Logo
শিরোনাম

ইংলিশ চ্যানেলে নৌকাডুবি, অন্তত ২৭ অভিবাসীর মৃত্যু

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৪২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ইংলিশ চ্যানেলের ফ্রান্স উপকূলে গতকাল বুধবার যাত্রীবাহী নৌকা ডুবে অন্তত ২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। ফ্রান্স থেকে যুক্তরাজ্য যাওয়ার পথে ফ্রান্সের উত্তরের উপকূলবর্তী শহর ক্যালের অদূরে নৌকাটি ডুবে যায়। ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জেরাল্ড ডারমানিন জানান, নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে একটি মেয়েশিশু ও পাঁচ নারী রয়েছেন। খবর বিবিসির।

আন্তর্জাতিক অভিবাসী সংস্থা আইওএম জানিয়েছে, ২০১৪ সাল থেকে সংস্থাটি তথ্য-উপাত্ত রাখার পর থেকে ইংলিশ চ্যানেলে এটাই সর্বাধিক প্রাণহানির ঘটনা। ইংলিশ চ্যানেলের দুর্ঘটনায় শঙ্কিত জানিয়ে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন বলেছেন, মানব পাচারকারী চক্রকে থামাতে কোনো চেষ্টা বাদ রাখবে না যুক্তরাজ্য।

এএফপির প্রতিবেদন অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাখোঁ বলেছেন, ফ্রান্স ইংলিশ চ্যানেলকে সমাধিস্থল হতে দেবে না। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। ইংলিশ চ্যানেল দিয়ে মানব পাচারের সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের প্রতিহত করতে যৌথ প্রচেষ্টা জোরালো করার ব্যাপারে একমত হয়েছেন দুই দেশের প্রধান।

ফ্রান্সের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, দুজনকে জীবিত উদ্ধার করা হয়েছে। একজন নিখোঁজ। এর আগে অবশ্য ৩১ জনের মৃত্যুর কথা জানানো হয়। বেলজিয়াম সীমান্ত থেকে চারজনকে গ্রেপ্তারের কথা জানিয়ে জেরাল্ড ডারমানিন বলেন, তারা সরাসরি এই নির্দিষ্ট মানব পাচার কর্মকাণ্ডে জড়িত বলে আমরা সন্দেহ করছি।

স্থানীয় সময় গতকাল ফ্রান্সের উপকূলে কিছু মানুষকে ভাসতে দেখার পর মাছ ধরার একটি নৌকা বিপৎসংকেত বাজালে নৌকাডুবির বিষয়টি জানা যায়। নৌকাডুবির খবর পাওয়ার পর জীবিত ব্যক্তিদের উদ্ধারে ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্যের কর্তৃপক্ষ সমুদ্র ও আকাশপথে উদ্ধার অভিযান চালাচ্ছে।


আরও খবর



টিভি পর্দায় আজ রয়েছে যেসব খেলা

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৬ নভেম্বর ২০২১ | ৫৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

একনজরে জেনে নিই টিভি পর্দায় আজ রয়েছে যেসব খেলা -

* ক্রিকেট

২০২১ টি ২০ বিশ্বকাপ ফাইনাল

নিউজিল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়া

সরাসরি, বিটিভি, গাজী টিভি

টি স্পোর্টস, রাত ৮টা

মেয়েদের বিগ ব্যাশ লিগ

সিডনি সিক্সার্স ও সিডনি থান্ডার

সরাসরি, সনি সিক্স, সকাল ৮টা ৪০

* ফুটবল

বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব

ক্রোয়েশিয়া ও রাশিয়া

আর্মেনিয়া ও জার্মানি

সরাসরি, সনি টেন-২, রাত ৮টা ও ১১টা

স্পেন ও সুইডেন

পর্তুগাল ও সার্বিয়া

লুক্সেমবার্গ ও আয়ারল্যান্ড

সরাসরি, সনি টেন-১, ২ ও সনি সিক্স, রাত ১টা ৪৫


আরও খবর



জেলহত্যার রায় কার্যকরে সর্বোচ্চ চেষ্টা চলছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ০৩ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ | ৭৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

১৯৭৫ সালের ৩ নভেম্বর জেলহত্যার ঘটনার বিচারের রায় কার্যকর করতে সরকার সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

বুধবার (৩ নভেম্বর) সকাল ১০টায় রাজধানীর নাজীম উদ্দিন রোডে অবস্থিত পুরাতন কেন্দ্রীয় কারাগারে জাতীয় চার নেতার প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে তিনি এ কথা জানান।

আসাদুজ্জামান খান বলেন, আজ ৩ নভেম্বর, জেলহত্যা দিবস। বাংলাদেশে দুটি ঘৃণ্যতম হত্যাকাণ্ড ঘটেছে। যার মধ্যে একটি ১৫ আগস্ট, অন্যটি ৩ নভেম্বর জেলহত্যার ঘটনাটি। এই ঘটনাগুলো কারা ঘটিয়েছে তা সবাই জানে। অনেক হত্যাকারীর বিচার হয়েছে, এদেরও হবে।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, জেলহত্যা দিবসে আমরা প্রথমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি। এছাড়া জাতীয় চার নেতাকেও গভীর শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করছি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা জানি জেলখানা পৃথিবীর মধ্যে সবথেকে নিরাপদ স্থান। কিন্তু কিভাবে আইন ভঙ্গ করে এই হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে সবাই জানে। বঙ্গবন্ধু হত্যাকাণ্ডের বিচার হয়েছে এবং রায় আংশিক কার্যকর হয়েছে। আর যারা পলাতক আসামি রয়েছেন তাদেরকে আমরা খুঁজে বেড়াচ্ছি। আমরা যখন আসামিদের নিজেদের আওতায় পাবো তখনই ফাঁসির রায় কার্যকর হবে। জেলহত্যার রায় কার্যকরের জন্য আমরা সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা নিচ্ছি।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর পর ফুল দিয়ে জাতীয় চার নেতাকে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন শহীদ তাজউদ্দীন আহমেদের ছেলে তানজীম আহমেদ সোহেল তাজ, সিমিন হোসেন রিমি, শহীদ ক্যাপ্টেন এম মনসুর আলীর ছেলে রেজাউল করিম, ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী মো. সেলিম, সাবেক সংসদ সদস্য ডা. মোস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, কারা মহাপরিদর্শক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আনিসুর রহমানসহ অনেকে।


আরও খবর



সংসদে করোনার টিকা কেনার ব্যয় জানাননি স্বাস্থ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৮ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গণমাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিয়ে করোনাভাইরাসের টিকা কেনার খরচ প্রকাশ করা হলেও সংসদে এ খাতের ব্যয় প্রকাশ করতে চাননি স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। নন-ক্লোজার এগ্রিমেন্টের মাধ্যমে ভ্যাকসিন কেনার কারণে সংসদে অর্থ খরচের হিসাব প্রকাশ করা সমীচীন হবে না বলে তিনি সংসদকে জানান। অবশ্য করোনাভাইরাসের কতগুলো টিকা সংগ্রহ করা হয়েছে সেটা উল্লেখ করে তিনি বলেন, সততা ও স্বচ্ছতার নিশ্চিত করে প্রতিযোগিতামূলক মূল্যে ভ্যাকসিন কেনা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) জাতীয় সংসদের প্রশ্নোত্তরে সরকারি দলের আবুল কালাম আজাদের প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ কথা করেন। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রশ্নোত্তর টেবিলে উত্থাপিত হয়।

আবুল কালাম আজাদ তার প্রশ্নে কত সংখ্যক টিকা সংগ্রহ করা হয়েছে সেটার পাশাপাশি এ জন্য কত টাকা খরচ হয়েছে তা জানতে চান।

জবাবে মন্ত্রী জানান, ২১ কোটি ১৭ লাখ ৩০ হাজার ডোজ টিকা কেনা হয়েছে। এর মধ্যে চীন হতে ৭ কোটি ৭০ লাখ ডোট সিনোফার্ম, ৭ কোটি ৫১ লাখ ডোজ সিনোভ্যাক, ভারত হতে ৩ কোটি কোভিশিল্ড এবং কোভ্যাক্সের আওতায় ২ কোটি ৯৭ লাখ ২০ হাজার সিনোফার্ম এসেছে।

তিনি বলেন, চীন, ভারত ও কোভ্যাক্স হতে সর্বোচ্চ প্রতিযোগিতামূলক মূল্যে সততা ও স্বচ্ছতার নিশ্চিত করে ভ্যাকসিন কেনা হয়েছে। আইন মন্ত্রণালয়, অর্থ বিভাগ, সিসিজিপি ও প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন সাপেক্ষে কেনা হয়েছে। নন-ক্লোজার এগ্রিমেন্টের মাধ্যমে ভ্যাকসিন কেনার কারণে সংসদে অর্থ খরচের হিসাব প্রকাশ করা সমীচীন হবে না।

এর আগে ৯ জুলাই স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে গণমাধ্যমে বিজ্ঞাপন দিয়ে করোনা চিকিৎসার ব্যয় জানানো হয়। ওই বিজ্ঞাপনে বলা হয়, ১ কোটি ১ লাখ ৫০ হাজার ডোজ টিকা কেনা হয়েছে (ওই সময় পর্যন্ত)। প্রতি ডোজ ৩ হাজার টাকা হিসেবে মোট ৩ হাজার ৪৫ কোটি টাকা খরচ হয়েছে।

ভোলা-২ আসনের আলী আজমের প্রশ্নের জবাবে জাহিদ মালেক বলেন, কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণের জন্য মোট ২৯ কোটি ৪৪ লাখ ১০ হাজার ডোজ ভ্যাকসিনের সংস্থান করা হয়েছে। এ পর্যন্ত (১৩ নভেম্বর) ৮ কোটি ৪১ লাখ ৩৮ হাজার ৫৪ ডোজ টিকা প্রদান করা হয়েছে। এর মধ্যে ৫ কোটি ১৩ লাখ ৩২ হাজার ৮৬৪ জনকে প্রথম ডোজ এবং ৩ কোটি ২৮ লাখ ৫ হাজার ১৯০ জনকে দ্বিতীয় ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে।

পুষ্টিহীনতা বিষয়ে সার্বজনীন (সব বয়সের) মানুষের নির্দিষ্ট কোনও পরিসংখ্যান নেই বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য মন্ত্রী। তবে এ ক্ষেত্রে সাফল্য রয়েছে বলে দাবি করেন তিনি। ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী মো. সেলিমের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, পুষ্টিহীনতা বিষয়ে সার্বজনীন (সব বয়সের) মানুষের নির্দিষ্ট কোনও পরিসংখ্যান নেই। বিডিএইচএসর পরিসংখ্যান মতে ৫ বছর বয়সী শিশুদের ক্ষেত্রে একটি চিত্র তুলে ধরেন তিনি।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী, খর্বাকৃতির হার এসডিজি (২০৩০) লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী ১২ শতাংশের নিচে নামিয়ে আনার কথা থাকলেও ২০১৭-১৮ সালে তা ৩১ শতাংশ; ২০০৭ সালে যা ছিল ৪৩ শতাংশ। কৃশকায় ৫ শতাংশের নিচে নামিয়ে আনার কথা থাকলেও তা রয়েছে ৮ শতাংশ; যা ছিল ১৭ শতাংশ। কম ওজনের লক্ষ্যমাত্রা ১০ শতাংশের নিচে নামানোর কথা রয়েছে। ২০০১৮-১৯ সালে ছিল ২২ শতাংশ; ২০০৭ সালে যা ছিল ৪১ শতাংশ। অতি ওজন ১ শতাংশের নিচে নামিয়ে আনার লক্ষ্যমাত্রায় ২০১৭-১৮ সালে ২ শতাংশ; ২০০৭ সালে যা ছিল ১ দশমিক ১ শতাংশ।

মন্ত্রীর দেওয়া তথ্যনুযায়ী, ১৫ থেকে ৪৯ বছর বয়সী নারীদের অপুষ্টিজনিত কম ওজন ২০১৭-১৮ সালে ১২ শতাংশ; ২০০৭ সালে যা ছিল ৩০ শতাংশ। অতি ওজন ৩২ শতাংশ; যা ছিল ১২ শতাংশ। ১৫ থেকে ৪৯ বছর বয়সী নারীদের কম ওজনের ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনের পাশাপাশি অতি ওজনের হার বেড়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় ৩২ শতাংশ।

ভোলা-৩ আসনের সংসদ সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরীর এক প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, ২০২১ সালের আগস্ট পর্যন্ত শনাক্তকৃত ড্রাগ লাইসেন্সবিহীন ওষুধের দোকান ১২ হাজার ৫৯২টি। লাইসেন্সবিহীন দোকান শনাক্ত ও লাইসেন্স দেওয়া চলমান প্রক্রিয়া। ৫৫ জেলা কার্যালয় ও ৮ বিভাগীয় কার্যালয়ের মাধ্যমে সারাদেশে ওষুধ প্রশাসনের কর্মকর্তারা নিয়মিত দোকান পরিদর্শন করেন। এ ক্ষেত্রে লাইসেন্সবিহীন দোকান শনাক্ত হলে কারণ দর্শানো নোটিশ দেওয়া হয়। লাইসেন্সবিহীন দোকান মালিকদের নির্দিষ্ট ক্রাইটেরিয়া পূরণ করে ড্রাগ লাইসেন্স গ্রহণ করার সুযোগ রয়েছে।

বগুড়া-৬ আসনের বিএনপির সংসদ সদস্য গোলাম মোহাম্মদ সিরাজের প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জানান, মাদকসেবীদের চিকিৎসাসেবা নিশ্চিতে দেশের প্রতিটি জেলা সদর হাসপাতালে পৃথক ইউনিট চালু করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সরকার।

ময়মনসিংহ ১১ আসনের সংসদ সদস্য কাজিম উদ্দিন আহম্মেদের প্রশ্নের জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, জনস্বাস্থ্য নিরাপত্তার স্বার্থে ওষুধের গুণগত মান নিয়ন্ত্রণে সরকার সচেষ্ট রয়েছে। নকল-ভেজাল ওষুধ বিক্রি প্রতিরোধে কঠোর সরকার। আর নকল ওষুধ উৎপাদন ও বাজারজাতকরণের বিরুদ্ধে সরকার নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করছে। ২০২০-২১ অর্থবছরে মোবাইল কোর্টে ১ হাজার ৭১৫টি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এতে ৭ কোটি ৫৮ লাখ ১০০ টাকা জরিমানা আদায় করা হয়েছে।

২০২১ সালের জানুয়ারি হতে নভেম্বর পর্যন্ত ৪৬টি ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের উৎপাদন লাইসেন্স সাময়িক বাতিল করা হয়েছে। এর মধ্যে হোমিও ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ১৭টি, হার্বাল ওষুধ উৎপাদনকারী ৪টি, অ্যালোপ্যাথিক ৫টি, ইউনানি ৬ এবং আয়ুর্বেদিক ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান ১৪টি। একই সময়ে ১৪টি উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের সব ধরনের ওষুধ উৎপাদন ও বাজারজাতকরণ স্থগিত করা হয়।


আরও খবর



ওমিক্রনের ধাক্কায় বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দরপতন

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৩৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

করোনার নতুন ধরন ওমিক্রন উদ্বেগে বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমেছে ১০ শতাংশেরও বেশি। শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) মার্কিন তেলের বেঞ্চমার্ক ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েটের দাম ১৩ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ব্যারেল প্রতি ৬৮ দশমিক ১৫ ডলার।

এছাড়াও, আন্তর্জাতিক বেঞ্চমার্ক ব্রেন্ট ক্রুডের দাম ১২ শতাংশ কমে ব্যারেল প্রতি বিক্রি হয়েছে ৭২ দশমিক ৭২ ডলারে। গত সপ্তাহেও জ্বালানি তেলের দাম ছিল ব্যারেল প্রতি ৮০ ডলার ছুঁই ছুঁই।

২০২০ সালের এপ্রিল, অর্থাৎ করোনা মহামারির প্রথমদিকে রেকর্ড ধসের পর বিশ্ববাজারে তেলের দামের এটাই সবচেয়ে বড় পতন। শুধু তেলের বাজারই নয়, ওমিক্রনের ধাক্কায় অস্থির হয়ে উঠেছে শেয়ারবাজারও।

রয়টার্সের তথ্য বলছে, শুক্রবার যুক্তরাষ্ট্রের ডাও জোনস ইন্ডাস্ট্রিয়াল অ্যাভারেজের সূচক কমেছে দুই দশমিক পাঁচ শতাংশ, যা ২০২০ সালের অক্টোবরের পর থেকে তাদের সবচেয়ে বাজে পরিস্থিতি।

উল্লেখ্য, গত সপ্তাহে দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনাভাইরাসের নতুন ধরণ বি.১.১.৫২৯ প্রথম শনাক্ত হয়। এটিকে অতি সংক্রামক এবং উদ্বেগজনক হিসেবে দেখছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাসহ বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীরা।

ধরনটির সংক্রমণ রোধ করতে ইতোমধ্যে দক্ষিণ আফ্রিকাসহ আফ্রিকার কয়েকটি দেশ থেকে পর্যটক আসা নিষিদ্ধ করেছে বাংলাদেশসহ বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশ।


আরও খবর



টিভি নাটকে নারীদের উপস্থিতি নিষিদ্ধ করেছে তালেবান

প্রকাশিত:সোমবার ২২ নভেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৮ নভেম্বর ২০২১ | ৬৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আফগানিস্তানে টিভি নাটকে নারীদের উপস্থিতি নিষিদ্ধ করেছে দেশটির ক্ষমতাসীন তালেবান সরকার। নতুন আইন করে টিভি নাটকে নারীদের উপস্থিতি নিষিদ্ধ করল কট্টরপন্থি এই গোষ্ঠীটি। সোমবার (২২ নভেম্বর) এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানিয়েছে ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি।

এছাড়া নারী সাংবাদিক ও টেলিভিশনে কর্মরত উপস্থাপিকাদেরও হিজাব পরার নির্দেশনা দিয়েছে আফগান সরকার। যদিও তাদেরকে কোন ধরনের হিজাব পরতে হবে সেটি নতুন ওই গাইডলাইনে উল্লেখ নেই। আফগান সাংবাদিকরা বলছেন, আফগান সরকারের কিছু নিয়ম অস্পষ্ট এবং সেগুলোর ব্যাখ্যা প্রয়োজন।

গত আগস্ট মাসের মাঝামাঝি সময়ে আফগানিস্তানের ক্ষমতা দখল করে তালেবান। এরপর আশঙ্কা বাড়ছে যে, তালেবান কার্যত কট্টরপন্থার দিকেই এগিয়ে যাচ্ছে এবং নারীদের ওপর কঠোর নিয়মকানুন আরোপ করছে।

বিবিসি বলছে, তালেবানের সর্বশেষ গাইডলাইনগুলো মূলত আফগান টেলিভিশন চ্যানোলগুলোকে লক্ষ্য করেই সামনে আনা হয়েছে। এই গাইডলাইনে ৮টি নতুন নিয়ম রয়েছে।

নতুন নিয়মে ইসলাম বা শরীয়াহ পরিপন্থি এবং আফগান মূল্যবোধের বিরুদ্ধে কোনো সিনেমা তৈরি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এছাড়া সিনেমার দৃশ্যে পুরুষের অনাবৃত শরীর দেখানোও নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

কৌতুক ও বিনোদনের অনুষ্ঠানগুলোতে ধর্মকে অসম্মান করে এমন এবং আফগানদের জন্য আক্রমণাত্মক হিসেবে মনে হতে পারে এমন অনুষ্ঠান নিষিদ্ধ করা হয়েছে। একইসঙ্গে বিদেশি সংস্কৃতিকে ছড়িয়ে দিতে পারে এমন বিদেশি সিনেমা প্রদর্শনের ব্যাপারেও নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

বিবিসি বলছে, আফগান টেলিভিশন চ্যানেলগুলো প্রধানত বিদেশি নাটকই প্রচার করে থাকে এবং সেসব নাটকের প্রধান চরিত্রেও থাকেন নারীরা।

আফগানিস্তানের গণমাধ্যম বিষয়ক একটি সংগঠনের সদস্য হুজাতুল্লাহ মুজাদ্দেদি তালেবানের নতুন এই বিধিনিষেধকে অপ্রত্যাশিত বলে আখ্যায়িত করেছেন। বিবিসিকে তিনি বলেছেন, তালেবানের আরোপিত নতুন নিয়মের কয়েকটি বাস্তবসম্মত নয় এবং এই নিয়ম কার্যকর হলে সম্প্রচারকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ হয়ে যাবে।

তালেবানের নিষ্ঠুর শাসনের ভয় বিরাজ করছে আফগানিস্তানজুড়ে। ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত তালেবানের শাসনামলে নারীদের শিক্ষা ও চাকরির অধিকার ছিল না। তারা পুরুষসঙ্গী ছাড়া একা বাড়ি থেকে বের হতে পারতেন না।

এ কারণেই গত ১৫ আগস্ট তালেবান আফগানিস্তানের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের দখলে নেওয়ার পর থেকেই ব্যাপকভাবে এই উদ্বেগ জারি রয়েছে যে, আবারও হয়তো আফগানিস্তানের নারী ও মেয়েরা অধিকার থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।


আরও খবর