Logo
শিরোনাম

বঙ্গবন্ধুকে কটূক্তি : আ.লীগ থেকে মেয়র আব্বাস বহিষ্কার

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ | ৭৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল নির্মাণ নিয়ে কটূক্তি ও বিতর্কিত বক্তব্য দেওয়ায় পৌরসভা আওয়ামী লীগের আহ্বায়কের পদ থেকে কাটাখালি পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

বুধবার (২৪ নভেম্বর) বিকেলে দলীয় কার্যালয়ে পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের জরুরি বৈঠকে আব্বাসকে পৌর আওয়ামী লীগের আহ্বায়কের পদ থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

পবা উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাজদার রহমান সরকার বলেন, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াসিন আলীর সভাপতিত্বে জরুরি বৈঠকে আব্বাস আলীকে দলীয় পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়। একই সঙ্গে কেন দলীয় সদস্য পদ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হবে না জানতে চেয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়ারও সিদ্ধান্ত হয়। এ ছাড়াও স্থায়ী বহিষ্কারের জন্য দলের কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে সুপারিশ পাঠানো হবে।

এর আগে রাজশাহীর কাটাখালি পৌরসভার মেয়র আব্বাস আলী একটি ঘরোয়া বৈঠকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল স্থাপন নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছেন বলে অভিযোগ উঠে। এ-সংক্রান্ত তার একটি অডিও কথোপকথন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে।

অডিও কথোপকথনে মেয়র বলেন, একটু থাইমি গেছি গেটটা নিয়ে, একটু ডিজাইন চেঞ্জ করতে হচ্ছে। বড় হুজুরের সঙ্গে আমাদের এক লোক বসেছিলে, বসি যে ম্যুরালটা দিছে বঙ্গবন্ধুর, এটা ইসলামী শরীয়াহ মোতাবেক সঠিক না। এ জন্য আমি ওকে থুব না। সব করবো, যা কিছু আছে, খালি শেষ মাথাতে মানুষ যেটা মাইন্ড করবে না ওড্যাই। আমি দেখতে পাচ্ছি যে, ম্যুরালটি ঠিক হবে না দিলে। আমার পাপ হবে। তো কেন দিব? দিব না, আমি তো কানা লোক না, আমাকে বুঝাই দিছে। এ জন্য আমি ওটাকে চেঞ্জ করছি।


আরও খবর

হেফাজত মহাসচিব লাইফ সাপোর্টে

রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১




বিশ্বের ১০ দূষিত শহরের তালিকায় ঢাকা

প্রকাশিত:সোমবার ১৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৬৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সুইজারল্যান্ডভিত্তিক জলবায়ুবিষয়ক সংস্থা আইকিউএয়ারর প্রকাশিত তালিকায় উঠে এসেছে।বিশ্বের সবচেয়ে দূষিত ১০ শহরের তালিকায় ঢাকা ৮ নম্বরে রয়েছে।

প্রকাশিত তথ্যমতে, দূষিত ১০ শহরের তালিকায় ভারতেই রয়েছে তিনটি শহর। এ ছাড়া পাকিস্তানের দুটি ও বাংলাদেশের একটি শহর রয়েছে।

একিউআই অনুযায়ী, স্কোর শূন্য থেকে ৫০-এর মধ্যে থাকলে বাতাসের মান ভালো বিবেচনা করা হয়। স্কোর ৫১ থেকে ১০০-এর মধ্যে থাকলে সন্তোষজনক, ১০১ থেকে ২০০-এর মধ্যে থাকলে মধ্যম, ২০১ থেকে ৩০০-এর মধ্যে থাকলে খারাপ, ৩০১ থেকে ৪০০-এর মধ্যে থাকলে অত্যধিক খারাপ এবং ৪০১ থেকে ৫০০-এর মধ্যে থাকলে দূষণের মাত্রা মারাত্মক হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

তালিকায় ৪৬০ স্কোর নিয়ে সবচেয়ে দূষিত শহরের শীর্ষে রয়েছে ভারতের নয়াদিল্লি। দ্বিতীয় (৩২৮) পাকিস্তানের লাহোর। তৃতীয় (১৭৬) চীনের চেংদু, চতুর্থ (১৬৯) ভারতের মুম্বাই, পঞ্চম (১৬৫) পাকিস্তানের করাচি, ষষ্ঠ (১৬৫) ভারতের কলকাতা, সপ্তম (১৬৪) বুলগেরিয়ার সোফিয়া, অষ্টম (১৬০) বাংলাদেশের ঢাকা, নবম (১৫৯) সার্বিয়ার বেলগ্রেড এবং দশ নম্বরে (১৫৮) আছে ইন্দোনেশিয়ার শহর জাকার্তা।


আরও খবর

আজকের ভালো মন্দ

বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১

ঘনকুয়াশার কারণে ফেরি চলাচল বন্ধ

বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১




আজ আপনার জন্মদিন হলে

প্রকাশিত:বুধবার ১০ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ | ৬৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আজ আপনার জন্মদিন হলে পাশ্চাত্য জ্যোতিষে আপনি বৃশ্চিক রাশির জাতক/জাতিকা। আপনার জন্মসংখ্যা : ১। আপনার ওপর প্রভাবকারী গ্রহ : রবি ও মঙ্গল। আপনার শুভ সংখ্যা : ১ ও ৯। শুভ বার : রবি ও মঙ্গল। শুভ রত্ন : রুবি ও রক্তপ্রবাল।

মেষ (২১ মার্চ-২০ এপ্রিল)

সামাজিক অবস্থান সুদৃঢ় হতে পারে। পাবলিক ইমেজ বৃদ্ধি পাবে। কোনো উচ্চাশা পূরণ হতে পারে। কর্ম পরিবেশ অনুকূল থাকবে। কর্মস্থলে নিজের কর্তৃত্ব বজায় রাখতে পারবেন।

বৃষ (২১ এপ্রিল-২০ মে)

পেশাগত দিক ভালো যাবে। কাজকর্মে ভাগ্যের আনুকূল্য পেতে পারেন। কোনো আশা পূরণ হতে পারে। জ্ঞানস্পৃহা বৃদ্ধি পাবে। ভ্রমণ ফলপ্রসূ হতে পারে।

মিথুন (২১ মে-২০ জুন)

দিনটি মিশ্র সম্ভাবনাময়। শারীরিক অসুস্থতাকে অবহেলা করবেন না। রিপুকে সংযত রাখুন। অন্যথায় বদনাম হতে পারে। সম্ভাব্য ক্ষেত্রে কোনো ঝুঁকি নেওয়া থেকে বিরত থাকুন।

কর্কট (২১ জুন-২০ জুলাই)

ব্যবসায়িক দিক ভালো যাবে। বিক্রয়-বাণিজ্যে লাভবান হতে পারেন। যৌথ ব্যবসায় নিজের কর্তৃত্ব বজায় রাখতে পারবেন। নতুন বিনিয়োগ ফলপ্রসূ হতে পারে। কোনো ঘনিষ্ঠ বন্ধু সহযোগিতা পেতে পারেন।

সিংহ (২১ জুলাই-২১ আগস্ট)

শত্রুরা ক্ষতি করার চেষ্টা করতে পারে। শত্রু সম্পর্কে সতর্ক থাকুন। সীমা লঙ্ঘন করবেন না। শরীর অসুস্থ হতে পারে। প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।

কন্যা (২২ আগস্ট-২২ সেপ্টেম্বর)

বিদ্যার্থীদের জন্য দিনটি শুভ। পড়াশোনায় মন বসাতে পারবেন। ধর্মীয় কাজে আনন্দ পাবেন। সৃজনশীল কাজে অংশ নিতে পারেন। সেক্ষেত্রে সাফল্যের সম্ভাবনা আছে।

তুলা (২৩ সেপ্টেম্বর-২২ অক্টোবর)

পড়াশোনার প্রতি আগ্রহ বোধ করতে পারেন। মন ভালো থাকবে। মাতৃস্বাস্থ্য ভালো যাবে। বিলাস দ্রব্য কেনাকাটা হতে পারে। মনের কোনো গোপন ইচ্ছা পূরণ হতে পারেন।

বৃশ্চিক (২৩ অক্টোবর-২১ নভেম্বর)

আত্মীয়দের সঙ্গে যোগাযোগ হতে পারে। ব্যক্তিগত যোগাযোগে সুফল পাবেন। কাজকর্মে উৎসাহ বোধ করতে পারেন। ঠাণ্ডা সম্পর্কে সতর্ক থাকুন। প্রতিবেশীদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখুন।

ধনু (২২ নভেম্বর-২০ ডিসেম্বর)

প্রদত্ত প্রতিশ্রুতি রক্ষা করার চেষ্টা করুন। অধীনদের কাজে লাগাতে পারবেন। মূল্যবোধ সমুন্নত থাকতে পারে। বাড়িতে অতিথি সমাগম হতে পারে। আর্থিক দিক ভালো যাবে।

মকর (২১ ডিসেম্বর-১৯ জানুয়ারি)

আত্মপ্রতিষ্ঠার চেষ্টা জোরদার করুন। সেক্ষেত্রে সাফল্য পেতে পারেন। ভালো ব্যবহার দিয়ে কাজ আদায় করা সহজ হতে পারে। ব্যক্তিত্ব দিয়ে অন্যকে প্রভাবিত করতে পারবেন। শরীর ভালো থাকবে।

কুম্ভ (২০ জানুয়ারি-১৮ ফেব্রুয়ারি)

সম্ভাব্য ক্ষেত্রে বিদেশযাত্রা হতে পারে। ব্যয় কমানোর চেষ্টা করুন। গোপন শত্রু সম্পর্কে সতর্ক থাকুন। কোনো গুরুত্বপূর্ণ কাজ শেষ করতে পারবেন। আইনগত ঝামেলা এড়িয়ে চলুন।

মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি-২০ মার্চ)

আর্থিক দিক ভালো যাবে। কোনো সূত্র থেকে অর্থাগম হতে পারে। কোনো আশা পূরণ হতে পারে। জ্যেষ্ঠ ভাইবোনদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় রাখুন। ভবিষ্যতের জন্য কোনো পরিকল্পনা গ্রহণ করতে পারেন।

 

 

নিউজ ট্যাগ: আজকের রাশিফল

আরও খবর

আজকের ভালো মন্দ

রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১




রাজনীতির পরীক্ষিত নেতাদের সামনে নিয়ে আসার আহ্বান মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রীর

প্রকাশিত:শনিবার ৩০ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৯৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজনৈতিক দলে, রাষ্ট্রে ও ক্ষমতায় রাজনীতির পরীক্ষিত নেতা-কর্মীদের সামনে নিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

শনিবার (৩০ অক্টোবর) সন্ধ্যায় রাজধানীর হাতিরপুলে সাবেক ছাত্রনেতা আলতাফ হোসেনের স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ আহ্বান জানান।

এ সময় তিনি বলেন,"আলতাফ হোসেনের মতো ত্যাগী নেতা-কর্মীদের পুনর্বাসন করার উদ্যোগ নিতে হবে। তাদের মূল্যায়ন করতে হবে। দুর্দিনের আওয়ামী লীগার ও ত্যাগী নেতা-কর্মীরা না থাকলে আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসতে পারতো না। আওয়ামী লীগের শক্তি হচ্ছে মাঠে থাকা ত্যাগী কর্মীরা। আওয়ামী লীগের প্রকৃত কর্মীরা কখনো বিশ্বাসঘাতকতা করে নি। যখনই ক্রান্তিকাল এসেছে কর্মীরা দলের পাশে দাঁড়িয়েছে"।

তিনি আরো যোগ করেন, "ষড়যন্ত্রকারীরা এখনো সক্রিয় রয়েছে। এখনো বাংলাদেশকে '৭৫ এর পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার ষড়যন্ত্র চলছে। এখনো বাংলাদেশকে সাম্প্রদায়িক রাষ্ট্রে পরিণত করার ষড়যন্ত্র চলছে। বঙ্গবন্ধু কন্যাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র অব্যাহতভাবে চলছে। এ সময় প্রয়োজন সংগঠনকে শক্তিশালী করা, ত্যাগী কর্মীদের সামনের দিকে নিয়ে আসা। ষড়যন্ত্রকারীদের থেকে সজাগ থাকতে হলে আমাদের মাঠের পরীক্ষিত কর্মী, ত্যাগী কর্মী, দুর্দিনের কর্মীদের মূল্যায়ন করতে হবে"।

শিক্ষাবিদ ড. আব্দুল ওয়াদুদের সভাপতিত্বে স্মরণসভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক ড. অহিদুজ্জামান চান, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শাহাব উদ্দিন ফরাজী, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের ১৬ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম বাবুল, বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক শফিকুল ইসলাম প্রমুখ।



আরও খবর

হেফাজত মহাসচিব লাইফ সাপোর্টে

রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১




যুক্তরাষ্ট্রে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম ৩০ বছরে সর্বোচ্চ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১১ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৭৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্যবৃদ্ধিতে নতুন রেকর্ড গড়লো যুক্তরাষ্ট্র। গত অক্টোবরে দেশটিতে ভোগ্যপণ্যের দাম যে হারে বেড়েছে, এমনটি দেখা যায়নি গত ৩০ বছরেও। বুধবার (১০ নভেম্বর) মার্কিন শ্রম বিভাগের পক্ষ থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

কনজ্যুমার প্রাইস ইনডেক্স (সিপিআই) অনুসারে, যুক্তরাষ্ট্রে গত অক্টোবর মাসে গত বছর একই সময়ের তুলনায় ভোগ্যপণ্যের দাম বেড়েছে রেকর্ড ৬ দশমিক ২ শতাংশ, যা ১৯৯০ সালের ডিসেম্বরের পর থেকে সর্বোচ্চ। আর মাসিক হিসাবে পণ্যের মূল্যবৃদ্ধির হার দাঁড়িয়েছে ০.৯ শতাংশ, যা গত সেপ্টেম্বরেও ছিল ০.৪ শতাংশ।

মার্কিন শ্রম বিভাগের প্রতিবেদন বলছে, খাদ্য ও বিদ্যুতের দাম বাদ দিয়ে তথাকথিত মূল সিপিআই বেড়েছে ০.৪ শতাংশ। একই সময়ে বার্ষিক মূল মূল্যস্ফীতি ৪ দশমিক ৬ শতাংশ গতিতে বেড়ে ১৯৯১ সালের আগস্টের পর থেকে সর্বোচ্চ স্তরে পৌঁছেছে।

এক মাসের ব্যবধানে যুক্তরাষ্ট্রে জ্বালানি তেলের দাম বেড়েছে ১২ দশমিক ৩ শতাংশ আর গত বছরের সঙ্গে তুলনা করলে এর মূল্যবৃদ্ধি হয়েছে ৫৯ দশমিক ১ শতাংশ। একইভাবে, অক্টোবরে দেশটিতে বিদ্যুতের দাম বেড়েছে ৪ দশমিক ৮ শতাংশ এবং ১২ মাসের হিসাব করলে মূল্যবৃদ্ধির পরিমাণ প্রায় ৩০ শতাংশ।

সেখানে ব্যবহৃত গাড়ির দামও দ্রুতগতিতে বাড়ছে। এক মাসের ব্যবধানে অক্টোবরে এর মূল্যবৃদ্ধি হয়েছে ২ দশমিক ৫ শতাংশ এবং বছরে বেড়েছে ২৬ দশমিক ৪ শতাংশ। নতুন গাড়ির ক্ষেত্রে এর পরিমাণ যথাক্রমে ১ দশমিক ৪ শতাংশ ও ৯ দশমিক ৮ শতাংশ।

বেড়েছে খাদ্যপণ্যের দামও। মাসের হিসাবে ০.৯ শতাংশ এবং বছরের হিসাবে এর মূল্যবৃদ্ধি হয়েছে ৫ দশমিক ৩ শতাংশ। খাদ্য ক্যাটাগরিতে মাংস, মুরগি, মাছ ও ডিমের সমন্বিতভাবে দাম বেড়েছে মাসে ১ দশমিক ৭ ও বছরে ১১ দশমিক ৯ শতাংশ।


আরও খবর



শীতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় যে পাঁচ ফল

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ২৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শীতকালে নিজের শরীরের বেশি যত্ন নেওয়া প্রয়োজন। বিভিন্ন ধরনের ফল খাওয়া উচিত এই মৌসুমে। বাইরে থেকে যত্নের পাশাপাশি চাই ভেতর থেকে সুস্থতা। শীতে কিছু ফল আপনাকে সজীবতা ও সুস্থতা দেবে। ভিটামিন সিসমৃদ্ধ এসব ফল শীতে খসখসে হয়ে যাওয়া ত্বকের জন্য বেশ উপকারী। আর তাই সুযোগমতো এসব ফল খেতে ভুলবেন না। এতে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়বে।

শরীরে ফাইবার বা আঁশের ঘাটতি মেটাতে ও ভিটামিন সির জোগান দিতে শীতের সময় বেশি করে এসব ফল খেতে পারেন। জেনে নিন এ মৌসুমের দারুণ পাঁচটি ফল ও এর পুষ্টিগুণ সম্পর্কে:

পেয়ারা

শীতের মৌসুমে বাজারে পেয়ারা পাবেন। স্বাস্থ্য সুরক্ষার জন্য প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায় পেয়ারা রাখা যেতে পারে। এতে আছে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, ভিটামিন সি ও লাইকোপেন, যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই দরকারি। পেয়ারার বিশেষ পাঁচটি গুণের মধ্যে রয়েছে এটি ডায়াবেটিসের জন্য উপকারী, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, চোখের জন্য ভালো, পেটের জন্য উপকারী আর ক্যানসার প্রতিরোধী। পেয়ারা অনেক ধরনের সংক্রমণ থেকে শরীরকে রক্ষা করতেও সাহায্য করে। পেয়ারাতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি পাওয়া যায়, যা কমলালেবুর চেয়েও কয়েক গুণ বেশি। পেয়ারায় আছে ভিটামিন এবং ভিটামিন বি কমপ্লেক্স। এতে আছে যথেষ্ট পরিমাণে বিটা ক্যারোটিন, ক্যালসিয়াম, ফসফরাস, পটাশিয়াম, ফলিক অ্যাসিড ও নিকোট্রিন অ্যাসিড। বয়সের সঙ্গে জড়িত নানা রোগ, যেমন- স্মৃতিভ্রংশ (আলঝেইমার), চোখে ছানি, আরথ্রাইটিস বা হাঁটুব্যথা প্রতিরোধে সহায়তা করে।

কমলালেবু

শীতকালে অন্যতম ফল কমলা লেবু। এতে রয়েছে ভিটামিন সি এবং ক্যালসিয়াম। এই ফল অনেক ধরনের সংক্রমণ থেকে শরীরকে রক্ষা করতে সাহায্য করে। বিটা ক্যারোটিন ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে কমলায়। এটি হজমশক্তি বাড়ায়, সর্দি-কাশি সারায়, মানসিক অবসাদ দূর করে। জ্বর ও ফ্লুর সময় কমলা খাওয়া ভালো। কোয়ার পাতলা ত্বকে আঁশ আছে বলে কোষ্ঠকাঠিন্যও কমাবে। কমলার রসে প্রচুর ভিটামিন সি ও ক্যালসিয়াম আছে। রক্তশূন্যতা ও জিবের ঘা সারাতেও কমলা উপকারী।

আনার

শীতকালে প্রচুর পরিমাণে আনার খাওয়া উচিত। এটি রক্তচাপ নিরাময়ে সাহায্য করে। একইসঙ্গে হার্টকে সুস্থ রাখতেও সাহায্য করে। শরীর সুস্থ রাখার পাশাপাশি জীবনের সজীবতা ধরে রাখতে আনারের ভূমিকা অতুলনীয়। এক গ্রাম আনারের জুসে যথেষ্ট পরিমাণ অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পাওয়া যায়। এটি রক্তে কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমিয়ে হার্টকে ঝুঁকিমুক্ত রাখে। ফলে হৃদরোগের সম্ভাবনা হ্রাস পায়। আনারের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ক্যানসার সেল তৈরী ও বেড়ে ওঠাকে বাধা দান করে। ফলে ক্যানসার প্রতিরোধে আনার বেশ কার্যকর। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে: আনারে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি রয়েছে। এই দুইটি ভিটামিন রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে অত্যন্ত সহায়ক।।

কলা

শীতকালে কলাও প্রচুর পরিমাণে খাওয়া উচিত। কলা যেমন পুষ্টিকর, তেমনই সুস্বাদু। এতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকে যা হাড় মজবুত করতে সাহায্য করে। পরিপাক প্রক্রিয়া ঠিক রাখতেও সাহায্য করে। এতে রয়েছে দৃঢ় টিস্যু গঠনকারী উপদান যথা আমিষ, ভিটামিন এবং খনিজ। কলা ক্যালরির একটি ভাল উৎস। এতে কঠিন খাদ্য উপাদান এবং সেই সঙ্গে পানি জাতীয় উপাদান সমন্বয় যে কোনো তাজা ফলের তুলনায় বেশি। কলা যখন অতিরিক্ত পেকে যায় এর অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট পরিমাণ বহুগুণ বেড়ে যায়। শরীরের বিভিন্ন রোগ প্রতিরোধে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কলা শরীরে শক্তি যোগায় এবং বিভিন্ন শারীরিক সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে। অধিক ক্যালরি সম্পন্ন খাবারের বিকল্প হিসেবে কলা খাওয়া হলে তা দ্রুত ওজন কমাতে সাহায্য করে। মাঝারি আকৃতির একটি কলায় মাত্র ১০৫ ক্যালরি থাকে। এছাড়াও কলাতে রয়েছে ক্রোমিয়াম নামক খনিজ পদার্থ, যা বিপাক ক্রিয়ায় সহায়তা করে।

আপেল

সুস্থ থাকতে ডাক্তারের কাছে যাওয়া থেকে দূরে রাখে প্রতিদিন একটি আপেল খেলে। কারণ আপেল রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে শক্তিশালী করে। মহামারির সময়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা প্রত্যেকেরই পরম বন্ধু। এখানেও পর্দার আড়ালে কাজ করে কোয়েরসেটিন যা প্রদাহ কমাতেও সহায়ক হবে।

গবেষণায় দেখা গেছে, দিনে একটি করে আপেল খেলে রক্তের ক্ষতিকর এলডিএল কোলেস্টেরল কমে যায় ও উপকারী এইচডিএল কোলেস্টেরল বাড়ে। আপেলে শর্করা, চিনি, ফলিক অ্যাসিড, পটাশিয়াম, ক্যালসিয়াম, ভিটামিন বি, লোহা ও ম্যাগনেশিয়াম আছে। এটি রক্তচাপ ও রক্ত শর্করা নিয়ন্ত্রণ করে। তাই হৃদ্রোগী ও ডায়াবেটিস রোগীরা আপেল খেলে উপকার পাবেন। এটি হজমের জন্য উপকারী ব্যাকটেরিয়া তৈরিতে সাহায্য করে। হজমশক্তিও বাড়ায়। আপেলের খোসায় পলিফেনলস নামে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে, যা শরীরের কোষ রক্ষা করে। আপেল শরীরের জ্বালা এবং প্রদাহ কমাতে সাহায্য করে। এটি ভিটামিন সি, ফাইবারের অন্যতম উৎস।


আরও খবর

আজকের ভালো মন্দ

রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১