Logo
শিরোনাম

ইতিহাসের এই দিনে: ৭ জুন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৭ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৬৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আজ ০৭ জুন ২০২২,  মঙ্গলবার, ২৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ। বর্ষপঞ্জি অনুসারে বছরের ১৫৮ তম দিন। বছর শেষ হতে আরো ২০৭ (অধিবর্ষে ২০৯) দিন বাকি রয়েছে। 

আজকের দিনটি সময়ের হিসাবে অতি অল্প সময়। আবার একটি ঘটনার জন্য যথেষ্ট সময়। ইতিহাস ঘেঁটে দেখা যায় বছরের প্রতিটি দিনেই ঘটেছে নানা উল্লেখযোগ্য ঘটনা। অনেকের আজ জন্মবার্ষিকী আবার কেউ মৃত্যুবরণ করেছিলেন এই দিনেই।

চলুন এক নজরে দেখে নেয়া যাক আজকের দিনের ঘটে যাওয়া উল্লেখযোগ্য কিছু বিষয়-  

ঘটনাবলি:

১০৯৯ - ক্রুসেডাররা জেরুজালেমে প্রবেশ করে।

১৪১৩ - নেপলসের রাজা ল্যাডিস্ল রোম দখল করেন।

১৫৪৬ - আরড্রেস শান্তিচুক্তির মাধ্যমে ফ্রান্স ও স্কটল্যান্ডের সঙ্গে ইংল্যান্ডের যুদ্ধাবসান ঘটে।

১৫৫৭ - ইংল্যান্ড ফ্রান্সের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে।

১৬৫৪ - ষোড়শ লুই ফ্রান্সের রাজা হিসেবে অভিষিক্ত হন।

১৭৬৫ - উত্তর পারস্যে ভূমিকম্পে ৪০ হাজার লোক মৃত্যুবরণ করে।

১৮১০ - নবাব সৈয়দ জিনে উদ্দিন বাংলার মসনদে আরোহণ করেন।

১৮৭৯ - ল্যাটিন আমেরিকার তিনটি দেশ পেরু, চিলি ও বলিভিয়ার মধ্যে পাঁচ বছরের যুদ্ধ শুরু হয়।

১৯০৪ - সুইডেনের কাছ থেকে নরওয়ে স্বাধীনতা লাভ করে।

১৯৬৬ - ছয় দফার সমর্থন ও পূর্ণ আঞ্চলিক স্বায়ত্তশাসনের দাবিতে পূর্ব বাংলায় হরতাল পালিত হয়। পুলিশের গুলিতে ১১ জন নিহত ও শত শত আহত হয়।

১৯৭১ - মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তান সরকার কর্তৃক ৫শ’ ও ১শ’ টাকার নোট বাতিল ঘোষণা করা হয়।

১৯৭৩ - বাংলাদেশের পার্বত্যাঞ্চলে সন্তু লারমার নেতৃত্বে শান্তিবাহিনী গঠিত হয়।

১৯৭৫ - ইংল্যান্ডে প্রথম বিশ্বকাপ ক্রিকেট অনুষ্ঠিত হয়।

১৯৮০ - ইহুদিবাদী ইসরাইলের জঙ্গীবিমানগুলো ইরাকের রাজধানী বাগদাদের কাছে অবস্থিত ইরাকী পারমাণবিক স্থাপনায় এক আগ্রাসী অভিযান চালিয়ে তা ধ্বংস করে দেয়।

১৯৮৮ - বাংলাদেশের সংসদে সংবিধানের অষ্টম সংশোধনী গৃহীত হবার মাধ্যমে পবিত্র ইসলাম ধর্মকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রধর্ম ঘোষণা করা হয়।

১৯৮৯ - সুরিনামে বিমান দুর্ঘটনায় ১৬২ জন মৃত্যুবরণ করে।

১৯৯১ - পাকিস্তানে ট্রেন দুর্ঘটনায় ২শ’ যাত্রীর প্রাণহানি ঘটে।

১৯৯২ - আজারবাইজানে প্রথম বহুদলীয় প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে এবুলতাজ এলসিব জয়লাভ করেন।

জন্ম:

১৫৬ - ওয়ু হান, তিনি ছিলেন চিনের সম্রাট।

১৫০২ - তৃতীয় জন, তিনি ছিলেন পর্তুগালের রাজা।

১৭৭০ - রবার্ট জেঙ্কিন্সন, তিনি ছিলেন ইংরেজ রাজনীতিবিদ ও যুক্তরাজ্য প্রধানমন্ত্রী।

১৮১১ - জেমস ইয়াং সিম্পসন, স্কটিশ ডাক্তার।

১৮৩৭ - অ্যালোইস হিটলার, তিনি অ্যাডলফ হিটলারের বাবা।

১৮৪৩ - মার্কিন শিক্ষাব্রতী ও আমেরিকায় প্রথম কিন্ডারগার্টেন স্কুলের সূচনাকারী সুশান এলিজাবেথ ব্লো। 

১৮৪৮ - পল গোগাঁ, ঊনিশ শতকের প্রখ্যাত ফরাসি চিত্রকর।

১৮৬২ - ফিলিপ এডুয়ার্ড আন্টন ফন লেনার্ড, তিনি ছিলেন নোবেল পুরস্কার বিজয়ী স্লোভাক বংশোদ্ভূত জার্মান পদার্থবিজ্ঞানী।

১৮৬৮ - চার্লস রেনিয়ে ম্যাকিন্টস, তিনি ছিলেন স্কটিশ চিত্রশিল্পী ও স্থপতি।

১৮৬৮ - মোহাম্মদ আকরম খাঁ, একজন বাঙালি সাংবাদিক, রাজনীতিবিদ, সাহিত্যিক এবং ইসলামী পণ্ডিত।

১৮৭১ - খাজা সলিমুল্লাহ, ঢাকার নবাব।

১৮৭৯ -আর্নেস্ট হার্টসফিল্ড, তিনি ছিলেন জার্মানীর বিখ্যাত প্রাচ্যবিদ ও ইরান-বিশেষজ্ঞ।

১৮৯৬ - রবার্ট সেন্ডারসন মুল্লিকেন, মার্কিন পদার্থবিজ্ঞানী এবং রসায়নবিজ্ঞানী।

১৮৯৬ - ইমরে নাগি, হাঙ্গেরির বিশিষ্ট সমাজতান্ত্রিক রাজনীতিবিদ।

১৯০৯ - জেসিকা ট্যান্ডি, ব্রিটিশ অভিনেত্রী।

১৯১৭ - রাজেন তরফদার, প্রখ্যাত বাংলা চলচ্চিত্র পরিচালক,অভিনেতা ও চিত্রনাট্যকার।

ডিন মার্টিন, তিনি ছিলেন আমেরিকান গায়ক, অভিনেতা ও প্রযোজক।

১৯২৮ - জেমস আইভরি, তিনি ছিলেন আমেরিকান পরিচালক, প্রযোজক ও চিত্রনাট্যকার।

১৯৩১ - ভার্জিনিয়া ম্যাকেনা, ব্রিটিশ অভিনেত্রী।

১৯৩৫ - শ্যামা, ভারতীয় অভিনেত্রী।

১৯৪৮ - জিম ওয়ালটন, আমেরিকান ব্যবসায়ী।

১৯৫২ - ওরহান পামুক, ২০০৬ সালের সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার বিজয়ী তুর্কী সাহিত্যিক।

১৯৫২ - লিয়াম নিসন, আইরিশ চলচ্চিত্র অভিনেতা।

১৯৫৫ -রঞ্জন ঘোষাল, ভারতীয় বাঙালি সঙ্গীতশিল্পী, গায়ক,গীতিকার, লেখক ও নাট্যব্যক্তিত্ব।

১৯৫৮ - প্রিন্স রজার্স নেলসন, বিখ্যাত মার্কিন সঙ্গীতশিল্পী।

১৯৫৯ - মাইক পেন্স, মার্কিন রাজনীতিবিদ এবং আইনজীবি।

১৯৬৪ - গ্রেইম লেব্রয়, সাবেক শ্রীলঙ্কান আন্তর্জাতিক ক্রিকেটার।

১৯৬৫ - মাইক ফোলি, আমেরিকান লেখক, অভিনেতা, এবং সাবেক পেশাদার কুস্তিগির এবং ধারাভাষ্যকার।

১৯৭০ - কাফু, ব্রাজিলীয় ফুটবল খেলোয়াড়।

১৯৭২ - ফেরদৌস, বাংলাদেশের একজন চলচ্চিত্র অভিনেতা।

মৃত্যু:

৮৬২ - আল-মুনতাসির, আব্বাসীয় খলিফা।

১৩২৯ - রবার্ট ব্রুস, তিনি ছিলেন স্কটল্যান্ডের রাজা।

১৫৬৫ - হুসাইন নিজাম শাহ, তিনি ছিলেন দাক্ষিণাত্যের রাজা।

১৮২৬ - ইয়োসেফ ফন ফ্রাউনহোফার, জার্মান আলোকবিজ্ঞানী।

১৯৩৭ - জিন হার্লো, মার্কিন চলচ্চিত্র অভিনেত্রী।

১৯৪৮ - লুই ল্যুমিয়ের, ফরাসি চলচ্চিত্র নির্মাতা ও চলচ্চিত্রের অগ্রদূত।

১৯৫৪ - অ্যালান টুরিং, ইংরেজ গণিতবিদ, যুক্তিবিদ ও ক্রিপ্টোবিশেষজ্ঞ।

১৮৬৩ - রিচার্ড মার্শ হো, তিনি ছিলেন রোটারি ছাপাখানার মার্কিন উদ্ভাবক।

১৯৬৫ - জুডি হলিডে, মার্কিন অভিনেত্রী, কৌতুকাভিনেত্রী ও গায়িকা।

১৯৬৭ - ডরোথি পার্কার, আমেরিকান কবি, লেখক, সমালোচক এবং বিদ্রুপাত্মক রচনাকার ছিলেন।

১৯৭০ - এডওয়ার্ড মরগ্যান ফরস্টার, একজন ইংরেজ ঔপন্যাসিক, ছোটোগল্পকার ও প্রাবন্ধিক।

১৯৭৮ - রোনাল্ড জর্জ রেফর্ড নোরিশ, ব্রিটিশ রসায়ন বিজ্ঞানী।

১৯৮০ - হেনরি মিলার, তিনি ছিলেন আমেরিকান লেখক।

২০০২ - বসপ্পা ধনপ্পা জত্তী, ভারতের পঞ্চম ভারতের উপরাষ্ট্রপতি।

২০১৫ - ক্রিস্টোফার লী, ইংরেজ অভিনেতা, গায়ক, লেখক এবং দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধে অংশগ্রহণকারী।

২০১৫ - শেখ রাজ্জাক আলী, বাংলাদেশি রাজনীতিবিদ ও সাবেক স্পিকার।

নিউজ ট্যাগ: ইতিহাসে এই দিনে

আরও খবর

৩০ জুন: ইতিহাসে আজকের এই দিনে

বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২




আসামির সঙ্গে নামের মিল থাকায় ১১ ঘণ্টা হাজতে

প্রকাশিত:শনিবার ০৪ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০২ জুলাই 2০২2 | ৮৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আসামির নাম, বাবার নাম ও ঠিকানার সঙ্গে মিল থাকায় অপরাধী না হয়েও প্রায় ১১ ঘণ্টা হাজতবাস করতে হয়েছে আবদুর রাজ্জাক সরদার (৫৩) নামে এক ব্যক্তিকে। পরে প্রকৃত আসামিকে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান ধরিয়ে দিলে মুক্তি মেলে তার। নিরপরাধ রাজ্জাক সরদার পেশায় রাজমিস্ত্রি। তিনি বাগমারা উপজেলার যোগিপাড়া ইউনিয়নের বাজেকোলা গ্রামের গরিবুল্যাহ সরদারের ছেলে। গত বৃহস্পতিবার (২ জুন) গভীর রাতে ঘুম থেকে জাগিয়ে তাকে ধরে নিয়ে যায় বাগমারা থানার পুলিশ।

বাগমারা গনিপুর ইউপির চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান বলেন, ২০২০ সালের ৯ ফেব্রুয়ারি গনিপুর ইউনিয়নের বাজেকোলা গ্রামের রিনা নামের এক নারী মামলাটি করেন। মামলায় রিনার সাবেক স্বামী আবদুর রাজ্জাককে আসামি করা হয়েছে। ওই রাজ্জাকের বাবার নামও গরিবুল্যাহ। তার বাড়িও বাজেকোলা গ্রামে। কাকতালীয়ভাবে তাদের নাম ও ঠিকানা মিলে যায়। তবে মামলায় ইউনিয়নের নামটি উল্লেখ ছিল না। এ কারণে নিরপরাধ আব্দুর রাজ্জাক সরদারকে গ্রেফতার করে নিয়ে যায় ভাগনদী পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের পুলিশ।

নাম, বাবার নাম ও ঠিকানার মিল থাকার ভুক্তভোগী আব্দুর রাজ্জাক সরদার বলেন, তথ্য ঠিকভাবে যাচাই-বাছাই না করেই আমাকে ১১ ঘণ্টা হাজতবাস করতে হয়েছে। পুলিশ যদি আসল আসামির খোঁজ না পেত, তবে হয়তো আমাকে আজীবন কারাবাসেই কাটাতে হতো। এর দায় কে নিত?

এ বিষয়ে গনিপুর ইউপি চেয়ারম্যান মনিরুজ্জামান বলেন, এ ঘটনার পর নিরপরাধ আব্দুর রাজ্জাক সরদারের স্ত্রী ও তার ছোট ভাই রেজাউল করিম আমার কাছে এসেছিলেন। তারা বিষয়টি আমাকে জানালে আমি বাগমারা থানা পুলিশকে বিষয়টি জানায় এবং সঠিক তদন্তের বিষয়ে বলি। প্রকৃত আসামির বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলার আগে আমার কাছেই বিচার বসেছিল। ঘটনাটি পুলিশকে জানানো হয়। পরে তারাও কাগজপত্র দেখে আসল আসামি শনাক্ত করে এবং তাকে গ্রেফতার করে।

এ বিষয়ে ভাগনদী পুলিশ তদন্তকেন্দ্রের উপ-পরিদর্শক আবুল কালাম বলেন, একই নাম, বাবার নাম এমনকি ঠিকানাও একই হওয়ায় স্বাভাবিকভাবেই এই ভুলটি আমার দ্বারা হয়ে গিয়েছিল। তবে পরে বিভিন্ন মারফত জানতে পারায় ভুল সংশোধন করে প্রকৃত আসামিকে ধরা হয়েছে এবং নিরপরাধ ব্যক্তিকে মুক্ত করা হয়েছে।

এ ঘটনার বিষয়ে বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মো. তৌহিদুর রহমান বলেন, সবকিছু মিল থাকায় এমন ঘটনা ঘটেছে। তবে নিরপরাধ ব্যক্তির স্বজন, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানসহ অনেকে বিষয়টি জানানোর পর আসামি সম্পর্কে সিডিএমএস চেক করা হয়। এরপর প্রকৃত আসামিকে ওই এলাকার গ্রাম পুলিশের মাধ্যমে গ্রেফতার করা হয়।

নিউজ ট্যাগ: হাজত হাজতবাস

আরও খবর



রাজশাহীর পুঠিয়ায় ট্রাক-লেগুনা সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ১২

প্রকাশিত:বুধবার ২২ জুন 20২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৪৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজশাহীর পুঠিয়ায় ট্রাক ও লেগুনা সংঘর্ষে ২ জন নিহত এবং ১২ জন যাত্রী আহত হয়েছেন। স্থানীয়দের সহায়তায় আহতদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। মঙ্গলবার ২১ জুন বিকাল ৩টার দিকে মহাসড়কের পুঠিয়া সদরের কাঠালবাড়িয়া-ঘোষপুকুরপাড় এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- উপজেলার ভালুকগাছি ইউনিয়নের নয়াপাড়া গ্রামের মনসুর রহমানের ছেলে ও লেগুনাচালক শামসুজ্জামান (৩৫) ও যাত্রী চারঘাট উপজেলা সদরের থানাপাড়া গ্রামের আব্দুল গফুরের ছেলে রাশেদুল ইসলাম (৪৫)।

মালবোঝাই একটি ট্রাক রাজশাহী থেকে নাটোরের দিকে যাচ্ছিল। অপরদিকে যাত্রীবাহী লেগুনা নাটোর থেকে রাজশাহীর দিকে যাচ্ছিল। পথে দুই গাড়ির মুখোমুখি সংর্ঘষ হয়। এতে ট্রাক চালক হেলপার পালিয়ে গেলেও লেগুনার দুইজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। আর বাকি যাত্রীরা গুরুতর আহত হয়েছেন।

পুঠিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক রফিকুল ইসলাম বলেন, একজন ঘটনাস্থলেই মারা যান। অপরজন হাসপাতালে আসার পথে মারা গেছেন। আর বাকি ১২ জনকে রামেক হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

পবা হাইওয়ে পুলিশের (শিবপুর থানা) ওসি মোফাকারুল ইসলাম দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মঙ্গলবার দুপুরে ট্রাক-লেগুনা সংর্ঘষে দুইজন মারা গেছেন। আর যারা আহত হয়েছেন তাদের চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে থানায় একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে।

 


আরও খবর



৪০৬ হজযাত্রী নিয়ে জেদ্দা গেলো বিমানের দ্বিতীয় ফ্লাইট

প্রকাশিত:সোমবার ০৬ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০১ জুলাই ২০২২ | ৬৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হজযাত্রার দ্বিতীয় দিন সোমবার (৬ জুন) ৪০৬ জন নিয়ে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর ছেড়ে গেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইট। সকাল ৯টায় এই ফ্লাইটটি সৌদি আরবের জেদ্দার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) তাহেরা খন্দকার।

তিনি জানান, আজ বিমানের দ্বিতীয় হজ ফ্লাইট (বিজি ৩০০৩) গেছে। বিমানটি জেদ্দায় পৌঁছাবে স্থানীয় সময় দুপুর ১২টা ৪৫ মিনিটে।

এর আগে রোববার (৫ জুন) হজ ফ্লাইটের উদ্বোধন করেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ৮ জুলাই সৌদি আরবে পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হবে। এবার বাংলাদেশ থেকে হজ পালনের সুযোগ পাবেন ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় চার হাজার ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫৩ হাজার ৫৮৫ জন হজে যেতে পারবেন।

রোববার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের জনসংযোগ বিভাগের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, মহামারির কারণে ২০২০ ও ২০২১ সালে বিদেশি নাগরিকদের জন্য হজযাত্রা বন্ধ ছিল। এবার হজ যাত্রা উপলক্ষে সার্বিক প্রস্তুতি নিয়েছে বিমান। এবছর হজযাত্রীদের ৫০ শতাংশ অর্থাৎ ২৮ হাজার ৭৯৩ জন পরিবহন করবে বিমান। তবে সরকারি প্রতিনিধিসহ ২৯ হাজার হজযাত্রী পরিবহনের পরিকল্পনা রয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, প্রি হজে ৬৫টি ডেডিকেটেড ফ্লাইট পরিচালনা করবে বিমান। এর মধ্যে জেদ্দা রুটে ৫১টি ও মদিনা রুটে ১৪টি ফ্লাইট পরিচালিত হবে। চট্টগ্রাম-জেদ্দা রুটে ৯টি, চট্টগ্রাম-মদিনা রুটে দুটি, সিলেট-জেদ্দা রুটে দুটি ফ্লাইট পরিচালিত হবে। এছাড়া পোস্ট হজের ক্ষেত্রে ৬৫টি ডেডিকেটেড ফ্লাইট পরিচালিত হবে। জেদ্দা থেকে ৫১টি ও মদিনা থেকে ১৪টি।

এর আগে ২০১৮ সালে ৬২ হাজার ৭৯৬ জন ও ২০১৯ সালে ৬৬ জাজার ২৮৬ জন হজযাত্রী পরিবহন করেছিল বিমান।


আরও খবর



বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার

প্রকাশিত:শনিবার ১১ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৭১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ ব্যাংকের নতুন গভর্নর হলেন বর্তমান অর্থ সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার। আগামী ৪ জুলাই থেকে গভর্নর হিসেবে তার নিয়োগ কার্যকর হবে। আজ শনিবার (১১ জুন) আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের কেন্দ্রীয় ব্যাংক শাখার এ প্রজ্ঞাপনে তাকে নিয়োগ দেওয়া হয়।

বর্তমান গভর্নর ফজলে কবিরের মেয়াদ শেষে দায়িত্ব নেবেন আব্দুর রউফ তালুকদার।

১৯৮৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে (বিসিএস ১৯৮৫ ব্যাচ) বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিসে যোগ দেন রউফ তালুকদার। দীর্ঘ কর্মজীবনে তিনি শিল্প মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয় এবং তথ্য মন্ত্রণালয়ে দায়িত্ব পালন করেছেন। বাংলাদেশ হাইকমিশন কুয়ালালামপুরে প্রথম সচিব (বাণিজ্যিক) হিসেবেও কাজ করেছেন এই কর্মকর্তা। ২০১৮ সালের ১৮ জুলাই অর্থ সচিবের দায়িত্ব পান রউফ তালুকদার।


আরও খবর



‘এমন ঘটনা ঘটাতে পারে যেন পদ্মা সেতুর উদ্বোধন না করতে পারি’

প্রকাশিত:বুধবার ১৫ জুন ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ | ৫৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন নিয়ে তিন বাহিনীর প্রধানসহ সবাইকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, আপনাদের সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। যারা পদ্মা সেতুর বিরোধিতা করেছিল- আমাদের কাছে তথ্য আছে, এমন একটা ঘটনা ঘটাবে যেন আমরা উদ্বোধনটা করতেই না পারি। বিভিন্ন জায়গায় আগুন, সমস্ত জিনিস রহস্যজনক। আমাদের গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনায় সবার নজর দিতে হবে। বুধবার (১৫ জুন) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শাপলা হলে স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স (এসএসএফ)-এর ৩৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।

তার নিরাপত্তার কাজে যারা নিয়োজিত, তাদের জীবনের নিরাপত্তা নিয়েও উদ্বেগের কথা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমি নিজেও তো গুলি ও বোমার মুখে পড়েছি। আল্লাহ আমাকে বাঁচিয়েছে। হয়তো আল্লাহ আমাকে দিয়ে কোনো কাজ করাবেন, এজন্য বাঁচিয়ে রেখেছেন। দেশ অভিশাপমুক্ত যাতে হয়, সেই ব্যবস্থাটাই নিয়েছিলাম। যার কারণে বাংলাদেশ রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছে।

এসময় এসএসএফর প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে যারা বিদেশি অতিথি এসেছেন, তারা প্রত্যেকে (এসএসফর) ভূয়সী প্রশংসা করেছেন। এটা ধরে রাখতে হবে। আমার পরিবারের মতো যারা আমার সঙ্গে কাজ করেন, তাদের জন্য দোয়া করি। বিশেষ করে এসএসএফর জন্য দোয়া করি। আমি জানি তারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে আমাদের নিরাপত্তা দিচ্ছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন- তবে খেয়াল রাখতে হবে- আমি যেন জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন না হই। আমরা রাজনীতি করি জনগণের জন্য। জনগণের কথা শোনা, তাদের জন্য কিছু করতে পারা, এতটুকুই চাই। কারণ জনগণই আমাদের প্রাণ শক্তি।

শেখ হাসিনা বলেন, সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীতে নারী সদস্য নিয়োগ আমরা শুরু করি। পুলিশে নারী সদস্য নিয়োগ জাতির পিতাই শুরু করেছেন। আমরা দেশটাকে সেভাবে গড়ে তুলতে চাই। আমরা ভৌগলিক সীমারেখায় হয়তো ছোট, কিন্তু জনসংখ্যায় বড়। আমরা বড় হয়ে চলবো। বিশ্বে মর্যাদা নিয়ে চলবো। আজকে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছি। এই মর্যাদা অক্ষুণ্ন রেখে এবং সেটা বাস্তবায়ন করে এগিয়ে যাবো, এটাই আমাদের লক্ষ্য।

তিনি বলেন, এসএসএফকে যতটুকু পেরেছি আধুনিক করেছি। অন্যান্য বাহিনীকেও আধুনিক করার পদক্ষেপ নিয়েছি। প্রত্যেকটি বাহিনী জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস দমনে দায়িত্ব পালন করেছে। যার কারণে এগুলো নিয়ন্ত্রণ করতে পেরেছি। প্রত্যেককেই এ ব্যাপারে সজাগ ও সচেতন থাকতে হবে। প্রযুক্তি যেমন উন্নয়নের দ্বার উন্মোচন করেছে, তেমনি যারা সন্ত্রাস ও অপকর্মে জড়িত তাদেরও সুযোগ করে দেয়।

নানা মেগা প্রজেক্টের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, সব প্রতিষ্ঠানে নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিতে হবে। সব বাহিনী প্রধানকে এই উদ্যোগ নিতে হবে।

সরকার প্রধান বলেন, পদ্মা সেতু নিয়ে একটা মিথ্যা অপবাদ আমাদের দিয়েছিল। দুর্ভাগ্য, আমাদের একজন স্বনামধন্য মানুষ, যাকে আমি সবচেয়ে বেশি সুযোগ-সুবিধা দিয়েছিলাম। সেই ড. ইউনূস বেইমানি করেছেন। গ্রামীণ ব্যাংকের এমডি পদে থাকতে না পেরে তিনি এ কাজ করেছেন। তিনি তার বন্ধু তৎকালীন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনের স্বামীর ক্লিনটন ফাউন্ডেশনে তিন লাখ ডলার ডোনেশন দিয়েছিলেন। হিলারি আমাকে ফোনও করেন। আমার কাছে ধর্ণা দেন। তাকে আমি আইনের কথা বলেছি। বিশ্ব ব্যাংকের কাছে বার বার মেইল পাঠান, দুর্নীতি হয়েছে বলা হয়। আমি বলেছিলাম- দুর্নীতির প্রমাণ দিতে হবে।

আমরা চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছিলাম যে, এটা প্রমাণ করতে হবে। পরে এটা ভুয়া প্রমাণ হয়েছে। কিন্তু ইউনুসের প্ররোচনায় বিশ্ব ব্যাংক অর্থায়ন থেকে সরে দাঁড়ায়। আমরা বলেছিলাম, নিজের টাকায় পদ্মা সেতু করবো, করেছি।

অনুষ্ঠানে এসএসফর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. শফিকুর রহমানসহ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের কর্মকর্তাগণ, তিন বাহিনী প্রধান, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ ও এসএসএফর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।


আরও খবর