Logo
শিরোনাম

ধনীদের কাছে নারী-মদ সরবরাহ করতেন ডিজে নেহা

প্রকাশিত:সোমবার ০৮ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৭৩জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর মৃত্যুর রহস্যজট এখনো খোলেনি। পরিবারের অভিযোগ, ওই ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন।

অন্যদিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বলছে, বিষক্রিয়া ওই ছাত্রীর মৃত্যুর কারণ হতে পারে। এ ঘটনায় গ্রেফতার ভুক্তভোগীর বান্ধবী ফারজানা জামান ওরফে ডিজে নেহা পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে নিজের অন্ধকার জগত সম্পর্কে আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন। 

বৃহস্পতিবার গ্রেফতারের পর শুক্রবার ৫ দিনের রিমান্ডে নিয়ে নেহাকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে মোহাম্মদপুর থানা পুলিশ। রোববার রিমান্ডের তৃতীয় দিনে নেহার ফোনবুকে পুলিশ ঢাকা-চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন স্থানের ডজনখানেক শিল্পপতি ও ব্যবসায়ীর নম্বর পেয়েছে। যেগুলো সাংকেতিকভাবে সংরক্ষণ করা। এসব ধর্নাঢ্যদের অনেকের কাছে মদ, তরুণী সরবরাহ করতেন তিনি। কখনও কখনও নেহা নিজেই তাদের সঙ্গ দিয়েছেন। বিনিময়ে তাদের কাছ থেকে হাতিয়েছেন মোটা অঙ্কের টাকা। 

তদন্তসংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানিয়েছে, ডিজে নেহার পছন্দের মোবাইল ফোনে (আইফোন) টার্গেট করা ব্যবসায়ী ও ধনী যুবকদের নম্বর ক্লায়েন্ট-১, ক্লায়েন্ট-২, ক্লায়েন্ট-৩ এমন ধারাবাহিকভাবেই সংরক্ষণ করা আছে। জিজ্ঞাসাবাদে নেহা জানিয়েছেন, গত বছরের মার্চে চট্টগ্রামের এক গাড়ি ব্যবসায়ীর সঙ্গে একটি পার্টিতে তার পরিচয় হয়।

এরপর ওই ব্যবসায়ীর সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে কৌশলে ৬ মাসে কয়েক লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন নেহা। নেহার এসব কাজে সহযোগিতা করতেন তারই চাচাতো ভাই শাফায়াত জামিল বিশাল। বিশাল সার্বক্ষণিক নেহার সঙ্গেই থাকতেন।

নিউজ ট্যাগ: ডিজে নেহা
Share

আরও খবর



আন্তর্জাতিক আদালতের প্রধান হচ্ছেন ব্রিটিশ আইনজীবী

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ মার্চ ২০২১ | ৬৯জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
আয়ারল্যান্ড, ইতালি এবং স্পেনের প্রতিদ্বন্দ্বীদের হারিয়ে আইসিসিরি প্রধান প্রসিকিউটর হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। আন্তর্জাতিক আদালতের ১৮ বছরের ইতিহাসে তিনি তৃতীয় প্রধান প্রসিকিউটরের দায়িত্ব পাচ্ছেন

আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের (আইসিসি) পরবর্তী প্রধান প্রসিকিউটর হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন ব্রিটিশ আইনজীবী করিম খান কিউসি (৫০)। তিনি বর্তমানে ইরাকে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) যুদ্ধাপরাধের বিষয়ে জাতিসংঘের তদন্ত বিষয়ক প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের তদন্তের একমাত্র স্থায়ী সংস্থা হিসেবে কাজ করছে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত। দ্বিতীয় দফার ভোটে ১২৩ দেশের মধ্যে ৭২টি ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন করিম খান। আগামী জুনে তিনি প্রধান প্রসিকিউটর হিসেবে দায়িত্ব শুরু করবেন। এই পদে তিনি ৯ বছর দায়িত্ব পালন করবেন।

আয়ারল্যান্ড, ইতালি এবং স্পেনের প্রতিদ্বন্দ্বীদের হারিয়ে আইসিসিরি প্রধান প্রসিকিউটর হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। আন্তর্জাতিক আদালতের ১৮ বছরের ইতিহাসে তিনি তৃতীয় প্রধান প্রসিকিউটরের দায়িত্ব পাচ্ছেন। বর্তমানে গাম্বিয়ার বিচারপতি ফাতো বেনসুদা এই দায়িত্ব পালন করছেন। ২০১৮ সাল থেকে করিম খান ইরাকে আইএসের নৃশংসতায় দোষীদের চিহ্নিত করা এবং বিচারের আওতায় আনার লক্ষ্যে জাতিসংঘের তদন্তের নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন।

আইনজীবী হিসেবে তার ২৭ বছরের ক্যারিয়ারে তিনি সাবেক যুগোস্লাভিয়ার যুদ্ধ এবং রুয়ান্ডার গণহত্যার সময় সংঘটিত অপরাধের ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে কাজ করেছেন।

Share

আরও খবর



প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চালু হওয়ার পর খুলবে বিশ্ববিদ্যালয়গুলো

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ মার্চ 2০২1 | হালনাগাদ:শনিবার ০৬ মার্চ ২০২১ | ৫৮জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান তথা স্কুল-কলেজ-মাদরাসা খুলবে ৩০ মার্চ। আর বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলে দেওয়া হবে আরও দুই মাস পর ২৪ মে।

করোনা মহামারির কারণে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান একসঙ্গে বন্ধ ঘোষণা করা হলেও স্কুল-কলেজ-মাদরাসা কেন আগে খুলছে সেই প্রশ্ন অভিভাবক-শিক্ষকসহ সংশ্লিষ্ট অনেকের।

বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ের শিক্ষার্থীরা নিজেদের সতর্ক রেখে ক্লাসে ফিরতে পারলেও স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা বয়সের তুলনায় নিজেদের কতটা নিরাপদ রাখতে পারবেন-এ প্রশ্ন তুলেছেন সমালোচক মহল।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় বলছে, স্কুল-কলেজ পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের ক্ষেত্রে হলে থাকার বিষয়টি যুক্ত নয়। এছাড়া বয়স কম হওয়ায় তাদের টিকা নেওয়ার বিষয়টিও বাধ্যবাধকতায় পড়ে না। এজন্যই স্কুল-কলেজ আগে খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি গত ২২ ফেব্রুয়ারি অনলাইনে সংবাদ সম্মেলনে জানান, সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, সব বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান ঈদুল ফিতরের পর ২৪ মে থেকে শুরু হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হলগুলো ১৭ মে থেকে খুলে দেওয়া হবে।

শিক্ষামন্ত্রী আরও জানান, হলগুলো খুলে দেওয়ার আগেই আবাসিক শিক্ষার্থী, শিক্ষক-কর্মকর্তা-কর্মচারী সবাইকেই টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

এরপর গত ২৭ ফেব্রুয়ারি আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে শিক্ষামন্ত্রী জানান, আগামী ৩০ মার্চ থেকে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের স্কুল-কলেজ খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

অর্থাৎ স্কুল-কলেজ খোলার দুই মাস পর বিশ্ববিদ্যালয়গুলো খুলে দিচ্ছে সরকার। তবে পঞ্চম, দশম এবং দ্বাদশ শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রতিদিন প্রতিষ্ঠানে আনা হলেও অন্য শ্রেণিগুলোর জন্য প্রতিদিন খোলা থাকবে না স্কুল-কলেজ।

শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী, উচ্চমাধ্যমিক পর্যায়ের দ্বাদশ, মাধ্যমিক পর্যায়ে দশম এবং প্রাথমিক পর্যায়ের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের প্রতিদিন (সপ্তাহে ছয় দিন) ক্লাস হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার প্রথম দিকে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থ, ষষ্ঠ, সপ্তম ও অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সপ্তাহে একদিন ক্লাস অনুষ্ঠিত হবে। নবম এবং একাদশ শ্রেণির সপ্তাহে দুদিন করে ক্লাস হবে। তারপর পরিস্থিতির আরও উন্নতি হলে একটু একটু করে বাড়িয়ে স্বাভাবিক অবস্থায় শতভাগ ক্লাস চালু হবে।

কিন্তু প্রায় এক বছর পর স্কুল-কলেজ খুলতে যাওয়ার মধ্যে ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা কতটা হবে তা নিয়েই প্রশ্ন সমালোচকদের। এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও সরব অনেকেই।

স্কুল আগে খোলা নিয়ে অভিভাবকদের মধ্যে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে দাবি করে অভিভাবক ঐক্য ফোরামের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা জিয়াউল কবির দুলু বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা তো টিকা নিয়ে ক্লাসে যাবে। কিন্তু স্কুল-কলেজের বাচ্চাদের টিকার অনুমোদন নেই।

তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার আগে উপযোগী সব শিক্ষক-কর্মচারী এবং অভিভাবকদেরও দুই ডোজ টিকা নিশ্চিত করতে হবে। আর স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় খোলা হলেও স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মানা হচ্ছে কিনা- তা মনিটর করতে হবে। অন্যথায় আবারও স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি হবে এবং প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ করে দিতে হবে।

এ নিয়ে সোমবার (১ মার্চ) মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সৈয়দ মো. গোলাম ফারুক বলেন, স্কুলগুলো হলের সঙ্গে সম্পর্কিত না। আর স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীদের টিকা নেওয়ার বাধ্যবাধকতা নেই। এজন্যই স্কুল-কলেজগুলো আগে খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

স্কুল-কলেজের খোলার প্রস্তুতির জন্য আগে যেসব নির্দেশনা বা গাইডলাইন দেওয়া হয়েছে তা পালন করতে হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষা অধিপ্তরের মহাপরিচালক গোলাম ফারুক।

বিশ্ববিদ্যালয়র আগে স্কুল-কলেজ কেন খুলে দেওয়া হচ্ছে- সেই প্রশ্নে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা এমএ খায়ের বলেন, এসএসসি এবং এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের জন্য শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়াটা জরুরি হয়ে পড়েছে। এক বছর তারা ক্লাসরুমে যেতে পারেনি। আর তাদের পরীক্ষার কথা বিবেচনা করে শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের জন্য খুলে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

তিনি আরও বলেন, স্কুল-কলেজ খোলা হলেও শিক্ষার্থীদের প্রতিদিন স্কুলে আসতে হবে না। এই পর্যায়ের শিক্ষার্থীদের টিকা নেওয়ার অনুমোদন নেই। আর স্কুল-কলেজের শিক্ষক-কর্মকর্তাদের টিকা দেওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

বাংলাদেশে গত ৮ বছরের মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর সেই ছুটি ২৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছিল। শিক্ষামন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনের পর আরও একমাস বেড়ে স্কুল-কলেজ-মাদরাসা খুলছে ৩০ মার্চ মঙ্গলবার।

তবে শিক্ষা ক্যালেন্ডার অনুযায়ী, ৩০ মার্চ খুললেও তার কয়েকদিন পর টানা ছুটি পড়বে। কিন্তু এবার রোজার মধ্যেও ক্লাস চালিয়ে যাওয়ার কথা জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

এবছর পবিত্র রমজান, মে দিবস, বুদ্ধ পূর্ণিমা, শব-ই-কদর, জুমাতুল বিদা ও ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ১৪ এপ্রিল থেকে ১৯ মে ৩১ দিন ছুটি থাকবে। এছাড়া ঈদুল আযহা ও গ্রীষ্মকালীন অবকাশে ১৭ থেকে ২৯ জুলাই পর্যন্ত ১২ দিন বন্ধ পাবে স্কুলগুলো। দুর্গাপূজা, ঈদ-ই-মিলাদুন্নবী, লক্ষ্মীপূজা ও প্রবারণা পূর্ণিমা উপলক্ষে ১১ থেকে ২০ অক্টোবর পর্যন্ত ৯ দিন বন্ধ থাকবে।

শীতকালীন অবকাশ, বিজয় দিবস, যিশুখ্রিস্টের জন্মদিন বা বড় দিন উপলক্ষে ১৫ থেকে ২৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত ১৩ দিন ছুটি থাকবে। রমজান মাসে ক্লাস চালিয়ে যাওয়া নিয়ে শিক্ষামন্ত্রীর ঘোষণারও বিরোধিতা করেছেন অনেক শিক্ষক।

Share

আরও খবর



বিশ্বে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা সাড়ে ২৫ লাখ ছুঁইছুঁই

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ মার্চ 2০২1 | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৫৭জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিশ্বে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির সংখ্যা কোনোভাবেই কমছে না। সবশেষ করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১১ কোটি ৪৯ লাখ ৮৬ হাজার ৭২৫ জন। আর এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৫ লাখ ৪৯ হাজার ৭২৪ জনে। এর মধ্যে সুস্থ হয়েছে ৯ কোটি ৬ লাখ ৯৫ হাজার ৬০১ জন। করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটার থেকে এই তথ্য জানা যায়।

ওয়ার্ল্ডওমিটারের সবশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রে। দেশটিতে ৫ লাখ ২৭ হাজার ২২৬ জন এখন পর্যন্ত মারা গেছেন। বিশ্বে সর্বোচ্চ আক্রান্তের সংখ্যাও এই দেশটিতে। এই পর্যন্ত ২ কোটি ৯৩ লাখ ১৪ হাজার ২৫৪ জন এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের পর মৃত্যু বিবেচনায় করোনায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দেশ হচ্ছে ব্রাজিল। লাতিন আমেরিকার দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে ১ কোটি ৫ লাখ ৮৯ হাজার ৬০৮ জন এবং মৃত্যু হয়েছে ২ লাখ ৫৫ হাজার ৮৩৬ জনের। তবে মৃত্যু বিবেচনায় মেক্সিকোর অবস্থান তৃতীয়। আক্রান্তের দিক থেকে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসা ভারত মৃত্যু বিবেচনায় আছে চতুর্থ অবস্থানে। এ পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ১ কোটি ১১ লাখ ২৩ হাজার ৬১৯ জন। আর মৃত্যু হয়েছে ১ লাখ ৫৭ হাজার ২৭৫ জনের। দেশে করোনাভাইরাসের আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। এখন পর্যন্ত মোট মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৮ হাজার ৪১৬ জনে। এছাড়াও এখন পর্যন্ত দেশে মোট শনাক্তের সংখ্যা ৫ লাখ ৪৬ হাজার ৮০১ জন।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীন থেকে সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর বিশ্বব্যাপী ছড়িয়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস। গত বছরের ১১ মার্চ করোনাভাইরাস সংকটকে মহামারি ঘোষণা করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস
Share

আরও খবর



এইচএসসি মানোন্নয়নের ফল রবিবার

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৮৬জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আগামীকাল রবিবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) ২০২০ সালের এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার মানোন্নয়নের ফল প্রকাশ করা হবে।

শনিবার  (২৭ ফেব্রুয়ারি) আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর নেহাল আহমেদ এ তথ্য জানিয়েছেন।

নেহাল আহমেদ জানান, আগামীকাল (রবিবার) এইচএসসিতে মানোন্নয়নের আবেদন করা শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ করা হবে। দেশের সবগুলো শিক্ষা বোর্ডে মানোন্নয়নের আবেদন করা শিক্ষার্থীদের ফল একসঙ্গে প্রকাশ করা হবে।

উল্লেখ‌্য, গত ৩১ জানুয়ারি থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ফল পুনর্মূল্যায়নের আবেদন করার সুযোগ পান শিক্ষার্থীরা। এবার প্রায় ১৫ হাজার শিক্ষার্থী মানোন্নয়নের জন্য আবেদন করেছেন বলে বোর্ড সূত্রে জানা গেছে। এদের মধ্যে বিজ্ঞানের সবচেয়ে বেশি। আর বোর্ডগুলোর মধ্যে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে সবচেয়ে বেশি রিভিউ আবেদন পড়েছে।

প্রসঙ্গত, গত ৩০ জানুয়ারি এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা হয়। এবার অটোপাস দেওয়ায় পরীক্ষার রেজিস্ট্রেশন করা সব শিক্ষার্থীই পাস করেছেন। পাসকৃতদের মধ্যে ১ লাখ ৬১ হাজারেরও বেশি ছাত্র-ছাত্রী জিপিএ-৫ পেয়েছেন।

নিউজ ট্যাগ: এইচএসসি
Share

আরও খবর



চট্টগ্রামে ভোট শুরুর আগমুহূর্তে কাউন্সিলর প্রার্থীকে অপহরণ

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৫ মার্চ ২০২১ | ৬৪জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চট্টগ্রামের পটিয়া পৌরসভা নির্বাচনে ভোট শুরুর আগমুহূর্তে এক কাউন্সিলর প্রার্থীকে অপহরণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

রবিবার ভোর ৬টার দিকে ১ নম্বর ওয়ার্ডের এই প্রার্থীকে একটি গাড়িতে তুলে নেওয়া হয়। এছাড়া এই পৌরসভায় একাধিক ভোটকেন্দ্রে সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। এমনকি এই ওয়ার্ডের একটি কেন্দ্রে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনাও ঘটেছে।

অপহরণের শিকার কাউন্সিলর প্রার্থীর নাম আবদুল খালেক। তিনি ১ নম্বর ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর।  স্থানীয় আওয়ামী লীগ এবার তাকে সমর্থন দেয়নি।  তিনি স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছিলেন।

আবদুল খালেকের চাচাতো ভাই শামসুল আলম গণমাধ্যমকে বলেন,  আল্লাই ওষাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশের একটি মাজার জিয়ারত করছিলেন প্রার্থী আবদুল খালেক ও তার সমর্থকরা। মাজার জিয়ারতের পরপরই ১০ থেকে ২০ জন যুবক এসে তাদের মোবাইল ফোন কেড়ে নেয়। কাউন্সিলর প্রার্থী আবদুল খালেককে সাদা একটি গাড়িতে করে কক্সবাজারমুখী সড়কে নিয়ে চলে যায়।

জানা গেছে, পটিয়া পৌরসভার বর্তমান কাউন্সিলর আবদুল খালেকসহ এ ওয়ার্ডে তিনজন কাউন্সিলর প্রার্থী, যারা সবাই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত।  আবদুল খালেক এবার দলীয় সমর্থন পাননি।

এ বিষয়ে পটিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রেজাউল করিম মজুমদার বলেন, তিনি আবদুল খালেককে তুলে নেওয়ার অভিযোগ পেয়েছেন। এ বিষয়ে খোঁজ নেওয়া হচ্ছে।  বেলা ২ টায় এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ওই প্রার্থীর কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

এছাড়া এই ওয়ার্ডের আল্লাই ওষাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পুরুষ কেন্দ্রে ককটেল বিস্ফোরণ ঘটেছে। প্রিসাইডিং কর্মকর্তা আবদুল মান্নান জানান, সকাল ১০টার দিকে কেন্দ্রের বাইরে একটি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ ছাড়া মহিলা কেন্দ্রে হইচই হয়।

Share

আরও খবর