Logo
শিরোনাম

দেশজুড়ে ১৪দিনের শাটডাউনের সুপারিশ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১৫৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
বিশেষত পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের অভিজ্ঞতা হলো, কঠোর ব্যবস্থা ছাড়া এর বিস্তৃতি প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। ভারতের শীর্ষস্থানীয় বিশেষজ্ঞদের সঙ্গেও এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে

করোনা সংক্রমণ বাড়তে থাকায় ও করোনাভাইরাসের ভারতীয় ধরণ ছড়িয়ে পড়ার পরিপ্রেক্ষিতে সারা দেশে নতুন করে কমপক্ষে ১৪ দিনের শাট ডাউনসুপারিশ করেছে করোনায় গঠিত কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি পরামর্শক কমিটি।

কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মো. শহীদুল্লাহর সই করা একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় এই ১৪ দিন জরুরি সেবা ছাড়া যানবাহন, অফিস-আদালতসহ সব কিছু বন্ধ রাখা প্রয়োজন।

এতে বলা হয়েছে, দেশে কোভিড-১৯ রোগের ভারতীয় ডেল্টা ধরনের সামাজিক সংক্রমণ চিহ্নিত হয়েছে। ইতোমধ্যে এর প্রকোপ অনেক বেড়েছে। এ প্রজাতির জীবাণুর সংক্রমণ ক্ষমতা তুলনামূলকভাবে অনেক বেশি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য বিশ্লেষণে সারাদেশেই উচ্চ সংক্রমণ, পঞ্চাশটির বেশি জেলায় অতি উচ্চ সংক্রমণ লক্ষ্য করা গেছে। এটি প্রতিরোধে খণ্ড খণ্ড ভাবে নেওয়া কর্মসূচির উপযোগিতা প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে।

অন্যান্য দেশ, বিশেষত পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের অভিজ্ঞতা হলো, কঠোর ব্যবস্থা ছাড়া এর বিস্তৃতি প্রতিরোধ করা সম্ভব নয়। ভারতের শীর্ষস্থানীয় বিশেষজ্ঞদের সঙ্গেও এ বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। তাদের মতামত অনুযায়ী, যেসব স্থানে পূর্ণ শাটডাউন প্রয়োগ করা হয়েছে সেখানে সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করা গেছে।

ভারতীয় বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে আলোচনা করে কমিটি জানতে পারে কঠোর ব্যবস্থা ছাড়া এর প্রতিরোধ সম্ভব নয়।

বর্তমান পরিস্থিতিতে রোগের বিস্তার নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় ও জনগনের জীবনের ক্ষতি প্রতিরোধ করার জন্য কমিটি সর্বসম্মতিক্রমে সারাদেশে কমপক্ষে ১৪ দিন সম্পূর্ণ শাটডাউনদেয়ার সুপারিশ করেছে। জরুরি সেবা ছাড়া যানবাহন, অফিস-আদালতসহ সব কিছু বন্ধ রাখা প্রয়োজন বলে মনে করে করোনায় গঠিত কোভিড-১৯ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি কমিটি।এ ব্যবস্থা কঠোরভাবে পালন করতে না পারলে আমাদের যত প্রস্ত্ততিই থাকুক না কেন স্বাস্থ্য ব্যবস্থা অপ্রতুল হয়ে পড়বে বলে জানায় কমিটি।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী কোভিড-১৯ এর ভ্যাকসিন সংগ্রহের জন্য সর্বাত্মক উদ্যোগ নিয়েছেন। এজন্য সভায় তাকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা হয়। এ রোগ থেকে পূর্ণ মুক্তির জন্য ৮০ শতাংশের বেশি মানুষকে ভ্যাকসিন দেওয়া প্রয়োজন। বিদেশ থেকে টিকা সংগ্রহ, লাইসেন্সের মাধ্যমে দেশে টিকা উৎপাদন করা এবং নিজস্ব টিকা তৈরির জন্য সরকারি ও বেসরকারি উদ্যোগে গবেষণার জন্য প্রধানমন্ত্রীর প্রচেষ্টার প্রতি কমিটি পূর্ণ সমর্থন জানায়।


আরও খবর



পুকুর থেকে তিন আদিবাসী নাবালিকার লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৫৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভারতের ছত্তিশগড়ে পুকুর থেকে তিন আদিবাসী নাবালিকার লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।

গত কাল বুধবার সন্ধ্যায় রায়পুর চা বাগানের ওই পুকুরে তাদের পোশাক ভাসতে দেখা যায়। পরে পুকুরে নেমে লাশগুলো উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় ওই এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।

ওই তিন নাবালিকা পরস্পরের বন্ধু। তারা দুপুরে একসঙ্গে বাড়ি থেকে বের হয়েছিল। কিন্তু বিকাল পেরিয়ে সন্ধ্যা হলেও তাদের সন্ধান মেলেনি।

পরিবারের সদস্যরা আশেপাশে খোঁজ করতে থাকেন। তখনই পুকুরে তাদের লাশ ভাসতে দেখা যায়। জানা গেছে, মৃত তিনজনেই আদিবাসী নাবালিকা।

স্থানীয় সূত্রের বরাতে খবরে বলা হয়, দুপুরে বাড়ি থেকে বেরোয় সোনামণি মাঝি, অনু মাঝি এবং আগস্তনা ওরাও। সবাই বয়স ১০ থেকে ১৫ মধ্যে। রায়পুর চা বাগানেরই আদিবাসী গ্রামের বাসিন্দা তারা।

দুপুরের পর বাড়ি না ফেরায় চিন্তায় পড়ে পরিবার। গ্রামবাসী তাদের খুঁজতে বের হন। তখন দেখা যায় এলাকার পুকুর পাড়ে এক পাটি জুতো। তৎক্ষণাৎ পুকুরে নেমে খোঁজ করতেই তিন নাবালিকার লাশ উদ্ধার হয়। হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকেরা তাদের মৃত বলে ঘোষণা করেন।

পুলিশ জানিয়েছে, মৃতদেহগুলো ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মনে হচ্ছে, ওই তিন নাবালিকা সাঁতার জানত না। তবে তারা কেন জলে নেমেছিল তা এখনও স্পষ্ট নয়। অন্য কোনো কারণ আছে কি না তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

জলপাইগুড়ির পুলিশ সুপার দেবর্ষি দত্ত জানান, তিন নাবালিকার দেহের পোশাক পুকুরে ভাসতে দেখা যায়। তখন স্থানীয়রা পুকুরে নেমে লাশ উদ্ধার করে। পুরো ঘটনার তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।


আরও খবর



ঈদযাত্রার ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শেষ

প্রকাশিত:সোমবার ১৯ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঈদযাত্রার ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শেষ হয়েছে। রবিবার (১৮ জুলাই) সবশেষ টিকিট বিক্রি হয় ২২ জুলাইয়ের। এ দিন ২২ জুলাইয়ের ঈদ ফিরতি ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি করা হয়েছে।

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে কমিউটার ও মেইল ট্রেনের কাউন্টারে টিকিট প্রত্যাশীদের ভিড় দেখা গেছে। অন্যদিকে আন্তঃনগর ট্রেনের সব কয়টি কাউন্টার বন্ধ ছিল। এসব ট্রেনের টিকিট শতভাগ অনলাইনে কাটতে হয়েছে।

ঢাকা রেলওয়ে বিভাগীয় প্রধান বাণিজ্যিক কর্মকর্তা শওকত জামান মোহসী গণমাধ্যমকে জানান, গত ৫ দিনে মোট ১ লাখ ১০ হাজার ৬৫০টি টিকিট বিক্রি হয়েছে। স্বাভাবিক সময়ে প্রতিদিন প্রায় ৫৭ হাজার টিকিট বিক্রি হতো। স্বাস্থ্যবিধি মানার কথা বললেও অনেক যাত্রী স্টেশন ও ট্রেনে উঠে মাস্ক খুলে রাখছেন।

তিনি আরও বলেন, ২৩ জুলাই থেকে আবারো কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ হওয়ায় ঈদযাত্রায় এবার ট্রেনের ফিরতি টিকিট রোববার দেয়া হয়েছে। ঈদযাত্রার তৃতীয় দিনও সব ট্রেন সিডিউল অনুয়ায়ী চলাচল করেছে। বিনা টিকিটে কাউকেই স্টেশনে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না।


আরও খবর



আফগানিস্তানে নিজেদের প্রধান ঘাঁটি ছাড়লো মার্কিন সেনারা

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ জুলাই 2০২1 | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১০০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image


২০ বছর পর আফগানিস্তানে গড়া প্রধান ঘাঁটি ছাড়লো যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটো জোটের সেনারা। তালেবানের সঙ্গে চুক্তির শর্ত মেনে শুক্রবার দেশটির বাগরাম বিমান ঘাঁটি থেকে সেনারা আফগানিস্তান ত্যাগ করে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক জ্যেষ্ঠ মার্কিন নিরাপত্তা কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেছেন, ‘সব আমেরিকান সেনা ও ন্যাটো বাহিনী বাগরাম বিমান ঘাঁটি ত্যাগ করেছে।

এই বাগরাম ঘাঁটি থেকেই আফগানিস্তানে বিমান হামলা চালানো ও কৌশলগত সহযোগিতা দিতো মার্কিন বাহিনী। এই ঘাঁটি থেকে সেনা প্রত্যাহারের অর্থ হচ্ছে আফগানিস্তানের সঙ্গে মার্কিন বাহিনীর সম্পৃক্ততা শেষ হচ্ছে।

এক আফগান কর্মকর্তা জানিয়েছেন, শনিবার বাগরাম ঘাঁটি আনুষ্ঠানিকভাবে সরকারি বাহিনীর হাতে তুলে দেওয়া হবে।

দুই মার্কিন নিরাপত্তা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, চলতি সপ্তাহে অধিকাংশ মার্কিন সেনা আফগানিস্তান ত্যাগ করবেন। কিছু সেনা থেকে যাবে মার্কিন দূতাবাসের নিরাপত্তা রক্ষার জন্য।

১ মে থেকে আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহার শুরু হয়। গত সপ্তাহে হোয়াইট হাউজে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে বৈঠকে আফগান প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি সামরিক সহযোগিতা অব্যাহত রাখার অনুরোধ জানিয়েছিলেন। এর জবাবে বাইডেন বলেছিলেন,  আফগানিস্তানের ভাগ্য আফগানদেরই গড়ে নিতে হবে।


আরও খবর



চট্টগ্রামে রেকর্ড ১৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৭০৯

প্রকাশিত:রবিবার ১১ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ৮২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশে প্রায় প্রতিটি জেলায় মহামারী করোনার প্রকোপ বেড়েই চলছে। এদিকে এবার করোনা শনাক্তে নতুন রেকর্ড সৃষ্টি করে চলছে চট্টগ্রাম। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৭০৯ জন, এ সময় করোনায় মৃত্যু হয়েছে আরও ১৪ জনের।

আজ রবিবার (১১ জুলাই) চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

দুই হাজার ৮২ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৭০৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নতুন রোগীদের মধ্যে ৪১৬ জন চট্টগ্রাম মহানগরী এলাকার এবং বাকি ২৯৩ জন বিভিন্ন উপজেলার বাসিন্দা। মারা যাওয়া ১৪ জনের মধ্যে ৭ জন মহানগরীর এবং ৭ জন উপজেলার বাসিন্দা।

উপজেলাগুলোর মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় মীরসরাইয়ে ৩৩ জন, রাউজানে ১৯ জন, সীতাকুণ্ডে ৫৪ জন, হাটহাজারীতে ৪৮ জন, ফটিকছড়িতে ২৩ জন, রাঙ্গুনিয়ায় ১৮ জন, সন্দ্বীপে ১৬ জন, বোয়ালখালীতে ১১ জন, বাঁশখালী ৮ জন, আনোয়ারা ১ জন, চন্দনাইশে ২৯ জন, পটিয়া ২৪ জন, সাতকানিয়া ১৫ জন, ও লোহাগাড়া ৪ জন রয়েছেন।

বিশ্বজুড়ে গেল ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ৪ লাখ ৮৭ হাজার ৮০৬ জন প্রাণঘাতী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে বিশ্বে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৮ কোটি ৬৮ লাখ ১৫ হাজার ৩৭৬ জন। এছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় সারা বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৭ হাজার ২০০-র বেশি মানুষ। ফলে এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪০ লাখ ৩৪ হাজার ৮১৫ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছেন ১৭ কোটি ৮ লাখ ৭৩ হাজার ৯৩৩ জন।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে রবিবার (১১ জুলাই) সকালে এই তথ্য জানা গেছে।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৪৭ লাখ ১১ হাজার ৪১৩ জন আর মারা গেছেন ৬ লাখ ২২ হাজার ৭০৮ জন।

 


আরও খবর



করোনা: বিশ্বজুড়ে নতুন করে সাড়ে ৮ হাজার মানুষের মৃত্যু

প্রকাশিত:শনিবার ২৬ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:বুধবার ২১ জুলাই 20২১ | ৯৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুতে এখন পর্যন্ত শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৩ কোটি ৪৪ লাখ ৮২ হাজার ৬৭২ জন

বিশ্বজুড়ে করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যু উদ্বেগজনকভাবে বাড়ছেই। গত ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে আরও সাড়ে ৮ হাজার মানুষ এই সংক্রমণে প্রাণ হারিয়েছে। একই সময়ে আরও ৪ লাখ ৪ হাজার ৩৭৯ জন মানুষ নতুন করে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে।

শনিবার (২৬ জুন) সকাল ৮টায় পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটার থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, এখন পর্যন্ত বিশ্বে ১৮ কোটি ১১ লাখ ৭৫ হাজার ৫৬১ জন প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৩৯ লাখ ২৪ হাজার ৯৭২ জন। ইতোমধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৬ কোটি ৫৭ লাখ ৬১ হাজার ২৮২ জন।

করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুতে এখন পর্যন্ত শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৩ কোটি ৪৪ লাখ ৮২ হাজার ৬৭২ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ৬ লাখ ১৯ হাজার ১৫২ জন। অপরদিকে সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৮৮ লাখ ৯৭ হাজার ৪৬০ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ভারত। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ৩ কোটি ১ লাখ ৮২ হাজার ৪৬৯। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৩ লাখ ৯৪ হাজার ৫২৪ জনের। সুস্থ হয়েছেন ২ কোটি ৯১ লাখ ৮৫ হাজার ৫৫৯ জন।

তৃতীয় অবস্থানে থাকা ব্রাজিলে এখন পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ৮৩ লাখ ২২ হাজার ৭৬০। এর মধ্যে মারা গেছেন ৫ লাখ ১১ হাজার ২৭২ জন। যুক্তরাষ্ট্রের পর সবচেয়ে বেশি মৃত্যু দেখেছে ব্রাজিল। তবে দেশটিতে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১ কোটি ৬৫ লাখ ৪৮ হাজার ১৫৯ জন।


আরও খবর