Logo
শিরোনাম

জানুয়ারিতে গ্যাস সংকট কাটবে : বাণিজ্যমন্ত্রী

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, আগামী জানুয়ারি থেকে শিল্প খাতে গ্যাস সংকট কেটে যাবে। বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) সিরামিক এক্সপো বাংলাদেশ- ২০২২ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, তৈরি পোশাকের মতো সিরামিকসহ যেসব খাতের পণ্য বিদেশে রপ্তানি করতে চায় তাদের সব সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হবে। বাংলাদেশের সম্ভাবনাময় খাত হলো সিরামিক শিল্প। চাহিদার ৮৫ ভাগ পূরণ হচ্ছে দেশে উৎপাদিত সিরামিক পণ্যে। এ ছাড়া বিশ্বের ৫০ দেশের এক বিলিয়ন ডলারের সিরামিক পণ্য রপ্তানি করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, সরকার সিরামিক পণ্যের উৎপাদন ও রপ্তানি বাড়াতে ব্যবসায়ীদের সার্বিক সহযোগিতা দিচ্ছে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ সিরামিক ম্যানুফেকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিসিএমইএ) সভাপতি সিরাজুল ইসলাম মোল্লা। এতে উপস্থিত ছিলেন এফবিসিসিআই সিনিয়র সহ-সভাপতি মোস্তফা আজাদ চৌধুরী বাবু, বিসিএমইএ মহাসচিব ইরফান উদ্দিন প্রমুখ।


আরও খবর



সড়ক দুর্ঘটনায় গিনিতে ২৪ জন নিহত

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৭৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গিনিতে সড়ক দুর্ঘটনায় ২৪ জন নিহত হয়েছেন। গতকাল রোববার গিনির চতুর্থ বৃহত্তম শহর কিন্ডিয়ার কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের অধিকাংশই স্কুল-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

স্থানীয় কর্মকর্তা কাবিনেট কাকে এএফপিকে বলেন, বাসটি রাজধানী কোনাক্রি থেকে দক্ষিণ-পশ্চিমের ফারানাহর দিকে যাচ্ছিল। তখন অপর একটি বাসকে ওভারটেক করতে গিয়ে বাসটি ট্রাকের সঙ্গে ধাক্কা খায়। দুর্ঘটনায় স্কুল-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

নিরাপত্তা বাহিনীর কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট ফাওলি সৌমাহ বলেন, মরদেহগুলো চেনা যাচ্ছে।জানা যায়, খারাপ রাস্তা এবং বেপরোয়া গাড়ি চালানোর কারণে গিনিতে প্রায়শই এমন দুর্ঘটনা ঘটে। গত সেপ্টেম্বরে দেশটিতে এক মিনিবাস দুর্ঘটনায় ১৫ জন নিহত হয়।

নিউজ ট্যাগ: সড়ক দুর্ঘটনা

আরও খবর



আদালত থেকে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামিকে ছিনিয়ে নিলো জঙ্গিরা

প্রকাশিত:রবিবার ২০ নভেম্বর ২০22 | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৬০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি ও জেএমবি সদস্য আবু সিদ্দিক ও মইনুল ইসলামকে ঢাকার জজ আদালতের সামনে থেকে ছিনিয়ে নেওয়া হয়েছে।

রোববার (২০ নভেম্বর) দুপুর ১টা ৪০ মিনিটের দিকে এ ঘটনা। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ডিবিপ্রধান হারুন-অর-রশীদ।

জানা গেছে, সন্ত্রাস দমন ট্রাইব্যুনাল থেকে হাজিরা শেষে কারাগারে নেওয়ার সময় ঢাকা জেলা জজ আদালতের গেটে আগে থেকে ওঁৎ পেতে থাকা জঙ্গিরা আবু সিদ্দিক ও মইনুলকে ছিনিয়ে নেয়। এ সময় তারা কর্তব্যরত পুলিশের চোখে অতর্কিতে স্প্রে করে ও পুলিশকে মারধর করে। আশপাশের অন্যরা বাধা দিতে এলে তাদের চোখেও স্প্রে করে জঙ্গিরা। এ সময় জজ আদালত চত্বরে এক ভীতিকর পরিস্তিতি সৃষ্টি হয়।

এ বিষয়ে ডিবিপ্রধান হারুন-অর রশীদ জানান, আশপাশের সবগুলো চেকপোস্টকে সতর্ক করা হয়েছে। আশা করি, খুব শিগগিরই পলাতক জঙ্গিদের আটক করতে সক্ষম হব।

উল্লেখ্য, পলাতক দুই জঙ্গি আবু সিদ্দিক ও মইনুল ইসলাম প্রকাশক ফয়সাল আরেফিন দীপন ও অভিজিৎ হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি।


আরও খবর



এবারও আগের নিয়মে একাদশে ভর্তি

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ১৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

উচ্চমাধ্যমিকে ভর্তি এবারও আগের নিয়মেই হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি। অর্থাৎ একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষার ফলাফলের ভিত্তিতে। ভর্তির জন্য কোনো পরীক্ষা হবে না। অনলাইনে হবে ভর্তির কাজটি।

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশ উপলক্ষে সোমবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে দীপু মনি এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, উচ্চমাধ্যমিকে ভর্তি যে পদ্ধতিতে হয়, এ বছরও সে পদ্ধতিতেই হবে। সেখানে কোনো ব্যত্যয় হবে না। আর ভর্তিতে আসনসংকট হওয়ার কোনো কারণ নেই। কারণ, যত শিক্ষার্থী পাস করে, তার চেয়ে আসনসংখ্যা অনেক বেশি আছে।


আরও খবর



গমের ফলন বাড়ানোর উপায়

প্রকাশিত:সোমবার ২১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গম আমাদের দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ ফসল। এটি চাষে পানির দরকার হয় কম। হেক্টরপ্রতি পানি লাগে ১৫ একর ইঞ্চি।গমে রোগ-বালাই ও পোকামাকড়ের আক্রমণও কম। ফলে খুব বেশি কীটনাশকের প্রয়োজন হয় না। তবে গমের ফলন বাড়াতে কিছু করণীয় আছে। জেনে নিন সেসব সম্পর্কে-

১. উঁচু ও মাঝারি দো-আঁশ মাটিতে গম চাষ ভালো হয়।

২. বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট উদ্ভাবিত উচ্চ ফলনশীল জাতের বীজ নির্বাচন করতে হবে।

৩. গম উচ্চ ফলনশীল জাতসমূহের বপনের উপযুক্ত সময় নভেম্বর মাসের ১৫-৩০ তারিখ পর্যন্ত।

৪. বীজ গজানোর হার ৮০ ভাগ বা তার বেশি হলে প্রতি শতকে আধা কেজি বীজ বপন করতে হবে।

৫. গজানোর হার ৮০ ভাগের কম হলে প্রতি ১ ভাগ কম গজানোর জন্য বিঘাপ্রতি ১৩০ গ্রাম করে অতিরিক্ত বীজ বপন করতে হবে।

৬. বপনের আগে প্রতি কেজি বীজের সঙ্গে ৩ গ্রাম হারে প্রোভেক্স-২০০ ডব্লিউ পি মিশিয়ে বীজ শোধন করতে হবে।

৭. লাইনে বা ছিটিয়ে গম বীজ বপন করা যায়।

৮. লাইনে বপনের জন্য জমি তৈরির পর ছোট লাঙল দিয়ে ৮ ইঞ্চি দূরে দূরে সারি তৈরি করে ২ ইঞ্চি গভীরে বীজ বপন করতে হয়।

৯. স্থানীয় কৃষি অফিস বা মাঠকর্মীর পরামর্শে সঠিক মাত্রায় সার ব্যবহার করতে হবে।

১০. উত্তরাঞ্চলের মাটিতে মাঝে মাঝে গমে চিটা দেখা যায়। এর ফলে ফলন কমে যায়।

১১. অনুমোদিত মাত্রায় জৈব ও রাসায়নিক সার প্রয়োগ করে বিঘা প্রতি ৮০০ গ্রাম বরিক এসিড বা ১ কেজি ৩০০ গ্রাম বোরাক্স প্রয়োগ করে চিটা দূর করা যায়।

১২. বীজ বপনের পর ১০-১২ দিন পর্যন্ত পাখি তাড়ানোর ব্যবস্থা করতে হবে।

১৩. নিয়মমাফিক সেচ ও আগাছা দমনের ব্যবস্থাপ করতে হবে।

১৪. গম ক্ষেতে ধানের মতো ঢালাওভাবে সেচ দেওয়া যাবে না। নালা বা ফিতা পাইপের মাধ্যমে পানি ছিটিয়ে দিতে হবে।

১৫. সঠিক সেচ ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে ফলন ৫৮% পর্যন্ত বাড়ানো সম্ভব।

১৬. বপনের ২৫-৩০ দিনের মধ্যে প্রথম সেচের পর একটি নিড়ানি দিলে ফলন প্রায় ১০-১২ ভাগ বাড়ে।

১৭. গম ক্ষেতে কখনোই কলা গাছ বা বরইয়ের কাঁটা টানা, মই দেওয়া যাবে না।

১৮. গমের প্রধান দুটি রোগ হচ্ছে পাতার মরিচা রোগ ও পাতার দাগ রোগ। এ ছাড়া মাজরা পোকার আক্রমণ দেখা দিতে পারে।

১৯. সঠিক পরামর্শে সঠিক মাত্রায় কীটনাশক প্রয়োগ করলে রোগ-বালাই দূর করা সম্ভব।

২০. ক্ষেতে ইঁদুরের আক্রমণ হলে ফাঁদ পেতে, গর্তে পানি ঢেলে বা বিষটোপ দিয়ে ইঁদুর দমন করা যেতে পারে।

২১. গম পেকে গেলে বা হলুদ হলে কাটতে হবে। রৌদ্রোজ্জ্বল দিনে সকালের দিকে কেটে দুপুরে মাড়াই করতে হবে।

নিউজ ট্যাগ: গমের ফলন

আরও খবর



শিশুর দাঁত ভালো রাখতে যা করবেন

প্রকাশিত:শনিবার ১২ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৭৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

শিশুর দাঁতের বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে ভোগান্তিতে পড়তে হয় বেশিরভাগ মা-বাবাকেই। শিশুর দাঁত ভালো রাখার দায়িত্ব কিন্তু মা-বাবারই। কারণ শিশু তার যত্ন নিজে নিতে পারে না। বিষয়টি এড়িয়ে গেলে পরবর্তীতে শিশকে দাঁত নিয়ে ভুগতে হতে পারে। শিশুর দাঁতের ক্ষয় রোধ করতে কী করতে হবে তা বেশিরভাগ মা-বাবাই বুঝতে পারে না। শিশুর দাঁত ভালো রাখতে মা-বাবাকে সচেতন হতে হবে। শিশুকে এই কাজগুলো শেখাতে হবে-

প্রতিদিন দুইবার দাঁত ব্রাশ করা: শিশুকে প্রতিদিন দুইবার দাঁত ব্রাশ করতে শেখান। সকালে ঘুম থেকে উঠে এবং রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে দাঁত ব্রাশ করলে দাঁতে জীবাণু বাসা বাঁধতে পারে না। নিয়মিত এই অভ্যাস করলে দাঁত ও মাড়ি ভালো রাখা সহজ হয়। তাই শিশুকে এই অভ্যাস করান।

ফ্লসিং: দাঁতের ফাঁকা থেকে খাদ্যকণা বের করতে ফ্লসিং বেশ কার্যকরী। ফলে খাদ্যকণা আটকে জীবাণু জন্মানোর ভয় থাকে না। নিয়মিত ফ্লসিং করলে মুখের ভেতরের স্বাস্থ্য ভালো থাকে এবং জীবাণুও জন্মে না। তাই শিশুকে নিয়মিত ফ্লসিং করা শেখান।

ক্যান্ডি খাওয়ার পরিমাণ কমাতে হবে: চিনিযুক্ত মিষ্টি খাবার বেশি খাওয়ার মানে হলো দাঁতে ক্যাভিটি তৈরির সুযোগ করে দেওয়া। এসব খাবারে প্রচুর চিনি ও স্টার্চ থাকে যা দাঁতের এনামেলের জন্য ক্ষতির কারণ হতে পারে। তাই শিশুকে চিনিযুক্ত খাবার যেমন ক্যান্ডি, কৃত্রিম জুস, কোমল পানীয় ইত্যাদি কম খেতে দিন।

ঠিকভাবে ব্রাশ করছে কিনা খেয়াল করুন: বেশিরভাগ শিশুর কাছে দাঁত ব্রাশ করা অপছন্দের কাজ হতে পারে। তারা হয়তো দাঁত ব্রাশের নাম করে ব্রাশ হাতে নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতে পারে। তাই শিশু ঠিকভাবে ব্রাশ করছে কিনা তা খেয়াল করুন। দাঁতের উপর-নিচ এবং সামনে ও ভেতরে সমানভাবে ব্রাশ করতে বলুন। আপনি সঠিক নিয়ম শিখিয়ে দিলে শিশুর জন্য কাজটি সহজ হবে।

নিয়মিত দাঁতের ডাক্তারের কাছে যান: শিশুকে নিয়মিত দাঁতের ডাক্তারের কাছে নিয়ে যান। দাঁতের কোনো সমস্যা শুরুতেই ধরা পড়লে চিকিৎসা নেওয়া সহজ হয়। আপনি যদি এই পাঁচটি কাজ শিশুকে শেখাতে পারেন তবে তার দাঁত নিয়ে আর দুশ্চিন্তা করতে হবে না। শিশুর দাঁতের সুস্থতা নিশ্চিত হবে, তার হাসি হবে প্রাণবন্ত।

নিউজ ট্যাগ: শিশুর দাঁত

আরও খবর