Logo
শিরোনাম

দম ফেলার ফুরসত নেই দর্জি কারিগরদের

প্রকাশিত:বুধবার ২০ এপ্রিল ২০22 | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ১৩২জন দেখেছেন

Image

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি:

আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ বাজারে দর্জির দোকানগুলোতে পুরোদমে চলছে নতুন পোশাক তৈরির হিড়িক। সেই সঙ্গে দোকানের মেঝেতে রয়েছে কাপড়ের স্তুপ। ডান-বায়ের দেয়ালেও ঝুলছে নানা রঙ ও নকশার বানানো পোশাক।

সেলাই মেশিনের একটানা খটখট আওয়াজ চলছে। এর মধ্যেই নেওয়া হচ্ছে নতুন পোশাকের অর্ডার। একই সঙ্গে চলছে মাপ অনুযায়ী কাপড় কাটার কাজও। ঈশ্বরগঞ্জ বাজার এর বেশ কয়েকটি দর্জির দোকানে ঘুরে এমন ব্যস্ততা ও ক্রেতাদের ভীড় দেখা গেছে। দর্জিদের দম ফেলার ফুসরত নেই। কিছু দর্জি বলছেন আমরা আজ থেকে পোশাক তৈরির অর্ডার আর নিচ্ছি না। কারণ কারিগররা আর কত পোশাক তৈরি করবে।

ক্রেতারা জানান, রমজানের ১৭দিন পেরিয়ে গেলো। আর কয়েক দিন পরেই ঈদুল ফিতর। হাতে আর তেমন সময় নেই। যারা তৈরি পোশাক (রেডিমেড) পড়তে পছন্দ করেন না বা নিজের পছন্দমতো মাপে ও ডিজাইনে পড়তে অভ্যস্ত, তারা এখন ভিড় করছেন দর্জির দোকানগুলোতে। তাই ঈশ্বরগঞ্জ বাজারের বিভিন্ন দর্জির  দোকানে এখন ব্যস্ততা বেশি।

দর্জির দোকানিরা জানান, এখন ব্যস্ততাটা বেশিই দম ফেলার সময় নেই। তবে এ ব্যস্ততা শুরু হয়েছে রমজান মাস শুরুর পর থেকেই। শুরুতে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কাজ করতে হতো, আর এখন সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত কাজ করতে হচ্ছে। তারা আরও জানান, পরিশ্রম একটু বেশি হচ্ছে, তবুও তারা খুশি। কারণ, ঈদের মৌসুমে বাড়তি কাজের অর্ডার হয়। এতে বাড়তি আয়ও হচ্ছে।

ঈশ্বরগঞ্জ বাজারের, ম্যাক্স টেইলার্স এর কারিগর আল আমিন বলেন, আমরা আধুনিক ডিজাইনের রুচিসম্মত পোশাক তৈরি করি। এবারের ঈদে প্রতিটি প্যান্টের জন্য ৪শ টাকা, শার্টে ৩শ টাকা, পায়জামা ২শটাকা, পাঞ্জাবিতে ৪শথেকে ৩শটাকা পর্যন্ত মজুরি নেওয়া হচ্ছে বলেও জানান।

প্রাইম টেইলার্সের স্বত্বাধিকারি মুরাদ জানান, এবার রমজানের শুরু থেকেই ভালো অর্ডার পাচ্ছি। যেহেতু অর্ডার বেশি তাই গভীর রাত পর্যন্ত কাজ করতে হচ্ছে। করোনায় যে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে আশা করি তা কাটিয়ে উঠতে পারব।


আরও খবর



সালাহকে প্রাধান্য দেওয়ায় ‘বিরক্ত’ মানে, উঁকি দিচ্ছে বায়ার্ন!

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

২০২৩ সালেই ফুরিয়ে যাবে আক্রমণভাগের দুই প্রাণভোমরা মোহামেদ সালাহ এবং সাদিও মানের সঙ্গে লিভারপুলের বর্তমান চুক্তির মেয়াদ। এরই মধ্যে দুই খেলোয়াড়ের সঙ্গে চুক্তির আলোচনাও শুরু করেছে ক্লাবটি। তবে আপাতত সালাহর চুক্তি নবায়ন নিয়েই বেশি মনযোগী লিভারপুল। চুক্তি নবায়নের ক্ষেত্রে সালাহকে প্রাধান্য দেওয়ায় বেশ বিরক্ত হচ্ছেন মানে, এমনটা জানিয়েছে স্কাই স্পোর্টস।

তাই আগামী মৌসুমে লিভারপুল ছেড়ে অন্য কোন ক্লাবে পাড়ি দেবার ভাবনাকেও প্রশ্রয় দিচ্ছেন সেনেগাল অধিনায়ক। স্কাই জার্মানির সূত্র বলছে, মানের ব্যাপারে বেশ আগ্রহী জার্মান চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখ। এই সপ্তাহে বাভারিয়ানদের ক্রীড়া পরিচালক হাসান সালিহামিজিচের সঙ্গে মানের এজেন্টের একদফা বৈঠকও হয়ে গেছে।

২০১৯ সালের নভেম্বরে লিভারপুলের সঙ্গে সর্বশেষ চুক্তি নবায়ন করেছিলেন মানে। সেই চুক্তি নবায়নের আগে রিয়াল মাদ্রিদ তার ব্যাপারে আগ্রহ দেখিয়েছিল। নতুন করে মাদ্রিদের ক্লাবটি আবারও তার জন্য ফিরবে কিনা সেটা এখনো নিশ্চিত নয়।

স্টুটগার্টের সঙ্গে বায়ার্নের ড্রয়ের পর আগামী মৌসুমে দলটিতে কোন বড় নাম আসছে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে দলটির পরিচালক সালিহামিজিচ বলেছিলেন, চমকের জন্য অপেক্ষা করুন। আমাদের পক্ষে কী করা সম্ভব আর কোনটা সম্ভব না সেটা আমাদের ভালোভাবে বুঝতে হবে। তবে আমাদের কিছু সৃজনশীল ভাবনা আছে।

লিভারপুল থেকে মানেকে ভাগিয়ে নিয়ে যাওয়া সেই সৃজনশীল ভাবনাগুলোর একটি কীনা তা সময় হলেই জানা যাবে। লিভারপুলের হয়ে চলতি মৌসুমে দারুণ ফর্মে রয়েছেন মানে, ৪৭ ম্যাচ খেলে করেছেন ২১ গোল।

নিউজ ট্যাগ: মোহামেদ সালাহ

আরও খবর



শাহজালালে বিমানের সংঘর্ষ, প্রধান প্রকৌশলীসহ বরখাস্ত ৫

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ১৯ মে ২০২২ | ৬৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী এয়ারলাইন্স বিমানের নিজস্ব হ্যাঙ্গারে দুটি বোয়িং উড়োজাহাজের সংঘর্ষে ক্ষতির ঘটনায় সংস্থাটির প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ বদরুল ইসলামসহ ৫ জনকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

বরখাস্ত হওয়া অপর চারজন হলেন- বিমানের প্রকৌশলী মো. মাইনুল ইসলাম, সৈয়দ বাহাউল ইসলাম, সেলিম হোসেন খান এবং জিএসই অপারেটর মো. হাফিজুর রহমান।

বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং সিইও ড. আবু সালেহ মোস্তফা কামাল বুধবার সাংবাদিকদের এই তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে গত সোমবার বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী বিমানের শীর্ষ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের এক বৈঠকে এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং এতদিন পরও কারো বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা না নেওয়ায় অসন্তোষ প্রকাশ করেন। জানা গেছে, এরপরই বুধবার এই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

জানা গেছে, বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের ভিত্তিতে এ ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

তদন্ত প্রতিবেদনে বাংলাদেশ বিমান করপোরেশন এমপ্লয়িজ ইউনিয়ন (১৯৭৯) প্রবিধানমালার ৫৫ ধারা লঙ্ঘনের জন্য এই পাঁচজন কর্মকর্তা-কর্মচারীকে দায়ী করা হয়েছে। একইসঙ্গে তাদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এই ঘটনায় বিমানের প্রধান প্রকৌশলী (কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স) আলী নাসেরকে প্রধান করে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি এবং বিমানের চিফ অব সেফটির নেতৃত্বে আরেকটি কমিটি গঠন করা হয়। এ ছাড়া বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে চার সদস্যের একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়।

উল্লেখ্য, গত ১০ এপ্রিল শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের হ্যাঙ্গারে দুই বিমানের সংঘর্ষ হয়েছে। এতে বোয়িং ৭৭৭-৩০০ ইআর উড়োজাহাজের লেজের হরিজেন্টাল স্ট্যাবিলাইজার ভেঙে গেছে। অপর বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজের ককপিটের একটি অংশ ছিদ্র ও নোজের বড় অংশ (বিমানের নাক) দুমড়ে-মুচড়ে গেছে।

দুটি উড়োজাহাজই বিমানবহরে নতুন। ড্যাশ-৮ কিউ ৪০০-এর অনভিজ্ঞ টোম্যানকে দিয়ে হ্যাঙ্গার থেকে বোয়িং ৭৩৭ উড়োজাহাজ বের করতে গিয়ে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার এক দিন পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষোভ প্রকাশ করেন বিমান প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী। এটি নাশকতা নাকি দুর্ঘটনা- তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন তিনি।


আরও খবর



২৬ পর্যটক নিয়ে জাপানে টুরিস্টবোর্ড নিখোঁজ

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ এপ্রিল ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জাপানে পর্যটকবাহী  টুরিস্টবোর্ড ডুবে অন্তত ২৬ জন লোক নিখোঁজ হয়েছেন। শুক্রবার জাপানের উত্তরাঞ্চলীয় দ্বীপ হোক্কাইডোতে এই ঘটনা ঘটে।  টুরিস্টবোর্ডটি ডুবে যাওয়ার সময় সাহায্য চেয়ে ডিস্ট্রেস কল’ পাঠানোর তাৎক্ষণিক উদ্ধার কাজ শুরু করা যায়নি। এখন পর্যন্ত কাউকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। শনিবার কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরার এক প্রতিবেদন থেকে এই তথ্য জানা গেছে।

উত্তাল সাগরে নৌকাটি নিখোঁজ হওয়ার পরে ছয়টি টহল জাহাজ ও চারটি বিমান কয়েক ঘণ্টাব্যাপী অনুসন্ধান চালায়। তবে নৌকাটি থেকে ডিস্ট্রেস কল’ পাঠানোর প্রায় নয় ঘণ্টা পর উদ্ধার তৎপরতা শুরু হয়। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত প্রাপ্ত তথ্য অনুসারে অনুসন্ধান চলমান ছিল।

আল-জাজিরার প্রতিবেদন অনুসারে, ১৯ টন ওজনের জাহাজ কাজু-১ শনিবার সকালের দিকে একটি জরুরি ডিস্ট্রেস কল’ পাঠিয়ে জানিয়েছিল, জাহাজের বো স্রোতের তোড়ে ভেসে গেছে। হোক্কাইডো দ্বীপের শিরেটোকো উপদ্বীপের পশ্চিম উপকূলে জাহাজটি কাত হয়ে ডুবে যেতে শুরু করেছে।

স্থানীয় একটি মৎস্যজীবীদের সমিতির বক্তব্য অনুসারে দুপুরের দিকে ওই এলাকায় বেশ উঁচু ঢেউ ও প্রবল বাতাস লক্ষ্য করা গেছে। খারাপ আবহাওয়ার কারণে মাছ ধরার নৌকাগুলোও বন্দরে ফিরে এসেছে। আবহাওয়া দপ্তর থেকে প্রায় ৩ মিটার অর্থাৎ ৯ ফিট উঁচু ঢেউয়ের ব্যাপারে সতর্কতা জারি করা হয়েছিল।

জাপানি রাষ্ট্রায়ত্ত সংবাদমাধ্যম এনএইচকে জানিয়েছে, ওই জাহাজে থাকা ক্রুরা জানিয়েছিল যে, যাত্রীরা লাইফ জ্যাকেট পরা ছিল। জাহাজটিতে দুই শিশুসহ ২৪ যাত্রী ও দুজন ক্রু ছিলেন। এরপর থেকেই ওই জাহাজটির সঙ্গে সব ধরনের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।  


আরও খবর



খাদ্য নিরাপত্তা: গমের বিকল্প হতে পারে মিলেট

প্রকাশিত:বুধবার ১১ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ২১ মে ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জলবায়ু সংকট তো রয়েছেই, এর মাঝে ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধ গড়িয়েছে তৃতীয় মাসে। ফলে বিশ্বজুড়ে খাদ্য সংকট আরও তীব্র আকার ধারণ করছে। ভেঙে পড়ছে বৈশ্বিক খাদ্য নিরাপত্তা ব্যবস্থা। ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের ফলে সবচেয়ে বেশি বিপাকে পড়েছে আমদানি নির্ভর দেশগুলো, বিশেষ করে আফগানিস্তান, ইথিওপিয়া ও সিরিয়া। অথচ গমের সিংহভাগই রপ্তানি করে ইউক্রেন ও রাশিয়া। যুদ্ধের আগে বিশ্বের তিন ভাগের এক ভাগ গম, চার ভাগের এক ভাগ বার্লি ও দুই তৃতীয়াংশ সূর্যমুখী তেল রপ্তানি হতো রাশিয়া ও ইউক্রেন থেকে৷ এখন সংকটময় পরিস্থিতি কাটাতে বিকল্প শস্য হিসেবে মিলেট-এর নাম উঠে আসছে। জোয়ার, বাজরা, রাগি প্রভৃতি কয়েকটি ক্ষুদ্র দানাশস্যকে একত্রে মিলেট বলে।

২০২২ সালে ইউক্রেন দেশটির উৎপাদিত ফসলের পূর্বাভাস প্রকাশ করেনি। চলতি সপ্তাহে সতর্ক বার্তাও দেয় যে রাশিয়ার কৃষ্ণ সাগরের বন্দর অবরোধের ফলে কয়েক মিলিয়ন টন ইউক্রেনীয় খাদ্যশস্য ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। ফলে এর প্রভাব পড়বে এশিয়া, আফ্রিকা, এমনকি ইউরোপে। নাইজেরিয়ার অর্থনীতিবিদ রবার্ট ওনিয়েনেকের বলেন, বিশ্ব এরই মধ্যে খাদ্য সংকটের সম্মুখীন হচ্ছে। তিনি বলেন, এখন চাল এবং গমের মতো জনপ্রিয় প্রধান খাবারের বিকল্পগুলো সন্ধান করার সময়। তিনি ধারণা করেন যে, মিলেট পরিবর্তনশীল ছোট-বীজযুক্ত শস্য, একটি সম্ভাব্য বিকল্প হতে পারে। এর পেছনে চারটি যুক্তিও দেখিয়েছেন তিনি। সেগুলো হলো পুষ্টিগুণ সম্পন্ন, জলবায়ু উপযোগী, স্বল্প সময়ে চাষ এবং চাষে কার্বন নিঃসরণ প্রায় নেই বললেই চলে।

মিলেটের প্রথম খোঁজ মেলে যিশু খ্রিস্টের জন্মের তিন হাজার বছর আগে। যেসব খাদ্য শস্য মানুষ গ্রহণ করেছিল মিলেট তার প্রাচীন দানা শস্যগুলোর মধ্যে রয়েছে। ভারত, চীন ও আফ্রিকার কিছু অংশে লাখ লাখ কৃষক এই ফসল চাষ করে আসছেন। এখন ১৩০টিরও বেশি দেশে উৎপাদন হচ্ছে মিলেট। পুষ্টিগুণের কারণে মিলেটকে অনেকে পুষ্টি শস্য বলে থাকেন। এতে উচ্চ মাত্রার আয়রন, ফাইবার ও কিছু ভিটামিনও রয়েছে। তবে আফ্রিকা ও এশিয়ার মাত্র ৯ কোটি মানুষ এটি খাদ্য হিসেবে ব্যবহার করেন। মূলত গরিবের খাবার হিসেবেই ব্যবহার হয় মিলেট। যেখানে পৃথিবীর অর্ধেক মানুষ চাল ও এক তৃতীয়াংশ মানুষ গমের ওপর এখনো নির্ভরশীল।

জাতিসংঘ ২০২৩ সালকে মিলেটের আন্তর্জাতিক বছর হিসেবে ঘোষণা করেছে। শুধু পুষ্টিগুণই নয়, এটি প্রতিকূল আবহাওয়াতেও টিকে থাকতে পারে বলে জানা গেছে। মাত্র ৬০ থেকে ৯০ দিনে ফসল ঘরে তোলা যায়। এতে খুব কম পরিমাণে সার ও কীটনাশক ব্যবহার করতে হয়। তবে মিলেট কি আদৌও জায়গা করে নিতে পারবে খাদ্যশস্যের শীর্ষ তালিকায়, এমন শঙ্কাও রয়েছে সংশ্লিষ্টদের। এশিয়া ও আফ্রিকায় এখন যতটা মিলেট আবাদ হয়, তা স্থানীয়ভাবে চাহিদা মেটানোর জন্যই খুব কম, রপ্তানিও প্রায় অসম্ভব। তাই সারাবিশ্বে মিলেট ছড়িয়ে দিতে রাষ্ট্রীয় পর্যায়ে উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন বলে মনে করেন অর্থনীতিবিদরা।

নিউজ ট্যাগ: মিলেট

আরও খবর



আশুগঞ্জে ৪১ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ি আটক

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ মে ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২০ মে ২০22 | ৬২জন দেখেছেন

Image

ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি:

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আশুগঞ্জে ৪১ কেজি গাঁজাসহ দুই মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়েন র‌্যাব ১৪।

সোমবার (০৯ মে) সকালে উপজেলার সৈয়দ নজরুল ইসলাম সেতুর টোলপ্লাজায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করা হয়। দুপুরে র‌্যাব ১৪ ভৈরব ক্যাম্প থেকে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তথ্য জানানো হয়।

আটককৃতরা হলেন, চট্টগ্রাম জেলার ফটিকছড়ি থানার মনির হোসেনের ছেলে জাহিদুল ইসলাম (২০), লক্ষীপুর জেলার চর রুহিতা গ্রামের আব্দুর রবের ছেলে মো: আমিন (২৮)।

র‌্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পের সহকারি পরিচালক মোহাম্মদ আক্কাছ আলী জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সৈয়দ নজরুল ইসলাম সেতুর টোলপ্লাজার ২০০ গজ পূর্ব দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের উপর অভিযান পরিচালনা করে পিকভ্যান জব্দ করা হয়। গাড়ির ভিতরে তল্লাশি চালিয়ে ৪১ কেজি গাঁজাসহ দুই জনকে আটক করা হয়। এ ঘটনায় তাদের বিরুদ্ধে আশুগঞ্জ থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে।


আরও খবর