Logo
শিরোনাম

বিএনপির নেতা-কর্মীদের হাতে বাঁশ কেন প্রশ্ন কাদেরের

প্রকাশিত:বুধবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৩১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিএনপি নেতা-কর্মীদের হাতে বাঁশের লাঠি এটা কিসের আলামত বলে প্রশ্ন রাখেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, আজকাল বিএনপির নেতা-কর্মীদের হাতে বাঁশের লাঠির সাথে জাতীয় পতাকা দেখা যাচ্ছে, এটা কিসের আলামত? এতে কি জাতীয় পতাকার অবমাননা নয়?

বুধবার (২১ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে তার দপ্তরে ব্রিফিংকালে এ কথা বলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। আন্দোলনের নামে রাজপথে আবারও সহিংসতা ও সন্ত্রাস সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে বিএনপি।

বিএনপির দুর্নীতি বিশ্ব বিদিত উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করে নিজেদের দলকে দুর্নীতিবাজদের নিরাপদ আশ্রয়স্থলে পরিণত করেছে বিএনপি।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি কখনো কোনো দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের সাহস দেখাতে পারেনি। বিএনপি যখন দুর্নীতি নিয়ে বড় বড় কথা বলে তখন মানুষ হাসে বলেও মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের মেগা প্রজেক্ট বাস্তবায়নের সক্ষমতায় বিএনপি আত্মদহনে দগ্ধ এমন দাবি করে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন বিএনপি নেতারা এখন মেগা-হতাশায় ভুগছে।

বিএনপি নেতাদের অতীত বক্তব্য স্মরণ করে দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, তারা এক সময় বলেছিলেন জোড়াতালির পদ্মাসেতু যেকোনো সময় ভেঙে পড়বে, অথচ বিএনপি নেতারা এখন ঠিকই পদ্মাসেতু পার হচ্ছে।

বিএনপি নেতারা নির্বাচন ও নির্বাচন কমিশন নিয়ে কথা বলা প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপি জন্মলগ্ন থেকেই প্রহসনের নির্বাচন জাতির ঘাড়ে চাপিয়ে দিয়েছিল, হ্যাঁ-না ভোটের মাধ্যমে সামরিক উর্দি পরে, আবার কখনো ভোটারহীন নির্বাচন করে, কখনো গায়েবি ভোটার তৈরি করে জনগণের নির্বাচনের অধিকার হরণ করেছিল ।

কাজেই বিএনপির মুখে নিরপেক্ষ নির্বাচন ভূতের মুখে রাম নাম বলে জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, বিএনপি সেসব অপকর্ম ভুলে থাকতে চাইলেও জনগণ কিন্তু তাদের অতীত অপকর্ম ভুলে যায়নি।

সরকার নাকি জণগণ থেকে দুরে সরে গেছে, আসলে সরকার নয়, বিএনপির সঙ্গে তৈরি হয়েছে জনগণের যোজন-যোজন দূরত্ব দাবি ওবায়দুল কাদেরের।

বিএনপি এদেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে নির্বাচনে যেমন ব্যর্থ তেমনি আন্দোলনেও ব্যর্থ উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, অতীতে যখন বিএনপি ক্ষমতায় ছিল তখন জনগণের কাছে গ্রহণযোগ্য এবং জনগণের চোখে পড়ার মতো তেমন কোনো উন্নয়ন স্থাপন করতে পারেনি,যে কারণে জনগণের সঙ্গে তাদের দূরত্ব শুরু হয়েছে।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেন, শুধুমাত্র লিপ সার্ভিস দিয়ে এবং বক্তৃতা বিবৃতিতে বিষোদগার করে জনগণের সঙ্গে দূরত্ব কমানো সম্ভব নয়।

এর আগে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে বাংলাদেশে নিযুক্ত জাইকার প্রধান সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এ সময় জাইকার অর্থায়নে বাংলাদেশে চলমান বিভিন্ন প্রকল্পের অগ্রগতি নিয়ে আলোচনা হয়।


আরও খবর



মীনা শক্তি, সাহস ও প্রেরণার প্রতীক: প্রাথমিক ও গণশিক্ষা সচিব

প্রকাশিত:শনিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | ৪৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রতিটি শিশুর কাছে মীনা একটি শক্তি, সাহস ও প্রেরণার প্রতীক বলে মন্তব্য করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আমিনুল ইসলাম খান।

তিনি বলেন, মীনা সব বাধা-বিপত্তি ও প্রতিকূলতাকে পেছনে ফেলে শিক্ষার আলোর পথে ছুটে চলে। কারণ শিক্ষাই তাকে দেবে কাংখিত মুক্তি; পূরণ করবে অগুনতি স্বপ্ন। আর শিক্ষার আলোয় প্রতিগৃহ রাঙাতে কাজ করছে সরকার।

শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) ঢাকা পিটিআইতে মীনা দিবস-২০২২ উপলক্ষে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে সচিব এ কথা বলেন।

আমিনুল ইসলাম খান বলেন, মানব সম্পদ উন্নয়নের প্রধানতম হাতিয়ার শিক্ষা। শিশুদের জন্য আলোকিত আগামী নির্মাণ করতে মানসম্মত শিক্ষার বিকল্প নেই। তাই মানসম্মত শিক্ষা প্রদানের মাধ্যমে জাতির ভিত গড়ার কাজ করছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। তিনি সবাইকে এ উদ্যোগে সামিল হবার আহ্বান জানান।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক শাহ রেজওয়ান হায়াতের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন ইউনিসেফের বাংলাদেশ প্রতিনিধি শেলডন ইয়েট, প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক দীলিপ বণিক প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, সরকার প্রতিবছর ২৪ সেপ্টেম্বর ইউনিসেফ ঘোষিত মীনা দিবস পালন করে। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য নিরাপদ ও আনন্দময় পরিবেশে মানসম্মত শিক্ষা। এ উপলক্ষে আলোচনা, মেলা, পাপেট শো, গল্প বলা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ নানা কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।


আরও খবর



রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর শোক

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | ৭০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার রাতে পৃথক বার্তায় রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী শোক জানান।

এছাড়াও ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ এর মৃত্যতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন বাংলাদেশ সরকারের আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক এমপি। শোকবার্তায় আইনমন্ত্রী  রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ এর বিদেহী আত্মার শান্তি  কামনা করেন এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস‍্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের সবচেয়ে দীর্ঘকালীন মুকুটধারী রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় বিকেলে স্কটল্যান্ডের বালমোরাল প্যালেসে ৯৬ বছর বয়সে মৃত্যুবরণ করেন।  বাকিংহাম প্যালেসের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বৃহস্পতিবার বিকেলে বালমোরাল প্যারেসে শান্তিপূর্ণভাবে মৃত্যুবরণ করেন রানি।

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ ব্রিটেনের সিংহাসনে আসীন ছিলেন ৭০ বছর ধরে। চলতি বছরই তার সিংহাসনে আরোহণের ৭০ বছর উদযাপিত হয়েছে। গত জুলাই মাস থেকে স্কটল্যান্ডের বারমোরাল প্রাসাদে অবস্থান করছিলেন তিনি।

রানি এলিজাবেথ গ্রীষ্মকালীন আবাস স্কটল্যান্ডের বালমোরাল ক্যাসল প্রাসাদে ছিলেন। মঙ্গলবার (৬ সেপ্টেম্বর) এ প্রাসাদে এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে লিজ ট্রাসকে যুক্তরাজ্যের নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে অনুমোদন দেন রানি।


আরও খবর



শেয়ারের দাম বাড়ার পাশাপাশি বেড়েছে মূল্যসূচক

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবস মঙ্গলবার লেনদেনের শুরুতে শেয়ারবাজারে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দেখা দিয়েছে। লেনদেনে অংশ নেওয়া বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার পাশাপাশি বেড়েছে মূল্যসূচক। তবে লেনদেনে কিছুটা ধীরগতি দেখা যাচ্ছে। প্রথম আধাঘণ্টার লেনদেনে প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) ৫৩ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বেড়েছে। এতে প্রধান মূল্যসূচক বেড়েছে ২০ পয়েন্ট। আর লেনদেনে হয়েছে ২০০ কোটি টাকার কিছু বেশি।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের পাশাপাশি অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) মূল্যসূচকে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা দেখা যাচ্ছে। সেই সঙ্গে দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট। এর আগে গত সপ্তাহে শেয়ারবাজারে লেনদেন হওয়া পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে তিন কার্যদিবসেই ঊর্ধ্বমুখীর দেখা মিলে। এতে এক সপ্তাহেই ডিএসইর প্রধান মূল্যসূচক বাড়ে ৫১ পয়েন্ট।

তবে চলতি সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববার মূল্য সূচকের পতন হয়। সেই সঙ্গে কমে লেনদেনের পরিমাণ। সপ্তাহের দ্বিতীয় কার্যদিবস সোমবারও পতনের মধ্য থাকে শেয়ারবাজার। মূল্যসূচক কমার পাশাপাশি কমে লেনদেন।

এ পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার ডিএসইতে লেনদেন শুরু হয় বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিটের দাম বাড়ার মাধ্যমে। ফলে লেনদেন শুরু হতেই ডিএসইর প্রধান সূচক ১০ পয়েন্ট বেড়ে যায়। লেনদেনের সময় গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে বাড়তে থাকে সূচকের ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতা। এতে প্রথম আধাঘণ্টার লেনদেনে ডিএসইর প্রধান সূচক ২০ পয়েন্ট বেড়ে যায়।

এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১০টা ২০ মিনিটে ডিএসইতে ১৯০টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দাম বাড়ার তালিকায় নাম লিখিয়েছে। বিপরীতে দাম কমেছে ৬২টির। আর ১১০টির দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

এতে ডিএসইর প্রধান সূচক বেড়েছে ২৩ পয়েন্ট। তবে অপর দুই সূচকের মধ্যে ডিএসই-৩০ সূচক বেড়েছে ৪ পয়েন্ট। আর ডিএসই শরিয়াহ্ সূচক ৭ পয়েন্ট বেড়েছে। এ সময় পর্যন্ত ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ২৮২ কোটি ৫৯ লাখ টাকা।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই ২৫ পয়েন্ট বেড়েছে। লেনদেন হয়েছে ২ কোটি ৯৪ লাখ টাকা। লেনদেন অংশ নেওয়া ১৪২ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে দাম বেড়েছে ৬৩টির, কমেছে ২৯টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৫০টির।


আরও খবর



ছাদখোলা বাসে চোট পেলেন ঋতুপর্ণা চাকমা, লাগল তিন সেলাই

প্রকাশিত:বুধবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | ৪০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আনন্দযাত্রার মধ্যেই একটা দুঃসংবাদ! ছাদখোলা বাসে বিমানবন্দর থেকে বাফুফে ভবনে যাওয়ার পথে চোট পেয়েছেন সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ জয়ী বাংলাদেশ নারী দলের মিডফিল্ডার ঋতুপর্ণা চাকমা। কপালে তিনটি সেলাই লেগেছে তাঁর। তবে বড় কোনো বিপদ হয়নি। ঋতুপর্ণা সুস্থই আছেন।

বাফুফে নির্বাহী ইমরান জানিয়েছেন, ফ্লাইওভার দিয়ে যাওয়ার সময় ঋতুপর্ণার কপালে কাঠের বা ধাতব কিছুর খোঁচা লাগে। তাতেই কেটে গিয়ে কপাল থেকে রক্ত বের হতে থাকে তাঁর। তাৎক্ষণিকভাবে গাড়ি থামিয়ে বহরের সঙ্গে থাকা অ্যাম্বুলেন্সে ঋতুপর্ণাকে সিএমএইচে নেওয়া হয়। কপালে তিনটি সেলাই লেগেছে তাঁর।

তবে আর কোনো সমস্যা না থাকায় ঋতুপর্ণাকে চিকিৎসার পরই ছেড়ে দেওয়া হয়। অ্যাম্বুলেন্সে করেই তিনি বাফুফে ভবনের দিকে রওনা দেন।

সাফ জয়ের পর আজ দুপুর ১টা ৪৫ মিনিটে হজরত শাহজালাল বিমানবন্দরে নেমেছে নারী দল। সেখান থেকে ছাদখোলা বাসে খেলোয়াড়দের নিয়ে শোভাযাত্রা বের করা হয়। বিমানবন্দর থেকে মেয়েদের বহনকারী বাস কাকলী, জাহাঙ্গীর গেট, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, বিজয় সরণি, তেজগাঁও, মৌচাক, কাকরাইল, আরামবাগ, মতিঝিল শাপলা চত্বর হয়ে যাচ্ছে বাফুফে ভবনে।


আরও খবর

হার দিয়ে সিরিজ শুরু বাংলাদেশের

শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২

১৬৮ রানের লক্ষ্য পেল বাংলাদেশ

শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২




সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিতে হবে: মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০22 | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৪০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যমে সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় সংগীত ও নৃত্যকলা মিলনায়তনে জাতীয় নৃত‌্য প্রতিযোগিতা ২০২২ উপলক্ষ্যে নৃত্যাঙ্গণ আয়োজিত আলোচনা সভা, পুরস্কার বিতরণ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, পুঁথিগত বিদ্যা দিয়ে একটি পরিপূর্ণ জীবনসত্তা প্রতিষ্ঠিত করা যায় না, যদি না তার মধ্যে বাঙালির নিজস্ব সংস্কৃতি, কৃষ্টি, ইতিহাস, ঐতিহ্য আমরা প্রবেশ করাতে না পারি। বাঙালির নিজস্ব একটা জায়গা আছে। যার মধ্যে জারি, সারি, ভাটিয়ালি, লালনগীতি, কবি গান, পট গান, ভাওয়াইয়া গান, নৃত্য, যাত্রা এগুলো আমাদের সংস্কৃতির অবিচ্ছেদ্য অংশ। বাঙালির সংস্কৃতি, ইতিহাস, ঐতিহ্য চমৎকারভাবে তুলে ধরার অন্যতম মাধ্যম নৃত্য। নৃত্যের মাধ্যমে জাতির ইতিহাস, ঐতিহ্য, মুক্তিযুদ্ধ তুলে ধরতে হবে, সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিতে হবে।

মন্ত্রী আরও যোগ করেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্ম না হলে বাংলাদেশের সংস্কৃতি চর্চা আজকের অবস্থানে থাকতো না। এ দেশ কট্টর কোন রাষ্ট্র থাকতো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সংস্কৃতি চর্চাকে সর্বোচ্চ পৃষ্ঠপোষকতা দিয়ে আজকের পর্যায়ে নিয়ে এসেছেন।

প্রধান অতিথি আরও যোগ করেন, সংস্কৃতির বিকশিত রূপ দিয়ে আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে হবে। সমাজের অবক্ষয়ের বল্গাহীন স্রোত থেকে সন্তানদের রক্ষার জন্য রক্ষণশীলতা থেকে বের হয়ে এসে সংস্কৃতি চর্চার মাধ্যমে মননশীলতা ও সুকুমারবৃত্তির বিকাশ ঘটাতে হবে। সংস্কৃতি চর্চার পাশাপাশি সন্তানদের নৈতিকতা ও মূল্যবোধের শিক্ষা দিতে হবে। এজন্য সম্মিলিতভাবে কাজ করতে হবে।

নৃত্যাঙ্গণের সভাপতি বিপুল চন্দ্র বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ, বাংলাদেশ শিশু একাডেমির মহাপরিচালক মো. শরিফুল ইসলাম, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক শাহেদুল কবির চৌধুরী, বাংলাদেশ নৃত্যশিল্পী সংস্থার সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মিনু হক ও নৃত্যশিল্পী মুনমুন আহমেদ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন নৃত্যাঙ্গণের সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান উজ্জল।


আরও খবর