Logo
শিরোনাম

জাজিরায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৬

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৭ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ২৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শরীয়তপুরের জাজিরায় ঢাকা-ভাঙ্গা মহাসড়কে সড়ক দুর্ঘটনায় নারীসহ ছয়জন নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) ভোর ৪টার দিকে জাজিরা উপজেলার নাওডোবা এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

পুলিশ জানায়, অ্যাম্বুলেন্সটি বরিশাল থেকে রোগী ও স্বজনদের নিয়ে ঢাকার দিকে যাচ্ছিল। পথে জাজিরায় পদ্মা সেতু টোলপ্লাজার কাছে গতিনিরোধক পার হতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারায়। এসময় অ্যাম্বুলেন্সটি একটি ট্রাকের পেছনে ঢুকে দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই অ্যাম্বুলেন্সের ছয় যাত্রী নিহত হন।

পুলিশের ধারণা, অ্যাম্বুলেন্সের চালক ঘুমিয়ে যাওয়ায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ ঘটনার পর ট্রাকচালক পালিয়েছেন। তাকে আটকের জন্য পুলিশ কাজ করছে। পদ্মা দক্ষিণ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সুরুজ মিয়া বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে অ্যাম্বুলেন্সটি ট্রাকের পেছনে ঢুকে দুমড়ে-মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই অ্যাম্বুলেন্সের ছয় যাত্রী নিহত হন।

পুলিশের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, ওই অ্যাম্বুলেন্সে দুইজন নারী ছিলেন। নিতদের প্রথমে জাজিরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। পরে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ সদর হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। তবে তাদের পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি।

 


আরও খবর



নতুন বছরে পারমাণবিক অস্ত্র বাড়ানোর ঘোষণা কিমের

প্রকাশিত:রবিবার ০১ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মার্কিন নেতৃত্বাধীন ক্রমবর্ধমান হুমকি মোকাবিলায় নতুন আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের উৎপাদন এবং পারমাণবিক অস্ত্রাগার তৈরির আহ্বান জানিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জন উন। বছরের শেষদিন (শনিবার) ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপর পরই এ কথা বলেন কিম।

উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতাসীন দল ওয়াকার্স পার্টির বৈঠকে নিজ দেশের সার্বভৌমত্ব ও নিরাপত্তা স্বার্থে সামরিক শক্তি বাড়ানোর প্রয়োজনীয়তার কথা তুলে ধরেন কিম। খবর রয়টার্সের।

গত সপ্তাহে উত্তর কোরিয়ার সীমান্তে দক্ষিণ কোরিয়ার ড্রোন প্রবেশ করে। একের পর এক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ এবং সিউলের ড্রোন নিয়ে নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়েছে। এর মধ্যেই সামরিক শক্তি বৃদ্ধির ঘোষণা দিলেন কিম জন উন।

উত্তরের শাসক অভিযোগ করে আরও বলেন, ওয়াশিংটন ও সিউল পিয়ংইয়ংকে বিশ্ব থেকে বিচ্ছিন্ন এবং দমিয়ে রাখার চেষ্টা করছে। সেই সঙ্গে দক্ষিণ কোরিয়ায় ধারাবাহিকভাবে মোতায়েন করা মার্কিন পরমাণু অস্ত্র ও সরঞ্জামকে মানব ইতিহাসে নজিরবিহীন বলেও অভিহিত করেন কিম।ৱ

এমন পরিস্থিতিতে নিজ দেশের পারমাণবিক শক্তিকে আরো শক্তিশালী করতে নতুন আইসিবিএম তৈরির প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি। আইসিবিএম ক্ষেপণাস্ত্রের প্রধান লক্ষ্য হবে দ্রুত পাল্টা পারমাণবিক হামলা চালানো

নিউজ ট্যাগ: কিম জং উন

আরও খবর



আপাতত শ্রীলঙ্কার জন্য অন্য কিছু ভাবা যাচ্ছে না

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ২২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিশ্বের ১৮০ জনেরও বেশি বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ এবং উন্নয়ন বিশেষজ্ঞ শ্রীলঙ্কার আর্থিক ঋণদাতাদের কাছে দেশটির ঋণ মওকুফের জন্য আবেদন জানিয়েছেন। তবে, অনেক অর্থনীতি বিশেষজ্ঞ নিশ্চিত নন যে, এই পন্থাটি দ্বীপরাষ্ট্রটির এগিয়ে যাওয়ার সর্বোত্তম উপায়। কিন্তু আপাতত শ্রীলঙ্কার জন্য অন্য কিছু ভাবাও যাচ্ছে না।

বিশ্বব্যাংকের হিসাব অনুযায়ী, গত বছরের ডিসেম্বর পর্যন্ত শ্রীলঙ্কার বৈদেশিক ঋণের পরিমাণ ৫২ বিলিয়ন মার্কিন ডলারেরও বেশি। এর মধ্যে চীনের কাছ থেকে পেয়েছে ৫২ শতাংশ, জাপানের কাছ থেকে ১৯ শতাংশ এবং ভারত দিয়েছে ১২ শতাংশ। কলম্বো গত বছরের এপ্রিলে নিজেকে দেউলিয়া ঘোষণা করে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) সঙ্গে ২ দশমিক ৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের ঋণ প্রাপ্তি নিয়ে আলোচনা শুরু করে। তবে আইএমএফ ততক্ষণ ঋণ দেবে না, যতক্ষণ না তারা মনে করছে যে, দ্বীপদেশটির ঋণ শোধ করার সক্ষমতা রয়েছে।

বহুল বিক্রীত বই ক্যাপিটাল-এর লেখক থমাস পিকেটি জানিয়েছেন, হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতিবিদ দানি রডরিক, ভারতীয় অর্থনীতিবিদ জয়তি ঘোষসহ বেশ কয়েকজন বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ এবং অর্থনীতিবিদ এক বিবৃতিতে সমস্ত বৈদেশিক ঋণদাতাদের দ্বারা শ্রীলঙ্কার ঋণ মওকুফ করার আহ্বান জানিয়েছেন। অন্যায্য ঋণ এবং দারিদ্র্য ও বৈষম্যের অবসান ঘটনোর লক্ষ্যে বিশ্বব্যাপী আন্দোলন-ডেট জাস্টিস-এর ক্যাম্পেইনে ওই বিবৃতি প্রকাশ করেন তারা।

বিবৃতিতে অর্থনীতিবিদরা বলেছেন, যেহেতু বেসরকারি বিনিয়োগকারীরা দুর্নীতিবাজ রাজনীতিবিদদের উচ্চ সুদে ঋণ দিয়েছে, তাই ঋণ মওকুফ করে বিনিয়োগকারীদের পরিণতি ভোগ করতে হবে। বিশেষজ্ঞরা শ্রীলঙ্কার ঋণ খেলাপিতে অবদান রাখার জন্য প্রথমেই বেসরকারি ঋণদাতাদের অভিযুক্ত করেছেন। কারণ, তারা ঋণ দেওয়ার জন্য প্রিমিয়াম চার্জ করে একটি বিশাল মুনাফা লাভ করেছে। বেসরকারি ঋণদাতারা যেহেতু উচ্চ রিটার্ন থেকে উপকৃত হয়েছে, তাই অবশ্যই তাদের কর্মের পরিণাম মেনে নিতে ইচ্ছুক হতেই হবে। তাদের ঋণ বাতিল করা যেতে পারে বা বাজেয়াপ্ত করা যেতে পারে। তবে সবাই এই পরামর্শের সঙ্গে একমত নন।

শ্রীলঙ্কার সেন্ট্রাল ব্যাংকের সাবেক ডেপুটি গভর্নর ডব্লিউএ উইজেবর্ধনে বলেছেন, ঋণ মওকুফের পরিকল্পনাটি বাস্তবিকভাবে চলতে থাকলে, এটি বর্তমান বৈশ্বিক আর্থিক ব্যবস্থাকে পতনের দিকে নিয়ে যেতে পারে। তিনি বলেছেন, এটিকে সমালোচনামূলকভাবে মূল্যায়ন করা দরকার। কারণ, যদি এই সুযোগ শ্রীলঙ্কার জন্য গৃহীত হয়, তবে তা মূলত একটি নতুন বিশ্ব অর্থনৈতিক ব্যবস্থার নীলনকশা প্রদান করবে। বর্তমান অর্থনৈতিক ব্যবস্থা পরস্পর নির্ভরশীল, আন্তঃসংযুক্ত। এটা ভেঙে পড়লে পৃথিবীর অর্থনৈতিক ব্যবস্থা ধ্বংস হয়ে যাবে। আপনি ভাবতে পারবেন না এরপর কী হবে। ধার করা অর্থ শাসকদের দ্বারা নষ্ট হয়েছে। তা থেকে জনগণ উপকৃত হয়নি। সেই শাসকদের ক্ষতির জন্য জবাবদিহি করা উচিত। তাদের অপরাধের জন্য তাদের বিচার করা উচিত। ঋণ মওকুফ করলে জনগণের নয় বরং দুর্নীতিবাজ স্বৈরাচারী নেতাদের উপকার হবে।

দ্বিপক্ষীয় ঋণদাতাদের জন্য মেয়াদ বাড়ানোর আহ্বান: ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর, দুই দিনের সফরে শ্রীলঙ্কায় গিয়ে বলেছিলেন, নয়াদিল্লি শ্রীলঙ্কার এগিয়ে যাওয়ার পথ পরিষ্কার করার জন্য আইএমএফকে অর্থায়নের আশ্বাস বাড়িয়েছে।

তবে, সক্রিয় ঋণদাতা হিসেবে ঋণ মওকুফের অনুরোধ চীনের মেনে নেওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। কারণ, তাহলে একই ধরনের দাবি উন্নয়নশীল বিশ্বের অন্যান্য অংশ থেকে আসতে পারে। শ্রীলঙ্কার অর্থনৈতিক নীতিবিষয়ক থিঙ্ক ট্যাংক অ্যাডভোকাটা ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ধননাথ ফার্নান্দো বলেছেন, যখন আপনি একটি দেশকে ঋণ থেকে মুক্তির অফার করেন, তখন অন্য দেশগুলোও একই মুক্তি পেতে চাইবে। তদুপরি, যেকোনো দেশের করদাতারা অন্য কোনো দেশে দেওয়া ঋণ সম্পূর্ণভাবে মওকুফ করে দিলে খুশি হবেন না। এটাই বাস্তবতা।

আইএমএফের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টালিনা জর্জিয়েভা ইঙ্গিত দিয়ে বলেছেন, চীন এখনও একটি উন্নয়নশীল দেশ, তাই তারা ঋণ ফেরত পাওয়ার আশা করে। তবে, চীন সুদের হার হ্রাস বা মওকুফ করে সাহায্যের হাত বাড়াতে পারে। ঋণ মওকুফের আহ্বানকে অবাস্তব বলে প্রত্যাখ্যান করে ফার্নান্দো বলেছেন, পাওনাদারদের শেষ পর্যন্ত ঋণ পরিশোধের কিস্তির পরিমাণ কমানো, কুপন ক্লিপিং, ঋণ পরিশোধের মেয়াদ বাড়ানো- এই তিনটি পদক্ষেপের সমন্বয়কে ভাবতে হবে। তবে, ঋণ মওকুফের বিষয়ে এখনও কোনো মন্তব্য করেনি জাপান ও ভারত।

নিউজ ট্যাগ: শ্রীলঙ্কা

আরও খবর



বিয়ে বাড়িতে চাঁদা দাবি, গ্রেপ্তার ৪

প্রকাশিত:বুধবার ১৮ জানুয়ারী ২০২৩ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩ | ৪০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজধানীর মিরপুরে বিয়ে বাড়িতে চাঁদার দাবি করায় তৃতীয় লিঙ্গের চারজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার (১৭ জানুয়ারি) বিকেলে মিরপুর তিন নম্বর সেকশনের আট নম্বর রোড এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতার তৃতীয় লিঙ্গের চারজন হলেন- বৃষ্টি আফরিন (২৫), মধু (৩২), ঈশানী (২৫) ও সুমি (২২)।

পুলিশ জানায়, ওই এলাকার একটি বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল। এমন খবর পেয়ে বাড়িটিতে তৃতীয় লিঙ্গের চারজন উপস্থিত হয়ে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। বিয়ে বাড়ির লোকজন চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে সেখানে চিৎকার শুরু করেন তারা। এক পর্যায়ে ওই বিয়ে বাড়ি থেকে তাদের এক হাজার ৫০০ টাকা দেওয়া হয়। এরপরও তারা বিয়ের অনুষ্ঠানে তাণ্ডব চালায়। এক পর্যায়ে তাদের বাড়ি থেকে বের করে দেওয়ার চেষ্টা করলে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাদের উদ্ধার করে।

এসময় তৃতীয় লিঙ্গের ওই চারজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়াও তৃতীয় লিঙ্গের ওই চারজনের কাছ থেকে এক হাজার ৫০০ টাকা জব্দ করা হয়। এ ঘটনায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ মামলায় তাদের গ্রেফতার দেখানো হয়েছে।

মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসিন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।


আরও খবর

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৭০

শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩

শুক্রবার রাজধানীর যেসব মার্কেট বন্ধ

শুক্রবার ২৭ জানুয়ারী ২০২৩




দেশের ৪ জেলায় বইছে শৈত্যপ্রবাহ

প্রকাশিত:শুক্রবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বুধবার ২৫ জানুয়ারী ২০২৩ | ৫৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের চার জেলায় ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। শুক্রবার (৩০ ডিসেম্বর) বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর এ তথ্য জানান।

এর আগে বৃহস্পতিবার (২৯ ডিসেম্বর) দেশের কয়েকটি জেলায় শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়।

আজ শুক্রবার সকালে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায় ৮ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। গতকাল সকালে দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছিল চুয়াডাঙ্গায় ৮ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আজ ঢাকায় তাপমাত্রা ১৪ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। বৃহস্পতিবার ছিল ঢাকায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৪ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

শুক্রবার সকালে আবহাওয়াবিদ মো. তরিফুল নেওয়াজ কবির গণমাধ্যমে জানান, নওগাঁ, পঞ্চগড়, যশোর এবং চুয়াডাঙ্গা জেলাসমূহের ওপর দিয়ে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে। রাজশাহী, পাবনা ও নীলফামারী অঞ্চল থেকে শৈত্যপ্রবাহ দূর হলেও পঞ্চগড় ও যশোর অঞ্চলে নতুন করে শুরু হয়েছে শৈত্যপ্রবাহ।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, তাপমাত্রা ৮ থেকে ১০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে থাকলে তাকে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ, ৬ থেকে ৮ ডিগ্রির মধ্যে থাকলে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বলে।


আরও খবর

দেশের ৫ বিভাগে বৃষ্টির সম্ভাবনা

শনিবার ১৪ জানুয়ারী ২০২৩




সরকার হটাতে পাঠ্যপুস্তককে ‘ইস্যু’ বানাতে চায় কেউ কেউ: শিক্ষামন্ত্রী

প্রকাশিত:সোমবার ২৩ জানুয়ারী 20২৩ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ২৬ জানুয়ারী ২০২৩ | ৩৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কোনো ইস্যু না পেয়ে শেখ হাসিনার সরকারকে সরাতে কেউ কেউ নতুন শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তকের ওপর ভর করার চেষ্টা করছেন। তাদের নিয়ে করুণা করা যায়। পাঠ্যপুস্তক নিয়ে তারা যা বলছেন তা মিথ্যাচার, সেটি মেনে নেওয়া যায় না। সোমবার (২৩ জানুয়ারি) রাজধানীর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে প্রাথমিক স্তরের শিক্ষক প্রশিক্ষণ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

তিনি বলেন, পাঠ্যবইয়ে যেসব ভুল এখন পর্যন্ত পাওয়া গেছে তা সংশোধন করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠানো হয়েছে। বাকি বইগুলো সবার জন্য উন্মুক্ত আছে। সবাই মতামত দিন। যেসব মতামত যৌক্তিক হবে সেগুলো গ্রহণ করা হবে।

দীপু মনি বলেন, আমি সবার কাছে অত্যন্ত কৃতজ্ঞ ও আনন্দিত যে শুধু শিক্ষার দুই মন্ত্রণালয়, শিক্ষা বোর্ড নয়, দেশের সব মানুষ পাঠ্যবই পড়ছেন। আমি চাই এটি তারা আরও সূক্ষ্মভাবে দেখুক। যত গঠনমূলক সমালোচনা ও পরামর্শ রয়েছে আমাদের দিক, আমরা খোলা মনে সব পরামর্শ বিবেচনা করব। যেখানে যৌক্তিক হবে, সেখানে পরিমার্জন, পরিশোধন, পরিশীলন করা হবে। এটি আমি দায়িত্ব নিয়ে বলছি।

তিনি বলেন, কেউ কেউ বই না পড়ে, না দেখে কেউ একজন বলেছে তা শুনে অরাজনৈতিক হিংসা, বিদ্বেষ নিয়ে সমালোচনা শুরু করেছেন। তারা চায় যে এ সরকার না থাকুক। স্মার্ট বাংলাদেশ কি দরকার, তারা চায় পাকিস্তান। এরকম একটি গোষ্ঠী বলছে, নতুন বইয়ে ইসলাম নেই, যা আছে ওটা ইসলাম বিরোধী। আপনার আশপাশে ও জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড (এনসিটিবি) ওয়েবসাইটে বই আছে, আপনি দেখে নিন। চিলে কান নিয়ে গেছে আপনি তার পিছে না ছুটে নিজে দেখুন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, আমাদের এবারের বইগুলো শিক্ষক, অভিভাবক-শিক্ষার্থী, শিক্ষাবিদ, বিজ্ঞানী, মনোবিজ্ঞানীর পরামর্শ নিয়ে করা হয়েছে। আমরা তো মানুষ, আমাদের ভুল হতে পারে। ৩৫ কোটি বই ছাপা হয়, এটি একটি বিশাল কর্মযজ্ঞ। গত বছর বিদ্যুতের সমস্যা, কাগজের সংকট ছিল। প্রকাশকদের নিয়েও নানা ধরনের সমস্যা সমাধান করতে হয়েছে। যেখানে ভুল থাকবে, যেখানে ধরা পড়বে আমরা সব যৌক্তিক ভুল সংশোধন করব। কিন্তু যারা মিথ্যাচার করছেন, তা মেনে নেওয়া হবে না। পশ্চিমবঙ্গের বাতিল করা একটি বইয়ের বর্ণপরিচয় থাকা একটি পৃষ্ঠার সঙ্গে আমার ছবি দিয়ে বলা হচ্ছে যে আমি পৌত্তলিকতা শেখাচ্ছি। সেটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দিয়ে জীবনের হুমকি দেওয়া হলে সেটি সামাজিকতা নয়।

যেসব শিক্ষক সামান্য সম্মানীর বিনিময়ে দিনের পর দিন কষ্ট করে বইগুলো সম্পাদনা করেন তাদের যদি হুমকি দেওয়া হয় তাদের আমি কি বলব প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, মিথ্যাচার ও অপপ্রচার সহ্য করা হবে না। যা যৌক্তিক, সঠিক আমরা তা নিশ্চয়ই গ্রহণ করব। কোনো ইস্যু না পেয়ে শেখ হাসিনা সরকারকে সরাতে নতুন শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তকের ওপরে ভর করার চেষ্টা যারা করছেন তাদের নিয়ে করুণা করা ছাড়া সাধ্য নেই। কারণ তারা যা বলছেন তা মিথ্যাচার। যেসব ভুল এখন পর্যন্ত পাওয়া গেছে তা সংশোধন করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠানো হয়েছে।

নবম-দশম শ্রেণির বই নিয়ে বিতর্ক প্রসঙ্গে দীপু মনি বলেন, এটি গত ১০ বছর পরে ধরা পড়ছে। এটি দেশের একজন প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ সংশোধন করেছেন। তিন দফায় সংশোধন করা হলেও সেই ভুল রয়ে গেছে। সেটি এবার সংশোধন করে দেওয়া হয়েছে। সংবাদ মাধ্যমকে দায়িত্বশীল সংবাদ প্রচার করার আহ্বান জানান তিনি।


আরও খবর