Logo
শিরোনাম

ফের চালু হচ্ছে ডাটা ছাড়া ফেসবুক মেসেঞ্জার

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ | ১১০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মোবাইলে ইন্টারনেট না থাকলেও জরুরি প্রয়োজনে ফেসবুক মেসেঞ্জার ব্যবহার করে টেক্সট পাঠানো যাবে। এ সুবিধা চালু করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি) ও মোবাইল অপারেটরগুলো। এজন্য শুধু টেক্সটের মাধ্যমে যোগাযোগের জন্য ফেসবুক মেসেঞ্জার ও ডিসকভার অ্যাপ উদ্বোধন করা হবে। একই সঙ্গে মোবাইল ডাটা প্যাকেজ নির্দেশিকা ও প্রকাশ করবে বিটিআরসি।

মঙ্গলবার বেলা ১২টায় বিটিআরসির সম্মেলন কক্ষে সংবাদ সম্মেলনে মোবাইল ডাটা প্যাকেজ নির্দেশিকা এবং শুধুমাত্র টেক্সটের মাধ্যমে ফেসবুক মেসেঞ্জার ও ডিসকভার অ্যাপ উদ্বোধন করা হবে। বিটিআরসি চেয়ারম্যান শ্যাম সুন্দর সিকদারের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং সচিব মো. খলিলুর রহমান উপস্থিত থাকবেন।

বিটিআরসির এক কর্মকর্তা জানান, সবার সবসময় ডাটা (ইন্টারনেট) থাকে না। গ্রাহকরা যাতে ডাটা ছাড়াই টেক্সট পাঠাতে পারেন, সে জন্য অপারেটররা মিলে এই সুবিধা চালু করছে।


আরও খবর



রাজধানীর ১২ কেন্দ্রে স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা শুরু আগামীকাল

প্রকাশিত:রবিবার ৩১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৭৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী স্কুলগামী শিশুদের ফাইজারের টিকা দেওয়া শুরু হচ্ছে কাল (১ নভেম্বর) থেকে। প্রথম দফায় রাজধানীর ১২টি কেন্দ্রে এবং ঢাকার বাইরের ২১টি কেন্দ্রে এ টিকাদান কার্যক্রম শুরু হবে।

রবিবার (৩১ অক্টোবর) সকালে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. এবিএম খুরশীদ আলম।

তিনি জানান, ১ নভেম্বর থেকেই (কাল) স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা প্রয়োগ শুরু হবে। এ লক্ষ্যে আমাদের সব প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। বর্তমানে ৭০ লাখ ফাইজারে টিকা রয়েছে। যা দিয়ে ৩০ লাখ শিক্ষার্থীকে টিকা দেওয়া হবে। আগামী নভেম্বরে আরও ৩৫ লাখ ডোজ ফাইজারের টিকা দেশে আসবে।

খুরশীদ আলম বলেন, ফাইজারের টিকা দেওয়ার জন্য শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা থাকতে হয়। এজন্য দেশের সব জেলাতেই ক্রমান্বয়ে প্রয়োজন মতো শীতাতপ ব্যবস্থা ঠিক করে দেশব্যাপী ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সী শিশুদের টিকা দেওয়ার কাজ শুরু করা হবে।

রাজধানীর যেসব কেন্দ্রে টিকা পাবে স্কুল শিক্ষার্থীরা:

১. হার্ডক ইন্টারন্যাশনাল স্কুল; ২. সাউথপয়েন্ট স্কুল অ্যান্ড কলেজ; ৩. চিটাগং গ্রামর স্কুল; ৪. কসমো পলিটন ল্যাবরেটরি স্কুল অ্যান্ড কলেজ; ৫. বীরশ্রেষ্ঠ মুন্সী আব্দুর রউফ পাবলিক কলেজ; ৬. আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজ; ৭. ঢাকা কমার্স কলেজ; ৮. কাকলি হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজ; ৯. সাউথ ব্রিজ স্কুল; ১০. স্কলাসটিকা স্কুল; ১১. বিএইচ খান স্কুল অ্যান্ড কলেজ; ১২. আহমেদ বাওয়ানী একাডেমি।


আরও খবর



করোনা: গত ২৪ ঘণ্টায় আরও তিনজনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৫৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

করোনা আক্রান্ত হয়ে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩ জন মারা গেছেন। এদের মধ্যে চট্টগ্রাম বিভাগের একজন, রাজশাহী বিভাগের একজন ও ময়মনসিংহ বিভাগের একজন রয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনায় মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৭ হাজার ৮৯০ জনে।

শুক্রবার (৫ নভেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত বিশেষ বুলেটিনে এ তথ্য জানানো হয়।

বুলেটিনে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ১৭ হাজার ৪৪৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হলে ১৯৬ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়। এ নিয়ে দেশে শনাক্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ালো ১৫ লাখ ৭০ হাজার ৬৮১ জনে। যেখানে শনাক্তের হার ১ দশমিক ১২ শতাংশ। একদিনে নতুন করে সুস্থ হয়েছেন ১৭৮ জন। এ নিয়ে সুস্থ হয়ে ওঠা রোগীর সংখ্যা ১৫ লাখ ৩৪ হাজার ৪৭৮ জন।

বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা যায়, মারা যাওয়া তিনজনের মধ্যে ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে দুইজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে একজন  রয়েছে। এদের সবাই হাসপাতালে মারা গেছেন। এদের মধ্যে দুইজন নারী ও একজন পুরুষ।


আরও খবর



ভারতীয় ট্যুরিস্ট ভিসা চালু ১৫ নভেম্বর থেকে

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৭৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আগামী ১৫ নভেম্বর থেকে বাংলাদেশিদের জন্য ট্যুরিস্ট ভিসা চালু করছে ভারত।

মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) সকালে সাংবাদিকদের এ কথা জানান ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার শ্রী বিক্রম দোরাইস্বামী।

তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও ট্যুরিস্ট ভিসা চালু করছি আমরা। শুরুতে একমাস মেয়াদের সিঙ্গেল এন্ট্রি ভিসা প্রদান করা হবে। যেতে হবে বিমানে। পর্যায়ক্রমে বিমানের পাশাপাশি স্থল ও রেলপথেও ভিসা দেওয়া হবে।

দোরাইস্বামী বলেন, বাংলাদেশ-ভারত দুই দেশের সম্পর্ক অন্য যেকোনো সময়ের চেয়ে ভালো আছে। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি রক্ষায় বাংলাদেশ সরকারের পদক্ষেপে সন্তোষ প্রকাশ করেন তিনি।


আরও খবর



২১ জানুয়ারি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি রাজ পরিবারের ‘ধর্মযুদ্ধ’

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ২৯ নভেম্বর ২০২১ | ৪২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

২০১৯-এ ছবি তৈরির ঘোষণা। ২০২০-তে মুক্তির কথা ছিল। মহামারির সঙ্গে এক বছর যুদ্ধ চালিয়ে নতুন বছরের ২১ জানুয়ারি মুক্তি পেতে চলেছে রাজ চক্রবর্তীর ধর্মযুদ্ধ। রাজ মানেই এখন বিষয়নির্ভর ছবি। আর তাতে রাজ-ঘরনি শুভশ্রী নায়িকা কম অভিনেত্রী বেশি। পরিণীতা ছবি থেকেই চেনা ছক থেকে বেরিয়ে নিজেদের ভেঙেছেন রাজশ্রী। তারই যেন আরও পরিণত রূপ ধর্মযুদ্ধ

তারকা দম্পতির পাশাপাশি ছবির জোরালো খুঁটি এক ঝাঁক তারকা। রয়েছেন স্বাতীলেখা সেনগুপ্ত, সপ্তর্ষি মৌলিক, পার্নো মিত্র, ঋত্বিক চক্রবর্তী, সোহম চক্রবর্তী। ২০২১ মঞ্চ, পর্দা সফল প্রবীণ অভিনেত্রী স্বাতীলেখাকে কেড়ে নিয়েছে। নতুন বছরে পর্দাজুড়ে তিনি নব রূপে। ধর্মযুদ্ধ ছাড়াও স্বাতীলেখা জীবন্ত হবেন উইনডোজ প্রোডাকশনের বেলাশুরু ছবিতে। সপ্তর্ষি এই ছবিতে শুভশ্রীর স্বামী। পেশায় অটোচালক। খবর, শুভশ্রীর পাশাপাশি তাঁর লুক-এও বড় পরিবর্তন এনেছেন পরিচালক। শ্যুট শুরুর আগে তাঁকে অটো চালানো শিখতে হয়েছিল

ছবি-মুক্তির খবর সপ্তর্ষি প্রথম জানলেন আনন্দবাজার অনলাইন থেকে। আনন্দের পাশাপাশি ছোট্ট আক্ষেপ তাঁর, রাজ যখন ছবিটি বানিয়েছিলেন সেই সময় দেশ-রাজ্যজুড়ে ধর্ম নিয়ে কাটাছেঁড়া চলছে। ছবিটি সেই সময় মুক্তি পেলে আরও প্রাসঙ্গিক হত। এখন কি তা হলে ছবির প্রাসঙ্গিকতা তুলনায় কমে গিয়েছে? মানতে রাজি নন স্বাতীলেখা সেনগুপ্তের একমাত্র জামাই।

তাঁর কথায়, দেশ বা রাজ্যে ধর্মযুদ্ধ থিতিয়েছে। থেমে যায়নি। তা ছাড়া, দর্শক অত্যন্ত বুদ্ধিমান। তাঁরা ছবি দেখে বুঝবেন পরিচালক কী বলতে চাইছেন। আশা, তাঁরা খুশি মনেই ছবিটিকে গ্রহণ করবেন। শুভশ্রীর স্বামী হওয়ার অনুভূতি কেমন? অনবদ্য, দাবি সপ্তর্ষির। সারা ছবিতেই শুভ অন্তঃসত্ত্বা। সেই অনুভূতি ধরে রেখে ছবিতে অভিনয় করে যাওয়া সহজ নয়। এত দিন গ্ল্যামারাস নায়িকা হিসেবে জনপ্রিয়তা পাওয়ার পরে 'পরিণীতা' থেকে শুভ জনপ্রিয় অভিনেত্রী। এ ভাবে ভেঙে নিজেকে প্রমাণ করতে যথেষ্ট সাহসের প্রয়োজনবক্তব্য অভিনেতার।


আরও খবর



হারিয়ে যাওয়া ফাইলগুলো তেমন গোপনীয় নয় : সচিব

প্রকাশিত:রবিবার ৩১ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৯০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবারকল্যাণ বিভাগের হারিয়ে যাওয়া ফাইলগুলো তেমন গোপনীয় নয় জানিয়ে এ বিভাগের সচিব মো. আলী নূর বলেছেন, ফাইল হারিয়ে যাওয়াটাই বড় বিষয়।

১৭টি ফাইল হারানোর পর রোববার (৩১ অক্টোবর) পুলিশের তদন্ত শুরুর দিন নিজ দপ্তরে তিনি সাংবাদিকদের একথা বলেন।

ফাইলগুলো কী সংক্রান্ত ছিল—জানতে চাইলে সচিব বলেন, এগুলো ক্রয় সংক্রান্ত। এগুলো তেমন গোপনের কিছু নেই। প্রত্যেকটা ফাইলের তথ্য আমাদের অন্যান্য বিভাগেও আছে, আমাদের কম্পিউটারেও আছে, আমাদের ডিজি অফিসগুলোতেও আছে।

এটা নিয়ে তেমন সমস্যা না, কিন্তু মূল বিষয়টা হচ্ছে ফাইল মিসিং হওয়াটা। এটি হচ্ছে সবচেয়ে বড় বিষয়। এটিই উদ্ধারের চেষ্টা করছি।

১৭টি নথি গায়েব হওয়ার পর গত বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রণালয় শাহবাগ থানায় জিডি দায়ের করে, জানানো হয় সিআইডিকেও।

রোববার সকালে শাহবাগ থানা পুলিশ এবং সিআইডির সদস্যরা সচিবালয়ে এসে তিন নম্বর ভবনের নিচতলার ২৯ নম্বর কক্ষ থেকে আলামত সংগ্রহ করেন এবং সেখানে কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন। এরপর জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ৬ জন কর্মচারীকে নিয়ে যান তারা। 

নথি গায়েবের ঘটনায় মন্ত্রণালয়ের কাউকে সন্দেহ করেন কিনা—এমন প্রশ্নে সচিব বলেন, সন্দেহের বিষয়টা তো এখন বলাটা কঠিন। কারণ, আমরা তো সত্যিকারভাবেই আসলে জানি না, কে এই কাজটি করেছে। আমি তো মনে করি যে, আমরা সবাই সন্দেহের মধ্যেই আছি।

আমরা পুলিশকে সেভাবেই বলেছি, আপনারা সবাইকেই ইনক্লুড করবেন, যাতে আমরা তথ্যটা জানতে পারি, উদ্ধার করতে পারি।

সচিব আরও বলেন, বৃহস্পতিবার একটা লকারের একটা ড্রয়ার থেকে কিছু ফাইল মিসিং হয়েছে, এটা জানার পরে আমরা সাথে-সাথে আমাদের অফিসারদের সেখানে পাঠাই। পরে আমরা নিশ্চিত হলাম যে, মিসিং হয়েছে। এটা শোনার পর আমি স্পটে গিয়েছি। আমাদের অতিরিক্ত সচিবরা আমার সঙ্গে ছিলেন।

‘সঙ্গে সঙ্গে আমি পুলিশকে খবর দিলাম। এডিসিসহ আরও দুজন কর্মকর্তা আমাদের এখানে আসছেন। তারা বিষয়গুলো দেখেছেন। দেখার পর আমি তাৎক্ষণিকভাবে মন্ত্রী মহোদয়কে অবহিত করি, ক্যাবিনেট সচিব মহোদয়কে অবহিত করি এবং পুলিশকে প্রয়োজনে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য।

সচিব বলেন, এর বাইরে সিআইডিকে অনুরোধ করি, বিষয়টা টেক আপ করার জন্য, যাতে আমাদের যে বিষয়টা ঘটে গেছে, এটাতো আমাদের উদ্ধার করতে হবে, যেভাবেই হোক। যারা এর সাথে জড়িত, এটা খুঁজে বের করতে হবে, কীভাবে হল, কখন হলো। এটাই ছিল আমাদের মূল বিষয়।

সাংবাদিকদের আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমরা চাই, প্রকৃত ঘটনাটা যেন আমরা জানতে পারি।

এ ঘটনায় চার সদস্যদের একটি তদন্ত কমিটিও গঠন করা হয়েছে জানিয়ে সচিব বলেন, সেই কমিটিও কাজ শুরু করেছে। আমরা আশা করছি, খুব শিগগিরই একটি তথ্য জানতে পারবো, কারা কীভাবে কাজটি করেছে এবং কেন করেছে।

এ ঘটনায় তদন্তে আসা সিআইডির পুলিশ সুপার মো. কামরুজ্জামান জানান, পুলিশের পাশাপাশি তারা ছায়া তদন্তের কাজটি করছেন।


আরও খবর