Logo
শিরোনাম

জাতীয় পতাকা দিবস আজ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০২ মার্চ 2০২1 | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ১০৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আজ ২ মার্চ, বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা দিবস। একাত্তরের এই দিনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবনে প্রথম জাতীয় পতাকা তোলা হয়েছিল। সবুজ জমিনের ওপর লাল বৃত্তের মাঝখানে সোনালি মানচিত্র খচিত পতাকা ওইদিন উত্তোলন করেছিলেন ডাকসুর সহ-সভাপতি আ স ম আবদুর রব।

তার পরের দিন ৩ মার্চ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উপস্থিতিতে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন মোহাম্মদ শাজাহান সিরাজ। তবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সর্বপ্রথম নিজ হাতে ধানমন্ডিতে তার নিজ বাসভবনে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেছিলেন ১৯৭১ সালের ২৩ মার্চ। আর বিদেশের মাটিতে সর্বপ্রথম অর্থাৎ ভারতের কলকাতায় বাংলাদেশ মিশনে বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছিল ১৯৭১ সালের ১৮ এপ্রিল।

পাকিস্তানি শাসকগোষ্ঠীর শোষণ, অন্যায়, অত্যাচার, অবিচারের বিরুদ্ধে তৎকালীন ডাকসু নেতাদের উদ্যোগে ২ মার্চ সাড়া দিয়েছিলের আমজনতা। প্রকৃতপক্ষে সেদিনের পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়েই বাঙালি ছাত্র-জনতা স্বাধীনতা সংগ্রামের অগ্নিমন্ত্রে উজ্জীবিত হয় এবং স্বাধীনতা অর্জনের পথে যাত্রা শুরু করে। পতাকা উত্তোলনই জানান দেয় স্বাধীন বাংলাদেশের বিকল্প নেই। দীর্ঘ ৯ মাসের বহু ত্যাগ, রক্তের বিনিময়ে স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশের অভ্যুদয় ঘটে। স্বাধীনতা সংগ্রামের ৯ মাস এই পতাকাই বিবেচিত হয় আমাদের জাতীয় পতাকা হিসেবে।

নিউজ ট্যাগ: পতাকা দিবস

আরও খবর

ঐতিহাসিক গণঅভ্যুত্থান দিবস আজ

রবিবার ২৪ জানুয়ারী ২০২১




নেশার টাকা না পেয়ে পরিবারের সবাইকে কুপিয়ে জখম করল ছেলে

প্রকাশিত:শনিবার ২০ মার্চ ২০21 | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ এপ্রিল ২০২১ | ৬৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নেশা করার টাকা না পেয়ে স্ত্রীসহ পরিবারের সবাইকে কুপিয়েছেন মোরশেদ (৩০) নামের এক ছেলে। শুক্রবার (১৯ মার্চ) রাত পৌনে ৮টার দিকে চট্টগ্রামের রাউজান উপজেলার গহিরা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের গহিরা গ্রামে ঘটেছে এ ঘটনা। মোরশেদ তার স্ত্রী এনি (২০), বাবা শামসুল আলম (৪৫), ভাই রাশেদ (৩৫), রাসেদের স্ত্রী তানজু বেগম (২৬), ভাতিজা ও ভাতিজিকে কুপিয়েছেন।

জানা গেছে, দুই বছর আগে দুবাই থেকে দেশে ফিরেন মোরশেদ। আর্থিক সংকটে দিন কাটছিল তার। তার নেশার অভ্যাস ছিল। পরিবারের কেউ টাকা না দেয়ায় দা দিয়ে সবাইকে কুপিয়ে আহত করে সে। আহতদের মধ্যে দুই জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

রাউজান থানার ওসি আবদুল্লাহ আল হারুন জানিয়েছেন, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। পুলিশ আসলে বিস্তারিত বলতে পারব।

নিউজ ট্যাগ: কুপিয়ে জখম

আরও খবর



যশোরের চৌগাছায় প্রবাসীর স্ত্রীর রক্তাক্ত ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

প্রকাশিত:রবিবার ১৪ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | ৬৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

যশোরের চৌগাছা উপজেলার চাকলা গ্রামে হাসু খাতুন (২৭) নামে এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি ওই গ্রামের আলাউদ্দিনের স্ত্রী। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মৃতের স্বামীকে আটক করেছে পুলিশ।

মৃতের পিতা মোহাম্মদ উল্লাহ জানান, ১০ বছর আগে একই গ্রামের আলাউদ্দিনের সাথে তার মেয়ে হাসুর বিয়ে হয়। জামাই জীবিকা নির্বাহের জন্য দুবাই থাকতেন। দুই বছর আগে তিনি জামাইয়ের কাছে এক লাখ ৪০ হাজার টাকায় একটি জমি বিক্রি করেন। জামাই আলাউদ্দিন ১০ দিন আগে দেশে ফিরেছেন। এরপর থেকেই ওই জমি ফিরিয়ে নিয়ে তাকে দুইলাখ টাকা দিতে হবে দাবি করে আসছিলো। গতকাল শনিবার সকালে আলাউদ্দিন শ্বশুর বাড়িতে এসে দুই লাখ টাকা এক দিনর মধ্যে ফেরত দিতে হবে বলে জানায়। এ সময় শ্বশুর মোহাম্মদ উল্লাহ টাকা দিতে অস্বীকার করলে জামাই আল্লাউদ্দিন রাগ করে শ্বশুর বাড়ি থেকে চলে যায়। আজ রবিবার সকালে জামাই তাকে মোবাইল করে জানায় তার মেয়ে হাসু গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে।

মৃতের পিতা মোহাম্মদ উল্লাহ অভিযোগ, তার মেয়ে গলাই ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেনি। মেয়ের শরীরের বিভিন্ন স্থানে খেঁজুরের কাটা ফোটানো আছে। তার লাশের বাম হাতের রগ কাটা অবস্থায় রয়েছে। বাম পায়েও ধারালে কিছু দিয়ে কাটার দাগ রয়েছে। এটি পরিকল্পিত হত্যা। তিনি হত্যার বিচার দাবি করেছেন।

চৌগাছা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম সবুজ জানান, মৃত্যুতে রহস্য আছে। প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে এটি খুন। লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য মৃতের স্বামীকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়।



আরও খবর

মাইক্রোবাসের ধাক্কায় কৃষক নিহত, আহত ২

বৃহস্পতিবার ০৮ এপ্রিল ২০২১




কওমি মাদরাসাসহ সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৪৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কওমি মাদরাসাসহ সব ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন। সোমবার (২৯ মার্চ) সচিবালয়ে করোনা প্রতিরোধে সরকারের নতুন ১৮ দফা নির্দেশনা নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে প্রতিমন্ত্রী একথা জানান।

করোনার মধ্যে অন্য সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও কওমি মাদরাসায় পাঠদান চলছিল। স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় ২২ মের পর খুলবে বলে ইতোমধ্যে ঘোষণা দিয়েছে সরকার। এবার কওমি মাদরাসাও বন্ধ থাকার সিদ্ধান্ত দেওয়া হলো।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস স্বাক্ষরিত নির্দেশনার ১০ নম্বরে বলা হয়, সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান (প্রাক-প্রাথমিক, প্রাথমিক, মাদরাসা, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বিশ্ববিদ্যালয়) ও কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে।

গত বছরের ৮ মার্চ দেশে করোনা শনাক্তের পর ১৮ মার্চ থেকে কওমি মাদরাসাসহ সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হলেও পরে কওমি মাদরাসাগুলো খুলে দেওয়া হয়।

নতুন নির্দেশনায় কওমি মাদরাসাগুলো বন্ধ থাকবে কিনা- প্রশ্নে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা এখানে উল্লেখ করে দিয়েছি প্রাক-প্রাথমিক, প্রাথমিক, মাদরাসা, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, বিশ্ববিদ্যালয় ও কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে। কোনো রকম শিক্ষার্থী আপাতত আসবে না। তবে অনলাইনে ক্লাস চলবে।

মাদরাসার কথা স্পষ্টভাবে উল্লেখ করা আছে। এখানে কওমি না, সব মাদরাসা, সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবং কোচিং সেন্টার বন্ধ থাকবে। সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, মাদরাসা সব জায়গায় বন্ধ থাকবে। কারণ এটা ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ছে। এটা যদি রোধ করতে না পারি তাহলে সমস্যা হবে।

জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমার কাছে রিপোর্ট আছে যারা ইসলামিক ওয়াজে উপস্থিত ছিলেন তারা অনেকে আক্রান্ত হয়েছে। যারা খাদেম হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছে। করোনা হচ্ছে একটা ভাইরাস, সেটা কাউকে ছাড়বে না। কেউ অন্য কিছু বিশ্বাস করে যদি করোনাকে ভয় না করেন, ভয় না পাওয়া অযৌক্তিক, আপনাকে অবশ্যই সুরক্ষায় রাখতে হবে।


আরও খবর



বিক্ষোভ ও মিছিলে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে মাদ্রাসার শিশু শিক্ষার্থীদের

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৪৩৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

হেফাজতে ইসলামের দেশব্যাপী বিক্ষোভ ও মিছিলে ব্যবহার করা হয়েছে মাদ্রাসার শিশু শিক্ষার্থীদের। চট্টগ্রামের হাটহাজারী, পটিয়া, ফটিকছড়ি ছাড়াও ঢাকার বিভিন্ন এলাকায় ভোরের আলো ফুটতেই এসব ক্ষুদে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের রাস্তায় দেখা গেছে।

গত শুক্রবার বায়তুল মোকাররমের সংগঠিত সংঘর্ষের ঘটনার পর থেকে বিভিন্ন স্থানে সহিংসতার শিকার হয়েছে অসংখ্য শিশু। হাটহাজারীতে শুক্রবারের সংঘর্ষের ঘটনায়  আহত ৯ ক্ষুদে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা  দিয়েছে স্থানীয়রা।

গত রবিবার ব্রাহ্মণবাড়িয়া, ফেনী, সিলেটে চরম সহিংসতায় শিশুদের ব্যবহার করা হয়েছে ঢাল হিসেবে। বিশেষ করে হরতালের সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল নিক্ষেপ, গাড়িতে অগ্নিসংযোগ এবং রাস্তায় ব্যারিকেড তৈরি করতে শিশুদের ব্যবহার করা হয়েছে দেশের বিভিন্ন এলাকায় ।

জাতিসংঘের ইউনিসেফের পক্ষ থেকে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডে শিশুদের ব্যবহার করার জন্য উদ্বেগ প্রকাশ করা হলেও হেফাজতে ইসলামের  মিছিল ও বিক্ষোভের অগ্রভাগে শিশুদের ঢাল হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।

জানতে চাইলে শিশু ও মনোরোগ পরামর্শক ফজিলেতুন নেসা শাপলা বলেন, কোমলমতি শিশুদের যখন লেখাপড়া এবং খেলাধুলা করার কথা, তখন তাদের সহিংস কাজে নৃশংসভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে। যা সম্পূর্ণ বেআইনি এবং চরম মানবতাবিরোধী। রাজনীতিতে হীনম্মন্যতার কাজে ব্যবহারের ফলে শিশুরা শিশুসুলভ আচরণ ভুলে যায়। আচরণে একধরনের উন্মাদনা দেখা দেয়।

সাম্প্রতিক সময়ে দেশের রাজনৈতিক সহিংসতায় শিশুরা আক্রান্ত হওয়ায় বেশ কয়েকবার উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ইউনাইটেড নেশনস চিলড্রেনস ফান্ড (ইউনিসেফ)।  ঢাকাস্থ ইউনিসেফের কার্যালয়ের বিভিন্ন  প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ উদ্বেগের কথা জানানো হয়েছে।

আশঙ্কাজনকভাবে শিশুরা আন্দোলনের শিকার হচ্ছে। তাই রাজনৈতিক সুবিধার জন্য শিশুদের ব্যবহার অবশ্যই বন্ধ করতে হবে। নির্বাচনের আগে ও চলাকালে শিশুদের নিরাপদ আশ্রয় নিশ্চিত করতে হবে। সব দেশে রাজনৈতিক কোলাহল থেকে শিশুদের নিরাপদে রাখতে রাজনৈতিক দলের দায়বদ্ধতা রয়েছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা ।


আরও খবর



হালালভাবে জবাই নিষিদ্ধ করলো ফ্রান্স

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৩ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৮ এপ্রিল ২০২১ | ৬২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
আগামী জুলাই থেকে পোল্ট্রি প্রাণী হালাল পন্থায় জবাই নিষিদ্ধ হবে। এটা ইসলাম ধর্মের সুস্পষ্ট নীতির লঙ্ঘন বলে নিজেদের উদ্বেগের কথা জানিয়েছে ফ্রান্সে মুসলিম কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ

ধর্মীয় নিয়ম মেনে পোল্ট্রি প্রাণি (হাঁস-মুরগি) হালাল পন্থায় জবাই নিষিদ্ধ করেছে ফ্রান্স। দেশটির কর্তৃপক্ষের এমন নিষেধাজ্ঞায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ফ্রান্সের মুসলিম নেতৃবৃন্দ। ফরাসি সরকারের এমন সিদ্ধান্তের ফলে ইসলামী নিয়ম অনুযায়ী জবাইকৃত প্রাণীর হালাল মাংস সরবরাহ বন্ধ হয়ে যাবে।

সরকারের এমন নিষেধাজ্ঞার পর প্যারিসের মসজিদ পরিচালক চেমসেদিন হাফিজ, লিঁও মসজিদ পরিচালক কামেল কাপটান ও এভরি মসজিদের পরিচালক খলিল মারুন বিবৃতি দিয়েছেন। তাদের বিবৃতিতে বলা হয়, ফ্রান্সের কৃষি ও খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সাম্প্রতিক প্রজ্ঞাপন দেশটির মুসলিম জনগোষ্ঠীর জন্য নেতিবাচক বার্তা বহন করে।

ফ্রান্সের কৃষি ও খাদ্য মন্ত্রণালয়ের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়েছে, আগামী জুলাই থেকে পোল্ট্রি প্রাণী হালাল পন্থায় জবাই নিষিদ্ধ হবে। এটা ইসলাম ধর্মের সুস্পষ্ট নীতির লঙ্ঘন বলে নিজেদের উদ্বেগের কথা জানিয়েছে ফ্রান্সে মুসলিম কমিউনিটির নেতৃবৃন্দ।

উল্লেখ্য, বেলজিয়াম ও ফ্রান্সসহ ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশ হালাল মাংসের বিরুদ্ধে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। ইউরোপের কিছু প্রাণী অধিকার গ্রুপের মতে, ধর্মীয় নীতিতে জবাইয়ের ক্ষেত্রে ইসলামী হালাল নীতি ও ইহুদিদের কোশের নিয়ম তুলনামূলক কম মানবিক।


আরও খবর

মিয়ানমারে সেনা অভিযানে নিহত ৮২

রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১