Logo
শিরোনাম

বিদ্যানন্দের নামে ভুয়া পেজ খুলে টাকা আদায়, গ্রেফতার ৫

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১২৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সেচ্ছাসেবী সংগঠন বিদ্যানন্দের নামে পেজ খুলে বন্যার্তদের সাহায্যের কথা বলে প্রতারণা করে আসছিল একটি চক্র। এ অভিযোগে পাঁচজনকে গ্রেফতার করেছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) সিটি-সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন।

তারা হলেন আমির হোসেন শাকিল (২৫), মো. দেলোয়ার হোসেন (২২), মো. মশিউর রহমান (২৬), মো. ইসরাফিল পাবেল (২৪) ও মো. মহিন উদ্দিন (২২)।

সোমবার (৭ নভেম্বর) দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডিএমপির সিটি-সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশনের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) ধ্রুব জ্যোতির্ময় গোপ।

তিনি বলেন, গত ১৬ ও ২৯ জুলাই পল্লবী থানায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দুটি মামলা হয়। মামলায় অভিযোগ করা হয়, একটি অস্বাদু চক্র বিদ্যানন্দের নামে ফেসবুক পেজ খুলে প্রতারণা করছে। পরে মামলার তদন্তভার পায় সিটি-সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন।

এতে দেখা যায়, চক্রটি বিদ্যানন্দের নামে পেজ খুলে বন্যার্তদের সাহায্যের কথা বলে বিভিন্ন পোস্ট দেয়। পরে অনেক মানুষ এসব পোস্ট দেখে সাহায্যের জন্য লাখ লাখ টাকা পাঠায় বিদ্যানন্দের ভুয়া পেজের মালিকদের কাছে। পরে চক্রটি এসব টাকা আত্মসাৎ করে ফোন বন্ধ করে দেয়।

ধ্রুব জ্যোতির্ময় গোপ বলেন, তদন্তের একপর্যায়ে প্রযুক্তির ব্যবহার করে চক্রটির পাঁচ সদস্যকে রোববার (৬ নভেম্বর) নোয়াখালী থেকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতাররা প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অর্থ আত্মসাতের কথা স্বীকার করেছেন।

এদিকে প্রতারণার হাত থেকে বাঁচতে ডিএমপির সিটি-সাইবার ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বেশ কয়েকটি পরামর্শ দিয়েছে। এগুলো হলো-

১. নিজ নামের সিমকার্ড অন্য কাউকে না দেওয়া

২. নিজ এনআইডি দিয়ে কেনা যে সিম আছে তা চেক করে অব্যবহৃত সিম বন্ধ করা।

৩. প্রি-রেজিস্টার্ড সিম বিক্রি না করা।

৪. মোবাইল ফাইন্যান্স সার্ভিসের ক্যাশ আউটের সময় গ্রহীতার পরিচয় নিশ্চিত করা।

৫. দানের আগে গ্রহীতা সম্পর্কে নিশ্চিত হওয়া।


আরও খবর

দেশে ১০ মাসে ধর্ষণের শিকার ৮৩০

রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২




পর্যটন মেলা শুরু হচ্ছে আজ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশ-বিদেশের পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপো (বিআইটিটিআই) আয়োজন করেছে অ্যাসোসিয়েশন অব ট্রাভেল এজেন্টস অব বাংলাদেশ (আটাব)। আজ (১ ডিসেম্বর) থেকে তিনদিন বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে চলবে এই মেলা। ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত উন্মুক্ত থাকবে মেলা।

আটাব জানায়, এবারের মেলায় ১৫টির বেশি দেশ অংশ নিচ্ছে। এর মাঝে রয়েছে ভারত, মালয়েশিয়া, ভুটান, নেপাল, মালদ্বীপ, ওমান, শ্রীলঙ্কা, তুরস্ক, আজারবাইজান, দক্ষিণ কোরিয়া, ভিয়েতনাম, সিঙ্গাপুর, সংযুক্ত আরব আমিরাত। এছাড়াও বিভিন্ন দেশের এয়ারলাইন্স, হসপিটাল, ট্যুরিজম বোর্ড, ট্রাভেল এজেন্সি, ট্যুর অপারেটর, হোটেল, রিসোর্ট, ক্রুজ লাইনার, ডেস্টিনেশন ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি ও অন্যান্য ট্রাভেল ও ট্যুরিজম সংশ্লিষ্ট সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান অংশ নিচ্ছে মেলায়।

এছাড়া মেলায় প্রোডাক্ট ব্রান্ডিং, বিদেশি মুদ্রা অর্জনে দেশের পর্যটন সেবার মান উন্নয়ন ও বিক্রির বাজার সৃষ্টিসহ নানান বিষয়ে সেমিনার, গোলটেবিল আলোচনা, কর্মশালা, বিটুবি সেশনসহ আকর্ষণীয় সব আয়োজন থাকবে। পর্যটন মেলায় স্টল দিয়েছে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন। এই স্টলে দেশের বিভিন্ন পর্যটন এলাকাগুলোতে নিজস্ব হোটেল, মোটেল, ট্যুর প্যাকেজসহ বিভিন্ন ধরনের সেবা তুলে ধরছে প্রতিষ্ঠানটি।

জানতে চাইলে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান মো. আলি কদর বলেন, বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম এক্সপোতে পর্যটন করপোরেশনের সেবাগুলো তুলে ধরা হয়েছে। এছাড়া বছরব্যাপী পর্যটন করপোরেশনের বিভিন্ন কর্মসূচি বা যেসব সেবা দিয়ে থাকে তা উপস্থাপন করা হচ্ছে।

মেলায় বিভিন্ন রুটের টিকিটে ছাড় দিচ্ছে বেসরকারি এয়ারলাইন্স ইউএস-বাংলা। প্রতিষ্ঠানটির মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) কামরুল ইসলাম জানান, শীতের মৌসুমে অভ্যন্তরীণ রুটের মধ্যে কক্সবাজার, সিলেট উড়োহাজাজের টিকিটের বেশি চাহিদা থাকে। এছাড়া ভারত, মালদ্বীপ, থাইল্যান্ডসহ অন্যান্য দেশের রুটেও চাহিদা আছে তাদের।

এই মেলা উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনকেন্দ্রে প্রতিদিন একটি করে ট্যুরিজম সংশ্লিষ্ট সেমিনার করা হবে। প্রথম দিন দেশের পর্যটনখাতে বিনিয়োগ সম্ভাবনা শীর্ষক সেমিনার অনুষ্ঠিত হবে। এই সেমিনারে সভাপতিত্ব করবেন বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) নির্বাহী চেয়ারম্যান লোকমান হোসেন মিয়া। দ্বিতীয় দিনে দেশের অ্যাভিয়েশন ও পর্যটন বিশ্বের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার সুযোগ শীর্ষক সেমিনার হবে। এতে সভাপতিত্ব করবেন বিমান ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোকাম্মেল হোসেন। তৃতীয় দিন হবে ডিজিটাল যুগে পর্যটন শীর্ষক সেমিনার। সভাপতিত্ব করবেন আটাবের সভাপতি।

জানতে চাইলে আটাবের সভাপতি এস এন মঞ্জুর মোর্শেদ বলেন, পর্যটন খাতের বিকাশের উদ্দেশ্যেই এই আয়োজন করা হয়েছে। করোনা পরবর্তী সময়ে যেভাবে অভ্যন্তরীণ পর্যটন বিকাশ লাভ করেছ, এই মেলার মাধ্যমে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে যাতে দেশের পর্যটন ছড়িয়ে পড়ে, সেই ব্যবস্থা করতে চাই। এছাড়া মেলা দেশি-বিদেশি ট্রাভেল এজেন্সি ও ট্যুর অপারেটরদের মধ্যে সম্পর্ক তৈরিতে ভূমিকা রাখবে।

নিউজ ট্যাগ: পর্যটন মেলা

আরও খবর



‘আ.লীগের নেতাকর্মী বিএনপির সমাবেশের ধারে-কাছেও যাবে না’

প্রকাশিত:সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ছাত্রলীগের সম্মেলন ৮ তারিখ থেকে ৬ তারিখে করা বিএনপির আন্দোলনের ফসল নয়। এটা শেখ হাসিনার উদার নৈতিকতার ফসল।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) দিনাজপুর জেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

বিএনপির ১০ ডিসেম্বরের সমাবেশে কোনও দুর্ভোগ সৃষ্টি না করতে বিএনপি নেতাদের আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আওয়ামী লীগের একজন নেতাকর্মীও তাদের সমাবেশের ধারে-কাছে যাবে না।


আরও খবর



সহকর্মীকে গুলি করে খুন, পলাতক বিজিবি সদস্য আটক

প্রকাশিত:সোমবার ২১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর 2০২2 | ৪৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জয়পুরহাটের পাঁচবিবিতে ২০-বিজিবির সিপাহি নেপাল দাসকে গুলি করে হত্যার পর পালিয়ে যাওয়া সহকর্মী হযরত আলীকে আটক করেছে র‍্যাব। রবিবার (২০ নভেম্বর) বিকালে তাকে ২০-বিজিবির কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এর আগে শনিবার রাতে তাকে দিনাজপুরের পার্বতীপুর থেকে আটক করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জয়পুরহাট র‍্যাব-৫ সিপিসি-৩-এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর মোস্তফা জামান।

এদিকে, নিহত নেপাল দাসের ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ বিজিবির কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় সদর থানায় মামলা হয়েছে। নিহত নেপাল দাস (৩৫) জয়পুরহাট-২০ বিজিবির সিপাহি ছিলেন। তিনি ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলার মেঘচামি গ্রামের নারায়ণ দাসের ছেলে। গত বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) রাত সাড়ে ১০টায় গুলিবিদ্ধ অবস্থায় তাকে জয়পুরহাট আধুনিক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিলে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।

জয়পুরহাট র‍্যাব-৫ সিপিসি-৩-এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর মোস্তফা জামান বলেন, নেপাল দাসকে গুলি করে হত্যার পর পালিয়ে যান সিপাহি হযরত। শনিবার (১৯ নভেম্বর) রাতে পার্বতীপুর রেলস্টেশন এলাকা থেকে তাকে আটক করে বিজিবির কাছে হস্তান্তর করা হয়। তিনি দেশের বাইরে পালিয়ে যেতে চেয়েছেন। নেপালকে কি কারণে গুলি করে হত্যা করেছেন হযরত; সে বিষয়ে র‌্যাবকে কিছুই জানাননি বলেও জানান মেজর মোস্তফা।


আরও খবর



গোবিন্দগঞ্জে ৩৫০পিস ইয়াবা ও ৪০বোতল ফেন্সিডিলসহ গ্রেফতার ২

প্রকাশিত:শনিবার ১৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গাইবান্ধা থেকে শাহীন খন্দকার:

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে ৩৫০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট ও ৪০ বোতল ফেন্সিডিলসহ দুই কারবারিকে গ্রেফতার করেছে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর। শনিবার (১৯ নভেম্বর) বিকেলে অভিযান চালিয়ে চক রহিমাপুর মন্ডলপাড়া গ্রাম থেকে জাহিদুল ইসলাম ও পৌরসভার ঝিলপড়া থেকে জাকারিয়া আলম সরকারকে আটক করা হয়।

জাহিদুলের কাছ থেকে ৪০ বোতল ফেন্সিডিলসহ ৩০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট এবং জাকারিয়ার কাছ থেকে ৫০ পিস ই্য়াবা উদ্ধার করা হয়।

আটকের পর মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর জানায়, দুই মাদক কারবারি দীর্ঘদিন যাবৎ তারা মাদকের ব্যবসা করে আসছিল। আমরা গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আজ অভিযান চালিয়ে তাদের কাছ থেকে এসব মাদক দ্রব্য পাই। এদের বিরুদ্ধে মাদক কারবারির কয়েকটি মামলাও রয়েছে । এরা পেশাদার মাদক কারবারি।

গাইবান্ধা জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের উপ-পরিচালক মামুনুর রশিদ বলেন, আটক হওয়া দুই মাদক কারবারিকে দীর্ঘদিন যাবৎ গ্রেফতারের চেষ্টা চলছিল। জিজ্ঞাসাবাদে তারা জানিয়েছেন, মাঝখানে মাদক কারবার ছেড়ে দিয়ে নতুন করে আবার শুরু করেছেন। তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করে সন্ধ্যায় থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।


আরও খবর



কোন দেশে ‘ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট’ সবচেয়ে বেশি?

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১০ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান বা ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট বিশেষ ধরনের (বন, পাহাড়, হ্রদ, মরুভূমি, স্মৃতিস্তম্ভ, দালান, প্রাসাদ বা শহর) একটি স্থান। যা ইউনেস্কো কর্তৃক স্বীকৃত বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থানের তালিকায় লিপিবদ্ধ হয়েছে। ইউনেস্কোর একটি প্রকল্প আছে, যার নাম আন্তর্জাতিক বিশ্ব ঐতিহ্য প্রকল্প। এই প্রকল্পের আওতায় ২১টি রাষ্ট্র নিয়ে গঠিত বিশ্ব ঐতিহ্য কমিটি তালিকা প্রণয়নের কাজ করেন।

এই প্রকল্পের কাজ হলো বিশ্বের নানা স্থানে ছড়িয়ে থাকা অনন্যসাধারণ সাংস্কৃতিক ও প্রাকৃতিক গুরুত্ববিশিষ্ট স্থানসমূহ চিহ্নিত করা। একই সঙ্গে তা একটি বৈশ্বিক তালিকায় নাম লিপিবদ্ধ করা। তালিকাভুক্ত স্থানসমূহকে পরবর্তী সময়ে শ্রেণীভুক্ত করা হয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশেই কমবেশি আছে ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট। তবে কোন কোন দেশে সর্বাধিক বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান আছে, তা অনেকেরই অজানা। ইতালি ও চীনে বিশ্বের সর্বাধিক ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট আছে বলে জানা যায়। তবে আরও অনেক দেশ আছে যেখানে গেলে আপনি বিশ্বের সর্বাধিক ঐতিহ্যবাহী স্থানগুলো ঘুরে আসতে পারবেন। জেনে নিন কোন দেশে কতটি ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট আছে-

ইতালি: বিশ্বের সবচেয়ে বেশি সংখ্যক ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের তালিকায় ইতালির অবস্থান শীর্ষে। ইউনেস্কো কমিটি দ্বারা নতুন সাইটগুলোর সর্বশেষ বার্ষিক ঘোষণার পর জানা যায়, এই দেশে মোট ৫৮টি বিশ্ব ঐতিহ্যের অবস্থান আছে। কিছু নতুন সংযোজন হলো বোলোগ্নার পোর্টিকো, পাডুয়ার ১৪ শতকের ফ্রেস্কো চক্রসহ আরও অনেক কিছু। ইতালির জনপ্রিয় কয়েকটি বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থানের মধ্যে আছে- হিসটোরিক সেন্টার অব ফ্লোরেন্স, ভেনিস ও লাগুন, পিয়াজা ডেল ডুওমো, সান গিমিঙ্গানো, সিয়েনা, ফেরারা, ক্যাসেল ডেল মন্টে, রাভেনা, পিয়েনজা ইত্যাদি।

চীন: চীনে ৫৬টি ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট আছে। বিশ্বের সর্বাধিক ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে আছে চীন। যদিও চীনের গ্রেট ওয়াল তার আইকনিক ল্যান্ডমার্কের পাশাপাশি সবচেয়ে জনপ্রিয় পর্যটন সাইট। এছাড়া সামার প্যালেস, ফরবিডেন সিটি, ওয়েস্টার্ন কিং টম্বস, টেম্পল অব হেভেন, মিং টম্বস, এমন কিছু স্পট যা দেখলে নয়ন জুড়িয়ে যাবে সবার। এছাড়া ফুজিয়ান টুলুও বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থানের তালিকায় অন্যতম। যেখানে ৪৬টি বহুতল ভবন আছে। যা সৌন্দর্য সত্যিই অবাক করে পর্যটকদের।

জার্মানি: জার্মানিতে আছে মোট ৫১টি ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট। যার মধ্যে আছে- আচেন ক্যাথেড্রাল, বার্লিন মডার্নিজম হাউজিং এস্টেট, বাউহাউস, কোলন ক্যাথেড্রাল ও ক্লাসিক্যাল ওয়েমার। ওয়াডেন সাগরও একটি ইউনেস্কো সুরক্ষিত স্থান, যা পৃথিবীর সবচেয়ে বড় মাটির ফ্ল্যাট ও আন্তঃজলোয়ার বালির ব্যবস্থাসম্পন্ন। জার্মানিতে গেলে অবশ্যই এসব স্থান পরিদর্শন করতে ভুলবেন না।

স্পেন: স্পেনে মোট ৪৯টি বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান আছে। তবে কিছু সাইট আছে যা পর্যটকদের বেশি আকর্ষণ করে যেমন- আলতামিরা গুহা, আলহাম্বরা, টেইড ন্যাশনাল পার্ক, টলেডোর ঐতিহাসিক কেন্দ্রসহ ক্যামিনো ডি সান্তিয়াগো অন্যতম।

ফ্রান্স: সর্বাধিক ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের তালিকায় ৫ম স্থানে আছে ফ্রান্স। এদেশে আছে মোট ৪১টি ঐতিহ্যবাহী সাইট। যার মধ্যে ৪টি প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন, একটি মিশ্র সম্পত্তি ও ৩৯টি সাংস্কৃতিক বৈশিষ্ট্যসম্পন্ন। ফ্রান্সে গেলে আপনি সেখানকার বেশ কয়েকটি উল্লেখযোগ্য জনপ্রিয় সাইট যেমন- পোর্তো উপসাগর, মন্ট সেন্ট মিশেল, রোমান থিয়েটার ও নিউ ক্যালেডোনিয়ার লেগুন্সে ঢুঁ মারতে ভুলবেন না।

ভারত: ২০২২ সালের সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী, ভারতে আছে ৪০টির মতো বিশ্বের ঐতিহ্যবাহী সাইট। যার মধ্যে ৩২টি সাংস্কৃতিক, ৭টি প্রাকৃতিক ও একটি মিশ্র ধরনের। ভারতে গেলে ঘুরে আসতে ভুলবেন না- কাজিরাঙা জাতীয় উদ্যান, মানস বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য, সুন্দরবন জাতীয় উদ্যান, পশ্চিমঘাট, নন্দা দেবী জাতীয় উদ্যানসহ ফুলের উপত্যকার মতো প্রাকৃতিক সব স্থানে।

মেক্সিকো: সমৃদ্ধ সাংস্কৃতিক ঐতিহমণ্ডিত মেক্সিকোতে আছে ৩৫টি ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট। রিপোর্ট অনুযায়ী, মেক্সিকোর ৯টি ঐতিহ্য ও উদযাপনও মেক্সিকোর অধরা সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের অধীনে বিবেচনা করা হয়।

যুক্তরাজ্য: যুক্তরাজ্যে ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইটের সংখ্যা মোট ৩৩টি। ইউকে ইউনেস্কো সাইটগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো- স্কটল্যান্ড, ইংল্যান্ড, ওয়েলস ও উত্তর আয়ারল্যান্ডের মধ্যে বিভক্ত স্থান। কিছু কিছু ইউনেস্কো সাইটগুলোতে পৌঁছানো অনেকটাই কঠিন।


আরও খবর

পর্যটন মেলা শুরু হচ্ছে আজ

বৃহস্পতিবার ০১ ডিসেম্বর ২০২২