Logo
শিরোনাম

বিয়ে করতে চলেছেন অভিনেত্রী মধুরিমা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৬৮৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আগামী বছরেই বিয়ে করতে চলেছেন অভিনেত্রী মধুরিমা বসাক। পাত্র ইন্ডাস্ট্রির কেউ নন। তবে বিয়ের বিষয়ে অভিনেত্রী এখনই কিছু ভাঙতে রাজি নন। মোহর এবং শ্রীময়ী ধারাবাহিক দিয়ে জনপ্রিয়তা পেয়েছেন মধুরিমা। ধারাবাহিকের লিড চরিত্র না হওয়া সত্ত্বেও শ্রেষ্ঠা এবং কিয়া চরিত্র দুটি দর্শকের কাছে গ্রহণযোগ্যতা তৈরি করতে পেরেছে। পাশাপাশি তিনি সৃজিত মুখোপাধ্যায় পরিচালিত এক্স-প্রেম ছবি দিয়ে সিনেমায় ডেবিউ করছেন। বিজ্ঞাপনের জগতেও মধুরিমা জনপ্রিয় মুখ।

অভিনেত্রী বিয়ে করছেন তাঁর পছন্দের পাত্রকেই। দুই বাড়ি থেকে কথাবার্তা মোটামুটি এগিয়েছে। তবে মধুরিমার বাবা সম্প্রতি অসুস্থ হয়ে পড়ায় এখনই বিয়ের ব্যাপারে মুখ খুলতে চান না অভিনেত্রী। বললেন, আগামী বছরেই বিয়ের পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু এই মুহূর্তে আমার বাবা খুব অসুস্থ। তাই এখনই এ সব নিয়ে ভাবছি না। বিয়ের পরেও তিনি অভিনয় চালিয়ে যাবেন। কিছু দিনের মধ্যেই নতুন একটি ধারাবাহিকে গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে মধুরিমাকে দেখা যাবে

নিউজ ট্যাগ: মধুরিমা বসাক

আরও খবর

অবশেষে জামিন পেলেন শাহরুখপুত্র

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১

আজ ফের হাইকোর্টে আরিয়ানের জামিন শুনানি

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১




‘করোনার ১১ ভেরিয়েন্টের বিরুদ্ধে কার্যকর বঙ্গভ্যাক্স’

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১ | ৭২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে তৈরী করোনার টিকা বঙ্গভ্যাক্স ডেল্টাসহ বিশ্বে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের ১১টি ভেরিয়েন্টের বিরুদ্ধে শতভাগ কার্যকর বলে দাবি করেছে উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড। এই টিকার এনিমেল (বানরের শরীরে) ট্রায়ালের প্রাথমিক ফলাফলে এ তথ্য জানা গেছে। আগামী বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) এই ট্রায়াল শেষ হবে।

সোমবার সকালে প্রতিষ্ঠানটির কোয়ালিটি অ্যান্ড রেগুলেটরি বিভাগের জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক ড. মোহাম্মদ মহিউদ্দিন গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, গত ১ আগস্ট থেকে বানরের ওপর শুরু হওয়া এ ট্রায়াল আগামী বৃহস্পতিবার শেষ হবে। এরপর আগামী সপ্তাহের দিকে ট্রায়ালের বিস্তারিত প্রতিবেদন বাংলাদেশ চিকিৎসা গবেষণা পরিষদের (বিএমআরসি) কাছে হস্তান্তর করতে পারব বলে আশা করছি।

ড. মহিউদ্দিন বলেন, এখন পর্যন্ত বিশ্বে করোনাভাইরাসের ডেল্টাসহ ১১টি ভেরিয়েন্ট বিভিন্ন সময় বিভিন্ন জায়গায় সক্রিয় ছিল। আমরা এ ১১টি ভেরিয়েন্টের সিকোয়েন্স অ্যানালাইসিস করে টিকার সিকোয়েন্স মিলিয়ে দেখেছি প্রতিটি ভেরিয়েন্টের ক্ষেত্রেই বঙ্গভ্যাক্স কার্যকর। যার প্রমাণ মিলেছে বানরের শরীরে পরীক্ষার ক্ষেত্রেও। প্রাথমিক ফলাফলে আমাদের টিকা বানরের শরীরে নিরাপদ এবং কার্যকর অ্যান্টিবডি তৈরি করতে সক্ষম বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা ভ্যাকসিনেটেড বানরের শরীরে করোনাভাইরাসের ডেল্টাসহ অন্যান্য ভেরিয়েন্ট প্রয়োগ করে চ্যালেঞ্জ স্টাডি করেছি। চূড়ান্ত ফলাফলে আমাদের টিকা ডেল্টাসহ অন্যান্য ভেরিয়েন্টের বিরুদ্ধে শতভাগ কার্যকর বলে প্রমাণিত হয়েছে। তাই উন্নত বিশ্ব করোনা মোকাবিলায় যে নতুন ভ্যাকসিনের কথা বলছে, আমরা মনে করি, সেই নতুন ভ্যাকসিনটি হতে পারে বঙ্গভ্যাক্স। কারণ এক বছর আগে যখন প্রথম ভ্যাকসিন তৈরি করা হয়েছিল তখন করোনার এতো রূপ আবিষ্কৃত হয়নি। ফলে বর্তমানে প্রচলিত বেশিরভাগ ভ্যাকসিন ডেল্টা ভেরিয়েন্টের বিরুদ্ধে খুব একটা কার্যকরী ভূমিকা রাখতে পারছে না।

গ্লোব বায়োটেকের এ কর্মকর্তা বলেন, আমরা বিশ্বাস করি, বঙ্গভ্যাক্স ভ্যাকসিন বিশ্বকে এ করোনা সংকট থেকে উদ্ধার করবে। আমরা আত্মবিশ্বাসী যে, বঙ্গভ্যাক্স মানবদেহেও একইভাবে কাজ করবে। তাই আমরা যদি এ টিকা মানবদেহে পরীক্ষা শেষে বাজারে নিয়ে আসতে পারি, তাহলে সারা বিশ্বে ডেল্টাসহ করোনার অন্যান্য ভেরিয়েন্টের যে মহামারি চলছে সেটা থেকে পরিত্রাণ মিলবে।

বঙ্গভ্যাক্স টিকার বিশেষ বৈশিষ্ট্য নিয়ে মোহাম্মদ মহিউদ্দিন বলেন, আমাদের টিকার বিশেষ বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, এর ১টি ডোজেই এনিমেল ট্রায়ালে কার্যকর অ্যান্টিবডি পাওয়া গেছে। আশা করছি, ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালেও একইভাবে ফলাফল পাওয়া যাবে। এটি +৪° সেলসিয়াস তাপমাত্রায় ১ মাস এবং -২০° সেলসিয়াস তাপমাত্রায় ৬ মাস পর্যন্ত সংরক্ষণ করা যাবে।

তিনি বলেন, এই টিকা সিন্থেটিক্যালি তৈরি হওয়ায় তা ভাইরাসমুক্ত এবং শতভাগ হালাল। আমরা যদি দ্রুত টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শেষ করে মুজিববর্ষ ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে দেশবাসীর সেবায় বঙ্গভ্যাক্সকে উৎসর্গ করতে পারি, তাহলে বাংলাদেশের অবস্থান বিশ্ব দরবারে আরও সুপ্রতিষ্ঠিত হবে।

কতটি বানরের শরীরে এ টিকার ট্রায়াল হচ্ছে? এমন প্রশ্নের উত্তরে এ কর্মকর্তা বলেন, শিগগিরই আমরা একটি প্রেস ব্রিফিং করব। সেখানে এ সংক্রান্ত সব প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে।

গত বছরের ২ জুলাই ওষুধ প্রস্তুতকারী গ্লোব ফার্মার সহযোগী প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক বঙ্গভ্যাক্স টিকা তৈরির কাজ শুরুর কথা জানায়। সেই টিকা খরগোশ ও ইঁদুরের ওপর প্রয়োগ করে কার্যকর ও সম্পূর্ণ নিরাপদ প্রমাণিত হয়েছে বলেও তখন জানানো হয়েছিল।


আরও খবর

আরও ১৭৩ ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১

করোনায় মৃত্যু কমেছে, শনাক্ত বেড়েছে

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১




ট্রাকের ড্যাস বোর্ড থেকে ১০ কোটি টাকার আইস জব্দ

প্রকাশিত:শনিবার ০৯ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলায় প্রায় ১০ কোটি টাকার ক্রিস্টাল মেথ বা মাদক আইসসহ দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে মাদকগুলো জব্দ ও তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন বাহারছড়া কচ্ছপিয়া এলাকার ফয়সাল আহমদ প্রকাশ ফজল (২৯) ও হেলপার উখিয়া কুতুপালং ৭ নম্বর রোহিঙ্গা ক্যাম্পের জাহিদ আলম (২০)।

সাতকানিয়া সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকারিয়া রহমান জিকু থানায় সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানান।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জানান, গতকাল রাতে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়ক হয়ে প্রায় ১০ কোটি টাকার মাদক পাচারের খবর আসে। রাত ১০টা থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চেকপোস্ট বসিয়ে অপেক্ষায় থাকে একদল পুলিশ সদস্য। রাত ২টার দিকে কক্সবাজার থেকে ঢাকাগামী একটি মিনি ট্রাক চেকপোস্টে থামায় পুলিশ। এ সময় গাড়িটি থামিয়ে ফোনে কথা বলার ভান করে চালক পালানোর চেষ্টা করে।

পুলিশ সেখান থেকে চালক ফয়সাল আহমদ প্রকাশ ফজল ও হেলপার রোহিঙ্গা জাহিদ আলমকে আটক করে। পরে তল্লাশি চালিয়ে গাড়ির সামনের এয়ার কুলারের ড্যাস বোর্ডের ভেতর থেকে দুই কেজি ক্রিস্টাল মেথ বা মাদক আইস জব্দ করে।

জব্দকৃত মাদকের আনুমানিক মূল্য ১০ কোটি টাকা বলে জানায় পুলিশ।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকারিয়া রহমান জিকু আরও বলেন, আমরা এই ভয়ঙ্কর মাদকের উৎস ও গন্তব্য সম্পর্কে জানতে চেষ্টা করছি। আটক মাদক কারবারীদের বিরুদ্ধে সাতকানিয়া থানায় সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা করা হয়েছে।

সাতকানিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, পুলিশ মাদক কারবারীদের গ্রেপ্তারে সব সময় সচেষ্ট রয়েছে। তারই অংশ হিসেবে আজকে আমরা একটি আধুনিক ও ভয়ানক মাদকের চালান জব্দ করতে পারলাম।

নিউজ ট্যাগ: আইস

আরও খবর



স্বীকৃতির জন্য বিদেশিদের শর্তে তালেবান কান দিচ্ছে কি?

প্রকাশিত:বুধবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১ | ৮২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আফগানিস্তানে নারীদের জন্য কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ের দরজা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ হয়ে গেছে। সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সদ্য নিয়োগ পাওয়া ৩৪ বছরের চ্যান্সেলর মোহাম্মদ আশরাফ ঘাইরাত এক টুইট বার্তায় এই নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। তিনি গত ১৫ বছর তালেবানের সাংস্কৃতিক বিষয়াদির সঙ্গে যুক্ত ছিলেন।

টুইট বার্তায় আশরাফ ঘাইরাত বলেন, কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলর হিসেবে আমি আপনাদের প্রতিশ্রুতি দিচ্ছি, যতদিন না সবার জন্য যথাযথ ইসলামি পরিবেশ নিশ্চিত করা হবে, ততদিন নারীরা বিশ্ববিদ্যালয়ে আসতে পারবেন না। সবকিছুর আগে ইসলাম।

এর আগে যখন দীর্ঘ বিরতির পর আফগানিস্তানের সরকারি মাধ্যমিক স্কুল খুলল তখন শুধু ছেলে শিক্ষার্থীরাই সেখানে যাওয়ার অনুমতি পেল। মেয়েরা কবে স্কুলে যেতে পারবে তা এখনও অনিশ্চিত।

অথচ ক্ষমতা দখলের পর গত দেড় মাস ধরে তালেবানের ওপর আন্তর্জাতিক মহল থেকে, বিশেষ করে পশ্চিমাদের কাছ থেকে যেসব দাবি-শর্ত দেওয়া হচ্ছে তার মধ্যে অন্যতম হলো নারী শিক্ষা এবং তাদের কাজের অধিকার।

এমনকি যে দেশটির সমর্থন-স্বীকৃতি তালেবানের জন্য এখন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সেই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানও কয়েকদিন আগে আফগানিস্তান এবং তালেবান নিয়ে বিবিসিকে দেওয়া একান্ত সাক্ষাতকারে বলেন, নারী শিক্ষা বন্ধ করা অনৈসলামিক হতে পারে। পাকিস্তানের কাছ থেকে তালেবান সরকারের আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি যে শর্তসাপেক্ষ তা তিনি স্পষ্ট করে বলে দিয়েছেন।

কিন্তু বাইরের এসব কথায় আদৌ যে তালেবান কান দিচ্ছে তার কোনো লক্ষণ নেই। বরং তালেবানের কাছ থেকে জোর ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে যে, স্কুল-কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ে নারীদের শিক্ষা নিতে হবে আলাদাভাবে এবং শুধু নারী শিক্ষকরাই তাদের পড়াতে পারবেন। আফগানিস্তান নারী শিক্ষকের সংখ্যা এতই কম যে, এমনিতেই মেয়েদের শিক্ষার সুযোগ কমে যেতে বাধ্য।

লন্ডনে আফগান সাংবাদিক এবং আফগান রাজনীতির বিশ্লেষক সৈয়দ আব্দুল্লাহ নিজামী বলেন, বিদেশিদের সঙ্গে সম্পর্কে আগ্রহ দেখালেও তাদের কথাবার্তা এবং বিভিন্ন শর্ত মানছে না তালেবান। অবশ্য এর আগেও কখনও অন্যদের কথায় চলেনি তালেবান। নারী শিক্ষা, সঙ্গীত বা আইন শৃঙ্খলা রক্ষার তরিকা যে বিষয়ই হোক না কেন তারা তাদের পুরোনো বিশ্বাস আর আদর্শ অনুযায়ীই কাজ করে যাচ্ছে।

তিনদিন আগে হেরাত শহরে চারজন সন্দেহভাজন অপহরণকারীকে মেরে তাদের মরদেহ রাস্তার মোড়ে ঝুলিয়ে রাখা হয়। তার দুদিন আগে বার্তা সংস্থা এপিকে দেওয়া এক সাক্ষাতকারে তালেবানের এক শীর্ষ নেতা চুরি-ডাকাতির অপরাধে হাত কাটার বিধান চালুর পক্ষে কথা বলেন। অথচ তালেবান জানে দেশ চালানোর জন্য যাদের সাহায্য এবং স্বীকৃতি তাদের জন্য জরুরি তারা এসব পছন্দ করবে না।

নিজামী বলেন, কাবুল দখলের আগে বা পরপরই যেসব তালেবান নেতার মুখের কথা শুনে মনে হচ্ছিল গত ২০ বছরে তাদের চিন্তা-চেতনায় হয়ত বেশ পরিবর্তন হয়েছে, তারা কেউই ক্ষমতার কেন্দ্রে আসতে পারেননি। যারা এসেছেন তারা তাদের পুরোনো মত-পথ থেকে সরে আসেননি এবং চাপ দিয়ে তাদের নড়ানো কঠিন।

যে দেশটির জিডিপির ৪০ শতাংশই পশ্চিমা সাহায্যের ওপর নির্ভরশীল, সেই সাহায্য গত দেড় মাস ধরে বন্ধ।আফগানিস্তানের ১০ বিলিয়ন ডলারের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ যুক্তরাষ্ট্র আটকে দিয়েছে। বিশ্বব্যাংক এবং আইএমএফ আফগানিস্তানের জন্য তাদের জরুরি ঋণের নির্ধারিত কিস্তি স্থগিত করে দিয়েছে।

আটকে দেওয়া এসব টাকা এখন তালেবানের ওপর প্রভাব খাটানোর জন্য যুক্তরাষ্ট্র এবং তার পশ্চিমা মিত্রদের প্রধান অস্ত্র। তারা বলছে, নারীদের শিক্ষা এবং কাজের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। নারী এবং আফগান সমাজের বিভিন্ন অংশকে ক্ষমতার ভাগ দিতে হবে।

এমনকি পাকিস্তান, রাশিয়া, ইরান সহ প্রতিবেশী দেশগুলোর কাছ থেকেও স্বীকৃতি এবং সমর্থনের শর্ত হিসেবে সরকারে বিভিন্ন জাতি গোষ্ঠী, সংখ্যালঘু এবং নারী প্রতিনিধিত্বের দাবি করা হয়েছে।

কাবুলে বিদেশি, বিশেষ করে প্রভাবশালী কয়েকটি আঞ্চলিক দেশের প্রতিনিধিদের সঙ্গে সাহায্য ও স্বীকৃতির বিষয়ে কথা বলতে তালেবান তৎপর। প্রতিদিনই বিভিন্ন পর্যায়ে বৈঠক ও কথাবার্তা হচ্ছে। কিন্তু বিদেশিদের দেওয়া শর্ত নিয়ে তালেবানের কাছ থেকে কোনো কথা বা প্রতিশ্রুতি নেই।

বিশেষ করে সরকারে কারা থাকবে, কী থাকবে না তা নিয়ে কোনো কথা তালেবান শুনতে চায় না। আমেরিকানদের সমর্থনে যেসব সরকার ছিল তাদের তালেবান বিশ্বাস করে না। বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর প্রতিনিধিত্বের ধারণাই তারা মানে না বলে মনে করেন নিজামী। তাদের কথা, এটি একটি ইসলামি সরকার। এর সাথে জাতি-গোষ্ঠী বা সম্প্রদায়ের সম্পর্ক নেই।

সরকারে বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর প্রতিনিধিত্ব নিয়ে সম্প্রতি তাজিকিস্তানের এক বিবৃতিকে কেন্দ্র করে চরম ক্ষুব্ধ তালেবান। বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তালেবানের মুখপাত্র আহমেদুল্লাহ ওয়াসিক বলেন, যে তাজিকিস্তান আমাদের জন্য সমস্যা তৈরিতে ব্যস্ত তারা আমাদের সরকারের কাঠামো নিয়ে কথা বলার কে? তাদের উচিৎ নিজেদের সমস্যা সমাধান করা। আমাদের সরকার কেমন হবে তা নিয়ে বিদেশিদের কথা বলার কোনো অধিকার নেই।

কিন্তু স্বীকৃতি ছাড়া দেশ চালানোর জন্য প্রয়োজনীয় অর্থকড়ির সংস্থান কিভাবে করবে তালেবান? আব্দুল্লাহ নিজামী বলছেন, তালেবান ভরসা করছে আঞ্চলিক কয়েকটি দেশের ওপর অর্থাৎ চীন রাশিয়া, ইরান এবং পাকিস্তান এবং সেই সঙ্গে কাতার। আফগানিস্তানে নারী অধিকার, নারী শিক্ষা নিয়ে এসব দেশের তেমন কোনো চিন্তা নেই। তালেবান মনে করে এসব দেশ তাদের কৌশলগত স্বার্থ নিয়েই বেশি উৎসাহী।

কাবুলের সঙ্গে গোপনে এবং প্রকাশ্যে আঞ্চলিক কয়েকটি দেশের যোগাযোগ যে চলছে তা স্পষ্ট। সেপ্টেম্বরের ২১ ও ২২ তারিখ কাবুলে ছিলেন প্রেসিডেন্ট পুতিনের আফগান বিষয়ক দূত জামির কাবুলভ, চীনের আফগান বিষয়ক বিশেষ দূত উ শাও উং এবং পাকিস্তানের মোহাম্মদ সাদিক খান। তালেবান জানিয়েছে, এদের তিনজনের সঙ্গে বৈঠক হয়েছে তালেবান সরকারের প্রধানমন্ত্রী মোল্লা হাসান আখুন্দজাদার।

তবে পাকিস্তান, চীন এবং রাশিয়া তালেবান সরকারকে স্বীকৃতি দেওয়ার ব্যাপারে একটি সমন্বিত সিদ্ধান্তের পথ নিয়েছে বলে জোর ইঙ্গিত রয়েছে।

পাকিস্তানের উদ্যোগে ৮ সেপ্টেম্বর চীন, রাশিয়া, পাকিস্তান, ইরান, উজবেকিস্তান, তাজিকিস্তান ও তুর্কমেনিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা একটি বৈঠক করেছেন। দু'দিন পর শনিবার আবারও পাকিস্তানের উদ্যোগেই এসব দেশের গোয়েন্দা প্রধানরা একটি বৈঠক করেন বলে পাকিস্তানের নির্ভরযোগ্য ইংরেজি দৈনিক ডনের এক খবরে বলা হয়েছে। আমেরিকার সাথেও গোপনে পাকিস্তান কথা বলছে বলে ডনের খবরে বলা হয়েছে।

তবে নারী শিক্ষা বা সরকার কাঠামো নিয়ে চীন বা পাকিস্তান তালেবানের সাথে বড় কোনো ঝামেলায় জড়াতে রাজি হবে বলে মনে হয় না।

যেমন, চীনের বিশেষ দূত উ শাও উং-এর সঙ্গে কাবুলে তালেবান প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক নিয়ে ২৩ সেপ্টেম্বর বেইজিংয়ে চীনা পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের একজন মুখপাত্র বলেন, উ শাও বৈঠকে আবারও আশ্বস্ত করেছেন যে, চীন আফগানিস্তানের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে মাথা গলাবে না।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান প্রকাশ্যে নারী শিক্ষা, মানবাধিকার এবং কাবুলে সব পক্ষের একটি সরকারের যত কথাই বলুন না কেন তালেবানের সঙ্গে সম্পর্কে কোনো চোট তৈরির ঝুঁকি তিনি নেবেন না।

বরং পাকিস্তান সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে তালেবানকে আফগান সেনাবাহিনী পুনর্গঠনের প্রস্তাব দেয়া হয়েছে বলে বিবিসি উর্দু ভাষা বিভাগের মঙ্গলবারের এক অনুসন্ধানী রিপোর্টে বলা হয়েছে। উচ্চপদস্থ সেনা সূত্রকে উদ্ধৃত করে ওই রিপোর্টে বলা হয়েছে যে, ৮ সেপ্টেম্বর পাকিস্তানের সামরিক গোয়েন্দা প্রধান লে. জেনারেল ফায়েজ হামিদের কাবুল সফরের অন্যতম উদ্দেশ্য ছিল এই প্রস্তাব নিয়ে তালেবানের সঙ্গে কথা বলা।

তবে আফগানিস্তান নিয়ে পাকিস্তানসহ সমস্ত প্রতিবেশীর প্রধান উদ্বেগ সন্ত্রাস এবং তা নিয়ে তারা তালেবানের কাছ থেকে শক্ত প্রতিশ্রুতি চায়।

অপরদিকে নিষেধাজ্ঞা চাপিয়ে তালেবানকে কোণঠাসা করার চেষ্টা কতটা কাজ করবে এবং তা হিতে-বিপরীত হয় কিনা তা নিয়ে পশ্চিমা বিশ্বে মতামত দ্বিধাবিভক্ত। ইউরোপের মাত্র দুটি দেশ ছাড়া কেউই বলেনি তারা তালেবানকে কখনই মেনে নেবে না।

নিউজ ট্যাগ: তালেবান

আরও খবর



কোম্যানকে বরখাস্ত করলো বার্সেলোনা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৩০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

লিওনেল মেসির বার্সেলোনার কোচ রোনাল্ড কোম্যানকে বরখাস্ত করা হয়েছে। রায়ো ভায়েকানোর বিপক্ষে ১-০ গোলের পরাজয়ের পর কোম্যানকে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নেয় বার্সা কর্তৃপক্ষ। 

কোম্যানের ভাগ্য নির্ধারণের জন্য বুধবার রাতের ম্যাচের ফলাফলের পরপরই ক্লাব সভাপতি জোয়ান লাপোর্তা বোর্ডের সাথে একটি জরুরি বৈঠক করেন। সেই বৈঠকেই কোম্যানকে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। পরে এই সিদ্ধান্তের কথা জানান লাপোর্তা।

ডাচ কোচ চাকরি হারাতে পারেন, সেই গুঞ্জন ছিল আগেই। রোববার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের কাছে হারের পর সেই গুঞ্জন আরও ডালপালা মেলে। আর রায়ো ভায়েকানোর বিপক্ষে হেরে গেলে কোম্যানের উপর চূড়ান্ত খড়কটি নেমে আসে।

বার্সেলোনা বোর্ড ইতিমধ্যেই কোম্যানের স্থলাভিষিক্ত করার জন্য ক্লাবটির কিংবদন্তি জাভির সাথে যোগাযোগ শুরু করে দিয়েছে। তবে সাবেক বার্সা তারকা বর্তমানে কাতার স্টারস লিগের ক্লাব আল সাদের কোচ। আরেকটি নামও বিবেচনায় রাখা হয়েছে, তিনি হলেন রবার্তো মার্টিনেজ। যিনি বর্তমানে কাতারে ফিফা বিশ্বকাপের জন্য ইউরোপীয় বাছাইপর্বে বেলজিয়ামকে পরিচালনা করছেন।

কিংবদন্তি ফুটবলার হিসেবে সুনাম থাকলেও কোচিং ক্যারিয়ারে একদমই ফ্লপ কোম্যান। ২০২০ সালের ১৯ আগস্ট বার্সার দায়িত্ব নেওয়ার পর ডাগআউটে দাঁড়িয়ে ৬৭টি ম্যাচ পরিচালনা করেছেন তিনি। সফলতা বলতে একমাত্র কোপা দেল রে'র শিরোপা।

লা লিগায় এবারের মৌসুমে ১০ ম্যাচে মাত্র ৪ জয় নিয়ে পয়েন্ট তালিকার নয় নম্বরে আছে বার্সা। চ্যাম্পিয়নস লিগেও অবস্থা খুব একটা ভালো না। গ্রুপ পর্বের প্রথম দুই ম্যাচে বায়ার্ন ও বেনফিকার কাছে ৩-০ গোলে হেরে তিনে আছে অবস্থান করছে তারা।

রোববার এল ক্লাসিকোতে রিয়াল মাদ্রিদের কাছে হারের পর ক্ষুব্ধ বার্সা সমর্থকরা কোম্যানের গাড়িতে হামলা চালায়। কোনোমতে পালিয়ে বাঁচেন ডাচ কোচ। তবে রায়ো ভায়েকানোর কাছেও হারে আর পালিয়ে বাঁচতে পারলেন না, বরখাস্ত হওয়ার দুঃসংবাদ শুনতেই হলো কোম্যানকে।

রোনাল্ড কোম্যানকে বৃহস্পতিবার এসপোর্টিভা স্কোয়াডে বিদায় জানাবে এফসি বার্সেলোনা। সেখানে ক্লাবে সেবার জন্য তাকে ধন্যবাদ জানানো এবং তার পেশাদার ক্যারিয়ারে সর্বোত্তম কামনা করা হবে।


আরও খবর

টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ে পেছাল বাংলাদেশ

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১

হারানো সিংহাসন ফিরে পেলেন সাকিব

বুধবার ২৭ অক্টোবর ২০২১




১৮ অক্টোবর: ইতিহাসের এই দিনে

প্রকাশিত:সোমবার ১৮ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৫৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

১৮ অক্টোবর গ্রেগরীয় বর্ষপঞ্জী অনুসারে বছরের ২৯১তম (অধিবর্ষে ২৯২তম) দিন। বছর শেষ হতে আরো ৭৪ দিন বাকি রয়েছে। জেনে নিন ইতিহাসের আজকের এই দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য গুরুত্বপূর্ণ ঘটনাবলি, জাতীয় দিবস সমূহ এবং এই দিনে কোন কোন বিশিষ্টজন জন্মগ্রহণ ও মৃত্যু বরণ করেছেন।

ঘটনাবলি

    ১৫৬৫ - ফিলিপাইন আনুষ্ঠানিকভাবে স্পেনের উপনিবেশে পরিণত হয়।

    ১৭৪৮ - গ্রেট ব্রিটেন, স্পেন ও সার্ডিনিয়ার মধ্যে আইলা শাপেল-এর শান্তিচুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

    ১৮৬৬ - রাশিয়া সরকারিভাবে আলাস্কাকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের হাতে তুলে দেয়।

    ১৯১০ - চীনের সাংহাইএর খ্রিষ্টিন ধর্মের যু্ব সমিতির উদ্যোগে চীনের প্রথম জাতীয় গেমসের উদ্বোধন হয়।

    ১৯১২ - ইতালী ও তুরস্কের ওসমানীয় খেলাফতের মধ্যে শান্তি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

    ১৯১২ - বুলগেরিয়া, সার্বিয়া, গ্রীস ও মন্ট্রিনিগ্রো ওসমানিয় তুর্কী সেনাদের ওপর হামলা শুরু করার মাধ্যমে প্রথম বলকান যুদ্ধ শুরু করে।

    ১৯৬৭ - রুশ মহাশূন্যযান ভেনাস-৪ প্রথমবারের মতো শুক্রে নিরাপদে অবতরণ করে।

    ১৯৭১ - পাক-ভারত সীমান্ত থেকে উভয়পক্ষের সৈন্য প্রত্যাহারের জন্য মস্কোস্থ মার্কিন রাষ্ট্রদূতের প্রস্তাব।

    ১৯৭২ - বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিশ্বশান্তি পরিষদের সর্বোচ্চ সম্মানসূচক পদক জুলিও কুরি লাভ করেন।

    ১৯৭৩ - মধ্যপ্রাচ্যে বাংলাদেশ থেকে প্রথমবারের মতো চা ও মেডিকেল টিম প্রেরণ করা হয়।

    ১৯৮৪ - আফ্রিকার মহা দেশে বিংশ শতাব্দীর সবচেয়ে বড় খরা দেখা দেয়। এ সব দেশের মধ্যে ইথিওপিয়ার দুর্যোগ সবচেয়ে গুরুতর। আফ্রিকার ৩৪টি দেশ সাংঘাতিক খরার শিকার হয় এবং ২৪টি দেশে অনাহার দেখা দেয়। কমপক্ষে এক কোটি লোক গৃহহারা হয়।

    ১৯৮৫ - দক্ষিণ আফ্রিকার বোথা সরকারের হাতে কৃষ্ণাঙ্গ কবি বেঞ্জামিন মালায়েস [২৮]-এর ফাঁসি হয়।

    ১৯৮৫ - চীনের প্রথম জাতীয় কিশোর-কিশোরী গেমস চীনের জেনযৌ শহরে সাফল্যজনকভাবে সমাপ্ত হয়।

    ১৯৮৯ - পূর্ব জার্মান কমিউনিস্ট পার্টির প্রধান এরিক হোনেকার ক্ষমতা হারান।

    ১৯৯২ - চীনা কমিউনিস্ট পার্টি চতুর্দশ কংগ্রেসে সমাজতান্ত্রিক বাজার অর্থনীতির প্রতি সমর্থন জানায়।

    ১৯৯৫ - চীনের রাজধানী পেইচিংএ চীন আর রাশিয়া দু’দেশের প্রতিনিধিদের মধ্যে দু’দেশের পশ্চিমাংশের সীমান্ত নির্ধারণ সংক্রান্ত চুক্তি অনুমোদন হয় ।

    ১৯৯৮ - এশিয়া ও প্রশান্ত মহা সাগরীয় অঞ্চলের পরিবেশ আর উন্নয়ন সম্মেলনের ষষ্ঠ বার্ষিক অধিবেশন চীনের গুয়েলিন শহরে সমাপ্ত হয়।

    ২০০১ - চীনের সাংহাইএ এপেকের শীর্ষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় । এই শীর্ষ সম্মেলনে অংশ গ্রহণকারী বিভিন্ন দেশের নেতাদের মধ্যে সন্ত্রাস দমন ইত্যাদি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা হয়। চীনের তৎকালীণ প্রেসিডেন্ট চিয়াং ছে মিন এবং মার্কিন প্রেসিডেন্ট বুশ যথাক্রমে এই শীর্ষ সম্মেলনে ভাষণ দেন।

    ২০০২ - চীনের তথ্যকরণ নেত্রী গ্রুপ চীনের জাতীয় অর্থনীতি আর সমাজ উন্নয়নের পঞ্চম দশম পালা পরিকল্পনার তথ্যকরণ পরিকল্পনা’ প্রকাশিত হয়।

    ২০২০ - দীর্ঘ ৩০ বছর পর সৌদি ও ইরাকের মধ্যে স্থলসীমান্ত উন্মুক্ত করা হয়।

 

জন্ম

    ১৭৮৫ - টমাস লাভ পিকক, ইংরেজি ঔপন্যাসিক, কবি এবং ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির কর্মকর্তা।

    ১৮০৪ - রাজা মংকুট, শ্যামদেশের (থাইল্যান্ডের) চক্রী রাজবংশের চতুর্থ রাজা ছিলেন।

    ১৮৫৪ - বিলি মারডক, অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার।

    ১৮৫৯ - অঁরি বের্গসন, একজন বিশিষ্ট ফরাসি দার্শনিক।

    ১৮৭৫ - লেন ব্রন্ড, বিখ্যাত ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তারকা ছিলেন।

    ১৮৯৩  - মাস্টারদা সূর্যসেন, বিপ্লবী।

    ১৮৯৪ - এইচ. এল. ডেভিস, একজন মার্কিন ঔপনাসিক ও কবি।

    ১৮৯৮ - লট্টে লেনিয়া, একজন অস্ট্রীয়-মার্কিন অভিনেত্রী।

    ১৯০২ - মিরিয়াম হপকিন্স, আমেরিকান অভিনেত্রী।

    ১৯০৫ - ফেলিক্স হওফোয়েত-বোদরি, আইভেরিয়ান রাজনীতিবিদ এবং প্রথম রাষ্ট্রপতি।

    ১৯০৬ - শিল্প ও সাহিত্যজগতের উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিত্ব লেডি রাণু মুখোপাধ্যায়।

    ১৯১৮ - পরিতোষ সেন, ভারতীয় বাঙালি চিত্রশিল্পী।

    ১৯১৯ - পিয়ের ট্রুডো, ছিলেন একজন কানাডীয় রাজনীতিবিদ এবং কানাডার ১৫ তম প্রধানমন্ত্রী।

    ১৯২০ - মেলিনা মার্কুরি, একজন গ্রিক অভিনেত্রী, গায়িকা ও রাজনীতিবিদ।

    ১৯২৫ - ইলা মিত্র, বাঙালি মহীয়সী নারী এবং সংগ্রামী কৃষক নেতা।

    ১৯২৬ - চাক বেরি, একজন মার্কিন গায়ক, গীতিকার এবং রক এ্যান্ড রোল সংগীতের একজন প্রবর্তক।

    ১৯২৬ - ক্লাউস কিন্‌স্কি, একজন জার্মান অভিনেতা।

    ১৯২৭ - জর্জ সি. স্কট, একজন মার্কিন অভিনেতা, পরিচালক ও প্রযোজক।

    ১৯৩৩ - আরউইন মার্ক জ্যাকবস, একজন তড়িৎ প্রকৌশলী।

    ১৯৩৯ - লি হার্ভে অসওয়াল্ড, মার্কিন রাষ্ট্রপতি জন এফ. কেনেডির আততায়ী।

    ১৯৪০ - পরাণ বন্দ্যোপাধ্যায়, ভারতীয় বাংলা চলচ্চিত্র অভিনেতা।

    ১৯৫০ - ভারতীয় এবং ব্রিটিশ অভিনেতা ওম রাজেশ পুরী জন্মগ্রহণ করেন।

    ১৯৫২ - রয় ডায়াস, শ্রীলঙ্কার সাবেক আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার ও কোচ।

    ১৯৫৬ - মার্টিনা নাভ্রাতিলোভা, চেকস্লোভাকিয়ার প্রাগে জন্মগ্রহণকারী বিখ্যাত আমেরিকান টেনিস খেলোয়াড় ও কোচ।

    ১৯৬১ - গ্ল্যাডস্টোন স্মল, সাবেক ইংরেজ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার।

    ১৯৬৪ - শেখ রাসেল, শেখ মুজিবুর রহমানের সর্বকনিষ্ঠ পুত্র।

    ১৯৬৫ - জাকির নায়েক, ইসলামি পণ্ডিত ও গবেষক।

    ১৯৬৮ - স্টুয়ার্ট ল, কুইন্সল্যান্ডের হারস্টোন এলাকায় জন্মগ্রহণকারী অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটার।

    ১৯৭৮ - জয়তিকা সারাভানান, ভারতীয় তামিল অভিনেত্র।

    ১৯৮১ - নাথান হারিৎজ, সাবেক অস্ট্রেলীয় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার।

    ১৯৮৪ - ফ্রিডা পিন্টো, ভারতীয় অভিনেত্রী এবং মডেল।

    ১৯৮৪ - এস্পারেন্জা স্পলডিং, একজন আমেরিকান জ্যাজ বেসবাদক, সেল্লোবাদক এবং গায়ক।

    ১৯৮৭ - জ্যাক এফ্রন, একজন আমেরিকান অভিনেতা এবং গায়ক।

 

মৃত্যু

    ১৬৭৮ - চিত্রশিল্পী ইয়াকপ ইয়োরদানস।

    ১৮৭১ - চার্লস ব্যাবেজ, ইংরেজ গণিতবিদ।

    ১৯১৪ - কবি আজিজুর রহমান।

    ১৯২৩ - মোহাম্মদ নজিবর রহমান, তিনি ছিলেন বাংলা ভাষার একজন ঔপন্যাসিক।

    ১৯৩১ - টমাস আলভা এডিসন, মার্কিন উদ্ভাবক এবং ব্যবসায়ী।

    ১৯৩৪ - সান্তিয়াগো রামোন ই কাহাল, স্পেনীয় রোগবিজ্ঞানী, কলাস্থানবিদ এবং স্নায়ুবিদ।

    ১৯৭৮ - রামোন মের্কাদের, স্পেনীয় সাংবাদিক, লিওন ট্রটস্কির হত্যাকারী।

    ১৯৮০ - রবীন্দ্রসঙ্গীত শিল্পী দেবব্রত বিশ্বাস।

    ১৯৯৩ - শহীদ ডাঃ মিজানুর রহমান ও মোঃ বোরহান উদ্দিন।

    ২০০৪ - শঙ্কু মহারাজ প্রখ্যাত বাঙালি ভ্রমণ সাহিত্যিক।

    ২০০৫ - জনি হেইন্স, ইংরেজ ফুটবলার।

    ২০০৭ - লাকি ডুবে, দক্ষিণ আফ্রিকার একজন রেগে শিল্পী।

    ২০১৮ - আইয়ুব বাচ্চু, বাংলাদেশী সঙ্গীত শিল্পী।


আরও খবর

২৬ অক্টোবর: ইতিহাসের এই দিনে

মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর ২০২১

২৫ অক্টোবর: ইতিহাসের এই দিনে

সোমবার ২৫ অক্টোবর ২০২১