Logo
শিরোনাম

বিশ্বের ৬০ হাজার মুসল্লিকে হজ পালনের সুযোগ দেয়া হবে

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ মে ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৮৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

করোনা মহামারি শুরুর পর চলতি বছর প্রথমবারের মতো বিশ্বের ৬০ হাজার মুসল্লিকে হজ পালনের সুযোগ দেয়া হবে বলে জানিয়েছে সৌদি আরব।

রবিবার (২৩ মে) হজ বিষয়ক এক বিবৃতিতে সৌদির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সূত্রে মসজিদুল হারামের অফিসিয়াল টুইটারে এ খবর জানানো হয়।

সৌদির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে জানায়, আগামী জুলাই মাসে অনুষ্ঠিতব্য হজে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ১৮-৬০ বছর বয়সি নাগরিকরা অংশগ্রহণের সুযোগ পাবেন। তবে করোনা মহামারির আগের সময়ের তুলনায় সীমিত সংখ্যক লোক এবারের হজে অংশ নেবেন।

ওই বিবৃতিতে আরও জানানো হয়, সৌদির বাইরের দেশ থেকে মাত্র ৪৫ হাজার লোক এ বছরের হজে অংশগ্রহণের সুযোগ পাবেন। আর সৌদি থেকে ১৫ হাজার হজ পালনের সুযোগ পাবেন। সর্বমোট ৬০ হাজার লোক হজ পালনের সুযোগ পাবেন।

গত ১৭ মে থেকে হজ বাস্তবায়নের প্রাথমিক ধাপ হিসেবে সৌদি আরব আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চালু করেছে। চলতি বছরের ১৭-২২ জুলাই মুসলিমদের সর্ববৃহৎ সম্মিলন পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে।

হারামাইন শরিফাইনের এক টুইট বার্তায় বলা হয়, এ বছর কেবল ১৮-৬০ বছর বয়সী ৬০ হাজার লোক হজ পালনের সুযোগ পাবেন। তাদেরকে অবশ্যই সুস্থ-সবল হতে হবে। হজ সফরের আগের ছয় মাসে কোনো অসুস্থতার কারণে হাসাপাতালে থাকা যাবে না।

তাছাড়া এ বছরের হজে অংশগ্রহণকারীদেরকে অবশ্যই দুই ডোজ করোনা টিকা নিতে হবে। নিজ দেশের স্বাস্থ্যবিভাগ বা হাসপাতাল বা মন্ত্রণালয় প্রদত্ত করোনা টিকা গ্রহণের কার্ড দেখাতে হবে। সৌদির স্বাস্থ্য বিভাগের অনুমোদিত করোনা টিকাগুলোর মধ্য থেকে টিকা গ্রহণ করতে হবে।

বিদেশী হজযাত্রীদেরকে তিন দিন কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। টিকার প্রথম ডোজ অবশ্য ঈদুল ফিতরের আগে নিতে হবে। এবং দ্বিতীয় ডোজ সৌদিতে পৌঁছানোর ১৪ দিন আগে নিতে হবে।

পাশাপাশি করোনা সংক্রমণ রোধে সামাজিক দূরত্ব ও মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করাসহ সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি সর্বাত্মকভাবে অনুসরণ করতে হবে।

নিউজ ট্যাগ: হজ পালন

আরও খবর



বিশ্বের মাত্র ৪৩ জনের শরীরে বইছে এই রক্ত!

প্রকাশিত:রবিবার ২০ জুন ২০21 | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৪৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যার জন্য বাঁচতে পারে একটি মানুষের জীবন। এক ফোঁটা রক্ত যাতে কখনও কোনো মানুষের প্রাণ না কেড়ে নিতে পারে, তার জন্য এলাকায় এলাকায় চলে রক্তদান শিবির। এক এক মানুষের এক এক ধরণের রক্তের গ্রুপ। এ পজিটিভি কিম্বা নেগেটিভ, বি পজিটিভ কিম্বা নেগেটিভ, এবি পজিটিভ রক্তের জন্যও চাহিদা সামনে আসে। কিন্তু এমন এক গ্রুপের রক্ত আছে, যা বেশিরভাগ মানুষ কল্পনাও করতে পারেন না। যা গোটা বিশ্বের মাত্র ৪৩ জনের শরীরে রয়েছে। নাম গোল্ডেন ব্লাড (Golden blood)।

জানা যায়, গোল্ডেন ব্লাড (Golden blood) গ্রুপধারী ব্যক্তির শরীরে ‌আরএইচ সিস্টেমের কোনো এন্টিজেন থাকে না। এধরণের মানুষদের তো পৃথিবীর আলো দেখারই কথা না। আচ্ছা বলুন তো এন্টিজেন ছাড়া বেঁচে থাকা কি সম্ভব? নিশ্চয় নয়। কিন্তু যাদের বেঁচে থাকার কথাই নয়, তাঁরাই কিনা বিরাজ করছেন পৃথিবীতে। দিব্য পৃথিবীর বুকে হেটেচলে বেড়াচ্ছেন তাঁরা। গোটা বিষয়টা অদ্ভুত লাগলেও এটাই সত্যি।

অন্যান্যদের রক্তের সঙ্গে এঁদের রক্তের গঠনগত পার্থক্যও রয়েছে। বিশ্বের প্রায় সমস্ত মানুষের শরীরে যে রক্ত (Blood) থাকে, সেসব রক্তে ১৬০টি এন্টিজেন বিদ্যমান থাকবেই। কিন্তু এই ৪৩ জনের রক্তে এন্টিজেনের সংখ্যা ৩৪২টি। একটি রক্তের গ্রুপকে তখনই দুর্লভ হিসাবে ধরা হয় যখন এগুলোর মধ্যে কারো রক্তে যে কোনো একটি এন্টিজেন যা শতকরা ৯৯ জন মানুষের রক্তেই বিদ্যমান, তার অনুপস্থিতি থাকে। পাশাপাশি কারো রক্তে ৯৯.৯৯ শতাংশ মানুষের রক্তে থাকে এমন রক্ত অনুপস্থিত থাকলে সেই রক্তকে ধরা হয় খুব দুর্লভ হিসেবে।

এই ধরণের রক্তকে আর-এইচ নাল ব্লাড-ও বলা হয়। সাল ১৯৩৯। সেবছরই প্রথম এই ব্লাডের কথা গবেষকদের মাথায় আসে। তবে এটা শুধুই তত্ত্ব ছিলো। যদি কারো শরীরে আরএইচ সিস্টেমের কোনো এন্টিজেন না থাকে তবে তার ব্লাড গ্রুপ হবে আর-এইচ নাল। বাস্তবে যে এমনটা সম্ভব,তা হয়ত কেউ কল্পনাও করেনি।

জানা যায়, ১৯৬১ সালে প্রথমবারের মতো একজন অস্ট্রেলিয়ান নারীর শরীরে এমন রক্তের সন্ধান পাওয়া যায়। এও জানা গিয়েছে যে, এখন পর্যন্ত সারা পৃথিবীতে মাত্র ৪৩ জন এমন মানুষের সন্ধান পাওয়া গেছে। তাদের জীবনে কোনোদিন রক্তের সমস্য়া দেখা দিলে, ব্যাপক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় তাদের। এই গোল্ডেন ব্লাডের ধারকদের উপর বাড়তি সতর্কতাও রাখেন তাঁর পরিবার। এমন অতি-দুর্লভ রক্তের ধারকদের পরিচয়ও জমা করে রাখা হয় ব্লাড ব্যাংকে স্যাম্পেল জমা দেওয়ার সময়।

 


আরও খবর

১২০ বছর বাঁচবে মানুষ

বুধবার ০২ জুন 2০২1




ইটালিতে কেবল কার দুর্ঘটনায় ১৪ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:সোমবার ২৪ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | ৮৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ইটালিতে পাহাড়ের উপর কেবল কার দুর্ঘটনায় ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে অন্তত একজন শিশু ছিল।

গতকাল নর্দার্ন ইটালির লেক ম্যাগ্গিওরের কাছে এক পাহাড়ে পড়ে যায় কেবল কারটি।

ইটালির পিয়েডমন্ট এলাকায় রিসোর্ট টাউস স্টেরেসা থেকে পার্শ্ববর্তী মোট্টারন পাহাড়ে যাত্রীদের নিয়ে যাচ্ছিল কারটি।

ছবিতে দেখা গেছে ধ্বংসাবশেষটি খাড়া খাড়া কাঠুরে এলাকায় পড়ে আছে। নিহতদের মধ্যে পাঁচ জন ইসরায়েলের বলে জানিয়েছে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। তাদের বেশিরভাগই ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারায়।

তবে পাঁচ ও নয় বছর বয়সী দুটি শিশুকে জীবিত পাওয়ায় তাদের বিমানে করে তুরিনের হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। কিন্তু একটু বড় শিশুটি তারপর প্রাণ হারায়। ছোট শিশুটিও ইসরায়েলের নাগরিক। হাসপাতালে তার অপারেশন চলছে এবং সংকটাপন্ন অবস্থায় আছে।

সেখানকার সময় দুপুর সাড়ে বারোটার দিকে এই দুর্ঘটনা ঘটে। তবে এখনও কারটি পড়ে যাওয়ার কারণ জানা যায়নি। তখন পাহাড়টির শীর্ষে পৌঁছাতে আরও ৩০০ মিটার পথ বাকি ছিল।

কেবল কারটি গাছগুলোর কারণে থেমে যাওয়ার আগে ২০ মিটার মতো ঢালু পথে গড়িয়ে পড়েছিল। দুর্ঘটনার সময়ে আশেপাশে থাকা পর্বতারোহীরা প্রবল আওয়াজ শুনতে পায়। স্টেরেসোর মেয়র মার্সেলা সেভেরিনো বলেন, আমরা খুবই বিধ্বস্ত।



আরও খবর



ইয়াসের তান্ডব : প্রবল জলোচ্ছ্বাসে ভাসছে দিঘা

প্রকাশিত:বুধবার ২৬ মে ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৯১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভারতের ওড়িশায় আঘাত হেনেছে অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ইয়াস। তবে স্থলভাগে আছড়ে পড়ার অনেক আগে থেকেই তার প্রভাব পড়তে শুরু করেছে দিঘায়। বুধবার সকালেই পানিতে ডুবে যায় দিঘার একাধিক এলাকা। পানি ঢুকতে শুরু করেছে মূল রাস্তায়। আতঙ্কে বাড়ি ছাড়ছেন অনেক বাসিন্দা। খবর আনন্দবাজারের।

মঙ্গলবার রাত থেকেই দিঘায় বৃষ্টি শুরু হয়েছিল। সমুদ্রে ঢেউয়ের উচ্চতাও বাড়ছিল। সময় যত এগিয়েছে তত বৃষ্টির তীব্রতা বেড়েছে। সেই সঙ্গে দিঘা ও নিউ দিঘায় গার্ডরেল ছাপিয়ে পানি ঢুকতে শুরু করে। তার ফলে বুধবার সকালেই পানিতে ডুবে যায় মূল শহর। এমনকি দিঘা থানাও ডুবে গেছে।

অনেক আগে থেকেই দিঘায় উপকূল ভর্তি এলাকার বাসিন্দাদের সরিয়ে নিয়েছে প্রশাসন। কিন্তু শহরের বাসিন্দারা বাড়িতেই ছিলেন। যদিও দিঘায় ভেতরে পানি ঢুকতে শুরু করায় অনেকেই আতঙ্কে বাড়ি ছেড়ে একটি শিবিরে আশ্রয় নিয়েছেন। পানি ঢুকেছে সৈকত শহরের অনেক হোটেলেও। পরিস্থিতি মোকাবিলায় নামানো হয়েছে সেনা।


আরও খবর



চাকরির প্রলোভনে কিশোরীকে গণধর্ষণ : গ্রেফতার ৪

প্রকাশিত:বুধবার ১৬ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৭১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে বাঁশখালী থেকে এক তরুণীকে বাড়ি থেকে জসিম এনে কোথাও জিম্মি করে রেখেছে। তরুণীর পরিবার কোনো খোঁজ পায়নি। গত ১৩ জুন তার বাবা এসে

চট্টগ্রাম নগরের বাকলিয়া থানার নতুন ব্রিজ সেল সেন্টারের সামনে থেকে নগরের ফ্রিপোর্ট এলাকায় পোশাক কারখানায় চাকরি দেওয়ার কথা বলে কিশোরীকে ৯ দিন জিম্মি রেখে গণধর্ষণের অভিযোগে ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৭। তারা হলেন- বাঁশখালীর ছনুয়া মধুখালী এলাকার মো. জসিম উদ্দিন (২৭), একই এলাকার নুরুল আজিম (২৮), পূর্ব চাম্বল এলাকার মোহাম্মদ নবী (২২) এবং নগরের কোতোয়ালী থানার পাথরঘাটা এলাকার ওমর আলী মার্কেট এলাকার মো. জাবের আহাম্মদ (৪৮)।

বুধবার (১৬ জুন) বিকেলে র‌্যাব-৭ এর সহকারী পরিচালক মো.নুরুল আবছার বলেন, গত ৭ জুন ফ্রিপোর্ট এলাকায় পোশাক কারখানায় চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে বাঁশখালী থেকে এক তরুণীকে বাড়ি থেকে জসিম এনে কোথাও জিম্মি করে রেখেছে। তরুণীর পরিবার কোনো খোঁজ পায়নি। গত ১৩ জুন তার বাবা এসে আমাদের কাছে অভিযোগ করেছেন। তখন আমরা বিভিন্ন মাধ্যমে খবর নিয়ে জসিমের অবস্থান শনাক্ত করি। জসিমের বাসাতেই মেয়েটিকে পাওয়া যায়। তরুণীকে আমরা উদ্ধার করি।

তিনি জানান, বাসায় আটক করে রেখে ভিকটিমের ইচ্ছার বিরুদ্ধে জীবননাশসহ পরিবারের বিরাট ক্ষতি হবে হুমকি দেখিয়ে প্রথমে জসিম এবং পরবর্তীতে অন্যরা মিলে প্রতিদিন পালাক্রমে ধর্ষণ করেছে। তাকে চাকরি দেওয়ার পাশাপাশি বিয়ের আশ্বাস দেন জসিম। এ ঘটনায় বাকলিয়া থানায় মামলা হয়েছে। 


আরও খবর



চাকরির পেছনে না ছুটে উদ্যোক্তা হওয়ার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত:শনিবার ২২ মে ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ১০০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যুবসমাজকে চাকরির পেছনে না ছুটে উদ্যোক্তা হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শনিবার (২২ মে) আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মৎস্যজীবী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে এ পরামর্শ দেন।

এদিন বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের অনুষ্ঠানে ভিডিও বার্তায় শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী।

তিনি যুবসমাজের উদ্দেশ্যে বলেন, চাকরির পেছনে না ছুটে মৎস্য উদ্যোক্তা হোন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সব ক্ষেত্রে বাংলাদেশকে স্বয়ংসম্পূর্ণ করতে চাই এবং জাতির পিতার আদর্শ নিয়ে বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে বাংলাদেশ।

তিনি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এসে মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে কাজ করছে।

মৎস্যজীবী লীগের সভাপতি সায়ীদুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কেন্দ্রীয় কার্যকরী সদস্য শাহাবুদ্দীন ফরাজী, এবিএম রিয়াজুল কবির কাওছার এবং মৎস্যজীবী লীগের সাধারণ সম্পাদক শেখ আজগর নস্কর।


আরও খবর