Logo
শিরোনাম

বৃষ্টির দিনে মজাদার খিচুড়ি, রয়েছে যেসব উপকারিতা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০১ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১১১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

খিচুড়ি ছাড়া বাঙালির বর্ষাকাল জমে না। স্বাদের পাশাপাশি খিচুড়ির পুষ্টিগুণও রয়েছে। তবে বর্ষায় কেন খিচুড়ি খাওয়া হয় এই নিয়ে একটি গল্প প্রচলিত আছে। আগে বৃষ্টির দিনে রান্নাঘর, মাটির উনুন ভেজা থাকত। তাই সময় বাঁচাতে একসঙ্গে চাল ডাল বসিয়ে খিচুড়ি রান্না করা হতো। সেই থেকেই বাদল দিনে খিচুড়ি খাওয়ার প্রচলন এসেছে। খিচুড়ির পুষ্টিগুণের কথা চলুন জেনে নেওয়া যাক।

১. খিচুড়ি পু্ষ্টির সঠিক সামঞ্জস্য আছে। খিচুড়ি থেকে শর্করা, প্রোটিন, ফাইবার, ভিটামিন সি, ক্যালসিয়াম, ম্যাগনেসিয়াম, ফসফরাস এবং পটাশিয়াম পায় আমাদের শরীর ৷সবজি যোগ করলে আরও বেড়ে যায় এর খাদ্যগুণ ৷

২. নরম ও পুষ্টিকর হওয়াও খিচুড়ি শিশু ও বৃদ্ধদের উপযোগী। তবে সে ক্ষেত্রে খিচুড়িতে মশলার পরিমাণ ঠিক রাখতে হবে। তা হলেই তা সহজপাচ্য হবে।

৩. আয়ুর্বেদ মতে যে ত্রিদোষ, সেই বায়ু, পিত্ত ও কফ-কে নিয়ন্ত্রণে রাখে খিচুড়ি। তাই আয়ুর্বেদশাস্ত্রে খিচুড়ির ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। শরীরকে শীতল রাখার পাশাপাশি এই খাবার টক্সিন দূর করে ৷ সেই সাথে রোগ প্রতিরোধক্ষমতা বাড়ায় খিচুড়ি।

৪. গ্লুটেনমুক্ত খাবার যারা পছন্দ করেন বা শারীরিক প্রয়োজনে খান, তারা খাবার তালিকায় অবশ্যই রাখুন খিচুড়ি।



আরও খবর

গাজরের মালাই পাটিসাপ্টা

রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১

মেজবানি মাংস রান্না করবেন যেভাবে

বৃহস্পতিবার ২২ জুলাই ২০২১




কোপার সেরা একাদশে নেই ডি মারিয়া

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৬৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কোপা আমেরিকা ও ইউরো কাপ শেষ হয়ে গেলেও এই দুই টুর্নামেন্টের আমেজ এখনও বিদ্যমান। এরইমধ্যে টুর্নামেন্ট দুটির সেরা একাদশ ঘোষণা দিয়েছে আয়োজকরা।

মঙ্গলবার কোপার টুর্নামেন্ট সেরা একাদশ ঘোষণা করে কনমেবল।

তার তাতে আধিপত্য চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনারই দেখা গেছে। যেখানে চার ফুটবলারকে রাখ হয়েছে সেরার তালিকায় সেখানে ব্রাজিলের তিন জন।

তবে অবাক করা বিষয় হলো আর্জেন্টিনার চার ফুটবলারের মধ্যে নেই আনহেল ডি মারিয়া। যিনি ফাইনালে গোল করে আলবিসেলেস্তেদের জিতিয়ে ২৮ বছরের শিরোপা খরা ঘুচিয়েছেন। হয়েছেন ম্যাচসেরা।

আর সেই ডি মারিয়াই স্থান পায়নি কোপায় সেরার একাদশে!

টুর্নামেন্টে দুটি ম্যাচে শুরুর একাদশে ছিলেন ডি মারিয়া। এই দুই ম্যাচে ভালো খেলেছেন। অন্য কয়েকটি ম্যাচে বদলি নামানো হয়। ওই দুই ম্যাচেও রক্ষণে চিড় ধরিয়েছিলেন। আলো ছড়িয়েছেন। তবুও টুর্নামেন্টের সেরা একাদশে জায়গা হয়নি তার।

অনুমিতভাবেই কোপা আমেরিকার সেরা একাদশে রাখা হয়েছে লিওনেল মেসি ও দলকে নকআউটপর্ব পার করে দেওয়া গোলরক্ষক আর্জেন্টিনার এমিলিয়ানো মার্তিনেস।

চ্যাম্পিয়ন দল থেকে একাদশে সুযোগ পাওয়া বাকি দুজন হলেন- ডিফেন্ডার ক্রিস্তিয়ান রোমেরো, মিডফিল্ডার রদ্রিগো দি পল।

তিন ব্রাজিলিয়ানের মধ্যে অনুমিতভাবেই জায়গা পেয়েছেন নেইমার। মেসির সঙ্গে যৌথভাবে টুর্নামেন্টের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। ব্রাজিলের বাকি দুইজন হলেন- ডিফেন্ডার মার্কিনিয়োস ও মিডফিল্ডার কাসেমিরো।

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার সাতজন শেষে বাকি খেলোয়াড়রা হলেন - ইকুয়েডরের লেফট ব্যাক পেরভিস এস্তুপিনান, পেরুর মিডফিল্ডার ইয়োশিমার ইয়োতুন ও চিলিয়ান রাইট ব্যাক মাউরিসিও ইসলা এবং ২৪ বছর বয়সি ফুটবলারের কলম্বিয়ার লুইস দিয়াস।

টুর্নামেন্টে মেসির সঙ্গে যৌথভাবে সর্বোচ্চ গোলদাতা দিয়াস। তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে পেরুর বিপক্ষে জোড়া গোলের পর তার গোলসংখ্যা দাঁড়ায় ৪টি।

কোপা আমেরিকার সেরা একাদশ:

গোলরক্ষক: এমিলিয়ানো মার্তিনেস (আর্জেন্টিনা)।

ডিফেন্ডার: ক্রিস্তিয়ান রোমেরো (আর্জেন্টিনা), মার্কিনিয়োস (ব্রাজিল), পেরভিস এস্তুপিনান  (একুয়েডর) ও মাউরিসিও ইসলা (চিলি)।

মিডফিল্ডার: রদ্রিগো দে পল (আর্জেন্টিনা), কাসেমিরো (ব্রাজিল) ও ইয়োশিমার ইয়োতুন (পেরু)।

ফরোয়ার্ড: লিওনেল মেসি (আর্জেন্টিনা), নেইমার (ব্রাজিল) ও লুইস দিয়াস (কলম্বিয়া)।


আরও খবর



রিমান্ডে নারী আসামিকে যৌন নির্যাতন : ওসি-পরিদর্শক প্রত্যাহার

প্রকাশিত:সোমবার ০৫ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১০৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রিমান্ডে নিয়ে নারী আসামিকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে ব‌রিশা‌লের উজিারপুর থানার প‌রিদর্শক (তদন্ত) মাইনুল ইসলামকে এবং এ ঘটনায় দায়িত্বে অবহেলার কারণে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জিয়াউল আহসানকে প্রেত্যাহার ক‌রা হ‌য়ে‌ছে। পাশাপা‌শি তাঁদের বিরু‌দ্ধে মামলা দা‌য়ে‌রের নি‌র্দেশও দেওয়া হ‌য়ে‌ছে। ব‌রিশাল রেঞ্জের ডিআইজি এস এম আক্তারুজ্জামান আজ সোমবার দুপু‌রে এ তথ্য নি‌শ্চিত ক‌রে‌ছেন।

ডিআইজি জানান, উজিরপুর থানার প‌রিদর্শকের (তদন্ত) বিরুদ্ধে‌ নারী আসামিকে রিমান্ডে নি‌য়ে যৌন নির্যাত‌নের অভিযোগ উঠেছে। এ ছাড়া এই ঘটনায় দা‌য়ি‌ত্বে অব‌হেলা ক‌রে‌ছেন থানার ওসি। তাঁদের বিরু‌দ্ধে বিভাগীয় মামলা করা হ‌বে।

গত ৩০ জুন বরিশালের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট উজিরপুর আমলী আদালত ওই নারীর দুদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। রিমান্ড শেষে গত ২ জুলাই শুক্রবার তাঁকে আদালতে হাজির করে পুলিশ।

এ সময় ওই নারীকে খুঁড়িয়ে হাঁটতে দেখে এর কারণ জানতে চান আদালত। ওই নারী পুলিশের বিরুদ্ধে তাঁকে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ করেন। আদালত একজন নারী কনস্টেবল দিয়ে পরীক্ষা করে শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন পান। এরপর আদালত আইন অনুযায়ী তাঁর বিবৃতি লিপিবদ্ধ করেন। পাশাপাশি আদালত তাঁর যথাযথ চিকিৎসা এবং নির্যাতনের বিষয়ে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ দেন শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালককে। এরই মধ্যে হাসপাতাল প‌রিচালক তদন্ত প্রতি‌বেদন জমা দি‌য়ে‌ছেন, যা‌তে আঘা‌তের চিহ্নের বিষয়টি উল্লেখ র‌য়ে‌ছে‌।


আরও খবর

দুদকের তালিকায় শতাধিক ভিআইপি

বুধবার ০৭ জুলাই ২০২১




শিমুলিয়া ঘাটে দক্ষিণবঙ্গগামী যাত্রী-যানবাহনের ভিড়

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৯ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৬৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সরকারঘোষিত কঠোর বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে আজ শুক্রবার মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে দক্ষিণবঙ্গগামী যাত্রী ও যানবাহনের ভিড় দেখা যাচ্ছে। বিধিনিষেধ আরোপের পর কিছুদিন ঘাট অনেকটা যাত্রীশূন্য থাকলেও আজ শুক্রবার সকাল থেকে রাজধানীসহ বিভিন্ন স্থান থেকে শত শত যাত্রী ও যানবাহনকে ঘাট এলাকায় আসতে দেখা গেছে।

যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়ানোয় রাজধানীতে কাজের সংকটে অনেকে গ্রামে ফিরছে। এ ছাড়া ঈদ পর্যন্ত বিধিনিষেধ থাকতে পারেএমন আশঙ্কায়ও গ্রামে ফিরছে অনেকে।

এদিকে, আজ সকাল থেকে ঘাটে আসা যাত্রীরা মানছে না স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব। এতে করোনার সংক্রমণ বৃদ্ধির আশঙ্কা তৈরি হয়েছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহণ করপোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) শিমুলিয়া ঘাটের ব্যবস্থাপক (বাণিজ্য) সাফায়েত আহমেদ বলেন, সকাল থেকে ঘাটে যাত্রী ও যানবাহনের চাপ রয়েছে। শিমুলিয়া ঘাটে পারাপারের অপেক্ষায় ছোট-বড় মিলিয়ে চার শতাধিক যানবাহন রয়েছে।

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে বর্তমানে ১০টি ফেরি সচল রয়েছে। আমাদের দায়িত্ব শুধু ফেরি পরিচালনা ও গাড়ি পার করা। যাত্রীদের নিয়ন্ত্রণের কাজ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর। যেসব যাত্রী ঘাটে চলে আসছে, তারা ফেরিতে পার হচ্ছে।

নিউজ ট্যাগ: শিমুলিয়া ঘাট

আরও খবর



কিংবদন্তী অভিনেতা দিলীপ কুমার আর নেই

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ৮৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভারতীয় বর্ষীয়ান অভিনেতা দিলিপ কুমার বুধবার সকালে মুম্বাইয়ের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন।

তার বয়স হয়েছিল ৯৮ বছর।দিলিপ কুমারের চিকিৎসার তত্বাবধানকারী মুম্বাইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালের পালমোনোলোজিস্ট ডা. জলিল পার্কার গণমাধ্যমকে তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেন।খবর বিবিসির।

দিলিপ কুমারের ভেরিফায়েড টুইটার পেইজ থেকে সকাল ৮টার কিছুক্ষণ পর তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করা হয়।ছয় দশকের ক্য্যারিয়ারে তিনি ৬৩টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন। তার স্ত্রী মুম্বাই চলচ্চিত্রের আরেক অভিনেত্রী সায়রা বানু।

শ্বাসকষ্ট নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি। শেষ সময়ে স্ত্রী সায়রা বানু পাশে ছিলেন তাঁর। দীর্ঘ দিন ধরেই বার্ধক্যজনিত অসুস্থতায় ভুগছিলেন দিলীপ। মুম্বইয়ের হিন্দুজা হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি ছিলেন।

গত ৩০ জুন তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কয়েক দিন আগেই তার শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল বলে টুইটারে জানিয়েছিলেন সায়রা বানু। দিলিপ কুমারের আসল নাম ইউসুফ সারোয়ার খান। তার বাবার নাম ছিল মোহাম্মদ সারোয়ার খান, যিনি একজন ফল ব্যবসায়ী ছিলেন।

কৈশোরে মুম্বাই থেকে পুনে গিয়ে ব্রিটিশ সৈন্যদের জন্য পরিচালিত একটি ক্যান্টিনে কাজ নেন দিলিপ কুমার। এর কিছুদিন পর আবারও মুম্বাইয়ে (তৎকালীন বোম্বে) ফিরে বাবার সঙ্গে ব্যবসায় যোগ দেন তিনি।

ব্যবসার কাজেই একসময় ইউসুফ খানের পরিচয় হয় সেসময়কার প্রখ্যাত সাইকোলজিস্ট ডা. মাসানির সঙ্গে, যিনি দিলিপ কুমারকে পরিচয় করিয়ে দেন 'বোম্বে টকিজ' এর মালিকের সঙ্গে।

১৯৪৩ সালে 'বোম্বে টকিজ' ইউসুফ খান যান চাকরি খুঁজতে, কিন্তু সেখানকার স্বত্বাধিকারী দেবিকা রানী তাকে অভিনেতার হওয়ার প্রস্তাব দেন। তার সিনেমার নাম বদলে দিলিপ কুমার রাখার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ১৯৪৪ সালে মুক্তি পায় দিলিপ কুমারের প্রথম ছবি 'জোয়ার ভাটা।' প্রথম দিকে দিলিপ কুমারের কয়েকটি ছবি ব্যবসাসফল ছিল না।


আরও খবর



রাজশাহী মেডিকেলে একদিনে প্রাণ গেল আরও ১৯ জনের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৩ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৭১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে আটজন ও উপসর্গ নিয়ে ১১ জন মারা গেছেন।

মঙ্গলবার (১৩ জুলাই) রামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, মৃতদের মধ্যে রাজশাহীর ছয়জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের দুজন, নাটোরের তিনজন, নওগাঁর তিনজন, পাবনার তিনজন, সিরাজগঞ্জের একজন ও বগুড়ার একজন রয়েছেন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে রাজশাহীর চারজন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের একজন, নাটোরের একজন, নওগাঁর একজন ও বগুড়ার একজন মারা যান। উপসর্গ নিয়ে রাজশাহীর দুজন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের একজন, নাটোরের দুজন, নওগাঁর দুজন, পাবনার তিনজন ও সিরাজগঞ্জের একজন মারা যান। মৃতদের পরিবারকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে দাফন করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

রোগীদের ভর্তি ও সংক্রমণের বিষয়ে রামেক পরিচালক বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় রামেকে নতুন ভর্তি হয়েছেন ৬৩ জন। সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ৭৬ জন। রামেকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে ২৪১ জন এবং সন্দেহভাজন ও উপসর্গ নিয়ে ২৬৩ জন ভর্তি রয়েছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় রামেকে ৪৫৪টি শয্যার বিপরীতে রোগী ভর্তি ছিলেন ৫০৪ জন।

রামেকের দুই ল্যাবে করোনা পরীক্ষা ও শনাক্তের বিষয়ে তিনি বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় রামেক হাসপাতাল ল্যাবের পিসিআর মেশিনে ২৮২টি নমুনা পরীক্ষায় ১০০ জনের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। মেডিকেল কলেজ ল্যাবের পিসিআর মেশিনে ৪৩০টি নমুনা পরীক্ষায় ১৪৩ জনের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট এসেছে। মোট পরীক্ষা হয়েছে ৭১২টি। এতে শনাক্ত হয়েছে ২৪৩ জন। পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৩৩ দশমিক ৬৯ শতাংশ।



আরও খবর