Logo
শিরোনাম

ড্রাইভিং লাইসেন্স নিয়ে কাজ করবে সেনাবাহিনী

প্রকাশিত:সোমবার ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ১৩৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েও ড্রাইভিং লাইসেন্স পাচ্ছেন না সাড়ে ১২ লাখ গাড়িচালক। এমন অবস্থায় আগামী অক্টোবরে ড্রাইভিং লাইসেন্সের স্মার্ট কার্ড ছাপার কাজ শুরু করবে সেনাবাহিনী পরিচালিত বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরি (বিএমটিএফ)। ছাপার দিন থেকে শুরু করে আগামী ছয় মাসের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটি ১২ লাখ ৪৫ হাজার ড্রাইভিং লাইসেন্স সরবরাহ করবে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ)র পরিচালক (ইঞ্জিনিয়ারিং) শীতাংশু শেখর বিশ্বাস বলেন, আটকে থাকা ১২ লাখ ৪৫ হাজার ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাপানোর জন্য বাংলাদেশ মেশিন টুলস ফ্যাক্টরির (বিএমটিএফ) সঙ্গে চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। আগামী ছয় মাসের মধ্যে এসব কার্ড ছাপা শেষ হবে। গত ২৯ আগস্ট সেনাবাহিনীর সঙ্গে এ চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে।

আগামী বছরের মার্চের মধ্যে সাড়ে ১২ লাখ স্মার্ট ড্রাইভিং লাইসেন্স ছাপানোর কাজ হাতে নিয়েছে বিআরটিএ। একই সঙ্গে আগামী ছয় মাসের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটি সাড়ে ১২ লাখ ড্রাইভিং লাইসেন্স বিতরণও করতে চায়।

বিআরটিএর সড়ক নিরাপত্তা বিভাগের পরিচালক মাহবুব ই রব্বানী বলেন, ১৫ থেকে ২০ দিন পর স্মার্ট ড্রাইভিং লাইসেন্সের কার্ড ছাপার কাজ শুরু হচ্ছে। এজন্য বিএমটিএফর সঙ্গে চুক্তি হয়েছে। পাঁচ থেকে ছয় মাসের মধ্যে পেন্ডিং সব ড্রাইভিং লাইসেন্স সরবরাহ করা সম্ভব হবে।


আরও খবর

অভিভাবকরা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না

রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১




ইভ্যালির নাসরিন ও রাসেলের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় অভিযোগ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৫৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির চমকপ্রদ বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট হয়ে অভিযোগকারী আরিফ বাকের ও তার বন্ধুরা চলতি বছরের মে ও জুন মাসে কিছু পণ্য অর্ডার করেন

অনলাইনে পণ্য সরবরাহকারী প্রতিষ্ঠান চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ রাসেলের বিরুদ্ধে ডিএমপির গুলশান থানায় অভিযোগ করেছেন আরিফ বাকের নামে এক ভুক্তভোগী।

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ১২টা ২০ মিনিটের দিকে ভুক্তভোগী সশরীরে গুলশান থানায় উপস্থিত হয়ে ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা বরাবর লিখিত আবেদন জমা দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে অভিযোগকারী আরিফ বাকের বলেন, থানায় একটি অভিযোগ জমা দিয়েছি। তবে থানা এখনও তা অফিসিয়ালি নেয়নি। থানা থেকে বলা হয়েছে, ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে অভিযোগের বিষয়ে জানানো হবে। আমি এখনও থানায় রয়েছি।

জানতে চাইলে গুলশান থানার ডিউটি অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) হাফিজুর রহমান বলেন, ইভ্যালির চেয়ারম্যান ও এমডির বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ নিয়ে একজন ভুক্তভোগী রাতে আমাদের থানায় আসেন। কিন্তু প্রতিষ্ঠানটির অফিস ধানমন্ডি থানা এলাকায় হওয়ায় ভুক্তভোগী নিজে সিদ্ধান্ত নিতে পারেননি মামলাটি কোথায় করবেন। যেহেতু অফিসটি ধানমন্ডিতে নিয়ম অনুযায়ী সেখানেই মামলাটি হওয়ার কথা। তবে ভুক্তভোগীর বাসা গুলশান এলাকায় হওয়ায় তিনি আমাদের কাছে এ বিষয়ে পরামর্শ করতে এসেছিলেন। তার কাছ থেকে অভিযোগের একটি কপি আমরা রেখে দিয়েছি।

ভুক্তভোগীদের মধ্যে একজন তিন লাখ ১০ হাজার টাকা, একজন নয় লাখ টাকা ও আরেকজন সাত লাখ ৯৮ হাজার টাকার পণ্য অর্ডার করেও নির্ধারিত সময়ে পণ্য পাননি বলে অভিযোগ করেছেন।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়, ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির চমকপ্রদ বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট হয়ে অভিযোগকারী আরিফ বাকের ও তার বন্ধুরা চলতি বছরের মে ও জুন মাসে কিছু পণ্য অর্ডার করেন। পণ্যের অর্ডার বাবদ সব মূল্য বিকাশ, নগদ ও সিটি ব্যাংকের কার্ডের মাধ্যমে সম্পূর্ণ পরিশোধ করেন তারা। পণ্যগুলো ৭ থেকে ৪৫ কার্যদিবসের মধ্যে ডেলিভারি ও নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে পণ্য সরবরাহে ব্যর্থ হলে প্রতিষ্ঠান সমপরিমাণ টাকা ফেরত দিতে অঙ্গীকারাবদ্ধ ছিল। কিন্তু ওই সময়সীমার মধ্যে পণ্যগুলো ডেলিভারি না পাওয়ায় বহুবার ইভ্যালির কাস্টমার কেয়ার প্রতিনিধিকে ফোন করা হয়। সর্বশেষ গত ৫ সেপ্টেম্বর যোগাযোগ করে অর্ডার করা পণ্যগুলো পাওয়ার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হই।

একপর্যায়ে ইভ্যালি পণ্য প্রদান ও টাকা প্রদানে ব্যর্থ হওয়ার পর ৯ সেপ্টেম্বর ইভ্যালির ধানমন্ডির অফিসে যাই। ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ রাসেলের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তারা উত্তেজিত হয়ে চিৎকার-চেঁচামেচি করেন। একপর্যায়ে অফিসের অভ্যন্তরে থাকা ইভ্যালির রাসেল উত্তেজিত হয়ে তার রুম থেকে বেরিয়ে এসে আমাকে ভয়-ভীতি প্রদর্শন করেন এবং আমাদের পণ্য অথবা টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানান। আমাদের ভয়-ভীতি ও হুমকিসহ চরম দুর্ব্যবহার করে, যার ফলে আমরা চরম আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে দিনযাপন করছি এবং পণ্যগুলো বুঝে না পাওয়ায় আমি আর্থিক ও মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায় ইভ্যালি, ই-অরেঞ্জসহ ১০ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর মাধ্যমে ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করে মন্ত্রণালয়ের এ সংক্রান্ত কমিটি।

এর আগে, গত ২৫ আগস্ট ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ও চেয়ারম্যানের সব ব্যাংক অ্যাকাউন্টের হিসাব চেয়েছিল বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইন্টেলিজেন্স ইউনিট (বিএফআইইউ)। চিঠিতে ইভ্যালি প্রতিষ্ঠান, চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন ও এমডি মোহাম্মদ রাসেলের ব্যাংক হিসাবের তথ্য পাঁচ কার্যদিবসের মধ্যে পাঠাতে বলা হয়েছিল।

গত বছরের আগস্টে বিএফআইইউ নাসরিন ও রাসেলের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করে দেয়।


আরও খবর



মেহেরপুরে এজেন্ট ব্যাংকের মালিককে গুলি করে হত্যা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৬ আগস্ট ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৭০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গাংনীর গাঁড়াডোব-আমঝুপি সড়কের খোকসা ও গাঁড়াডোব মাঠের মধ্যে ছিনতাইকারীদের গুলিতে নিহত হয়েছেন কোমরপুর সিটি ব্যাংকের এজেন্ট ও তন্নি হার্ডওয়্যারের স্বত্বাধিকারী খাদেমুল ইসলাম (৩২)।

বৃহস্পতিবার (২৬ আগস্ট) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

খাদেমুল ইসলাম মেহেরপুর সদর উপজেলার যতারপুর গ্রামের মিনারুল ইসলামের ছেলে। এ ঘটনায় ৪৬ লাখ টাকা উদ্ধার করেছে গাংনী থানা পুলিশ।

খাদেমুল ইসলাম মুজিবনগর উপজেলার কোমরপুর বাজারে স্থাপিত সিটি ব্যাংকের এজেন্ট মালিক ও তন্নি হার্ডওয়ারের স্বত্বাধিকারী।

খাদেমুল ইসলামের ছোট ভাই রানা জানান, ৪৬ লাখ টাকা নিয়ে মোটরসাইকেলে আমঝুপি-গাঁড়াডোব সড়ক ধরে গাংনী যাচ্ছিলেন খাদেমুল। তিনি আমঝুপি-গাঁড়াডোব সড়কের খোকসা ও গাঁড়াডোব গ্রামের মাঠের মধ্যে পৌঁছানো মাত্র পেছন থেকে মোরসাইকেলে আসা দুইজন দুর্বৃত্ত তার গতিরোধ করে টাকা ভর্তি ব্যাগ ছিনতাইয়ের চেষ্টা করেন। তখন খাদেমুল ইসলামের সঙ্গে দুইজন দুর্বৃত্তের সঙ্গে ধস্তাধস্তি শুরু হয়। এক পর্যায়ে দুর্বৃত্তরা খাদেমুলকে পিছনে গুলি করে। এসময় খাদেমুল রস্তায় পড়ে চিৎকার শুরু করেন। এসময় একটি পাখি ভ্যান আসতে দেখে দুর্বৃত্তরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়।

তিনি আরো জানান, খাদেমুল টাকাগুলো সিটি ব্যাংকের গাংনী এজেন্টে জমা দেওয়ার জন্য যাচ্ছিলেন।

গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বজলুর রহমান জানান, স্থানীয়রা খাদেমুলকে মুমূর্ষু অবস্থায় টাকার ব্যাগসহ উদ্ধার গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স নেন। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে কুষ্টিয়া মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান। তার কাঁধে থাকা ব্যাগ থেকে ৪৬ লাখ টাকা উদ্ধার করা হয়েছে। দুর্বৃত্তদের ধরতে পুলিশের একাধিক দল অভিযান শুরু করেছে।

এদিকে খবর পেয়ে মুজিবনগর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মহাজনপুর ইউপি চেয়ারম্যান আমাম হোসেন মিলু, গাংনী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা গাংনী থানায় খোঁজ নেন।


আরও খবর

শিশুর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার

বৃহস্পতিবার ১২ আগস্ট ২০২১




৭ মার্চের ভাষণ পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত করতে হাইকোর্টের নির্দেশ

প্রকাশিত:বুধবার ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৭৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাষণ বিশ্ববিদ্যালয়, কলেজ, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক এবং মাধ্যমিক স্কুলের পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত করতে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। রায়ে আদালত বলেছেন, একটি বিশেষজ্ঞ কমিটি ভাষণটি পাঠ্যপুস্তকে অন্তর্ভুক্ত করার কাজ করবে।

এ বিষয়ে জারি করা রুল নিষ্পত্তি করে বুধবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি শাহেদ নূরউদ্দিনের হাইকোর্ট বেঞ্চ এই  রায় দেন।

রিটকারী আইনজীবী ড. বশির আহমেদ আদালতের আদেশের বিষয়টি ঢাকা পোস্টকে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, আগের আদেশ অনুযায়ী সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপন দ্রুত সম্পন্ন করার নির্দেশ দিয়েছেন। এছাড়া জেলায় জেলায় বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপনে আগের আদেশ বাস্তবায়নেরও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  

নিউজ ট্যাগ: ৭ মার্চের ভাষণ

আরও খবর

অভিভাবকরা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না

রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১




জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেলসহ ১০ জন গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৭৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
রাষ্ট্রদ্রোহের ষড়যন্ত্র এবং দেশকে অস্থিতিশীল করতে তারা বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার একটি বাসায় গোপন বৈঠকে মিলিত হয়েছিলেন। এমন খবর পেয়ে আমরা সেখানে অভিযান চালাই

জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া গোলাম পরওয়ারসহ ১০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ সোমবার বিকেলে রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার একটি বাড়ি থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার অন্যরা হলেন জামায়াতের কেন্দ্রীয় সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল রফিকুল ইসলাম খান ও হামিদুর রহমান আজাদ, কেন্দ্রীয় নির্বাহী পরিষদের সদস্য আবদুর রব, ইজ্জত উল্লাহ, মোবারক হোসাইন এবং ছাত্রশিবিরের সাবেক কেন্দ্রীয় সভাপতি ইয়াসিন আরাফাত। অন্য তিনজন জামায়াতের অফিসের কর্মচারী বলে জানা গেছে।

জামায়াত নেতাদের গ্রেপ্তারের বিষয়ে পুলিশের গুলশান বিভাগের উপকমিশনার মো. আসাদুজ্জামান বলেন, রাষ্ট্রদ্রোহের ষড়যন্ত্র এবং দেশকে অস্থিতিশীল করতে তারা বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার একটি বাসায় গোপন বৈঠকে মিলিত হয়েছিলেন। এমন খবর পেয়ে আমরা সেখানে অভিযান চালাই।’

জামায়াত নেতাদের বিরুদ্ধে ভাটারা থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে বলে ওই থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রফিকুল হক জানিয়েছেন।


আরও খবর

অভিভাবকরা স্বাস্থ্যবিধি মানছেন না

রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১




বলিউডে প্রবেশ চীনের প্রাচীর পার হওয়ার সমান

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১ | ৮২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বলিউডকে বিষাক্ত তকমা দিলেন অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। তার মতে তামিল ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রির তুলনায় বলিউড অনেকটাই ভালোবাসাহীন, সহানুভূতিহীন।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে বলিউডের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন অভিনেত্রী। তিনি বলেন, বলিউডে প্রবেশ করা চীনের প্রাচীর পার করার সমান। পাশাপাশি তিনি আরও বলেন, যদিও দক্ষিণী ছবির জগতে সবেমাত্র প্রবেশ করেছেন অভিনেত্রী। তাই এ ইন্ডাস্ট্রি সম্পর্কে বিশেষ ধারণা তার নেই। কিন্তু কয়েকদিনের অভিজ্ঞতাতেই তিনি নিশ্চিত যে তামিল ইন্ডাস্ট্রি অনেকটাই ভালো বলিউডের তুলনায়।

তিনি বলেছেন, তামিল ছবির জগতে সবার জন্য একটা কমন গ্রাউন্ড রয়েছে। যেখানে সবাই নিজের মতো করে বেড়ে উঠতে পারে, কিন্তু মুম্বাইয়ে যারা থাকেননি তারা সবাই বলিউডে বহিরাগত। বলিউড একটি বিচিত্র জায়গা। যারা বাইরে থেকে ওই ইন্ডাস্ট্রিতে যায় তারা সবসময়ই চিন্তায় থাকে। কারণ ওখানে কিছু মানুষ আছে যারা সবসময়েই বহিরাগতদের টেনে নামাতে চায়। কেউ কারোর সাহায্য করে না। বলিউড ইন্ডাস্ট্রিটাই বিষাক্ত। কেউ কারোর ভালো দেখতে পারে না।

আগামী শুক্রবার (১০ সেপ্টেম্বর) মুক্তি পেতে চলেছে কঙ্গনার আগামী ছবি থালাইভি (Thalaivii)। প্রয়াত অভিনেত্রী-প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জয়ললিতার জীবন নিয়ে তৈরি এ ছবি। জয়ললিতার বায়োপিকে তার চরিত্রেই অভিনয় করছেন কঙ্গনা রানাওয়াত।

নিউজ ট্যাগ: কঙ্গনা রানাওয়াত

আরও খবর