Logo
শিরোনাম

দুর্নীতির দায়ে ডিএসসিসি’র ৩ কর্মকর্তা চাকরিচ্যুত

প্রকাশিত:সোমবার ০২ জানুয়ারী 2০২3 | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) তিন কর্মকর্তা-কর্মচারীকে অপসারণ করা হয়েছে।

সোমবার (২ জানুয়ারি) ডিএসসিসির সচিব আকরামুজ্জামানের সই করা ভিন্ন তিনটি অফিস আদেশে বিভিন্ন পর্যায়ের ৩ কর্মকর্তা-কর্মচারীকে চাকরি থেকে অপসারণ করা হয়।

অপসারিত কর্মকর্তা-কর্মচারীরা হলেন- অঞ্চল-১র উপকর কর্মকর্তা মো. রবিউল করিম খান, ঢাকা মহানগর শিশু হাসপাতালের স্টোর কিপার রুহুল আলম, অঞ্চল-৪র রেন্ট অ্যাসিস্ট্যান্ট মোহাম্মদ রমজান আলী।

জানা গেছে, রাজস্ব বিভাগের উপকর কর্মকর্তা রবিউল করিম খানের বিরুদ্ধে কর্মরত থাকাকালীন ভবন/স্থাপনার পৌরকর মূল্যায়ন কাজে গ্রাহকদেরকে অবৈধভাবে পৌরকর কমিয়ে দেওয়ার সুবিধা দেওয়ার আশ্বাস দিয়ে আর্থিক সুবিধা নিতেন। এ ছাড়া সময় অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগও আছে তার বিরুদ্ধে।

সংস্থাপন ও প্রশাসন বিভাগের (সচিবের দপ্তর) অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক মোহাম্মদ রমজান আলীর বিরুদ্ধে কর্মরত থাকাকালীন ঘুষ বাণিজ্য, ঠিকাদারদের বিভিন্ন টেন্ডার পাইয়ে দেওয়া, করপোরেশনের গোপনীয় ও গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সরবরাহ করার অভিযোগ আছে।

এ ছাড়া করপোরেশনের বিভিন্ন মার্কেটের দোকানের নামজারিকরণ ও বাণিজ্য অনুমতিপত্র (ট্রেড লাইসেন্স) প্রদান/ নবায়ন কাজে অবৈধভাবে সুবিধা দেওয়ার আশ্বাসে গ্রাহকদের কাছ থেকে অবৈধ আর্থিক সুবিধা নিতেন তিনি। বহিরাগত লোক দিয়ে দোকানের ভাড়া বাণিজ্য অনুমতিপত্র (ট্রেড লাইসেন্স) প্রদান/নবায়ন ও নামজারি করানোর অভিযোগও রয়েছে তার বিরুদ্ধে।

আর ঢাকা মহানগর শিশু হাসপাতাল, বর্তমানে সংস্থাপন ও প্রশাসন বিভাগে (সচিরে দপ্তর) সংযুক্ত স্টোর কিপার রুহুল আলমের বিরুদ্ধে করপোরেশনের টেন্ডার কাজে ব্যক্তিগতভাবে অর্থ বিনিয়োগসহ বিভিন্ন সময়ে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সচিব আকরামুজ্জামান এসব তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, সামগ্রিক অভিযোগ আমলে নিয়ে এ তিন কর্মকর্তা-কর্মচারীকে চাকরি থেকে অপসারণ করা হয়েছে।


আরও খবর



আজও কাঁপছে দিল্লি, তাপমাত্রা ১.৯

প্রকাশিত:রবিবার ০৮ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে কয়েক দিন ধরেই কমছে তাপমাত্রা। গত কয়েক দিন কুয়াশার দাপট চলছে নয়াদিল্লিসহ উত্তর প্রদেশ, পাঞ্জাব, হরিয়ানা ও রাজস্থানে। কুয়াশার কারণে দিল্লিতে কমলা সতর্কতা জারি করেছে দেশটির আবহাওয়া ভবন।

এর মধ্যে দেশটির রাজধানী দিল্লিতে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল গতকাল শনিবার (৭ জানুয়ারি)। আজ রোববারও অবস্থা প্রায় একই রকম। ফলে আজ দিল্লির তাপমাত্রা সর্বনিম্ন ১ দশমিক ৯ ডিগ্রি সেলসিয়াস রেকর্ড করা হয়েছে। গতকাল ছিল সর্বনিম্ন ১ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

হাড় কাঁপানো ঠান্ডার সঙ্গে ঘন কুয়াশার মধ্যে বাতাসের গুণমানও অত্যন্ত খারাপ পর্যায়ে পৌঁছেছে দিল্লিতে। আজ রাজধানীর বাতাসের গুণমান সূচক (এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স) ৩৫৯। খবর এনডিটিভির।

ভারতের আবহাওয়া অফিসের বরাত দিয়ে ইকোনমিক টাইমসের খবরে বলা হয়েছে, ১১ জানুয়ারি পর্যন্ত দিল্লিসহ কয়েকটি রাজ্যে এমন পরিস্থিতি বজায় থাকবে। এ ছাড়া কাশ্মীরে তুষারপাত চলছে। কুয়াশারা কারণে নয়াদিল্লি থেকে উড়োজাহাজ ও ট্রেন চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। গত কয়েক দিনই এমন পরিস্থিতি চলছে।

এএনআই খবরে বলা বলেছে, আজ সকাল ছয়টা পর্যন্ত কোনোও উড়োজাহাজ ছাড়েনি। তবে খারাপ আবহাওয়ার কারণে প্রায় ২০টি উড়োজাহাজ দেরিতে ছেড়েছে। কুয়াশার কারণে ৪২টি ট্রেন দেরিতে ছেড়েছে।

নিউজ ট্যাগ: নয়াদিল্লি

আরও খবর



অতীতের ভুল শোধরাতে মরিয়া জার্মানি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১০ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বেশিরভাগ সময় মানুষ সংকটে পড়লে তা থেকে উত্তরণে অতীতের ভুল সংশোধনের পথ খোঁজে। একই অবস্থা জার্মানিরও। ইউক্রেন যুদ্ধের ধাক্কায় সংকটাপন্ন দেশটির শিল্প-বাণিজ্য। তাই মরিয়া হয়ে এখন জ্বালানির জন্য রাশিয়ার ওপর অতিরিক্ত নির্ভরতা কাটানোর উপায় খুঁজছে তারা। জার্মানির প্রধান রাসায়নিক কোম্পানিগুলো অনেকটা ছোটখাটো শহরের মতো। সেখানে কোটি কোটি কিলোওয়াট/ঘণ্টা গ্যাস ও বিদ্যুৎ ব্যবহার করা হয়। জার্মানির জ্বালানি চাহিদা বিশাল হলেও এর আগে কখনো জোগান এতটা কমে যায়নি। অর্থাৎ, ইউক্রেন যুদ্ধের আগে জার্মানরা কখনোই জ্বালানি সংকটের তীব্রতা এভাবে অনুভব করেনি।

রাশিয়া থেকে গ্যাস সরবরাহ কার্যত বন্ধ হয়ে যাওয়ায় জার্মানির ইস্পাত কারখানা, ভারী শিল্প, যন্ত্র উৎপাদনকারী কোম্পানিগুলো আতঙ্কের মধ্যে রয়েছে। কারণ তাদের বিশাল জ্বালানির চাহিদা মেটানো এমনিতেই কঠিন। তার ওপর গ্যাস ও বিদ্যুতের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির কারণে শিল্পক্ষেত্র বড় সংকটের মুখে পড়েছে, বিশেষ করে রাসায়নিক খাত।

জার্মানির কেন্দ্রীয় রাসায়নিক শিল্প সংগঠনের জ্বালানি বিশেষজ্ঞ ইয়োর্গ রোটারমেল বলেন, বিদ্যুৎ ও গ্যাসের জন্য কখনো বিশাল দাম চাওয়া হচ্ছে। ডিটারজেন্ট থেকে শুরু করে ওষুধ, আঠা ও অন্যান্য পণ্য উৎপাদনের এই বাড়তি ব্যয় ক্রেতাদের ঘাড়ে চাপিয়ে দেওয়া আর সম্ভব হচ্ছে না। আগামী বছর থেকে সব রাসায়নিক পণ্যের ক্ষেত্রেই এমন সমস্যা দেখা যেতে পারে।

এতদিন বিএএসএফ নামে একটি জার্মান রাসায়নিক কোম্পানি তার গ্যাসের চাহিদার প্রায় অর্ধেকটাই মেটাতো রাশিয়া থেকে। ১৯৯০র দশকের শুরুতে কোম্পানিটি রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় সংস্থা গ্যাজপ্রমের সঙ্গে লুডভিগ্সহাফেনে একটি গ্যাস পাইপলাইন নির্মাণ করেছিল। পোল্যান্ডের ওপর দিয়ে জার্মানি পর্যন্ত বিস্তৃত ইয়ামাল পাইপলাইনে বিনিয়োগ করেছিল বিএএসএফ। ২০০৮ সাল থেকে তারা নর্ড স্ট্রিম ১ পাইপলাইন নির্মাণকাজেও অংশ নেয়। এর ফলে বেশ কম দামে রাশিয়া থেকে গ্যাস আনা সম্ভব হয়েছিল।

জার্মান অর্থনীতি গবেষণা কেন্দ্রের প্রেসিডেন্ট মার্সেল ফ্রাচারের মতে, ক্রিমিয়া দখলের পরেও রাশিয়ার ওপর নির্ভরতা বাড়ানো প্রথম ভুল ছিল। দ্বিতীয় ভুল হলো নবায়নযোগ্য জ্বালানি উৎপাদন বাড়ানোর ক্ষেত্রে ঢিলেমি। দক্ষতাসম্পন্ন ও সাশ্রয়ী প্রযুক্তি থাকা সত্ত্বেও ১০ বছর ধরে জার্মানি সেই পথে এগোয়নি। এখন তার কুফল দেখতে হচ্ছে। অর্থাৎ, আমাদের ভুলই জার্মানিতে এমন গভীর সংকট ও অর্থনৈতিক কাঠামো বিপন্ন করে তোলার কারণ।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় জার্মানিতে বিদ্যুতের দাম বেশ চড়া। ফলে সেখানকার মাঝারি মাপের রপ্তানি-নির্ভর কোম্পানিগুলোর জন্য জ্বালানির উচ্চমূল্য বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে। অথচ এমন প্রতিষ্ঠানগুলোর সাহায্য নিয়েই জার্মানি অতীতের সংকটগুলো কাটিয়ে উঠেছিল। দেশ হিসেবেও জার্মানি বিশ্বায়নের ব্যাপক ফায়দা তুলেছে। কিন্তু সস্তা জ্বালানি না পাওয়ায় বিশ্ববাজারে জার্মান পণ্য অতিরিক্ত দামি হয়ে উঠছে। এর সমাধান কী?

আইএনজি ব্যাংকের প্রধান অর্থনীতিবিদ কার্স্টেন ব্রজেস্কি বলেন, জীবাশ্মভিত্তিক জ্বালানি ত্যাগ করে বিকল্প জ্বালানি গ্রহণের প্রক্রিয়া অবশ্যই বর্তমান সংকট থেকে মুক্তি পাওয়ার ও ইতিবাচক কিছু করে দেখানোর বিশাল সুযোগ। শিল্পভিত্তিক দেশ, ইঞ্জিনিয়ারদের দেশ হিসেবে আবার নেতৃস্থানীয় ভূমিকা ফিরে পেতে সেই প্রক্রিয়া আমাদের সাহায্য করতে পারবে এবং অবশ্যই করবে। টেকসই পদ্ধতি ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি খুবই জরুরি।

নিউজ ট্যাগ: জার্মানি

আরও খবর



৯ জানুয়ারি: দিনটি কেমন যাবে, জেনে নিন রাশিফলে

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আজ সোমবার, ৯ জানুয়ারি ২০২৩। ভাগ্যরেখা অনুযায়ী আপনার আজকের দিনটি কেমন কাটতে পারে? ব্যক্তি,পারিবারিক ও কর্মক্ষেত্র সম্পর্কে কী বলছে জ্যোতিষশাস্ত্র? এ বিষয়গুলো সম্পর্কে যারা দিনের শুরুতেই কিছুটা ধারণা নিয়ে রাখতে চান তারা একবার পড়ে নিতে পারেন আজকের রাশিফল।

মেষ: দিনটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ থাকবে। তাই অপ্রয়োজনীয় কথায় মনোনিবেশ করবেন না। চাকরিজীবীরা নিজের কাজে মনোনিবেশ করুন। ব্যবসায়ীদের পরিকল্পনার ফলে ভালো ফলাফল লাভ করতে পারবেন। আয় বাড়বে। কর্মকুশলতা মজবুত হবে। দাম্পত্য জীবনে কোনো কারণে অবসাদ বৃদ্ধি পেতে পারে। প্রেম জীবনের জন্য ভালো দিন।

বৃষ: আপনার মধ্যে একটি আকর্ষণ কাজ করবে। ফলে পরিবারের সদস্যরা আপনার কথা শুনতে বাধ্য হবেন। কর্মক্ষেত্রে আপনাদের পরিস্থিতি মজবুত হবে। আয় ভালো হবে এবং ব্যয় সামান্য থাকবে। তবে প্রয়োজনীয় কাজে অধিক অর্থ ব্যয় হতে পারে। পরিবারে সামঞ্জস্য বজায় থাকবে। প্রেম জীবন ভালো কাটবে ও সঙ্গীকে মনের কথা বলবেন। দাম্পত্য জীবনে ভালোবাসা ও রোম্যান্সের সুযোগ পাবেন।

মিথুন: কর্মক্ষেত্রে পরিশ্রম সফল হবে। পারিবারিক পরিবেশ ভালো থাকবে। তবে দাম্পত্য জীবনে কোনো কারণে অবসাদ বাড়তে পারে। প্রেম জীবনে ভালোবাসা বৃদ্ধি পাবে। সুখ লাভ করবেন এই রাশির জাতকরা।

কর্কট: স্বাস্থ্য ভালো থাকবে। কোনো কর্মকর্তার সাহায্যে বহুদিন ধরে চলতে থাকা সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। কর্মক্ষেত্রে কঠিন পরিশ্রম ও আত্মবিশ্বাস অনেক কিছু বলবে। কাজে সাফল্য লাভ হবে। কর্মকর্তারা আপনার প্রশংসা করবেন। দাম্পত্য জীবন সাধারণ থাকবে। পারিবারিক কাজের ক্ষেত্রে দায়িত্ব বাড়বে।

সিংহ: বহুদিন ধরে চলতে থাকা পুরনো সমস্যা থেকে মুক্তি মিলবে। কাজের চাপের কারণে মানসিক অবসাদ থাকবে। ব্যবসায়ীরা কাজের ক্ষেত্রে ফল ও অর্ডার পেতে পারেন। প্রেম জীবনে কিছু সমস্যা হতে পারে। তবে কথাবার্তার মাধ্যমে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে পারেন।

কন্যা: জীবনসঙ্গীর সঙ্গে সম্পর্কে মাধুর্য থাকবে। তাদের সঙ্গে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা করবেন। প্রেম জীবনে কিছু হতাশা হতে পারে। কর্মক্ষেত্রে তীক্ষ্ণ বুদ্ধি কাজে আসবে। ব্যবসায়ীদের ভালো মুনাফা হতে পারে। সারাদিন ব্যবসায়িক কাজে ব্যস্ত থাকবেন।

তুলা: দিনটি দৌড়ঝাপের মধ্যে কেটে যাবে। কাজের চাপ থাকবে। দাম্পত্য জীবনে কঠোর মনোভাব পোষণ করা উচিত হবে না। শান্ত মাথায় কাজ করুন। প্রেম জীবনে ভালো ফলাফল লাভ করবেন। পরিজনদের সঙ্গে নিজের প্রিয় মানুষ সম্পর্কে কথা বলবেন। কাজের ক্ষেত্রে অধিক পরিশ্রম করার ওপর জোর দিন। ব্যবসায় বয়স্কদের সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে উঠবে।

বৃশ্চিক: অপ্রয়োজনীয় কথাবার্তা ছেড়ে দিয়ে নিজের কাজে মনোনিবেশ করুন। প্রেম জীবনের জন্য সময় ভালো। এই রাশির সিঙ্গল জাতকরা কোনো বিশেষ ব্যক্তিকে কবিতা লিখে প্রপোজ করতে পারেন। তাদের আনন্দে রাখার চেষ্টা করবেন। দাম্পত্য জীবনে ভালোবাসা ও মাধুর্য থাকবে। কর্মক্ষেত্রে নিজের পরিশ্রমের ভালো ফলাফল লাভ করবেন।

ধনু: পুরনো স্মৃতি চাড়া দিয়ে উঠবে। কোনো পুরনো বন্ধুর সঙ্গে কথা হবে ও মনে আনন্দ থাকবে। পারিবারিক পরিবেশ ভালো থাকবে। পেশাগত ও ব্যক্তিগত জীবনে কারও অধিক বাচাল স্বভাব আপনাকে চিন্তিত করতে পারে। ব্যবসায়ীরা ভালো ফলাফল লাভ করবেন। পরিকল্পনা করে কাজ করার ফলে আর্থিক পরিস্থিতি উন্নত হবে। চাকরিজীবীদের পরিশ্রম সফল হবে। কর্মকর্তাদের সঙ্গে মধুর সম্পর্রক গড়ে উঠবে। প্রেম জীবনে কোনো সমস্যার মুখে পড়তে পারেন।

মকর: আটকে থাকা কাজ পূর্ণ হওয়ায় আপনার আত্মবিশ্বাস ভালো থাকবে। পরিবার ও কাজের মধ্যে ভারসাম্য বজায় রাখলে সমস্ত কিছু ভালো থাকবে। ব্যবসা দ্রুতগতিতে এগিয়ে যাবে এবং পরিশ্রমের ফল পাবেন। দাম্পত্য জীবনে সামঞ্জস্য থাকবে ও সন্তানের ভবিষ্যৎ সংক্রান্ত কিছু কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে পারেন। প্রেম জীবনে সুসংবাদ পাওয়ায় মনে আনন্দ থাকবে। পরিবারের ছোট সদস্যরা নিজের সাহায্যের জন্য এগিয়ে আসবেন। কোনো সুসংবাদ পাবেন।

কুম্ভ: আর্থিক সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন। বন্ধুদের সঙ্গে কোথাও বাইরে যাবেন। এর ফলে মনে আনন্দ থাকবে। ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে কোনো নতুন কাজ করার পরিকল্পনা করে থাকলে সময় ভালো থাকবে। পরিবারে সুখ-শান্তি থাকবে ও সব সদস্য একে অপরের সাহায্য করবেন। প্রেম জীবনে কোনো কারণে মতভেদ হতে পারে। বাবার যোগাযোগের ফলে আপনার মনোবল মজবুত হবে এবং কাজে সাফল্য লাভ করবেন।

মীন: কাজের ক্ষেত্রে আপনার চিন্তাভাবনা সকাল থেকেই দৃঢ় থাকবে। নিজের চারপাশের ব্যক্তিদের সাহায্যের জন্য প্রস্তুত থাকবেন। চাকরিজীবীদের পরিস্থিতি ভালো থাকবে। ব্যবসায়ীদের লাভ হবে। আয় ভালো হওয়ায় মনে আনন্দ থাকবে। দাম্পত্য জীবনে কোনো কারণে কথা-কাটাকাটি হতে পারে। ভাইদের মধ্যে সম্পর্ক ভালো হবে এবং কোনো জরুরি কাজে একে অপরের সঙ্গ দেবেন। কোনো প্রিয়মানুষের আগমনের ফলে পরিবারে আনন্দের পরিবেশ থাকবে।


আরও খবর

আজকের রাশিফল: জেনে নিন কেমন কাটবে দিন ?

শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩

অ্যাকনে যখন মাথার ত্বকে

বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩




মুজিবনগর থেকে জামায়াতের ৮ নারী সদস্য আটক

প্রকাশিত:শনিবার ৩১ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ২২ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মুজিবনগর থেকে গোপন বৈঠক চলাকালীন সাংগঠনিক বইসহ জামায়াতের ৮ নারী কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ। শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) মুজিবনগর থানার ওসি মেহেদী রাসেলের নেতৃত্বে উপজেলার গোপালনগর গ্রামের মোশারফ মাস্টারের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে পুলিশ তাদের আটক করে।

আটকরা হলেন- উপজেলার গোপালনগর গ্রামের মোশাররফ হোসেনের স্ত্রী রকেয়া খাতুন (৪৩), শিবপুর গাজী পাড়ার হুমায়ুন কবিরের স্ত্রী শম্পা খাতুন (২৭), মোনাখালী গ্রামের উত্তর পাড়ার ইজদানের স্ত্রী ফাতেমা খাতুন (৪২), মোনাখালী বাজার পাড়ার নয়ন মিয়ার স্ত্রী হানিফা আক্তার বিউটি (৩৭), শিবপুর মসজিদ পাড়ার চাঁদ আলীর স্ত্রী হাফিজা খাতুন (৩৮), রামনগর মধ্যপাড়ার দরুদ আলীর স্ত্রী রেজমিনা খাতুন (৪৫), শিবপুর গলাকাটা পাড়ার নজরুল ইসলাম মালীতার স্ত্রী সালেহার খাতুন (৪১) এবং বিশ্বনাথপুর বড় মসজিদ পাড়ার আনোয়ার হোসেনের স্ত্রী সুমাইয়া জান্নাতি (২৩)।

মুজিবনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মেহেদী রাসেল জানান, সরকার বিরোধী গোপন বৈঠক করছেন এমন খবরের ভিত্তিতে সেখান অভিযান চালানো হয়। অভিযানে তাদের কাছে থেকে প্রায় ৭০টি বিভিন্ন প্রকারের বই জব্দ করা হয়েছে।

ওসি আরো জানান, আটকদের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে এজাহার নামীয় ৮ জন ও অজ্ঞাতনামা আরো ১২-১৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। আটক নারী নেতা কর্মীদের বিকেলে আদালতের মাধ্যমে মেহেরপুর জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



পাকিস্তানের বিপক্ষে নিউজিল্যান্ডের সিরিজ জয়

প্রকাশিত:শনিবার ১৪ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ১৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

উপমহাদেশের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ জয়, নিউজিল্যান্ড সর্বশেষ এমন সুখস্মৃতি কুড়িয়েছিল সেই ২০০৮ সালে। বাংলাদেশকে ঘরের মাঠে ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছিল কিউইরা। এরপর এক এক করে কেটে গেছে ১৪ বছর। কিন্তু এই দীর্ঘ সময়েও উপমহাদেশের মাটিতে ওয়ানডে সিরিজ জেতা হয়নি নিউজিল্যান্ডের। অবশেষে ফুরোলো সেই অপেক্ষা।

শুক্রবার রাতে করাচিতে সিরিজ নির্ধারণী তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে গ্লেন ফিলিপসের দুর্দান্ত এক ইনিংসে ভর করে হারতে বসা ম্যাচ দুই উইকেটে জিতে নিয়েছে কিউইরা। এ জয়ে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ ২-১ ব্যবধানে নিজেদের করে নিয়েছে কেন উইলিয়ামসনের দল।

দিবারাত্রির ম্যাচে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে ফাখর জামানের সেঞ্চুরিতে ৯ উইকেটে ২৮০ রানের চ্যালেঞ্জিং সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছিল পাকিস্তান। ১২২ বলে ১০ চার আর ১ ছক্কায় ফাখর খেলেন ১০১ রানের ইনিংস। মোহাম্মদ রিজওয়ান ৭৭ আর আঘা সালমানের ব্যাট থেকে আসে ৪৫ রান। টিম সাউদি ৫৬ রানে নেন ৩টি উইকেট। দুটি উইকেট শিকার লুকি ফার্গুসনের।

জবাবে টপঅর্ডারের চার ব্যাটার ফিন অ্যালেন (২৫), ডেভন কনওয়ে (৫২), কেন উইলিয়ামসন (৫৩), ড্যারেল মিচেল (৩) রান পেলেও একটা সময় বড় বিপদে ছিল নিউজিল্যান্ড।

২০৫ রানে সফরকারীরা হারায় ৬ উইকেট। স্বীকৃত ব্যাটার বলতে ছিলেন কেবল গ্লেন ফিলিপস। তখনও জেতার জন্য ৭৬ রান দরকার। ফিলিপস এমন জায়গা থেকে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন ঝোড়ো ব্যাটিংয়ে। ৪২ বলে ৪টি করে চার-ছক্কায় ম্যাচ জেতানো ৬৩ রানের ইনিংস খেলেন তিনি।

ইনিংসের ১১ বল বাকি থাকতেই জয় তুলে নেয় নিউজিল্যান্ড, নিশ্চিত করে সিরিজ। পাকিস্তানের মোহাম্মদ ওয়াসিম আর আঘা সালমান নেন দুটি করে উইকেট। ম্যাচসেরা ফিলিপস, সিরিজসেরা হন ডেভন কনওয়ে।


আরও খবর