Logo
শিরোনাম

বেসরকারি খাতে দাম কমল এলপিজির

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৯ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ১৪১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিশ্ববাজারের সঙ্গে সমন্বয় করে তরলীকৃত প্রাকৃতিক গ্যাসের (এলপিজি) দাম বেসরকারি খাতে কমিয়েছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)। বেসরকারি খাতে ১২ কেজি সিলিন্ডারের খুচরা মূল্য ৯৭৫ টাকা থেকে কমিয়ে ৯০৬ টাকা করা হয়েছে। আগামী ১ মে থেকে তা কার্যকর হবে।

সরকারি সাড়ে ১২ কেজি এলপিজির দাম আগের ৫৯১ টাকাই থাকছে। গাড়িতে ব্যবহৃত এলপিজির নতুন দাম প্রতি লিটার ৪৪ টাকা ৭০ পয়সা। এর আগে এটি ছিল ৪৭ টাকা ৯২ পয়সা।

আজ বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে নতুন দাম ঘোষণা করে বিইআরসি। দাম কার্যকর করা নিয়ে বিইআরসির চেয়ারম্যান মো. আবদুল জলিল বলেন, আদেশ বাস্তবায়নে কমিশন অবশ্যই ব্যবস্থা নেবে।

সংবাদ সম্মেলনে বিইআরসির চেয়ারম্যান বলেন, সৌদি সিপির ভিত্তিতেই দাম সমন্বয় করা হয়েছে। তাই এর বাইরে অন্যকিছু বিবেচনা করা হয়নি। প্রপেন ও বিউটেনের প্রতি টন সৌদি সিপি গড়ে ৫৪০ দশমিক ৫০ মার্কিন ডলার ধরে হিসাব করা হয়েছে। এর সঙ্গে সম্পর্কিত মূসক ও ডলারের বিপরীতে টাকার মান ধরে আনুপাতিকহারে পরিবর্তন হয়েছে।

দাম ঘোষণার আদেশে বলা হয়, দাম সমন্বয়ে গঠিত বিইআরসির কমিটি ২৫ এপ্রিল কমিশনের কাছে প্রস্তাব করে। এরপর ২৮ এপ্রিল অনলাইনে শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। এতে নতুন দাম চূড়ান্ত করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিইআরসির সদস্য মোহম্মদ আবু ফারুক, মকবুল ই ইলাহি চৌধুরী, মোহাম্মদ বজলুর রহমান, মো. কামরুজ্জামান প্রমুখ।

নিউজ ট্যাগ: এলপিজি

আরও খবর



ঈদের দিনসহ ৬ দিন গ্যাস থাকবে না যেসব এলাকায়

প্রকাশিত:সোমবার ১০ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৪৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জাতীয় গ্যাস গ্রিডের সক্ষমতা বৃদ্ধি ও জরুরি রক্ষণাবেক্ষণ কার্যক্রমের জন্য সোমবার (১০ মে) সকাল ৬টা থেকে শনিবার (১৫ মে) রাত ১০টা পর্যন্ত এবং ঈদুল ফিতরের দিন ও পরের দিন বিবিয়ানা ও বাঙ্গুরা গ্যাসক্ষেত্র আংশিক বা সম্পূর্ণ বন্ধ থাকবে।

জাতীয় গ্যাস গ্রিডের সক্ষমতা বৃদ্ধি ও জরুরি রক্ষণাবেক্ষণ কার্যক্রমের জন্য এই গ্যাসক্ষেত্র বন্ধ থাকবে। সোমবার (১০ মে) সংবাদমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে তিতাস কর্তৃপক্ষ এ তথ্য জানিয়েছে।

এতে এই সময়ে এলেঙ্গা, টাঙ্গাইল, নরসিংদী, জয়দেবপুর, ধনুয়া, আমিনবাজার, আশুলিয়া, সাভার, মানিকগঞ্জ, মাধবদী, ভুলতা, আড়াইহাজার, তারাবো ও আশপাশের এলাকায় গ্যাসের চাপ কম থাকবে। গ্রাহকদের এই সাময়িক অসুবিধার জন্য তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করেছে।  


আরও খবর



মালয়েশিয়ায় অবৈধ অভিবাসী কর্মীদের বৈধতা দেয়ার ঘোষণা

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ৭৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মালয়েশিয়ায় নতুন করে সেবা খাতের আরও চারটি উপ শাখায় অবৈধ অভিবাসী কর্মীদের বৈধতা দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে দেশটির সরকার। সরকারের এমন সিদ্ধান্তে খুশি প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) এক বিবৃতিতে দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হামজাহ জয়নুদিন সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

অবৈধ অভিবাসী শ্রমিকদের বৈধতা দিতে তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপ ছাড়াই গত বছরের ১৬ নভেম্বর রিক্যালিব্রেশন লেবাররিক্যালিব্রেশন রিটার্ন নামে দুটি পরিকল্পনা হাতে নেয় মালয়েশিয়া সরকার। একটি অবৈধ অভিবাসী শ্রমিকদের বৈধভাবে কাজের নিয়োগ এবং অপরটি নিজ দেশে স্বেচ্ছায় ফেরত যাওয়া। আর প্রকল্প দুটি চলতি বছরের ৩০ জুন পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।

তবে অবৈধ কর্মীদের শুধুমাত্র নির্মাণ, উৎপাদন, চাষ ও কৃষি এ চারটি খাতে বাংলাদেশসহ ১৫টি দেশের অবৈধ অভিবাসী কর্মীদের বৈধতার জন্য অনলাইনে আবেদন করার কথা থাকলেও এখন থেকে সার্ভিস সেক্টরের চারটি সাব সেক্টরে যেমন হোলসেল ও রিটেইল, রেস্তোঁরা, কার্গো এবং পরিসেবার জন্য আবেদন করতে পারবেন তাদের নিয়োগকর্তারা।

একই সাথে মালয়েশিয়ায় বসবাসরত অবৈধ অভিবাসীরা চাইলে শর্তসাপেক্ষে নিজ দেশে ফিরে যেতে পারবেন। সরকারের এমন সিদ্ধান্তে খুশি প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

এদিকে বৈধকরণ ঘোষণার পর থেকেই রাজধানী কুয়ালালামপুরসহ পুরো মালয়েশিয়ায় এক শ্রেণির দালাল প্রতারণার ফাঁদ পেতেছে। তাদের বিষয়ে সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়েছেন কমিউনিটির নেতারা।

কমিউনিটি নেতা ও মালয়েশিয়া প্রবাসি ব্যবসায়ী মো. মামুন বিন আবদুল মান্নান বলেন, অনেকেই  সার্ভিস সেক্টরের ভিসা করায় আগ্রহী এবং অপেক্ষায় ছিলেব অবশেষে মালয়েশিয়া সরকার সেটির (রিক্যালিব্রেশন লেবাররিক্যালিব্রেশন রিটার্ন নামে দুটি পরিকল্পনা) ঘোষণা করেছে।

কমিউনিটি নেতা ও মালয়েশিয়া প্রবাসি ব্যবসায়ী নাজমুল ইসলাম বাবুল বলেন, অযথা দালালদের খপ্পরে পড়বেন না, সঠিক মালিক খুঁজে নেবেন।

এছাড়া যে সব অভিবাসী ২০১১ সালে এবং ২০১৬ সালে রি-হায়ারিং প্রোগ্রামে নাম নিবন্ধন করেও ভিসা পাননি তারা এখন বৈধতার জন্য নিবন্ধিত হতে পারবেন। আর যারা তাদের কোম্পানি থেকে পালিয়ে অন্য কোথাও চলে গেছেন, তাদের বিরুদ্ধে যদি কোন রিপোর্ট না থাকে তাহলে তারাও এ রিক্যালিব্রেশন কর্মসূচিতে নিবন্ধন গ্রহণ করতে পারবেন।

রিক্যালিব্রেশন প্রোগ্রাম নামে এই দুটি পরিকল্পনায় এখনও পর্যন্ত প্রায় ১ লাখ ৪৫ হাজার ৮শ ৩০ জন অনিবন্ধিত অভিবাসী অংশ নিয়েছেন। এর মধ্যে ৭২ হাজার ৩২৪ জন তাদের নিজ নিজ দেশে ফিরে যেতে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং ৭৩ হাজার ৫০৬ জন বৈধ হওয়ার জন্য নিবন্ধন করেছেন।

মালয়েশিয়া সরকারের নতুন এ সিদ্ধান্তের কারণে প্রবাসীদের মধ্যে কিছুটা স্বস্তি ফিরলেও দালালদের দৌরাত্ম্য ও নানামুখী সমস্যায় প্রবাসীরা বিগত বছরগুলোর মতো এবারও যেন প্রতারিত না হন সে বিষয়ে সতর্ক থাকার তাগিদ দিয়েছেন অভিবাসন বিশেষজ্ঞরা।


আরও খবর



মাস্ক কখন পরিবর্তন করবেন

প্রকাশিত:শনিবার ১৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৩ মে ২০২১ | ১৪০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
মাস্ক যদি পরিষ্কার করা যায় তাহলে অবশ্যই ধুয়ে, শুকিয়ে তারপর পরা উচিত। গবেষণা বলছে, করোনা পরিস্থিতিতে সঠিক মাস্ক পরলে প্রায় ৭০ শতাংশ করোনা হওয়ার ঝুঁকি কমে। শুধু পরলেই হবে না, সেটি ঠিকসময়ে ফেলেও দিতে হবে

করোনা সংক্রমণের সংখ্যা দিন দিনই বাড়ছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, করোনার নতুন স্ট্রেনের হাত থেকে বাঁচতে হলে সঠিক পদ্ধতিতে মাস্ক পরা, ভিড় এড়িয়ে চলা এবং পরিচ্ছন্নতা মেনে চলা জরুরি। তবে, অনেকেই মাস্ক পরতে গিয়ে নিয়ম মানছেন না। অনেকেই পুরনো, আলগা, নোংরা হয়ে যাওয়া মাস্ক পরে বাইরে যাচ্ছেন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মাস্ক পরার ক্ষেত্রে কিছু নিয়ম মানা জরুরি। যেমন-

১. মাস্ক এমনভাবে পরুন যাতে মুখ ও নাক সম্পূর্ণভাবে ঢাকা পরে। মাস্ক পরে যদি শুধু নাক বা মুখের কোনও একটা খোলা থাকে, তাহলে মাস্ক পরার কোনও উপযোগিতা থাকে না। খেয়াল রাখবেন, মাস্ক যেন নাকের ওপর থেকে শুরু করে গোটা মুখ ভালো ভাবে ঢাকতে পারে। তাই মাস্ক কেনার সময় সেটি কতটা চওড়া তা ভালো করে দেখে তবেই কিনবেন। বাজারে যেসব সার্জিক্যাল মাস্ক পাওয়া যায় তা এক লেয়ারের, মহামারির এ সময়ে তা মোটেও উপযোগী নয়। অন্তত তিন লেয়ারের মাস্ক ব্যবহার করা উচিত।

২. মুখের থেকে ঢিলে মাস্ক ব্যবহার করবেন না। মাস্ক ঢিলে হলে তা ঠিক করতে বারবার মুখে হাত দিতে হবে। এতে হাতের ধুলো ময়লা মাস্কে লেগে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে।

৩. সুতির কাপড়ের তৈরি মাস্ক তাড়াতাড়ি ছিঁড়ে যায়। রঙ হালকা হয়ে গেলে ও মাস্কে ছোট থেকে বড় ফুটো দেখা দিলে সঙ্গে সঙ্গে সেই মাস্ক ডাস্টবিনে ফেলে দিন। ফুটো দেখা দিলে সেই মাস্ক না পরাই ভালো। কারণ করোনার সঙ্গে সঙ্গে বাতাসে থাকা অন্যান্য ভাইরাসও আক্রমণ করতে পারে।

৪. মাস্ক এখন বাধ্যতামূলক। মাস্ক পরে যদি ত্বকে নানা সমস্যা যেমন- ব্রণ, র‌্যাশ, চুলকানি, ফুলে ওঠার মতো সমস্যা হয় তাহলে দ্রুত মাস্ক পরিবর্তন করা উচিত।

৫. মাস্ক যদি পরিষ্কার করা যায় তাহলে অবশ্যই ধুয়ে, শুকিয়ে তারপর পরা উচিত। গবেষণা বলছে, করোনা পরিস্থিতিতে সঠিক মাস্ক পরলে প্রায় ৭০ শতাংশ করোনা হওয়ার ঝুঁকি কমে। শুধু পরলেই হবে না, সেটি ঠিকসময়ে ফেলেও দিতে হবে।

৬. মাস্ক পরে অস্বস্তি হলে অবশ্যই সেই মাস্ক এড়িয়ে চলুন। আবার ঘন্টার পর ঘন্টা একই মাস্ক পরে থাকলে অস্বস্তি তৈরি হয়। এতে শ্বাস-প্রশ্বাসে ব্যাঘাত ঘটে। তাই মাস্ক বদলানো প্রয়োজন।

৭. মাস্কের নোজ ক্লিপ আলগা হয়ে গেলে সেই মাস্ক দ্রুত পাল্টে ফেলুন। এ ছাড়া কানে লাগানোর ইলাস্টিক বা কাপড় যদি আলগা হয়ে যায়, তাহলে বুঝতে হবে মাস্ক পরিবর্তন করার সময় এসেছে।


আরও খবর



নাটোরে ট্রাকের নিচে পিষ্ট দুই মাদ্রাসা শিক্ষক

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৪ মে ২০২১ | ১০১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নাটোরের সিংড়ায় ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল আরোহী দুই মাদ্রাসাশিক্ষক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও এক শিক্ষক। আজ শনিবার সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- নাটোর শহরের বড়গাছা দারুল উরুম মাদ্রাসার শিক্ষক খলিলুর রহমান ও বেলাল। এছাড়া আহত আব্দুল হামিদও একই মাদ্রাসার শিক্ষক। আহত হামিদকে সিংড়া উপজেলা কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এ বিষয়ে সিংড়া থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক কিশোর কুমার রায় জানান, আজ শনিবার সকালে ৩ শিক্ষক মোটরসাইকেলে নাটোর শহর থেকে বগুড়া যাচ্ছিলেন। পথে পুরাতর ফেরিঘাট সংলগ্ন সিংড়া ব্রীজের পূর্ব পাশে একটি ট্রাক পেছন থেকে তাদের চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই খলিলুর রহমান ও বেলালের মৃত্যু হয়। এছাড়া আহত খলিলকে উদ্ধার করে স্থানীয়রা সিংড়া হাসপাতালে ভর্তি করে।

কিশোর কুমার রায় জানান, নিহত খলিলুর রহমান ও বেলাল নাটোর শহরের তেবাড়িয়া এলাকার বাসিন্দা। আর আব্দুল হামিদ নাটোর শহরের বড়গাছা এলাকার বাসিন্দা। তবে ট্রাকটি আটক করা সম্ভব হয়নি বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।


আরও খবর



সুন্দরবনে ছড়িয়ে পড়ছে আগুন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৪ মে ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ১২ মে ২০২১ | ৬৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
সুন্দরবনের দাসের ভারানী এলাকায় যে গহীন বনে আগুন লেগেছে তার কাছাকাছি পানির কোনো উৎস না থাকায় ৪ থেকে ৫ কিলোমিটার দূরে পাইপ লাগিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চলছে

সুন্দরবনের শরণখোলা রেঞ্জের দাসের ভারানি এলাকায় লাগা আগুন প্রায় ২২ ঘণ্টায়ও নিয়ন্ত্রণে আসেনি। সোমবার (৩ মে) রাতে অন্ধকারে বনের গহীনে কাজ করা সম্ভব না হওয়ায় ফায়ার সার্ভিসের কার্যক্রম বন্ধ রাখা হয়। পরে মঙ্গলবার (৪ মে) সকালে আবারও অভিযান শুরু করেছে ফায়ার সার্ভিস ও বন বিভাগ। এদিকে আগুনের কাছাকাছি পানির কোনো উৎস না থাকায় ফায়ার সার্ভিসের ৩টি ইউনিট ও বনকর্মীরা আগুন নেভাতে হিমশিম খাচ্ছেন।

বাগেরহাট ফায়ার সার্ভিসের সহকারী উপপরিচালক গোলাম সরোয়ার জানান, সুন্দরবনের দাসের ভারানী এলাকায় যে গহীন বনে আগুন লেগেছে তার কাছাকাছি পানির কোনো উৎস না থাকায় ৪ থেকে ৫ কিলোমিটার দূরে পাইপ লাগিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা চলছে। ঘটনাস্থলের আশপাশে বেশ কিছু এলাকায় আগুন ও ধোয়ার কুন্ডলি রয়েছে।

আগুন যাতে আর না বাড়ে সে বিষয়টি মাথায় রেখেই ফায়ার সার্ভিস ও বনকর্মীরা একযোগে কাজ করছে। গহীন বনে ও মাটির স্তরে লতা জাতীয় গুল্ম ও উদ্ভিদে লাগা আগুন নেভাতে তাদের বেগ পেতে হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

অন্যদিকে সোমবার (৩ মে) রাতে বৃষ্টি হওয়ায় বনে লাগা আগুন কিছুটা নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

উল্লেখ্য, সোমবার (৩ মে) দুপুরে সুন্দরবনের দাসের ভারানী এলাকার গহীন বনে আগুন লাগে। তবে বনে কীভাবে আগুন লেগেছে তার কারণ জানতে বনবিভাগ ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি করেছে।


আরও খবর

সুন্দরবনে ফের আগুন

বুধবার ০৫ মে ২০২১