায় করে।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি আরও জানান, বেগমগঞ্জের এক নারীর সাথে একই রকম ভাবে প্রতারণা করে এই দুই প্রতারক। তাদের আটক হওয়ার খবর পেয়ে সেনবাগ থানায় এসে ওই নারী প্রতারকদের সনাক্ত করলে প্রতারকদের বেগমগঞ্জ থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। তিনি আরও বলেন, ভুক্তভোগী নারী বেগমগঞ্জ থানায় মামলা দায়ের করলে আটককৃত আসামিদের ওই মামলায় গ্রেফতারকৃত দেখিয়ে শুক্রবার দুপুরে বিচারিক আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হবে।



আরও খবর