Logo
শিরোনাম

বন্ধ হচ্ছে উইন্ডোজ ১০

প্রকাশিত:সোমবার ১৪ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১১৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

২০২৫ সালে উইন্ডোজ ১০-এর সাপোর্ট বন্ধ করাসহ চলতি মাসেই ওএস-১১ (অপারেটিং সিস্টেম) লঞ্চের ইঙ্গিত দিয়েছে মাইক্রোসফট। সংস্থার সদ্য প্রকাশিত উইন্ডোজ লাইফ সাইকেল ফ্যাক্ট শিটে বলা হয়েছে, ১৪ অক্টোবর ২০২৫-এর পর নতুন কোনও আপডেট কিংবা সিকিউরিটি প্যাচ বাজারে আনা হবে না।

তবে উইন্ডোজ ১০ রিলিজ করার পর মাইক্রোসফট জানিয়েছিল, আর নতুন কোনো সফটওয়্যার ভার্সনের দিকে তারা ঝুঁকবে না। কিন্তু সেই ঘোষণা থেকে সরে গিয়ে গত সপ্তাহেই উইন্ডোজ ১১ লঞ্চের ঘোষণা করা হয়৷

এর আগে মাইক্রোসফটের সিইও সত্য নাদেলা ও ডিভাইস চিফ প্যানোস পনয় ওএস-এর নতুন জেনারেশন আনার কথা জানিয়েছেন। গত কয়েক দশকে মাইক্রোসফট উইন্ডোজের যেসব আপডেট এনেছে, নতুন ভার্সনে তা সবকিছুকে ছাপিয়ে যাবে বলে জানান তারা।

ধারণা করা হচ্ছে, মাইক্রোসফট ২০২৫ পর্যন্ত সময় বেঁধে দিলেও ওএস ১০-এর সময়সীমা আরও কিছুটা বাড়বেই। কারণ ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তারা উইন্ডোজ ৭-কে টেনে এনেছেন। সেবার গ্রাহকদের একটা বড় অংশ ওএস ৭-কে ছেড়ে ১০-এ ঝুঁকতে অনেকটা সময় নিয়েছিলেন। তাই এবারও তাদের নতুন অপারেটিং সিস্টেমে যেতে অতিরিক্ত সময় দেবে মাইক্রোসফট। টেক দুনিয়ায় এমনটাই আন্দাজ করা হচ্ছে। 

নিউজ ট্যাগ: উইন্ডোজ ১১

আরও খবর

পেগাসাসের তালিকায় বাংলাদেশ

সোমবার ১৯ জুলাই ২০২১




ভারতে ২৪ ঘণ্টায় ৮১৭ মৃত্যু, শনাক্ত ৪৫৯৫১

প্রকাশিত:বুধবার ৩০ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৯৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসে ভারতে মৃত্যু কমেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে মৃত্যু হয়েছে ৮১৭ জনের। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এ তথ্য জানায়।

খবরে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে করোনাক্রান্ত হয়েছেন ৪৫ হাজার ৯৫১ জন। এ নিয়ে দেশটিতে করোনায় সবমিলিয়ে মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৯৮ হাজার ৪৫৪ জনের।

ভারতে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৩ কোটি ৩ লাখ ৬২ হাজার মানুষ। এর আগে মঙ্গলবার দেশটিতে মৃত্যু হয়েছে ৯০৭ জনের। আক্রান্ত হয়েছিলেন ৩৭ হাজার ৫৬৬ জন।

করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত ভারতে পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হয়ে আসছে।  ধীরে ধীরে কমছে মৃত্যু এবং সংক্রমণের হার।  মে মাসে প্রায় প্রতিদিন সাড়ে তিন থেকে চার হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে দেশটিতে।  আক্রান্ত হয়েছেন তিন থেকে চার লাখ মানুষ।  সে তুলনায় বর্তমানে পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক বলা চলে।

এ পর্যন্ত বিশ্বে করোনাভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে ৩৯ লাখ ৫৩ হাজার মানুষের। আক্রান্ত হয়েছেন ১৮ কোটি ২৫ লাখ মানুষ।


আরও খবর



হরমোনে সমস্যার কারণে শরীরে হতে পারে নানা ধরণের সমস্যা

প্রকাশিত:রবিবার ২৭ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৮৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হরমোন হলো আমাদের শরীরে বিভিন্ন গ্রন্থি। এখান থেকে তৈরি হওয়া কিছু কেমিক্যাল, যেগুলো বিভিন্ন গ্ল্যান্ড থেকে তৈরি হয়ে রক্তের মাধ্যমে শরীরে ছড়িয়ে পড়ে। হরমোনের মাধ্যমে শরীরের সব ধরণের কার্যক্রম, গ্রোথ ডেভেলপমেন্ট হয়। শরীরের সবকিছুর সাথেই হরমোনের সম্পর্ক রয়েছে। হরমোনে সমস্যার কারণে শরীরে হতে পারে নানা ধরণের সমস্যা।

হরমোনের ধরণ, কাজ ও হরমোন রোগের প্রভাবে বন্ধ্যাত্ব নিয়ে বিস্তারিত তথ্য জানিয়েছেন হরমোন, ডায়াবেটিস ও মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডা. সুলতানা মারুফা শেফিন।

হরমোনের ধরণ ও কাজ:

ঘুম থেকে জেগে ওঠার ক্ষেত্রে একটি হরমোন রয়েছে। ইংরেজিতে যাকে বলা হয় কেমিক্যাল ম্যাসেঞ্জার। এগুলো গ্রন্থি থেকে তৈরি হয়ে একজন আরেকজনকে মেসেজ পাঠায় যে, তোমাকে এই কাজটি করতে হবে। তারপর তাকে সাহায্য করে এবং কাজগুলো করিয়ে নেয়।

হরমোনগুলো আবার অনেকগুলো নিয়ম-শৃঙ্খলায় আবদ্ধ। প্রথম হরমোন তৈরি হয়, ব্রেন থেকে। ব্রেনের হাইপোথেলামাস নামক অংশ আছে। সেখান থেকে হরমোন তৈরি হয়। প্রিটোরিগ্রান্ট অংশে চলে আসে। যা আমরা দুইভাবে ভাগ করি। একটি সামনে, আরেকটি পেছনে পিঠে তৈরি। এটা খুবই ছোট একটা অংশ। যার ওজন ১০ থেকে মাত্র ১২ গ্রাম।

এন্টিনোকট্রিকো সামনের অংশ থেকে ছয়টা হরমোন তৈরি হয়। পেছনের অংশ থেকে দুইটি গুরুত্বপূর্ণ হরমোন তৈরি হয়। পিটুইটার সামনের অংশ থেকে যে হরমোন তৈরি হয়, তারা সরাসরি কাজ করে বা অন্যান্য গ্রন্থিকে বার্তা পাঠায়।

অ্যান্টিনোকট্রিকো হরমোন ট্রাফিক আমাদের কিডনির সাথে সম্পর্কিত। তার উপরে রয়েছে সুপার অ্যানাল গ্রেন্ড।

সুপার অ্যানাল গ্রেন্ডের আবার দুটি অংশ। কটেক্স, আরেকটা হচ্ছে প্রিনোটার। এগুলো আমাদের রক্তের ব্লাড প্রেসার নিয়ন্ত্রণ করে। লবণের ওপর কাজ করে এবং সেক্স হরমোন তৈরি করে।

সেক্স হরমোনের সাথে ছেলে বা মেয়েদের বিষয়টি জড়িত। সেক্স হরমোনের শুরুটা প্রিটোটারি হরমোন থেকে আসে। প্রিটোটারি এইচএফএস এবং এলএস হরমোন। দুটি হরমোনই মেয়েদের ক্ষেত্রে ওভারির উপর কাজ করে। ওভারি থেকে মেয়ে হরমোন ইস্ট্রোজেন প্রস্ট্রেশন তৈরি করে। আর ডিম্বাণু তৈরি করে।

পুরুষদের ক্ষেত্রে অন্ডকোষের ওপর এসে কাজ করে। শুক্রাণু তৈরি করে। অ্যাড্রিনাল গ্রন্থি থেকে কিছু পরিমাণ সেক্স হরমোন তৈরি করে। এই ধরণটির প্রভাবে মেয়েদের শরীরে কিছুটা ছেলেদের হরমোন থাকে। যখন সেটা ভারসম্যহীন হয়ে যায়, তখনই নানারকম উপসর্গ তৈরি হয়।

থাইরয়েড স্টিমুলেটিং হরমোন। এসএইচ হরমোনটা এসে কাজ করে থাইরয়েডের উপর। থাইরয়েড থাকে আমাদের গলার সামনের দিকে। এগুলো প্রত্যেকটি কোষে কাজ করে।

হরমোনজনিত সমস্যায় হতে পারে বন্ধ্যাত্ব:

হরমোন সমস্যায় বন্ধ্যাত্ব গুরুত্বপূর্ণ একটি রোগ। বাবা হওয়ার জন্য টেস্টেস্টেরন এবং শুক্রাণু দুটোই প্রয়োজন।

হাইপোথাইরয়েডিজম মানে হচ্ছে থাইরয়েডের কম কাজ করা। আর হাইপার থাইরয়েডিজম মানে থাইরয়েড গ্ল্যান্ড বেশি কাজ করে। হাইপোথাইরয়েডে সাধারণত টিএসএইচ বেড়ে যায়। হাইপার থাইরয়েডের সাধারণত টিএইচএস হরমোন কমে যায়।

থাইরয়েড হরমোন বন্ধ্যাত্বের ক্ষেত্রে ভূমিকা রাখতে পারে। মেয়েদের ক্ষেত্রে ডিম্বাণু আর পুরুষদের ক্ষেত্রে শুক্রাণুর ওপর প্রভাব ফেলে। প্রোল্যাকটিন একটা হরমোন। এ হরমোন জেনেটিক কাজ করে। মেয়েদের বাচ্চা হওয়ার পরে ব্রেস্ট থেকে দুধ তৈরি করে।

কোন কারণে যদি এ হরমোন বেড়ে গেলে অবিবাহিত মেয়েদের অথবা যে মেয়েরা গর্ভধারণ করেনি অথবা বৃদ্ধ বয়সেও দুধ নিঃসরণ হতে পারে। এটাকে বলে হাইফা প্রলাক্টিন এনিমা।

প্রলাক্টিন হরমোনের গন্ডগোল। এটাও বন্ধ্যাত্বের সাথে জড়িত। প্রোল্যাকটিন হরমোন বেড়ে গেলে মেয়েদের ঠিকমত ডিম ফোটে না। ছেলেদের ক্ষেত্রে দুধ নিঃসরণ হয়না। তবে তাদের ক্ষেত্রেও বন্ধ্যাত্ব আসতে পারে। আমরা যখন বীর্য পরীক্ষা করি, সেখানে হরমোনের প্রভাবের বিষয়টি ধরা পড়তে পারে।

নিউজ ট্যাগ: হরমোন রোগ

আরও খবর

গাজরের মালাই পাটিসাপ্টা

রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১

মেজবানি মাংস রান্না করবেন যেভাবে

বৃহস্পতিবার ২২ জুলাই ২০২১




সীমান্ত বন্ধের মেয়াদ বাড়লো

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১০০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে স্থলসীমান্ত বন্ধের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো সুপারিশ অনুযায়ী আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত সীমান্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে

করোনাভাইরাস সংক্রমণ কমাতে ভারতের সঙ্গে স্থলসীমান্ত বন্ধের মেয়াদ ফের ১৭ দিন বাড়লো। ফলে আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত ভারতের সঙ্গে বাংলাদেশের স্থলসীমান্ত বন্ধ থাকবে।

মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সচিব (পূর্ব) মাশফি বিনতে শামস বলেন, করোনাভাইরাস সংক্রমণ পরিস্থিতি বিবেচনায় সীমান্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত হয়েছে। তবে স্থলসীমান্ত বন্দর দিয়ে সপ্তাহে তিন দিন প্রবেশ করবেন বাংলাদেশিরা। তাদের কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক।

জানা গেছে, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে স্থলসীমান্ত বন্ধের জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পাঠানো সুপারিশ অনুযায়ী আগামী ৩১ জুলাই পর্যন্ত সীমান্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে ভারত থেকে বাংলাদেশিদের দেশে ফেরার ক্ষেত্রে আগের নিয়ম বলবৎ থাকবে।


আরও খবর



শরণার্থী হিসেবে বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নিয়েছেন ১ কোটির বেশি ফিলিস্তিনি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ইসরাইলি বর্বরতা ও দখলদারিত্বের কারণে নিজেদের ভিটেমাটি হারিয়ে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে শরণার্থী হিসেবে আশ্রয় নিয়েছেন এক কোটি ৩৮ লাখ ফিলিস্তিনি।

ফিলিস্তিন সরকার সম্প্রতি এক পরিসংখ্যানে এ তথ্য জানিয়েছে। দখলদার ইসরাইলের অত্যাচার আর নির্যাতনে গাজা ও পশ্চিমতীরে ফিলিস্তিনি লোকসংখ্যা কমে এখন মাত্র ৫২ লাখ ৩০ হাজারে দাঁড়িয়েছে।

বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসে ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ ও ইউএনএফপিএ (ইউনাইটেড ন্যাশনস পপুলেশন ফান্ড) যৌথভাবে ওই পরিসংখ্যানের রিপোর্ট প্রকাশ করে।

অবরুদ্ধ গাজা ও পশ্চিমতীরের মোট জনসংখ্যার ৩৩ শতাংশই শিশু। এদের মধ্যে গাজায় ৪১ শতাংশ বাসিন্দার বয়স ১৫ বছরের নিচে।

পরিসংখ্যানে দেখা গেছে, গাজায় ৩৬৫ বর্গ কিলোমিটারে ২১ লাখ ১০ হাজার ফিলিস্তিনির বসবাস, যা বিশ্বের সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ এলাকার মধ্যে অন্যতম।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংস্থাগুলো ইসরাইলের অব্যাহত এ দখলদারিত্বের কঠোর সমালোচনা করলেও এতে কর্ণপাত করছে না তেলআবিব।

জর্ডান, সিরিয়া ও লেবানন ছাড়াও বহু ফিলিস্তিনি আশ্রয় নিয়েছেন লাতিন আমেরিকার দেশ চিলিতে। সেখানে এ বছর প্রেসিডেন্ট নির্বাচন করছেন এক ফিলিস্তিন বংশোদ্ভূত নাগরিক।


আরও খবর



কুড়িগ্রামের চিলমারীতে বৃষ্টির পানিতে ধসে যাচ্ছে আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৭২জন দেখেছেন
Image

কুড়িগ্রাম প্রতিনিধিঃ

বছর না ফিরতেই বৃষ্টির পানিতে ধসে যাচ্ছে কোটি টাকা ব্যায়ে নবনির্মিত আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘর গুলি। কুড়িগ্রামের চিলমারী উপজেলার নয়ারহাট ইউনিয়নের চরফেসকা বাবদ হাতিয়া বকসী আশ্রয়ণ প্রকল্পের ঘরে এমন ঘটনা ঘটেছে। ঘর নির্মানের আগে মাটি ভরাটের স্থলে বালু কাটা এবং নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা না নেয়ায় বৃষ্টির তোরে ঘরের মাটি ধসে পড়েছে অভিযোগ উঠেছে।

জানা গেছে, প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের আওতায় আশ্রয়ণ প্রকল্প-২এর অধিনে উপজেলার নয়ারহাট ইউনিয়নের চরফেসকা এলকায় ২০১৯-২০অর্থ বছরে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসের তত্ত্বাবধানে একটি আশ্রয়ণ প্রকল্পে মাটি ভরাটের কাজ সম্পন্ন করা হয়। চরফেসকা বাবদ হাতিয়া বকসী আশ্রয়ণ প্রকল্পের মাটি ভরাট বাবদ বরাদ্দ দেয়া হয় ৭০০ মে.টন গম। মাটি ভরাটের কাজ শেষে সেখানে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর নিকট হস্তান্তর করেন স্থানীয় প্রশাসন। পরবর্তীতে রংপুর সেনানিবাসের ৬৬পদাতিক ডিভিশনের বাস্তবায়নে ৪৮টি ব্যারাক নির্মাণে সহায়তা করে মের্সাস হাওলাদার এন্টারপ্রাইজ, বরিশাল। প্রতিটি ব্যারাকে ৫টি পরিবার থাকতে পারে এমন ৪৮টি ব্যারাক ২৪০পরিবারের জন্য নবনির্মিত আশ্রয়ণ কেন্দ্রটি গত কয়েকমাস আগে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী স্থানীয় প্রশাসনের নিকট হস্তান্তর করে। পরে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় গৃহহীন ২৪০পরিবারের মাঝে ঘরগুলি বরাদ্দ দেয়া হয়। চলতি বর্ষা মৌসুমে কয়েকদিনের বৃষ্টিতে একটি ব্যারাকের ১টি রুম ধ্বসে গেছে এবং অপর ২টি ব্যারাকে ধ্বস দেখা দিয়েছে। ঘর নির্মানের আগে মাটি ভরাটের স্থলে বালু কাটা এবং নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা না নেয়ায় বৃষ্টির তোরে ঘরের মাটি ধ্বসে পড়ছে বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ।

সোমবার সরেজমিন গিয়ে দেখা গেছে, আশ্রয়ণ কেন্দ্রের বিভিন্ন স্থানের মাটি সরে গিয়ে ধসের সৃষ্টি হয়েছে। মৃত-বছির উদ্দিনের স্ত্রী অহিতন বেওয়ার (৫০)নামে বরাদ্দ দেয়া ঘরটির নিচের মাটি সরে গিয়ে তার ঘরটি ধসে পড়ে গেছে। ওই ব্যারাকের অপর দুই ঘরের বাসিন্দা নজির হোসেনের পুত্র জয়নাল আবেদীন(৪৭) ও আবু তালেবের পুত্র রুহুল আমিন(৪৫) ঘর ছেড়ে অন্যত্র চলে গেছে। পাশ্ববর্তী দুইটি ব্যারাকের নিচের মাটি সরে যাওয়ায় ব্যারাক দুটি ঝুকির মুখে রয়েছে। যে কোন সময় ধ্বসে যেতে পারে এমন আশঙ্কায় ভোলা চন্দ্র(৬০), বিমল চন্দ্র(৫৫) ও রতন ঘর ছেড়ে অন্যত্র আশ্রয় নিয়েছে। এসময় সাহিদা(৫৭),জয়নাল(৬৫)সহ অনেকে অভিযোগের করে বলেন, বৃষ্টির শুরুতেই ঘরে ধস দেখা দিয়েছে না জানি পরে কি হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসার কোহিনুর রহমান বলেন, অতিবৃষ্টির কারণে এমন সমস্যা হচ্ছে।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুবুর রহমান বলেন, সরেজমিন দেখে এসেছি এ বিষয়ে সংশ্লিটকে জানানো হবে এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আরও খবর