Logo
শিরোনাম

ইতিহাসে আজকের এই দিনে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৮ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৮৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আজ ৮ ডিসেম্বর ২০২২, বৃহস্পতিবার। ২৩ অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ। গ্রেগরিয়ান বর্ষপঞ্জী অনুসারে বছরের ৩৪৩ তম (অধিবর্ষে ৩৪৪ তম) দিন। এক নজরে দেখে নিন ইতিহাসের এ দিনে ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য ঘটনা, বিশিষ্টজনের জন্ম-মৃত্যুদিনসহ গুরুত্বপূর্ণ আরও কিছু বিষয়।

ঘটনাবলি:

১৬০৯ - ইউরোপের দ্বিতীয় পাবলিক লাইব্রেরি চালু হয়।

১৭৯৪ - হেরাল্ড অব রুটল্যান্ডের প্রথম সংখ্যা প্রকাশিত হয়।

১৮৬৮ - জাপানে শুউগুনদের একনায়ক শাসনের অবসান ঘটে এবং এরপর থেকে সেদেশে সাংস্কৃতিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক সংস্কার প্রক্রিয়া শুরু হয়।

১৮৮১ - ভিয়েনার রিং থিয়েটার পুড়ে যায়।

১৯১৪ - আর্জেন্টিনার উপকণ্ঠে একটি দ্বীপপুঞ্জের কাছে ফাল্কল্যাণ্ড সাগরে ব্রিটিশ ও জার্মানির মধ্যে বড় ধরনের যুদ্ধ সংঘটিত হয়েছিল।

১৯১৭ - ব্রিটেনের কাছে জেরুজালেমের আত্মসমর্পণ।

১৯১৮ - ব্রিটেন জেরুজালেম দখল করে।

১৯২৩ - যুক্তরাষ্ট্র ও জার্মানির মধ্যে বন্ধুত্ব চুক্তি হয়।

১৯৩০ - কলকাতা শহরের মহাকরণে অলিন্দ যুদ্ধে বিনয় বসু, বাদল গুপ্ত, দীনেশ গুপ্ত অত্যাচারী ইংরেজ অফিসার এন জি সিম্পসন হত্যা করেন।

১৯৪১ - গ্রেট ব্রিটেন, অস্ট্রেলিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র জাপানের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে।

১৯৪৬ - সংবিধান রচনার জন্য দিল্লিতে ভারতের গণপরিষদের প্রথম সভা হয়।

১৯৪৯ - চীনের জাতীয়তাবাদী নেতা চিয়াং কাইশেক মাওসেতুং এর নেতৃত্বে কমিউনিষ্ট দলের সমর্থকদের কাছে পরাজিত হওয়ার পর কিছু সংখ্যক সমর্থক নিয়ে তাইওয়ানে পালিয়ে যান।

১৯৫৮ - নিখিল আফ্রিকা গণ সম্মেলন ঘানার রাজধানী আক্রায় অনুষ্ঠিত হয় ।

১৯৭১ - ভারত পাকিস্তান যুদ্ধে ভারতীয় নৌবাহিনী পাকিস্তানের করাচী বন্দরে হামলা করে।

১৯৭১ - শেরপুরের নকলা পাক হানাদার মুক্ত হয়।

১৯৭২ - বাংলাদেশকে স্বাধীন দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয় ঘানা।

১৯৭৪ - গ্রীসে রাজতন্ত্র বিলুপ্ত হয়।

১৯৮৫ - দক্ষিণ এশীয় আঞ্চলিক সহযোগিতা সংস্থা তথা সার্ক ঢাকায় গঠিত হয়।

১৯৮৭ - ফিলিস্তিনে ইহুদি বসতকারী ইজরায়েলের সৈন্যরা গাজা সীমান্তে এক সড়ক দূর্ঘটনায়’ ৪ ফিলিস্তিনিকে হত্যা করে ও ৭ জনকে আহত করে। এর ফলে ইন্তিফাদা আন্দোলন শুরু হয়।

১৯৯১ - রাশিয়া, বেলারুশ ও ইউক্রেইনের নেতারা একটি চুক্তির মাধ্যমে সোভিয়েত ইউনিয়ন বিলুপ্ত করেন এবং কমনওয়েলথ অব ইন্ডিপেন্ডেন্ট স্টেটস গঠন করেন।

১৯৯৬ - জাকার্তায় ওআইসি পররাষ্ট্রমন্ত্রী সম্মেলন শুরু হয়।

১৯৯৭ - ৪৫ বছর বয়স্ক জেনী হিপলি নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথগ্রহণ করেন এবং নিউজিল্যান্ডের ইতিহাসে প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী হন।

২০০৯ - বাগদাদে এক বোমা বিষ্ফোরণে ১২৭ জন নিহত ও ৪৪৮ জন আহত হয়।

জন্ম:

১৬২৬ - সুইডেনের রানি ক্রিশ্চিয়ানা।

১৮৩২ - নোবেলজয়ী নরওয়েজীয় কবি ও নাট্যকার বিওর্নস্টার্নে বিওর্নসন।

১৮৬৫ - জাক হাদামার্দ, ফরাসি গণিতবিদ।

১৯০০ - ভারতের খ্যাতিমান নৃত্যশিল্পী, নৃত্যপরিকল্পক ও অভিনেতা উদয়শঙ্কর।

১৯১৩ - কমিউনিস্ট বুদ্ধিজীবী ও ইতিহাসবিদ চিন্মোহন সেহানবীশ।

১৯৪১ - জিওফ্রে চার্লস হার্স্ট, ইংরেজ ফুটবলার।

১৯৪২ - হেমন্ত কানিদকর, ভারতীয় ক্রিকেটার।

১৯৪৩ - জিম মরিসন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, আমেরিকান সংগীতশিল্পী, গীতিকার, লেখক, চলচ্চিত্র পরিচালক এবং কবি।

মৃত্যু:

১৫৬০ - সুইডেনের রাজা ফ্রেডরিক।

১৯০৩ - খ্যাতনামা ব্রিটিশ চিন্তাবিদ ও দার্শনিক হার্বার্ট স্পেন্সার।

১৯২০ - শাইখুলহিন্দ হযরত মাওলানা মাহমুদ হোসাইন।

১৯৫৫ - হেরমান ভাইল, জার্মান গণিতবিদ।

১৯৮০ - বিটলসের কিংবন্তী গায়ক, গীতিকার ও শান্তিকর্মী জন লেনন নিউ ইয়র্কে মার্ক ডেভিড চাপম্যান নামক মানসিক ভারসাম্যবিহীন এক ব্যক্তির গুলিতে নিহত হন।

১৯৮৬ - আ. ন. ম. বজলুর রশীদ, বাংলাদেশী সাহিত্যিক ও শিক্ষাবিদ।

১৯৯১ - মেলবোর্ন অলিম্পিক তিন হাজার মিটার, পাঁচ হাজার মিটার ও ৬ মাইল দৌড় প্রতিযোগিতায় রেকর্ড সৃষ্টিকারী অ্যাথলিট গর্ডন পিরি।

নিউজ ট্যাগ: আজকের এই দিনে

আরও খবর

১৮ জানুয়ারি: ইতিহাসের এই দিনে

বুধবার ১৮ জানুয়ারী ২০২৩

১৭ জানুয়ারি: আজকের এই দিনে

মঙ্গলবার ১৭ জানুয়ারী ২০২৩




কিডনি রোগের ওষুধে ব্যবসা বাড়াচ্ছে অ্যাস্ট্রাজেনেকা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক বায়োফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি সিনকোর ফার্মা অধিগ্রহণ করছে অ্যাস্ট্রাজেনেকা। কিডনি ও হৃদরোগসংক্রান্ত ওষুধের বাজারে আধিপত্য বিস্তার করার লক্ষ্য নিয়ে সোমবার ১৮০ কোটি ডলারের একটি চূড়ান্ত চুক্তি স্বাক্ষর করেছে প্রতিষ্ঠানটি। চুক্তির আওতায় কোম্পানিটি শিগগিরই সিনকোর ফার্মার অবশিষ্ট সব শেয়ার কিনতে শেয়ারপ্রতি নগদ ২৬ ডলার ব্যয় করবে। চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকেই (জানুয়ারি-মার্চ) চুক্তিটি সম্পূর্ণ হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

সিনকোর ফার্মা দীর্ঘ সময় ধরে কিডনি রোগ প্রতিরোধ ও অনিয়ন্ত্রিত উচ্চ রক্তচাপের জন্য চিকিত্সা বিকাশের কাজ করছে। প্রতিষ্ঠানটির মূল্যবান সম্পদ হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে ব্যাক্সড্রোস্ট্যাট। এটি বর্তমানে উচ্চ রক্তচাপ ও কিডনি রোগীর চিকিৎসার জন্য ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে আছে। প্রাথমিক পরীক্ষায় কর্টিসলের মাত্রা প্রভাবিত না করেই অ্যালডোস্টেরনের মাত্রা উল্লেখযোগ্যভাবে কমানোর ক্ষমতা লক্ষ্য করা গেছে ব্যাক্সড্রোস্ট্যাটের মধ্যে। অ্যাস্ট্রাজেনেকা জানিয়েছে, ব্যাক্সড্রোস্ট্যাট যোগ হলে হৃদরোগ সম্পর্কিত ওষুধের পাইপলাইন জোরালো হবে।

অ্যাস্ট্রাজেনেকা ফার্মাসিউটিক্যালসের গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগের এক্সিকিউটিভ ভাইস প্রেসিডেন্ট মেনে প্যানগ্যালোস বলেন, সিনকোর অধিগ্রহণ আমাদের হৃদরোগ নিরাময়সংক্রান্ত প্রতিশ্রুতিকে সমর্থন করে ও ব্যাক্সড্রোস্ট্যাট ওষুধ বাজারে আমাদের সক্ষমতা আরো শক্তিশালী করবে। শরীরে অ্যালডোস্টেরনের অতিরিক্ত মাত্রা উচ্চ রক্তচাপ, দীর্ঘস্থায়ী কিডনি রোগ এবং করোনারি ধমনী রোগসহ বেশ কয়েকটি হৃদরোগের সঙ্গে সম্পৃক্ত। অ্যালডোস্টেরনের মাত্রা কার্যকরভাবে কমানো এ ধরনের রোগাক্রান্ত রোগীর জন্য বিকল্প চিকিত্সা।

সিনকোরের প্রধান নির্বাহী মার্ক ডি গ্যারিডেল বলেন, সিনকোর ফার্মা কেনার ব্যাপারে অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রস্তাব গ্রহণে আমরা উত্সাহী। কেননা আমরা বিশ্বাস করি, চুক্তিটি এ ধরনের ওষুধের উন্নয়নকে গতিশীল করবে। পাশাপাশি অনুমোদিত হলে হৃদরোগ আক্রান্ত রোগীদের ব্যাক্সড্রোস্ট্যাট থেকে সুফল পাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

অ্যাস্ট্রাজেনেকার প্রায় এক-তৃতীয়াংশ আয় আসে ক্যান্সার চিকিত্সার ওষুধ থেকে। বর্তমানে হৃদরোগ, কিডনি ও ডায়াবেটিসের ওষুধগুলো প্রতিষ্ঠানটির দ্বিতীয় সর্বোচ্চ লাভজনক ব্যবসা।


আরও খবর



এলপি গ্যাসের নতুন দাম নির্ধারণ

প্রকাশিত:সোমবার ০২ জানুয়ারী 2০২3 | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

তরলীকৃত পেট্রোলিয়াম গ্যাসের (এলপিজি) নতুন দাম নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি)।

সোমবার (২ জানুয়ারি) ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বিইআরসি চেয়ারম্যান মো. আবদুল জলিল জানান, ভোক্তা পর্যায়ে ১২ কেজি এলপিজি সিলিন্ডারের দাম ৬৫ টাকা কমিয়ে ১ হাজার ২৩২ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। আজ থেকেই এ দাম কার্যকর হবে।

এর আগে, ডিসেম্বরে ১২ কেজি সিলিন্ডারের দাম ১ হাজার ২৫১ টাকা থেকে ৪৬ টাকা বাড়িয়ে ১ হাজার ২৯৭ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছিল।

এ ছাড়া গত আগস্টের শুরুতে এলপিজির দাম ছিল ১ হাজার ২১৯ টাকা, জুলাইয়ে ছিল ১ হাজার ২৫৪ টাকা, জুনে ছিল ১ হাজার ২৪২ টাকা, মে মাসে ছিল ১ হাজার ৩৩৫ টাকা।

নিউজ ট্যাগ: এলপিজি বিইআরসি

আরও খবর



বিদ্যুতের দাম বাড়ল, কার্যকর ১ জানুয়ারি থেকে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১২ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৮৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গ্রাহক পর্যায়ে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম ১৯ পয়সা করে বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। ১ জানুয়ারি থেকেই বিদ্যুতের নতুন দাম কার্যকর হবে। বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) এক নির্বাহী আদেশে বিদ্যুতের দামবৃদ্ধির এ তথ্য জানানো হয়। এখন থেকে প্রতি মাসে বিদ্যুতের খুচরা দাম সমন্বয় করা হবে বলেও আদেশে উল্লেখ করা হয়।

গত ৮ জানুয়ারি সকাল ১০টায় রাজধানীর বিয়াম মিলনায়তনে বিদ্যুৎ সঞ্চালন সংস্থা ও বিতরণ কোম্পানিগুলোর গ্রাহক পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধির আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। এরপর ইউনিটপ্রতি ১ টাকা ২১ পয়সা বাড়ানোর সুপারিশ করেছিল বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) কারিগরি কমিটি।


আরও খবর



ব্রজিলের প্রেসিডেন্ট ভবন ও সুপ্রিম কোর্টে তাণ্ডব, গ্রেপ্তার ৪০০

প্রকাশিত:সোমবার ০৯ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ২২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ব্রাজিলে প্রেসিডেন্ট ভবনসহ গুরুত্বপূর্ণ প্রশাসনিক ভবনে তাণ্ডব চালানোর অভিযোগে অন্তত ৪০০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। স্থানীয় সময় গতকাল রোববার তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। এর আগে দেশটির সাবেক ডানপন্থী প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারোর সমর্থকরা দেশটির কংগ্রেস, প্রেসিডেন্ট ভবন এবং সুপ্রিম কোর্টে ব্যাপক তাণ্ডব চালায়।

এ বিষয়ে দেশটির ফেডারেল ডিস্ট্রিক্টের গভর্নর ইবানেস রোচা এক টুইট বার্তায় বলেন, গ্রেপ্তাররা তাদের অপরাধের জন্য সমুচিত জরিমানা দেবে।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএন-এর ব্রাজিল প্রতিনিধি জানিয়েছেন, দেশটির কংগ্রেস, প্রেসিডেন্ট ভবন এবং সুপ্রিম কোর্ট এলাকা থেকে বিক্ষুব্ধদের সরিয়ে দিয়েছে পুলিশ। একজন ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তা অঙ্গীকার করেছেন, এসব স্থানে তাণ্ডবকারীদের অবশ্যই শাস্তি দেওয়া হবে।

ব্রাজিলে সরকারি ভবনগুলোর ক্ষয়ক্ষতি এবং সেসব স্থানে আক্রমণের ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন দেশটির সাবেক প্রেসিডেন্ট জাইর বলসোনারো। তবে ঘটনাটি দুই বছর আগে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সমর্থকদের মার্কিন ক্যাপিটলে আক্রমণ করার বিষয়টি মনে করিয়ে দিয়েছে।

আজ সোমবার বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, গতকাল বলসোনারোর সমর্থকদের তাণ্ডব চালানোর পর ব্রাজিলের বর্তমান বামপন্থী প্রেসিডেন্ট লুইস ইনাসিও লুলা দা সিলভা রাজধানী ব্রাসিলিয়ায় আগামী ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত ফেডারেল নিরাপত্তা হস্তক্ষেপ ঘোষণা করেন। এর আগে ২০২২ সালের ৩০ অক্টোবরের নির্বাচনে তৎকালীন প্রেসিডেন্ট বলসোনারোকে পরাজিত করেছিলেন তিনি।

অবশ্য হামলার এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত প্রাণহানির কোনো খবর পাওয়া যায়নি। গতকাল ব্রাসিলিয়ায় যখন এই হামলা হয় তখন বর্তমান প্রেসিডেন্ট লুলা সেখানে ছিলেন না। তিনি বন্যা বিধ্বস্ত আরারাকোয়ারা শহরে পরিদর্শনে গিয়েছিলেন। সেখানে থাকা অবস্থায় হামলার খবর পেয়ে ডিক্রি জারি করেন। এ ঘটনার তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় হামলাকারীদের ধর্মান্ধ ফ্যাসিস্ট বলে আখ্যায়িত করেছেন ব্রাজিল প্রেসিডেন্ট লুলা।

সবাইকে শাস্তির আওতায় আনা হবে জানিয়ে ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট বলেন, যে সমস্ত লোকজন এই হামলা করেছে, তাদের খুঁজে বের করা হবে এবং শাস্তি দেওয়া হবে।


আরও খবর



চলতি বছর কর্মীদের বেতন বাড়াবে জাপানি প্রতিষ্ঠানগুলো

প্রকাশিত:সোমবার ২৩ জানুয়ারী 20২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কর্মীদের বেতন বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে জাপানের বৃহত্তম প্রতিষ্ঠানগুলো। প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদার আহ্বানে সাড়া দিয়ে দেশটির অর্ধেকেরও বেশি বৃহত্তম প্রতিষ্ঠান চলতি বছর শ্রমিকদের মজুরি বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে। সংবাদ সংস্থা রয়টার্সের সাম্প্রতিক এক জরিপে এ তথ্য উঠে এসেছে। বৈশ্বিক অর্থনীতির মন্দা পরিস্থিতি ও ভোগ্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি জাপানি নাগরিকদের বেশ ভোগাচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী কিশিদা বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে প্রতিষ্ঠানগুলোকে কর্মচারীদের বেতন বাড়ানোর সর্বাধিক চেষ্টা করতে বলেছেন। এ ব্যাপারে কিশিদার প্রশাসন বারবার বড় প্রতিষ্ঠানগুলোকে অনুরোধ করে আসছেন। ৪০ বছরের মধ্যে দ্রুততম মূল্যস্ফীতির সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে হিমশিম খাচ্ছে দেশটির অর্থনীতি।

প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে এরই মধ্যে সাড়া দিচ্ছে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। গত সপ্তাহে পোশাক উৎপাদক প্রতিষ্ঠান ইউনিকলোর নিয়ন্ত্রক ফাস্ট রিটেইলিং কোম্পানি জানিয়েছে, প্রতিষ্ঠানটি চলতি বছর প্রায় ৪০ শতাংশ পর্যন্ত বেতন বাড়াবে।

জাপানে প্রতি বছরের বসন্ত মৌসুমে (ফেব্রুয়ারি ও মার্চে) শ্রমিক ইউনিয়ন ও প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে বেতনবিষয়ক আলোচনা হয়। এ সময়কে সামনে রেখে প্রতিষ্ঠানগুলো নিয়ে জরিপ করেছে রয়টার্স। জরিপে দেখা গেছে, প্রতিষ্ঠানগুলোর ২৪ শতাংশ ম্যানেজার জানিয়েছেন নিয়মিত নির্ধারিত বেতন বৃদ্ধির পাশাপাশি মূল বেতনের ব্যাপক বৃদ্ধির পরিকল্পনা করছে তারা। ২৯ শতাংশ ম্যানেজার জানিয়েছেন, তারা শুধু নিয়মিত বেতন বৃদ্ধি করবে। এছাড়া ৩৮ শতাংশ ম্যানেজার জানিয়েছেন বিষয়টি নিয়ে তারা এখনো কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছেননি।

রাকুতেন সিকিউরিটিজের চিফ স্ট্র্যাটেজিস্ট মাসায়িকি কুবতা বলেন, প্রধানমন্ত্রী কিশিদা বেতন বাড়ানোর কথা বলেছেন। তবে বেতন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত প্রধানমন্ত্রী বা প্রেসিডেন্টের কথায় করা হয় না। বেতন বাড়ানোর জন্য প্রতিষ্ঠানগুলোকে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করতে হবে। এজন্য দক্ষ জনবল প্রয়োজন। মাসাসিকি কুবতার মতে, যদি প্রাতিষ্ঠানিক প্রবৃদ্ধি প্রতিযোগিতামূলক না হয়, তাহলে বেতন বাড়ানোর ফলে খরচ বাড়বে। পরিস্থিতি তখন আরো খারাপ হবে।

রয়টার্সের জরিপে অংশ নেয়া মোট ৩৪ শতাংশ প্রতিষ্ঠান জানিয়েছে, কমপক্ষে ৩ শতাংশ বেতন বাড়ানোর পরিকল্পনা রয়েছে তাদের। অক্টোবরে রয়টার্সের আরেক জরিপের তুলনায় এ হার কিছুটা বেড়েছে। জরিপটি শুধু বৃহত্তম প্রতিষ্ঠানগুলোকে নিয়ে পরিচালনা করা হয়েছে। ফলে দেশটির অধিকাংশ কর্মসংস্থান সরবরাহকারী ক্ষুদ্র ও মাঝারি আকারের প্রতিষ্ঠানগুলোর পরিস্থিতি জানা যায়নি। জাপানের ব্যবসায়ী, অর্থনীতিবিদ ও সরকারি কর্মকর্তাদের মতে, ছোট ব্যবসায়ীরা সাধারণত বেতন বাড়াতে পারে না। কেননা তারা প্রায়ই গ্রাহকদের ধরে রাখতে গুণগত মান বজায় রেখে কম মুনাফা অর্জন করে।

জরিপ বলছে, বড় প্রতিষ্ঠানগুলো প্রধানমন্ত্রী কিশিদার অন্য আরেকটি পরিকল্পনায় তেমন আগ্রহী নয়। অন্য পরিকল্পনাটি হলো, চীন ও উত্তর কোরিয়া থেকে ক্রমবর্ধমান হুমকি মোকাবেলায় সামরিক ব্যয় বহন করা। জাপানিজ প্রধানমন্ত্রী সামরিক ব্যয় বহনের জন্য বড় প্রতিষ্ঠানগুলোকে ৪ শতাংশ কিংবা ৪ দশমিক ৫ শতাংশ করপোরেট ট্যাক্সের অতিরিক্ত অর্থ প্রদানের আহ্বান জানিয়েছেন। নতুন এ পরিকল্পনা ২০২৪ অর্থবছর বা তার পরে কার্যকর হবে।

জরিপে অংশ নেয়া ৪৯৫টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ৫৪ শতাংশ প্রতিষ্ঠান সামরিক ব্যয়ের পরিকল্পনাকে সমর্থন করেছে। এছাড়া ২৯ শতাংশ প্রতিষ্ঠান করপোরেট করের হার বাড়ানোয় সম্মত হয়েছে। রয়টার্সের অক্টোবর সমীক্ষায় ৮১ শতাংশ প্রতিষ্ঠান জানিয়েছে, তারা সামরিক ব্যয়ের উদ্দেশ্যে করপোরেট ট্যাক্স বাড়ানোর পক্ষে। ২০ শতাংশ প্রতিষ্ঠান বলেছে, এর জন্য করপোরেট ট্যাক্স তুলে নেয়া উচিত।

নিউজ ট্যাগ: জাপান

আরও খবর