Logo
শিরোনাম

ফ্যাটি লিভারের গুরুতর যে লক্ষণ দেখা দেয় পেট ও পায়ে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ২৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হৃদয় ও মস্তিষ্কের মতো লিভার বা যকৃতও শরীরের একটি গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ। লিভারের প্রাথমিক কাজগুলো হলো- অ্যালবুমিন ও পিত্ত উৎপাদন, রক্ত পরিস্রাবণ, এনজাইম সক্রিয়করণ, গ্লাইকোজেন, ভিটামিন ও খনিজের সঞ্চয় করা। শরীরের সবচেয়ে বড় অভ্যন্তরীণ অঙ্গ হওয়ায় লিভারের অনেক ভূমিকা আছে। যখন লিভার সঠিকভাবে তার কাজ সম্পন্ন করতে পারে না, তখন শারীরিক বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়। লিভারের সঙ্গে যুক্ত সবচেয়ে বড় স্বাস্থ্য সমস্যা হলো ফ্যাটি লিভার ডিজিজ।

ফ্যাটি লিভারের কারণ কী? লিভারে অতিরিক্ত চর্বি জমা হলে ফ্যাটি লিভার রোগ হয়। এটি বিভিন্ন কারণে ঘটতে পারে। এর শীর্ষ কারণগুলো মধ্যে একটি হলো অত্যধিক অ্যালকোহল সেবন, যা অ্যালকোহলযুক্ত ফ্যাটি লিভার রোগের কারণ হতে পারে। অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় লিভার স্টোরকে ভেঙে ফেলার পরিবর্তে আরও চর্বি তৈরি করতে পারে। যারা মদ্যপানে অভ্যস্ত, তাদের মধ্যে আলকোহলিক ফ্যাটি লিভারে বেশি আক্রান্ত হন। অন্যদিকে এনএএফএলডি বা নন-অ্যালকোহলিক ফ্যাটি লিভার ডিজিজ হল অন্য ধরনের ফ্যাটি লিভারের অসুখ, যা মূলত স্থূলতা, টাইপ ২ ডায়াবেটিস, ইনসুলিন প্রতিরোধ, রক্তে উচ্চ মাত্রার চর্বি (ট্রাইগ্লিসারাইড) ও বিপাকীয় সিনড্রোমের মতো কারণগুলোর কারণে ঘটে।

বয়স, জেনেটিক্স, নির্দিষ্ট ওষুধ ও গর্ভাবস্থা ফ্যাটি লিভারসহ বিভিন্ন রোগের ঝুঁকি বাড়ায়। ফ্যাটি লিভার রোগ প্রতিরোধের চাবিকাঠি হলো প্রাথমিক অবস্থায় রোগ নির্ণয়। যদি রোগটি সময়মতো শানাক্ত না করা হয় বা চিকিত্সা না করা হয়, তাহলে তা লিভার সিরোসিসের কারণ হতে পারে। ফ্যাটি লিভারের সমস্যার অবনতি হলে পা ও পেটে পড়ে এর ক্ষতিকর প্রভাব। ক্রমাগত চর্বি জমার ফলে শরীরের এই গুরুতর অঙ্গে প্রদাহ হতে পারে, যা ন্যাশ (নন অ্যালকোহলিক স্টেটোহেপাটাইটিস) নামক আরেকটি স্বাস্থ্য সমস্যাকে আলো দেয়।

নন-অ্যালকোহলিক স্টেটোহেপাটাইটিস (ন্যাশ): নন-অ্যালকোহলিক স্টেটোহেপাটাইটিস বা ন্যাশ লিভারের অতিরিক্ত চর্বি কোষের কারণে প্রদাহকে বোঝায়। দীর্ঘস্থায়ী প্রদাহ প্রগতিশীল যকৃতের ক্ষতি বা সিরোসিস সৃষ্টি করে। সিডার সিনাই-এর মতে, ন্যাশের রোগী, যাদের যকৃতের যথেষ্ট ক্ষতি হয়েছে তাদের ক্ষেত্রে পা ফুলে যাওয়াপেটে তরল জমার অনুভূতি ঘটে। এটি লিভারের মধ্য দিয়ে রক্ত সঞ্চালনকারী শিরায় বর্ধিত চাপের কারণে ঘটে, যা পোর্টাল শিরা নামে পরিচিত। শিরায় ক্রমবর্ধমান চাপের ফলে পা, গোড়ালি ও পেটসহ শরীরে তরল জমা হয়। যখন পোর্টাল শিরায় চাপ বেড়ে যায়, তখন এটি ফেটে যেতে পারে। ফলে অভ্যন্তরীণ রক্তপাত হতে পারে। পা বা পেট ফুলে যাওয়ার পাশাপাশি মল বা বমিতে রক্তের লক্ষণ দেখেন তাহলে দ্রুত হাসপাতালে নিয়ে যান রোগীকে।

চোখ ও ত্বকের হলুদ হওয়া থেকে সাবধান থাকুন, লিভারের ক্ষতির আরেকটি সাধারণ লক্ষণ। মায়ো ক্লিনিকের তথ্য অনুসারে, লিভার যখন রক্ত থেকে পর্যাপ্ত বিলিরুবিন (রক্তের বর্জ্য পদার্থ) অপসারণ করতে পারে না তখনই জন্ডিস হয়। জন্ডিসের কারণে ত্বক হলুদ, চোখের সাদা ও প্রস্রাব কালচে হয়ে যায়। কেউ চুলকানি, দ্রুত ওজন হ্রাস, ত্বকে মাকড়সার মতো রক্তনালি ভেসে ওঠা, বমি বমি ভাব, ক্ষুধা হ্রাস ও ক্লান্তি অনুভব করতে পারে।

কীভাবে ফ্যাটি লিভার রোগ প্রতিরোধ? স্বাস্থ্যকর খাবার ও নিয়মিত ব্যায়াম করার মাধ্যমে কেউ নন-অ্যালকোহলিক ফ্যাটি লিভার (এনএএফএল) বা নন-অ্যালকোহলিক স্টেটোহেপাটাইটিস (ন্যাশ) প্রতিরোধ করতে পারে। এর পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর ওজন বজায় রাখতে স্যাচুরেটেড ফ্যাট, চিনি, তেল ও প্রক্রিয়াজাত খাবার সমৃদ্ধ খাবার এড়িয়ে চলুন।

নিউজ ট্যাগ: ফ্যাটি লিভার

আরও খবর



আর্জেন্টিনা ঘুরে দাঁড়াবেই: রাফায়েল নাদাল

প্রকাশিত:শুক্রবার ২৫ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কাতার বিশ্বকাপে হট ফেবারিট হিসেবে পা রেখেছিল লিওনেল মেসির দল আর্জেন্টিনা। টানা অপরাজিত ছিল ৩৬ ম্যাচ এতে আত্মবিশ্বাস ছিল তবে প্রথম ম্যাচেই সৌদি আরব তাদের মাটিতে নামিয়ে আনে। ৫ মিনিটের ব্যবধানে দুই গোল দিয়ে দীর্ঘদিন পর পরাজয়ের স্বাদ দেয় আর্জেন্টিনাকে। এই খেলার কয়েকদিন কেটে গেলেও এখনও বিশ্বাস হচ্ছে না মারাদোনার দেশের সমর্থকদের। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে চায়ের দোকান, সর্বত্র আর্জেন্টিনার হারের গল্প। সমালোকদের টিপ্পনী, এই বাড়াবাড়িটা আর সহ্য হচ্ছে না টেনিস কিংবদন্তি রাফায়েল নাদালের। আর্জেন্টিনা হেরেছে বলে কি পৃথিবীটা উল্টে গিয়েছে নাকি? খেলায় হার-জিত তো স্বাভাবিক জিনিস।এত হইচইয়ের কারণ খুঁজে পাচ্ছেন না আর্জেন্টিনার ফ্যান নাদাল।

ঘটনাচক্রে এই মুহূর্তে বুয়েনস আইরেসে রয়েছেন রাফায়েল নাদাল। নরওয়ের ক্যাসপার রুডের বিরুদ্ধে একটি প্রদর্শনী ম্যাচ খেলার আগে সাংবাদিক সম্মেলনে স্প্যানিশ মায়োস্ত্রোর কাছে ধেয়ে এসেছিল এই মুহূর্তের সবচেয়ে আলোচিত প্রশ্ন। সৌদি বিশ্বকাপে সৌদি আরবের কাছে আর্জেন্টিনার হার কীভাবে দেখছেন? ৩৬ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর সৌদির মতো গোনাগুনতির বাইরে থাকা দলের কাছে পরাজয়ের স্বাদ পেয়েছে লিওনেল মেসির দল। নাদাল বলেন, আমি কট্টরদের দলে পড়ি না। ভীষণ উচ্ছ্বসিত হই না আবার দলের বিপর্যয়ে মুষড়েও পড়ি না। একটা হারে পৃথিবীটা তো উল্টে যায়নি। ওরা একটা ম্যাচ হেরে গিয়েছে, এখনও দুটো বাকি রয়েছে। অন্তত ওরা সম্মান এবং সমর্থকদের তাদের প্রতি বিশ্বাস আশা করে।

তবে দিনের শেষে আর্জেন্টিনার একনিষ্ঠ সমর্থকের মতোই শোনা গিয়েছে নাদালের গলা। তিনি বলেন, ওরা লাতিন আমেরিকার চ্যাম্পিয়ন দল। একটা হারে তাদের আত্মবিশ্বাস টাল খাবে কেন? আমি এখনও বিশ্বাস করি, চলতি বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা এখনও অনেকটা পথ এগোবে।


আরও খবর

রোনালদোকে টপকে গেলেন মেসি

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২




ডিএমপির বিশেষ অভিযানে ৪৭২ জন গ্রেফতার

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ ডিএমপির চলমান বিশেষ অভিযানে এখনও পর্যন্ত ৪৭২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। রবিবার (৪ ডিসেম্বর) বিকাল পর্যন্ত তাদের গ্রেফতার করা হয়েছে। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ ডিএমপির গণমাধ্যম শাখার উপ-পুলিশ কমিশনার ফারুক হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, বিজয়ের মাস ডিসেম্বরকে কেন্দ্র করে নাশকতা কিংবা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ডিএমপির পক্ষ থেকে বিশেষ অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। যেখানেই তথ্য পাওয়া যাচ্ছে, সেখানেই অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে এবং অনেককেই গ্রেফতার করা হয়েছে। ডিএমপির পক্ষ থেকে এই বিশেষ অভিযান চলমান থাকবে বলে জানান তিনি।

ফারুক হোসেন বলেন, যাদের বিরুদ্ধে মামলা রয়েছে, তাদেরকেও এসব অভিযানে গ্রেফতার করা হচ্ছে।


আরও খবর



ডেঙ্গুতে আরও ৪ জনের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ৬৪৬

প্রকাশিত:রবিবার ২০ নভেম্বর ২০22 | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৪১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সারা দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৬৪৬ জন। রোববার (২০ নভেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের ইনচার্জ ডা. মো. জাহিদুল ইসলামের সই করা ডেঙ্গুবিষয়ক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

নতুনদের নিয়ে বর্তমানে দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২ হাজার ৪৭৮ জন। একই সময়ে ডেঙ্গুতে নতুন করে আরও চারজনের প্রাণহানি ঘটেছে। চলতি বছর ডেঙ্গুতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৩০ জনে।

প্রতিবছর বর্ষাকালে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন শহরে ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা দেয়। ২০১৯ সালে দেশব্যাপী ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়েছিল ১ লাখ ১ হাজার ৩৫৪ জন। সে সময়ে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীসহ প্রায় ৩০০ জনের মৃত্যু হয়েছিল।

২০২০ সালে করোনার সময়ে ডেঙ্গুর প্রকোপ তেমন একটা দেখা যায়নি। তবে ২০২১ সালে সারাদেশে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হন ২৮ হাজার ৪২৯ জন। এ বছর ডেঙ্গুতে মারা যায় ১০৫ জন।


আরও খবর



মুক্তিযোদ্ধার সন্তানের ভুয়া সনদে পুলিশে চাকরি, ১৭ বছরের কারাদণ্ড

প্রকাশিত:সোমবার ২১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর 2০২2 | ৩১জন দেখেছেন

Image

নোয়াখালী প্রতিনিধি:

নোয়াখালীতে বাবার মুক্তিযোদ্ধা পরিচয়ের ভুয়া সনদ দিয়ে পুলিশে চাকরি নেওয়ার দায়ে এক পুলিশ কনস্টেবলকে ১৭ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ৩ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। অনাদায়ে আরো ২ বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।  

সোমবার (২১ নভেম্বর) দুপুরে নোয়াখালী স্পেশাল জজ আদালতের বিচারক এ এন এম মোর্শেদ খান এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডিতের নাম মো.আরিফুল ইসলাম (৩২। সে চাটখিল উপজেলার মোহাম্মদপুর গ্রামের নুরুল হকের ছেলে।  

নোয়াখালী জেলা দুদকের পিপি অ্যাডভোকেট আবুল কাশেম বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তিনি বলেন, দুপুরে মামলার শুনানি শেষে বিচারক এ এন এম মোর্শেদ খান অভিযুক্ত আসামিকে ৪০৯, ৪২০, ৪৬৭, ৪৬৮ ও ৪৭১ ধারায় মোট ১৭ বছরের কারাদণ্ড ও চারটি ধারায় ৩ লাখ ৭০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেন। সব সাজা এক সাথে কার্যকর হওয়ায় আসামিকে ৫ বছর সাজা খাটতে হবে। তবে দণ্ডপ্রাপ্ত আরিফুল ইসলাম পলাতক রয়েছেন।

মামলার বিবরণ দিয়ে দুদকের পিপি অ্যাডভোকেট আবুল কাশেম জানান, দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ২০১২ সালে পুলিশের কনস্টেবল পদে নিয়োগের সময় নিজের বাবাকে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে দাবি করে ভুয়া সনদ দেন। এরপর আসামি মুক্তিযোদ্ধা কোটায় পুলিশের কনস্টেবল পদে চাকরি নেয় এবং রাষ্ট্রীয় ভাবে সকল সুযোগ সুবিধা ভোগ করে। নিয়োগের কিছু দিন পর বিষয়টি জানাজানি হয়। তদন্তে মুক্তিযোদ্ধার ভুয়া সনদের বিষয়টি প্রমাণিত হয়। এরপর ২০১৩ সালে পুলিশ লাইনের তৎকালীন রিজার্ভ অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) শরীফুল ইসলাম বাদী হয়ে চাটখিল থানায় তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। সর্বশেষ মামলাটি তদন্তভার পায় দুদক। দুদকের নোয়াখালী সমন্বিত জেলা কার্যালয় তদন্ত শেষে বরখাস্তকৃত পুলিশ কনস্টেবল আরিফুল ইসলামের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।


আরও খবর



প্রভাসের ‘আদিপুরুষের’ মুক্তির অপেক্ষা বাড়ল

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৮ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দক্ষিণের জনপ্রিয় চিত্রতারকা প্রভাস অভিনীত চলচ্চিত্র আদিপুরুষের মুক্তির অপেক্ষা বাড়ল।  হিন্দি, তেলেগু, তামিল, মালয়ালম ও কন্নড় ভাষায় নির্মিত এই চলচ্চিত্র আগামী বছরের ১২ জানুয়ারি মুক্তি পাওয়ার কথা থাকলেও তা হচ্ছে না। সিনেমাটি ছয় মাস পিছিয়ে ২০২৩ সালের ১৬ জুন মুক্তি পেতে পারে বলে আজ সোমবার পরিচালক ওম রাউত টুইটারে জানিয়েছেন।

প্রাথমিকভাবে এই চলচ্চিত্রের জন্য ৪০০ কোটি রুপি বাজেট ধরা হলেও দুর্বল ভিএফএক্স ও চরিত্র নির্মাণে ত্রুটির কারণে তা বাড়িয়ে ৫০০ কোটি টাকা ধরা হয়েছে বলে ভারতের গণমাধ্যমগুলো বলছে।  'আদিপুরুষ' মুক্তির ঘোষণার পর থেকেই সবাই প্রতীক্ষায় ছিল। কিন্তু কয়েক সপ্তাহ আগে এর দুর্বল ভিএফএক্স সমালোচকদের ট্রলের শিকার হয়।

প্রভাসের পাশাপাশি সিনেমাতে লঙ্কেশ নামে দানবের গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করছেন সাইফ আলী খান। টিজারে তাকে যেভাবে দেখানো হয়েছে এবং হুনুমানের চরিত্রে দেবদত্ত নাগের উপস্থাপন সবচেয়ে বেশি নেতিবাচক প্রতিক্রিয়া কুড়িয়েছে। এ কারণে ছবিটির নির্মাণে কিছু পরিবর্তন আসতে পারে। টুইটে ওম রাউত বলেন, আদিপুরুষ চলচ্চিত্র নয়, এটি প্রভু শ্রীরামের প্রতি আবেদন ভক্তির এবং আমাদের সংস্কৃতি ও ইতিহাসের প্রতি দায়বদ্ধতার উপস্থাপন। দর্শকদের সামনে এর পূর্ণাঙ্গ চিত্র তুলে ধরতে আমাদের আমাদের আরও সময়ের প্রয়োজন।

পৌরাণিক কাহিনির উপর ভিত্তি করে নির্মিত চলচ্চিত্রটিতে আদিপুরুষের চরিত্রে দেখা যাবে প্রভাসকে। আদিপুরুষ সিনেমাতে অধর্ম, অমঙ্গলের বিপরীতে সত্যের ও ঈশ্বরের জয়ের কথাই বলা হয়েছে। এই চলচ্চিত্রে প্রভাস ও সাইফের অন্যদের মধ্যে কৃতি শ্যানন ও সানি সিংও রয়েছেন। এই চলচ্চিত্রে রামায়ণকে ভুলভাবে উপস্থাপনের অভিযোগে পরিচালক ওম রাউত সমালোচিত হন। আর এসব সমালোচনার মধ্যে নির্মাতারা চলচ্চিত্রটিতে কিছু পরিবর্তন আনার সিদ্ধান্ত নেন। তাই এর মুক্তি আরও কয়েক মাসের জন্য পিছিয়ে দেওয়া হলো।

নিউজ ট্যাগ: আদিপুরুষ

আরও খবর