Logo
শিরোনাম

ইভ্যালির এমডি রাসেল ও তার স্ত্রী গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৪৪৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

অর্থ আত্মসাতের মামলায় আলোচিত দেশের ই-কমার্স সাইট ইভ্যালির সিইও মোহাম্মদ রাসেল ও তার স্ত্রী প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিনকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। বৃহস্পতিবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীর মোহাম্মদপুর স্যার সৈয়দ রোডের বাসায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন-র‌্যাব। এর আগে তাদের বিরুদ্ধে গুলশান থানায় প্রতারণা মামলা দায়ের করেন এক গ্রাহক।

ঢাকা মহানগর পুলিশের গুলশান বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মো. আসাদুজ্জামান জানান, গতকাল বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) মধ্যরাতে নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার পূর্বগ্রাম এলাকার বাসিন্দা মো. আরিফ বাকের এই মামলাটি দায়ের করেছেন।

মামলায় ইভ্যালি এমডি মোহাম্মদ রাসেলকে এক নম্বর আসামি ও চেয়ারম্যান শামীমাকে দুই নম্বর আসামি করা হয়েছে। এই মামলায় ইভ্যালির আরও বেশকজন কর্মকর্তাকে অজ্ঞাতনামা দেখিয়ে আসামি করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে আরিফ বাকের উল্লেখ করেছেন, ইভ্যালির অনলাইন প্লাটফর্মে ৩ লাখ ১০ হাজার ৫৯৭ টাকার পণ্য অর্ডার করেও নির্ধারিত সময়ের মধ্যে তা পাননি তিনি। নিরুপায় হয়ে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগ করেন তিনি।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়, গত ২৯ মে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির চমকপ্রদ বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট হয়ে অভিযোগকারী আরিফ বাকের ও তার বন্ধুরা চলতি বছরের মে ও জুন মাসে কিছু পণ্য অর্ডার করেন। পণ্যের অর্ডার বাবদ সব মূল্য বিকাশ, নগদ ও সিটি ব্যাংকের কার্ডের মাধ্যমে সম্পূর্ন পরিশোধ করেন তারা।

পণ্যগুলো ৭ থেকে ৪৫ কার্যদিবসের মধ্যে ডেলিভারি ও নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে পণ্য সরবরাহে ব্যর্থ হলে প্রতিষ্ঠান সমপরিমাণ টাকা ফেরত দিতে অঙ্গীকারাবদ্ধ ছিল। কিন্তু ওই সময়সীমার মধ্যে পণ্যগুলো ডেলিভারি না পাওয়ায় বহুবার ইভ্যালির কাস্টমার কেয়ার প্রতিনিধিকে ফোন করা হয়। সর্বশেষ গত ৫ সেপ্টেম্বর যোগাযোগ করে অর্ডার করা পণ্যগুলো পাওয়ার চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন আরিফরা।

একপর্যায়ে ইভ্যালি পণ্য প্রদান ও টাকা প্রদানে ব্যর্থ হওয়ার পর ৯ সেপ্টেম্বর ইভ্যালির ধানমন্ডির অফিসে যান আরিফ ও তার বন্ধুরা।

মামলার এজাহারে আরিফ বলেন, ইভ্যালির ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মোহাম্মদ রাসেলের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে তারা উত্তেজিত হয়ে চিৎকার-চেঁচামেচি করেন। একপর্যায়ে অফিসের অভ্যন্তরে থাকা ইভ্যালির রাসেল উত্তেজিত হয়ে তার রুম থেকে বেরিয়ে এসে আমাকে ভয়-ভীতি প্রদর্শন করেন এবং আমাদের পণ্য অথবা টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানান। আমাদের ভয়ভীতি ও হুমকিসহ চরম দুর্ব্যবহার করেন। এতে আমরা আতঙ্কে দিনাতিপাত করছি। পণ্যগুলো বুঝে না পাওয়ায় আমি আর্থিক ও মানসিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছি।

 


আরও খবর



অনন্যা জানতেন না গাঁজা নিষিদ্ধ !

প্রকাশিত:শনিবার ২৩ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মাদক কাণ্ডে আবারো ভারতের নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর (এনসিবি) আতশ কাঁচের নিচে বলিউড। এবার জেরার মুখে অভিনেতা চাংকি পান্ডের মেয়ে অভিনেত্রী অনন্যা পান্ডে।

সম্প্রতি সুপারস্টার শাহরুখ খানের ছেলে আরিয়ান খান মাদক মামলায় গ্রেপ্তার হন। এই ঘটনয় এনসিবি কর্মকর্তাদের প্রশ্নের মুখে পড়েছেন অনন‌্যা। শাহরুখ পুত্রের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাট থেকে এই অভিনেত্রীর নাম পেয়েছে এনসিবি। আরিয়ানকে গাঁজা সরবরাহ করতে চেয়েছিলেন এমন কথোপকথন তাদের হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটে পাওয়া গেছে।

এদিকে এনসিবি কর্মকর্তাদের নাকি অনন্যা জানিয়েছেন, গাঁজা নিষিদ্ধ এই তথ্য তিনি জানতেন না। সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, অনন্যা জানান, তিনি আরিয়ানকে মজা করে গাঁজা সরবরাহ করার কথা বলেছিলেন। কিন্তু গাঁজা যে নিষিদ্ধ মাদক তা তিনি জানতেন না।

গত বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) প্রথম অনন্যাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে এনসিবি। শুক্রবার দুপুরে ফের এনসিবির কর্মকর্তাদের মুখোমুখি হন ২২ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী। প্রায় চার ঘণ্টা তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এই সময় আরিয়ানকে নিষিদ্ধ মাদক সরবরাহের কথা অস্বীকার করেন তিনি।

এদিকে অনন্যার বয়ানে সন্তুষ্ট হতে পারেননি এনসিবি কর্মকর্তারা। সোমবার ফের তাকে তলব করা হয়েছে। এনসিবির দাবি, অনন‌্যা অন্তত তিনবার আরিয়ানকে মাদক বিক্রেতাদের ফোন নম্বর দিয়ে মাদক পেতে সাহায‌্য করেছেন।


আরও খবর

অবশেষে জামিন পেলেন শাহরুখপুত্র

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১

আজ ফের হাইকোর্টে আরিয়ানের জামিন শুনানি

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১




রফতানি পণ্যের উৎপাদন বাড়ানোর আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৬ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৩৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রফতানি বাড়াতে নতুন নতুন পণ্য উৎপাদনের ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‌নতুন নতুন আরও কী কী পণ্য আমরা উৎপাদন করতে পারি এবং রফতানি করতে পারি সে বিষয়ে গবেষণা করে বের করতে হবে। কোন কোন দেশে কী কী পণ্যের চাহিদা রয়েছে সেটা অনুধাবন করে সেই পণ্য যেন আমরা উৎপাদন করতে পারি সেটাও বিবেচনা করতে হবে।’

মঙ্গলবার (২৬ অক্টোবর) বাংলাদেশ ট্রেড অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট সামিট’ এর উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে আয়োজিত এই সামিটে প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যুক্ত হন।

সামিটে বেসরকারি খাতের উদ্যাক্তাদের নতুন নতুন পণ্য উৎপাদন ও রফতানির ওপর গুরুত্ব দেওয়ার অনুরোধ জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, যেসব প্রতিষ্ঠান আছে বিশেষ করে বেসরকারি খাত, আমি তাদের অনুরোধ করবো, এই বিষয়টার দিকে আপনারা বিশেষভাবে দৃষ্টি দেবেন। কারণ আমাদের রফতানি পণ্যের সংখ্যা আরও বাড়ানো প্রয়োজন বলে মনে করি। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন ধরনের চাহিদা থাকে। বাংলাদেশ এমন একটা দেশ আমরা ইচ্ছা করলে সব কিছুই করতে পারি। এই আত্মবিশ্বাস আমার আছে, যেটা জাতির পিতা বলে গেছেন।’

সরকার প্রধান বলেন, আমি আশা করি, এই সম্মেলনের মাধ্যমে বাণিজ্য ও বিনিয়োগের জন্যে দেশি-বিদেশি শিল্প উদ্যোক্তা, ব্যবসায়ী, বিনিয়োগকারীরা বাংলাদেশে এ সব খাতের সম্ভাবনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন এবং বিশ্ব বাজারে বাংলাদেশি পণ্যের নব নব দ্বার উন্মোচিত হবে, রফতানি বৃদ্ধি পাবে। বাংলাদেশ কাঙ্ক্ষিত বিনিয়োগ আকর্ষণে সক্ষম হবে।’

শেখ হাসিনা বলেন, আবহাওয়া, জলবায়ু পরিবর্তনে বিশ্বব্যাপী আজকে যে ক্ষতি হচ্ছে, বাংলাদেশ যাতে তার থেকে মুক্তি পায় সেদিকে লক্ষ্য রেখে শুরু থেকেই আমরা আমাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করে যাচ্ছি। কাজেই আমরা বিশ্বে প্রথম শতবর্ষের বাংলাদেশ ব-দ্বীপ পরিকল্পনা-২১০০ বাস্তবায়ন শুরু করেছি। আমাদের আগামী প্রজন্ম অর্থাৎ প্রজন্মের পর প্রজন্ম যেন একটা সুন্দর-নিরাপদ-উন্নত জীবন পায়, সুন্দরভাবে বাঁচতে পারে সেদিকে লক্ষ্য রেখেই আমরা এই ব-দ্বীপটাকে উন্নত করার পরিকল্পনা নিয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে, এগিয়ে যাবে। আগামী প্রজন্ম পাবে জাতির পিতার স্বপ্নের আত্মমর্যাদাশীল, উন্নত, সমৃদ্ধ সোনার বাংলাদেশ। বাংলাদেশের অনেক পণ্য রয়েছে আমরা ইতোমধ্যে রফতানি করছি। সাত দিনব্যাপী এই সম্মেলনে আমাদের দেশের ৯টি খাত, যেমন: অবকাঠামো, তথ্য-প্রযুক্তি, চামড়া, ওষুধ, স্বয়ংক্রিয় ক্ষুদ্র প্রকৌশল, কৃষি পণ্য, খাদ্য প্রক্রিয়াজাত, পাট, বস্ত্র ও শিল্পসহ অতিচাহিদা সম্পন্ন ভোগ্য পণ্যসহ ক্ষুদ্র ব্যবসাকে অগ্রাধিকার দিয়ে বিবেচনা করা হচ্ছে। যা আমি মনে করি অত্যন্ত সময়োপযোগী।’

বঙ্গবন্ধু কন্যা বলেন, আমরা বিভিন্নভাবে সুযোগ সৃষ্টি করছি। কারণ বাংলাদেশের ভৌগলিক অবস্থানটা কিন্তু বিবেচনা করলে যারা বিনিয়োগ করতে আসবেন তারা শুধু বাংলাদেশ পাবেন না, দক্ষিণ এশিয়া এবং দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে তাদের একটা সুযোগ থাকবে এই বাজারগুলো ধরার এবং রফতানি করার। বাংলাদেশ সারা প্রাচ্য-প্রশ্চাত্য একটা ব্রিজ হিসেবে গড়ে উঠবে ভবিষ্যতে। যেটা আমাদের দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যের আরও প্রসার ঘটতে সহায়তা করবে।’

তিনি বলেন, আমরা কাজ করে যাচ্ছি দেশের উন্নয়নের জন্য। যদিও করোনায় আমাদের অগ্রগতিটা থেমে গেলো। যদি করোনা মহামারিটা না হতো তাহলে হয়তো আমরা আরও অনেক দূর এগিয়ে যেতে পারতাম। করোনা মহামারি মোকাবিলায় আমার দেশের মানুষের যাতে কষ্ট না হয় বা ব্যবসা-বাণিজ্য যাতে থমকে না যায়, এ জন্য প্রায় এক লাখ ৮৭ হাজার কোটি টাকার প্রণোদনা দিয়েছি। এমনকি যাতে তারা ব্যবসা-বাণিজ্য চালিয়ে যেতে পারেন, আবার মানুষও যেন না খেয়ে কষ্ট না পায় সেদিকে লক্ষ্য আমরা রেখেছি। এখন আমরা টিকা দেওয়াও শুরু করেছি। মানুষকে সুরক্ষা দেওয়াটা আমাদের কর্তব্য।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমরা দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি। শুধু তাৎক্ষণিক কী করা সেটা নয়। সরকার গঠনের পর থেকেই আমাদের লক্ষ্য ছিল আশু করণীয় কী, মধ্য মেয়াদি পরিকল্পনা ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নিয়ে কজ করা। সেভাবে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছি বলেই আজকে আমাদের এ সাফল্য এসেছে। আমরা প্রেক্ষিত পরিকল্পনা রূপকল্প-২০২১ প্রণয়ন করেছিলাম ২০১০-২০২১। আর এখন আমরা করেছি রূপকল্প-২০৪১ অর্থাৎ ২০২১ থেকে ২০৪১ সালের বাংলাদেশ কেমন হবে? কীভাবে আমরা উন্নত করবো। এরই ভিত্তিতে আমরা পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা প্রণয়ন করে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি দেশকে।’

দেশের যোগাযোগ ব্যবস্থা উন্নত করার বিভিন্ন দিক তুলে ধরে সরকার প্রধান বলেন, সৈয়দপুর বিমানবন্দরকে আমরা একটা আঞ্চলিক বিমানবন্দর হিসেবে গড়ে তুলছি। যাতে আমাদের প্রতিবেশী দেশগুলোও সেটা ব্যবহারে সক্ষম হয়। আমাদের চট্টগ্রাম পোর্টকে উন্নত করছি, মোংলা পোর্ট এবং নতুন একটা পোর্ট করেছি পায়রা পোর্ট। সেটাও গভীর সমুদ্র বন্দর হিসেবে ভবিষ্যতে গড়ে উঠবে।’


আরও খবর



সিরিয়ায় বাসে বোমা হামলায় ১৩ সেনা নিহত

প্রকাশিত:বুধবার ২০ অক্টোবর ২০21 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ৫৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সিরিয়ার দামেস্কে সামরিক বাহিনীর বাসে বোমা হামলায় অন্তত ১৩ জন নিহত হয়েছেন। স্থানীয় সময় মঙ্গলবার ভোরের কিছু পর জিসর-আল-রাইজ সেতুর নিচ দিয়ে যাওয়ার সময় দুটি বিস্ফোরক ডিভাইস দিয়ে বাসটিতে হামলা চালানো হয়।

সিরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম সানার বরাতে বিবিসি অনলাইন জানায়, ঘটনাস্থলের ভিডিওতে দেখা যায় বিস্ফোরণের পর আগুনে বাসটি পুড়ে গেছে। গত এক দশক ধরে দেশটি গৃহযুদ্ধ চলছে। রাজধানীতে এইরকম হামলা সচরাচর দেখা যায় না।

আজকের এই বোমা বিস্ফোরণ দামেস্কের প্রাণকেন্দ্রে ২০১৭ সালের হামলার পর সবচেয়ে ভয়াবহ হামলা। জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) চালানো ওই আত্মঘাতী হামলায় ৩১ জন নিহত হয়েছিল। এখন পর্যন্ত কোনো গোষ্ঠী আজকের হামলার দায় স্বীকার করেনি। তবে আইএসকে সন্দেহ করা হচ্ছে। কারণ চলতি বছরে দেশটির পূর্বাঞ্চলে সামরিক যানে এই গোষ্ঠীটি হামলা করেছিল।  

২০১১ সালে গণতন্ত্রপন্থিদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ সরকারের সশস্ত্র প্রতিক্রিয়ার পর দেশটিতে সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে। এতে দেশটিতে ব্যাপক ধ্বংসযজ্ঞ চলে। জাতিসংঘের হিসাব অনুযায়ী, সরকারপন্থিদের সঙ্গে এই সংঘর্ষে এখন পর্যন্ত অন্তত সাড়ে তিন লাখ মানুষ নিহত হয়েছেন।এছাড়া অর্ধেক মানুষ দেশ ছেড়ে পালিয়েছেন। এর মধ্যে ৬০ লাখ শরণার্থীও আছে।


আরও খবর



সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশ কাদের বিপক্ষে খেলবে

প্রকাশিত:শুক্রবার ২২ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ১৭৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশের সুপার টুয়েলভ নিশ্চিত হয়ে গিয়েছিল পাপুয়া নিউ গিনির বিপক্ষে জয়ের পরেই। তবে গ্রুপসেরা হয়ে পরের রাউন্ডে যাবে দল না রানার্সআপ হয়ে, তা নিশ্চিত ছিল না। সে অনিশ্চয়তা কেটেছে ওমান-স্কটল্যান্ড ম্যাচের পর, যেখানে স্কটিশরা জিতে বি গ্রুপের শ্রেষ্ঠত্ব নিয়ে পাড়ি দিয়েছে পরের রাউন্ডে।

গ্রুপ রানার্সআপ হওয়ায় বাংলাদেশের ঠিকানা হয়েছে সুপার টুয়েলভের গ্রুপ-১ এ। যেখানে মাহমুদউল্লাহ রিদারের দলের প্রতিপক্ষ হিসেবে অপেক্ষায় আছে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা, ওয়েস্ট ইন্ডিজের মতো দলগুলো। গ্রুপ এ থেকে চ্যাম্পিয়ন হয়ে সুপার টুয়েলভের গ্রুপ ১ এ আসার অপেক্ষায় আছে শ্রীলঙ্কা। দ্বিতীয় রাউন্ডে তাদের বিপক্ষেই খেলতে হবে বাংলাদেশকে।

এক নজরে সুপার টুয়েলভে কবে, কার বিপক্ষে খেলবে বাংলাদেশ

শ্রীলঙ্কা - ২৪ অক্টোবর শারজাহ - বিকেল ৪টা

ইংল্যান্ড - ২৭ অক্টোবর আবুধাবি - বিকেল ৪টা

ওয়েস্ট ইন্ডিজ - ২৯ অক্টোবর শারজাহ - বিকেল ৪টা

দক্ষিণ আফ্রিকা - ২ নভেম্বর - আবুধাবি - বিকেল ৪টা

অস্ট্রেলিয়া - ৪ নভেম্বর দুবাই - বিকেল ৪টা


আরও খবর

টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ে পেছাল বাংলাদেশ

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১

কোম্যানকে বরখাস্ত করলো বার্সেলোনা

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১




ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তানের দল ঘোষণা

প্রকাশিত:রবিবার ২৪ অক্টোবর ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১ | ২০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিশ্বকাপের আসরে এবার মাঠে মুখোমুখি হচ্ছে এশিয়ার দুই বিশ্বচ্যাম্পিয়ন পাকিস্তান-ভারত। ম্যাচটিকে ঘিরে পুরো এশিয়াজুড়ে উত্তেজনায় কাঁপছে।

দুবাইয়ে আজ রোববার বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় শুরু হবে বিশ্বকাপের ওই হাইভোল্টেজ ম্যাচ। এর আগে টি-২০ বিশ্বকাপে পাঁচ বার মুখোমুখি হয়েছে ভারত এবং পাকিস্তান। সব ম্যাচই পাকিস্তানকে হারিয়েছে ভারত। এবার পাকিস্তান চাইবে ভারতকে হারিয়ে সেই দুর্নাম ঘুচাতে। এবারের বিশ্বকাপের হট ফেভারিট ইমরান খানের উত্তরসূরীরা।

ইতিমধ্যে ১২ জনের দল ঘোষণা করে দিয়েছে পাকিস্তান।

পাকিস্তান স্কোয়াড:  বাবর আজম (অধিনায়ক), মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেটকিপার), ফখর জামান, মোহাম্মদ হাফিজ, শোয়েব মালিক, আসিফ আলি, ইমাদ ওয়াসিম, শাদাব খান, হাসান আলি, শাহিন শাহ আফ্রিদি, হারিস রউফ, হায়দার আলি।

আজকের ম্যাচে যে পাঁচ পাক ক্রিকেটারদের দিকে সবার নজর থাকবে, তারা হলেন, অধিনায়ক বাবর আজম, মোহাম্মদ রিজওয়ান, শাহিন শাহ আফ্রিদি, হাসান আলি এবং মোহাম্মদ হাফিজ ।

নিউজ ট্যাগ: ভারত পাকিস্তান

আরও খবর

টি-টোয়েন্টি র‌্যাংকিংয়ে পেছাল বাংলাদেশ

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১

কোম্যানকে বরখাস্ত করলো বার্সেলোনা

বৃহস্পতিবার ২৮ অক্টোবর ২০২১