Logo
শিরোনাম

ডিসেম্বরে পাইপ লাইনে ভারত থেকে আসছে ডিজেল

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২২ সেপ্টেম্বর 20২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৪৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চলতি বছরের শেষ দিকে প্রায় ১৩১ দশমিক ৫ কিলোমিটার পাইপ লাইনের মাধ্যমে দিনাজপুরের পার্বতীপুর ডিপোতে ভারত থেকে আসছে আমদানির ডিজেল। বর্তমানে ভারত-বাংলাদেশ ফ্রেন্ডশিপ পাইপ লাইন প্রকল্পের কাজ ৯০ শতাংশ শেষ হয়েছে। পুরো শেষ হতে আরও ২/১ মাস লাগবে। এই প্রকল্পের মাধ্যমে রেলওয়ে ওয়াগনের পরিবর্তে পাইপ লাইনে ডিজেল আমদানি করে বছরে কয়েক কোটি টাকার সাশ্রয় হবে সরকারের। এর ফলে বৃহত্তর রাজশাহী বিভাগের ১৬টি জেলায় অল্প সময় ও কম খরচে ডিজেল পাওয়া যাবে।

পার্বতীপুর উপজেলা সদরে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন (বিপিসি) ভারতের শিলিগুঁড়ির নুমানিগড় রিফাইনারি লিমিটেডের (এনআরএল) মাধ্যমে ডিজেল আমদানির যে প্রকল্প গ্রহণ করেছে তা আগামী ডিসেম্বরের মধ্যেই আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হবে। বর্তমানে চট্টগ্রাম ও খুলনার মোংলা বন্দরের মাধ্যমে রেলওয়ের তেলবাহী ওয়াগনে দেশের উত্তরাঞ্চলে ডিজেল সরবরাহ করা হয়, যাতে সময়সাপেক্ষ ও ব্যয়বহুল।

চট্টগ্রাম থেকে সড়কপথে পার্বতীপুরে তেল আনতে প্রতি ব্যারেলের পরিবহন ব্যয় হয় প্রায় ৮ ডলার। কিন্তু পাইপ লাইনে ভারত থেকে আমদানি করা ডিজেল পার্বতীপুরে আনতে ব্যয় হবে ব্যারেল প্রতি ৫ ডলার। এ ছাড়াও চট্টগ্রাম থেকে পরিবহনের ক্ষেত্রে সময় লাগতো ২/১ দিন। আর পাইপ লাইনের মাধ্যমে পার্বতীপুরে ডিজেল সরবরাহ করতে লাগবে ১ ঘণ্টার কিছু বেশি সময়। তাই সরকার সব দিক বিবেচনা করে কৃষিপ্রধান উত্তরাঞ্চলের ১৬টি জেলায় নিরবচ্ছিন্ন ডিজেল সরবরাহের গতি বাড়াতে শিলিগুঁড়ির এনআরএল থেকে ডিজেল আমদানির পরিকল্পনা নেয়।

শিলিগুঁড়ি থেকে পার্বতীপুর ডিপোর দূরত্ব ১৩১ দশমিক ৫ কিলোমিটার। এর মধ্যে ভারতীয় অংশে ৫ কিলোমিটার এবং বাংলাদেশের পঞ্চগড়ে ৮২ কিলোমিটার, দিনাজপুরে ৩৫ কিলোমিটার ও নীলফামারী জেলা এলাকায় ৯ দশমিক ৫ কিলোমিটার পাইপ লাইন স্থাপনের কাজ প্রায় শেষ পর্যায়ে রয়েছে। প্রকল্পের জমি অধিগ্রহণের জন্য বাংলাদেশ সরকার ৩০৬ কোটি টাকা বরাদ্দ দেয়। তবে ব্যয়বহুল এই প্রকল্পে পাইপ কেনা, স্থাপন করা ও কারিগরি যাবতীয় ব্যয় ভারতীয় সরকার বহন করছে। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মধ্যে সম্পাদিত চুক্তির পর ২০২০ সালের মার্চ মাসে এই ফ্রেন্ডশিপ পাইপ লাইনের কাজ শুরু হয়।

বিপিসির নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, পাইপ লাইন প্রকল্পের মেয়াদ ছিল ২০২০ সালের মার্চ থেকে ২০২২ সালের জুন পর্যন্ত। তবে করোনার কারণে কাজের গতি কিছুটা শিথিল হওয়ায় প্রকল্পের মেয়াদ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। পার্বতীপুর ডিপোতে বাফার স্টোরেজ ট্যাংক নির্মাণের জন্য বিদেশ থেকে আমদানি করা স্টিলের পাত এখনো না আসায় কাজ কিছুটা বিঘ্নিত হচ্ছে। এসব ট্যাংকের ধারণ ক্ষমতা প্রায় ২৬ হাজার মেট্রিক টন। বর্তমানে এই ডিপোর মজুদের ধারণ ক্ষমতা ১৫ হাজার মেট্রিক টনের কিছু বেশি।

সূত্রটি জানায়, বছরে পাইপ লাইনের মাধ্যমে প্রায় ১ মিলিয়ন মেট্রিক টন ডিজেল ভারত থেকে আমদানি করা যাবে। তবে প্রাথমিক পর্যায়ে বাংলাদেশ আড়াই লাখ মেট্রিক টন ডিজেল আমদানি করবে। ১৫ বছর মেয়াদী চুক্তি অনুযায়ী প্রতি বছর ডিজেল আমদানির পরিমাণ ৪ থেকে ৫ মেট্রিক টন করে বাড়বে।

জানা গেছে, বর্তমানে এনআরএল পশ্চিমবঙ্গ রেল কর্তৃপক্ষের ওয়াগনের মাধ্যমে প্রতি মাসে বাংলাদেশে প্রায় ২ হাজার ২০০ মেট্রিক টন ডিজেল সরবরাহ করে। আর বিপিসি রেলওয়ে ওয়াগনের মাধ্যমে উত্তরাঞ্চলসহ দেশের অন্যান্য ডিপোতে ডিজেল সরবরাহ করে থাকে।

আমন ও বোরো মৌসুমে উত্তরাঞ্চলের ১৬টি জেলায় ডিজেলের চাহিদা সবচেয়ে বেশি থাকায় সরকার বিপিসির মাধ্যমে সরবরাহ পরিস্থিতি গতিশীল করতে চায়। এই লক্ষ্যে ডিজেল আমদানির যে প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে এর মাধ্যমে বিপুল পরিমাণ অর্থ সাশ্রয়ের পাশাপাশি অল্প সময় ও কম খরচে পেট্রোল পাম্পগুলো কৃষকদের কাছে ডিজেল সরবরাহ করতে সক্ষম হবে।

বিপিসির একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, বাংলাদেশ অংশে প্রায় ১২৫ কিলোমিটার পাইপ লাইনের রক্ষণাবেক্ষণ ও নিরাপত্তা বিধানে সার্বক্ষণিক প্রহরী নিযুক্ত করা হবে। যাদের বেতন-ভাতার ব্যয় বহন করবে বিপিসি।


আরও খবর



র‌্যাবের সংস্কারের বিষয় নাকচ নতুন ডিজির

প্রকাশিত:শনিবার ০১ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ১৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন আইনের বাইরে কোনো কাজ করে না, তাই এর কোনো সংস্কারের প্রশ্নই নেই বলে মন্তব্য করেছেন বাহিনীর নতুন মহাপরিচালক (ডিজি) এম খুরশীদ হোসেন।

তাছাড়া যুক্তরাষ্ট্রের নিষেধাজ্ঞা র‍্যাবের ওপর কোনো প্রভাব ফেলবে না বলেও জানিয়েছেন তিনি। শনিবার (১ অক্টোবর) ধানমন্ডির ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন র‌্যাবপ্রধান।

খুরশীদ হোসেন বলেন, যুক্তরাষ্ট্র একটা নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। এটা সরকারিভাবে মোকাবেলা করা হচ্ছে। তারা যেসব বিষয় আমাদের কাছে জানতে চেয়েছে, আমরা এরইমধ্যে তার জবাব দিয়েছি। জবাব দেয়ার পরে তারা নতুন করে কোনো প্রশ্ন তোলার সুযোগ পায়নি। আমি মনে করি না, এটা বড় কোনো চ্যালেঞ্জ সরকার বা আমাদের জন্য।

আমরা আমাদের দায়িত্ব পালন করে যাব। এটা সত্য, যারা কাজ করে তাদের ত্রুটি-বিচ্যুতি হতেই পারে। দেখতে হবে সেটা আমি ব্যক্তিস্বার্থে করেছি নাকি দেশের সাধারণ মানুষের স্বার্থে করেছি। এ বিষয়গুলো আমরা অবশ্যই সরকারিভাবে মোকাবিলা করব।

এক প্রশ্নে র‌্যাব ডিজি বলেন, র‌্যাব আইনের বাইরে কোনো কাজ করে না। তাই সংস্কারের প্রশ্নই ওঠে না।

দুর্গাপূজায় নিরাপত্তা ব্যবস্থা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, অতীতে আমরা সব সময় পূজামণ্ডপে স্ট্যান্ডিং আনসার রাখতাম। গত বছর এটা করা হয়নি। করা হয়েছিল আনসারদের মোবাইল প্যাট্রল। এবার যখন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মিটিং হয় আমি নিজে উপস্থিত ছিলাম। তখন আমি প্রস্তাব করেছিলাম, প্রত্যেকটা পূজামণ্ডপে শ্রেণিভেদে গুরুত্ব বিবেচনায় ৪ থেকে ৭ জন করে স্ট্যান্ডিং আনসার সদস্য থাকবে। পাশাপাশি থাকবে মোবাইল প্যাট্রল।

র‌্যাব ফোর্সেস থেকেও যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। মূল সমস্যা সাইবার প্যাট্রলিংয়ের মাধ্যমে আমরা এগুলো ফাইন্ডআউট করছি; সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য করে, এটা এক ধরনের উসকানি। অসাম্প্রদায়িক দেশে যারা সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা তৈরি করে দেয়, একটি দুষ্কৃতকারী সংস্থা রয়ে গেছে। কিছু দুষ্ট লোক রয়ে গেছে তারা চেষ্টা করবে। আমাদের বুঝতে হবে, দেশ আমাদের, এ সমাজ আমাদের। আমরা এখানে সব ধর্ম নির্বিশেষে...প্রধানমন্ত্রী যেটা বলেন, ধর্ম যার যার, উৎসব সবার। আমরা যে ব্যবস্থা নিয়েছি, র‌্যাব ফোর্সেস তৈরি আছে, কোনো সমস্যা হবে বলে আমি বিশ্বাস করি না।


আরও খবর



‘বালুখেকো’ সেলিম খানের জামিন চেম্বারে স্থগিত

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০22 | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় চাঁদপুরের আলোচিত চেয়ারম্যান বালুখেকো সেলিম খানকে হাইকোর্টের দেওয়া জামিন স্থগিত করেছেন চেম্বার আদালত। মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম এ আদেশ দেন দুদকের পক্ষে ছিলেন সিনিয়র আইনজীবী অ্যাডভোকেট মো. খুরশীদ আলম খান।

এর আগে জামিন স্থগিত চেয়ে দুর্নীতি দমন কমিশনের করা আবেদনের বিষয়ে শুনানির জন্য এদিন ধার্য করেন। তারই ধারাবাহিকতায় আজ সেটি শুনানি হয়। গত রোববার (১৮ সেপ্টেম্বর) জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় সেলিম খানের হাইকোর্টের দেওয়া চার সপ্তাহের জামিন স্থগিত চেয়ে আবেদন করে দুদক।

গত ১৪ সেপ্টেম্বর ৩৪ কোটি টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় সেলিম খানকে ৪ সপ্তাহের আগাম জামিন দেন হাইকোর্ট। একইসঙ্গে চার সপ্তাহ পর তাকে বিচারিক আদালতে আত্মসমর্পণ করতে বলা হয়। বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি বিশ্বজিৎ দেবনাথের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। গত ১ আগস্ট সেলিম খানের বিরুদ্ধে দুদকের সহকারী পরিচালক আতাউর রহমান বাদী হয়ে মামলা করেন। ৩৪ কোটি ৫৩ লাখ টাকার অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে সমন্বিত জেলা কার্যালয় ঢাকা-১ এ এই মামলা করে দুদক।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, সেলিম খান অবৈধ উপায়ে ৩৪ কোটি ৫৩ লাখ ৮১ হাজার ১১৯ টাকার সম্পদ জ্ঞাত আয়ের সঙ্গে অসঙ্গতিপূর্ণভাবে অর্জন করে নিজ ভোগদখলে রেখেছেন। এছাড়া তিনি ৬৬ লাখ ৯৯ হাজার ৪৭৭ টাকার সম্পদের তথ্য গোপন করেছেন।

দুদক সচিব জানান, অনুসন্ধান কর্মকর্তার প্রতিবেদনের ভিত্তিতে কমিশন সভায় সেলিম খানের বিরুদ্ধে মামলার সিদ্ধান্ত হয়।

চাঁদপুর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রস্তাবিত ভূমি অধিগ্রহণের জন্য সেলিম খানের ইউনিয়নের মেঘনা পাড়ে একটি এলাকা নির্ধারণ করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ৬২ একর ভূমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া শুরু করতে গিয়ে দেখা যায়, চেয়ারম্যান সেলিম খান, তার ছেলেমেয়েসহ অন্য জমির মালিকরা অস্বাভাবিক মূল্যে দলিল তৈরি করেছেন। ফলে ওই জমি অধিগ্রহণে সরকারের ব্যয় বেড়ে দাঁড়ায় ৫৫৩ কোটি টাকা। জমির অস্বাভাবিক মূল্য নিয়ে জেলা প্রশাসকের তদন্তে সরকারের বিপুল পরিমাণ অর্থ লোপাট করার পরিকল্পনা ধরা পড়ে। পরে ভূমি মন্ত্রণালয়ে পাঠানো প্রতিবেদনে বিষয়গুলো উল্লেখ করেন জেলা প্রশাসক, যা নিয়ে সারাদেশে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

এর আগে চাঁদপুর ভূমি অধিগ্রহণ সম্পর্কে অসত্য ও বিভ্রান্তিমূলক তথ্য উপস্থাপন করায় চেয়ারম্যান সেলিম খানকে গত ১০ ফেব্রুয়ারি কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয় জেলা প্রশাসন। অন্যদিকে কয়েক বছর ধরে চাঁদপুরের নদী অঞ্চল থেকে অপরিকল্পিতভাবে বালু উত্তোলনের অভিযোগ রয়েছে ওই চেয়ারম্যানসহ একটি চক্রের বিরুদ্ধে। এমনকি অনুমতি ছাড়াই তিনি বছরের পর বছর বালু বিক্রি করেছেন বলে জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। সবশেষ ৬ এপ্রিল সেলিম খানের অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ যাচাইয়ে দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় কুমিল্লার সহকারী পরিচালক রাফী মো. নাজমুস সাদাতের নেতৃত্বে দুদক এনফোর্সমেন্ট টিম অভিযান পরিচালনা করে। অভিযানে ওই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়ম-দুর্নীতির প্রাথমিক সত্যতা পেয়েছে দুদক টিম।

নিউজ ট্যাগ: সেলিম খান

আরও খবর



কঠোর নিরাপত্তায় আবেকে শেষ শ্রদ্ধা জানাচ্ছে জাপান, চলছে বিক্ষোভও

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সাবেক প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবেকে শেষ শ্রদ্ধা জানাচ্ছে জাপান। কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে অতীত-বর্তমান প্রায় অর্ধশত রাষ্ট্র ও সরকারপ্রধানের উপস্থিতিতে রাষ্ট্রীয়ভাবে এ শেষকৃত্য সম্পন্ন হচ্ছে।

মঙ্গলবার আবের রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় অংশ নিতে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীসহ সাতশর বেশি বিদেশি অতিথি পূর্ব এশিয়ার দেশটিতে থাকছেন বলে জানিয়েছে বিবিসি।

সিঙ্গাপুরের প্রধানমন্ত্রী লি সিয়েন লং, অস্ট্রেলিয়ার অ্যান্থনি আলবানিজ, ভিয়েতনামের প্রেসিডেন্ট নগুয়েন ফুক, দক্ষিণ কোরিয়ার প্রধানমন্ত্রী হান ডাক-সো, ফিলিপিন্সের ভাইস প্রেসিডেন্ট সারা দুতের্তে-কার্পিও, ইন্দোনেশিয়ার ভাইস প্রেসিডেন্ট মারুফ আমিন এবং ইউরোপিয়ান কাউন্সিলের প্রেসিডেন্ট চার্লস মিশেলেরও এ অনুষ্ঠানে থাকার কথা রয়েছে।

বিদেশি অতিথিদের অনেকের সঙ্গেই সোম ও মঙ্গলবার বৈঠক করেছেন জাপানের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা। সেসব বৈঠকের ছবিও টুইটারে দিচ্ছে তাঁর কার্যালয়। কিশিদার কেবল মঙ্গলবারই ৪০টিরও বেশি দেশের নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করার কথা রয়েছে।

টোকিওর কেন্দ্রস্থলে খেলাধুলা ও কনসার্টের জন্য খুবই পরিচিত নিপ্পন বুদোকানে হতে যাওয়া আবের শেষকৃত্যে সবমিলিয়ে প্রায় ৪ হাজার ৩০০ অতিথি থাকবেন বলে জানানো হয়েছে।

স্থানীয় সময় দুপুর ২টা থেকে এই অনুষ্ঠান শুরু হবে, তবে বাইরে কিছু নির্দিষ্ট স্ট্যান্ড করে দেওয়া হয়েছে, যেখানে সকাল ১০টা থেকেই জনসাধারণ ফুল ও অন্যান্য উপকরণ দিয়ে আবের প্রতি শ্রদ্ধায় শামিল হতে পারবে। অবশ্য নির্ধারিত সময়ের আগে থেকেই সেসব স্ট্যান্ডে জনসাধারণ শ্রদ্ধা জানানো শুরু করেছে বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স।

অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় প্রায় এক হাজার সেনা দায়িত্ব পালন করবে, সামরিক বাহিনীর অনার গার্ড আবেকে স্যালুট জানাতে কামান থেকে ছুড়বে ১৯টি ফাঁকা গোলা।

রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া নির্বিঘ্নে করতে বুদোকানের আশপাশের সব সড়ক মঙ্গলবার ভোরের আগে থেকেই বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে; সকালে ওই এলাকায় ব্যাপক পুলিশের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে, বাহিনীটির অনেক সদস্যকে জাপানের অন্যান্য অংশ থেকেও আনা হয়েছে।

এদিকে আবের অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া নিয়ে জাপান জুড়ে ক্রমবর্ধমান বিক্ষোভ চলছে। অনেকেই সাবেক এ প্রধানমন্ত্রীকে কেন রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া দিতে হবে সেই প্রশ্ন তুলছেন, জাপানে সাধারণত রাজপরিবারের সদস্যদেরই রাষ্ট্রীয়ভাবে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া হয়।

অনেকে এই অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার বিপুল ব্যয় নিয়েও ক্ষুব্ধ। তাদের ভাষ্য, আবেকে শ্রদ্ধা জানাতে বিরাট অংকের খরচ না করে সেই অর্থ টাইফুন শিজুয়োকাতে ক্ষতিগ্রস্তদের পেছনে ব্যয় করা উচিত ছিল।


আরও খবর

‘হাসি’ মানুষের সবচেয়ে ভালো ওষুধ

শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২




স্বৈরশাসক হিসেবে প্রতিষ্ঠিতরাই আজ গণতন্ত্র শেখাতে চায়: আমু

প্রকাশিত:সোমবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য, ১৪ দলের সমন্বয়ক ও মুখপাত্র আমির হোসেন আমু বলেছেন, যারা স্বৈরশাসক হিসেবে এ দেশে প্রতিষ্ঠা লাভ করেছে তারা গণতন্ত্র শেখাতে চায়। যারা রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত তারা আজ বড় বড় কথা বলেন। সব দেখে আমাদের এখন হাসি পায়।

আজ সোমবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে শহীদ ময়েজউদ্দিনের ৩৮তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা ও স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন আমির হোসেন আমু। সভার আয়োজন করে শহীদ ময়েজউদ্দিন স্মৃতি সংসদ।

আমির হোসেন আমু বলেন, এরশাদের ক্ষমতাকালীন সময়ে ৭২ ঘণ্টা  নয়, ১২ দিন আমাদের সমস্ত রেজাল্ট হেল্ডআপ রাখা হয়েছিল। কারা আজকে গণতন্ত্র শেখায়। যে জিয়াউর রহমানের হ্যাঁ-না ভোট, যেখানে কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী নেই, সে ভোট থেকে কারচুপি শুরু। তারা আজকে গণতন্ত্র শিক্ষা দিতে চায়।

আমু বলেন, আগামীতে শেখ হাসিনা ও তার মনোনীত প্রার্থীকে এ দেশের মানুষ ভোট দেবে। কোনো ষড়যন্ত্র নির্বাচন ঠেকাতে পারবে না। নির্বাচনের মধ্যে দিয়ে গণতন্ত্রের অভিযাত্রা অব্যাহত থাকবে।

শহীদ ময়েজউদ্দিনের মেয়ে, আওয়ামী লীগের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক মেহের আফরোজ চুমকির সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মোজাফফর হোসেন পল্টু, আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম, সাংবাদিক নেতা ইকবাল সোবহান চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন ভূঁইয়াসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার বিশিষ্টজনরা। আলোচনা সভা সঞ্চালনা করেন শহীদ ময়েজউদ্দিন স্মৃতি সংসদের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক আতাউর রহমান।


আরও খবর



সেনাবাহিনীতে যোগ না দিতে দেশ ছাড়ছেন রুশ নাগরিকেরা

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | ৪২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ইউক্রেন যুদ্ধে অংশ নিতে সেনাবাহিনীতে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানানোর পর থেকে রাশিয়ার নাগরিকেরা দেশ ছাড়তে শুরু করেছেন। রাশিয়া ছাড়তে অনেকে জর্জিয়া সীমান্তে জড়ো হয়েছেন।

বিবিসির খবরে বলা হয়েছে, জর্জিয়া সীমান্তে সড়কে কয়েক কিলোমিটার পর্যন্ত গাড়ি জমেছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে, সীমান্তে গাড়ির যে জটলা তা প্রায় ৫ কিলোমিটার পর্যন্ত বিস্তৃত হয়েছে। এ ছাড়া প্রত্যক্ষদর্শীদের আরেকটি দল জানিয়েছেন, জর্জিয়া সীমান্ত পাড়ি দিতে তাঁদের প্রায় সাত ঘণ্টা সময় লেগেছে।

ইউক্রেন যুদ্ধ শুরুর পর থেকে জর্জিয়া সীমান্ত দিয়ে ১ লাখ ৪০ হাজার মানুষ দেশ ছেড়েছেন। তবে রুশ কর্তৃপক্ষ লোকজনের দেশ ছেড়ে পালানোর খবরকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছে।

জর্জিয়া সীমান্তে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক রুশ নাগরিক বিবিসিকে বলেন, তিনি পাসপোর্ট সঙ্গে নিয়ে সীমান্তের দিকে রওনা দিয়েছেন। সঙ্গে তিনি কিছু নেননি।

ইউক্রেন যুদ্ধে নতুন করে সেনা পাঠানোর ঘোষণা বুধবার দেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এরপরই ওই ব্যক্তি দেশ ছাড়ার সিদ্ধান্ত নেন। কারণ তিনি এমন একটি দলের মধ্যে পড়েছিলেন যাদের যুদ্ধ করতে ইউক্রেনে পাঠানো হতে পারে।

রাশিয়ার এই পরিস্থিতিতে নিয়ে বার্তা সংস্থা এএফপি একটি সরেজমিন প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। সেখানকার পরিস্থিতি নিয়ে দিমিত্রি নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলেছেন এএফপির সাংবাদিক। এই ব্যক্তি রাশিয়া ছেড়ে আর্মেনিয়া যাচ্ছেন। এএফপিকে জানান, স্ত্রী ও সন্তান রেখে আর্মেনিয়া যাচ্ছেন তিনি। দিমিত্রি বলেন, আমি যুদ্ধে যেতে চাই না। যুক্তিহীন এই যুদ্ধে আমি প্রাণ হারাতে চাই না। এটা ভাইকে হত্যার যুদ্ধ।

এদিকে প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের ঘোষণার পর এ সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় বিক্ষোভ শুরু হয় রাশিয়ায়। বিক্ষোভ থেকে এক হাজারের বেশি রুশ নাগরিককে গ্রেপ্তার করেছে রাশিয়ান পুলিশ। বিক্ষোভের সময় সবচেয়ে বেশি গ্রেপ্তার করা হয় মস্কো এবং সেন্ট পিটার্সবার্গ শহর থেকে। রাশিয়ান হিউম্যান রাইটস গ্রুপ ওভিডি-ইনফো জানিয়েছে, সব মিলিয়ে ১ হাজার ৩০০ বিক্ষোভকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ছাড়াও বিক্ষোভ হয়েছে সাইবেরিয়ার ইরকুতস্ক শহর ও ইয়েকাতেরিনবার্গের মতো শহরগুলোতে।


আরও খবর

‘হাসি’ মানুষের সবচেয়ে ভালো ওষুধ

শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২