Logo
শিরোনাম

জেনে নিন মাছের ডিমের ১০টি উপকারিতা

প্রকাশিত:শনিবার ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৯২জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভাত খাওয়ার সময় পাতে মাছ না থাকলে যেন খাবারের প্রতি মনটাই বসতে চায় না। খাবারের সময় মাছের প্রতি আগ্রহ যেন কখনো কমার মতো নয়। তবে এমন অনেকেই আছেন যারা মাছ খেতে খুব একটা পছন্দ করেন না। কিন্তু মাছের ডিম খেতে তারা সবার আগে এগিয়ে। বেশি ভাগ মানুষের কাছে খুব প্রিয় খাবার মাছের ডিম আর এতেই রয়েছে নানান উপকারিতা। দেখে নেওয়া যাক সেগুলো কী..

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে

মাছের পাশাপাশি মাছের ডিমে থাকা প্রয়োজনীয় উপাদান শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে।

রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিস হ্রাস করে

গবেষকদের মতে, মাছ ও মাছের ডিমে থাকা ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড রিউম্যাটয়েড আর্থ্রাইটিস এর লক্ষণগুলো হ্রাস করতে সহায়তা করে।

হাড় শক্ত হয়

মাছের ডিমের মধ্যে থাকে ভিটামিন-ডি যা হাড় শক্ত করতে সাহায্য করে। পাশাপাশি দাঁতকে মজবুত ও ভালো রাখতে সাহায্য করে।

মস্তিষ্কের স্বাস্থ্য উন্নতি করে

মাছের ডিমে থাকা EPA, DHA ও DPA এক ধরনের ফ্যাটি অ্যাসিড মস্তিষ্কের স্বাস্থ্য উন্নতি করতে সহায়তা করে।

চোখ ভালো রাখে

মাছের ডিমের মধ্যে থাকা ভিটামিন-এ চোখ ভালো রাখতে সাহায্য করে। এ ছাড়া ডিএইচএ ও ইপিএ শিশুদের চোখের জ্যোতি বৃদ্ধি করতে এবং রেটিনার কার্যকারিতাকে উন্নত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।

অ্যানিমিয়া থেকে মুক্তি

মাছের ডিমে থাকা স্বাস্থ্যকর উপাদান গুলো রক্ত পরিষ্কার করে এবং হিমোগ্লোবিন বাড়িয়ে তোলে যা অ্যানিমিয়া থেকে মুক্তি পেতে খুবই সহায়ক।

হার্টের সমস্যা প্রতিরোধ করে

মাছের ডিমে থাকা ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড এবং ভিটামিন-ডি হার্টের অসুখ প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।

রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ হয়

মাছের ডিমের ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড যা দেহের ভিতরে রক্ত জমাট বাঁধতে না দেওয়া এবং প্রদাহ হ্রাস করতে সহায়তা করে যা উচ্চ রক্তচাপের হাত থেকে দেহকে রক্ষা করে থাকে।

নিউজ ট্যাগ: মাছের ডিম
Share

আরও খবর

কেমন যাবে আপনার দিন ?

রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১




মিথ্যা প্রচারের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেবেন নাসির

প্রকাশিত:বুধবার ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৬৮জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মিথ্যা প্রচারের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেবেন বলে জানিয়েছেন ক্রিকেটার নাসির হোসেন। বুধবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) স্ত্রী তামিমা তাম্মিকে সঙ্গে নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে এমনটি জানিয়েছেন তিনি।

এর আগে বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে (১৪ ফেব্রুয়ারি) বিয়ে করেন নাসির। পরে ১৯ ফেব্রুয়ারি হয়েছে বিবাহোত্তর সংবর্ধনা। তবে এরই মধ্যে অভিযোগ উঠেছে আগের স্বামীকে তালাক না দিয়েই নাসিরকে বিয়ে করেছেন স্ত্রী তামিমা তাম্মি।

তবে এদিন নাসির বলেন, সংবাদ মাধ্যমে যেসব তথ্য আসছে তা সত্যি নয়। আর যারা মিথ্যে প্রচার করছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

নাসিরের বিয়ে নিয়ে তৈরি হয় নতুন সমস্যা। তার স্ত্রী তামিমা তাম্মির এর আগে বিয়ে হয়েছিল রাকিব নামের একজনের সঙ্গে। ১০ বছর আগে রাকিবের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল তামিমার। নিকাহনামায় উল্লেখ করা আছে ২০১১ সালের ২৬ ফেব্রুয়ারি ৩ লাখ টাকা দেন মোহরে বিয়ে হয় তাদের।

স্বামী মো. রাকিব হাসানকে তালাক না দিয়েই জাতীয় দলের নাসির হোসেনের সঙ্গে বিয়ে করেছেন তামিমা তাম্মি। এ নিয়ে উত্তরা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন রাকিব। সেই ডায়েরিতে উঠে এসেছে নতুন এত তথ্য। তিনি দাবি করেন, রাকিব-নাসির ছাড়াও অন্য একজনের সঙ্গে ছয় মাস সংসার করছেন তমিমা।

উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি জিডি করেন রাকিব। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আক্তারুজ্জামান ইলিয়াস। জিডির নম্বর ১৩/২৬।

সাধারণ ডায়েরি সূত্রে জানা যায়, ২০১১ সালে তামিমা তাম্মিকে বিয়ে করেন রাকিব। দাম্পত্য জীবনে তাদের একটি মেয়ে রয়েছে। এর মধ্যেই তামিমা অন্য এক ছেলের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ায়। ছয় মাস সংসার করার পর ফিরে আসে। পরে রাকিবের সঙ্গে ক্ষমা চেয়ে পার পায়। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি নতুন করে নাসিরের সঙ্গে ছবি ভাইরাল হলে রাকিব জানতে পারেন, তামিমা বিয়ে করেছেন।

জিডি করার কারণ উল্লেখ করে রাকিব বলেন, সংসারজীবনে বিবাদীর কাছে অনেক টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার রাখা আছে। এমনকি আমাকে তালাকও দেননি। টাকা ও অলঙ্কার চাইলে বিবাদী আমাকে ক্ষতি করবে বলে হুমকি দিয়েছেন।

Share

আরও খবর



ভাষা আন্দোলন করতে গিয়েই শেখ মুজিব জেলে ছিলেন

প্রকাশিত:রবিবার ২১ ফেব্রুয়ারী 20২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৭৪জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ১৫ আগস্টের হত্যাকাণ্ডের মধ্যে দিয়ে ইতিহাস থেকে শেখ মুজিবকে মুছে ফেলতে চেষ্টা করা হয়েছে। ভাষা আন্দোলন করতে গিয়েই শেখ মুজিব জেলে ছিলেন। রবিবার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইন্সটিটিউটে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তিনি যুক্ত ছিলেন।

এই অনুষ্ঠানে মাতৃভাষা সংরক্ষণ, পুনরুজ্জীবন, বিকাশ, চর্চা, প্রচার-প্রসারে অবদানের জন্য জাতীয় অধ্যাপক মোহাম্মদ রফিকুল ইসলামসহ তিন ব্যক্তি এবং এক প্রতিষ্ঠানের কাছে প্রথমবারের মতো তুলে দেওয়া হয় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা পদক

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ভাষা জাতির পরিচয় এবং তাই আমাদের সম্মান দেয়। মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনেই জাতির পিতা কাজ করছেন। মায়ের ভাষার অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে যেয়েই জাতির পিতা মুক্তির স্বপ্ন দেখেছিলেন।

আন্তজার্তিক যোগাযোগের মাধ্যম যেমন গুরুত্ব দিতে হবে তেমনি মাতৃভাষাকাকেও গুরুত্ব দিতে হবে। কুচক্রীমহল ইতিহাস থেকেই জাতির পিতাকে মুছে ফেলতে চেষ্টা করছে। শুধু বাংলা নয় বিশ্বের হারিয়ে যাওয়া ভাষা সংরক্ষণকে গুরুত্ব দিয়েই সরকার আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইন্সটিটিউকে আধুনিক ও যুগোপযোগী করা হচ্ছে। করোনা ভাইরাসের বাধা অতিক্রম করেই দেশ আরও আগ্রগতি উন্নতিতে এগিয়ে যাবে।

Share

আরও খবর



খোলামেলা লুকে বিপাকে পড়লেন সোহিনী

প্রকাশিত:শনিবার ২৭ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৯০জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সোহিনী সরকার, কলকাতার এই অভিনেত্রী মানেই যেন বাঙালি লুক। ওগো বধূ সুন্দরী হোক কিংবা সত্যবতী বা বিবাহ অভিযান বা ক্রিসক্রস। সিরিয়াল বা সিনেমা সবখানেই শাড়ি, টিপে সেজে যখন প্রকাশ্যে আসেন, তাকে দেখে প্রশংসায় ভরিয়ে দেন নেটিজেনরা।

এবার খোলামেলা লুকে হাজির হয়েই বিপাকে পড়লেন সোহিনী সরকার। কালো রঙের হাই স্লিট পোশাক পরে সোহিনী যখন ফটোশুট করেন, তা অভিনেত্রীর ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে প্রকাশ করা হয়। সোহিনী সরকারের ওই ছবি দেখে অনেকে কটাক্ষ শুরু করেন।

ভীষণ অশ্লীল, কদর্য শব্দ ব্যবহার করে তাকে আক্রমণ করা হয়। কেন তিনি এ ধরনের পোশাক পরে ফটোশুট করলেন এই প্রশ্ন করেন অনেকে। তবে খারাপ মন্তব্যের শিকার হয়েও সোহিনী এ নিয়ে মুখ খোলেননি।

নিউজ ট্যাগ: সোহিনী
Share

আরও খবর



ঢাকা-জলপাইগুড়ি ট্রেন চলাচল শুরু আগামী ২৬ মার্চ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৮৩জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ভারতের জলপাইগুড়ি (এনজেপি) ও ঢাকার মধ্যে চালু হচ্ছে রেল যোগাযোগ। আগামী ২৬ মার্চ থেকে এই রেল সেবা চালু হবে। সপ্তাহে দুদিন এই ট্রেন চলাচল করবে।

সোম এবং বৃহস্পতিবার ট্রেনটি এনজেপি থেকে ছেড়ে আসবে এবং ঢাকা ক্যান্টনমেন্ট স্টেশন থেকে ছাড়বে মঙ্গল এবং শুক্রবার।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম দ্য টেলিগ্রাফ অনলাইনের খবরে বলা হয়েছে, বিরতিহীন ৯ ঘণ্টার যাত্রায় ট্রেনটি গন্তব্যে পৌঁছবে। ১০টি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কোচ নিয়ে একটি ডিজেল ইঞ্জিনের মাধ্যমে এটি চলবে। জলপাইগুড়ি থেকে ঢাকার দূরত্ব ৫৩০ কিলোমিটার। এর মধ্যে বাংলাদেশ অংশে রয়েছে ৪৪৬ কিলোমিটার।

গত ডিসেম্বরে দুই দেশের প্রধানমন্ত্রীর ভার্চুয়াল বৈঠকে এই রেলপথ চালুর উদ্যোগ নেয়া হয়।

এরপর বুধবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) দুই দেশের কর্মকর্তাদের বৈঠকে ট্রেন চালুর চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন পাকশি রেলওয়ে বিভাগের ম্যানেজার মো. শহিদুল ইসলাম এবং ভারতের পক্ষে কাটিহার বিভাগের ম্যানেজার রবীন্দ্র কুমার ভার্মা।

বৈঠক শেষে মি. ভার্মা ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, মূলত পর্যটন শিল্পকে সামনে রেখেই এই রেল পরিষেবা চালু করা হচ্ছে। প্রথম পর্যায়ে সপ্তাহে দুদিন এই ট্রেন চলবে। ২৬ মার্চ এনজেপি থেকে দুপুর ২টায় ট্রেনটি যাত্রা শুরু করবে। দুই দেশের প্রধানমন্ত্রী ভার্চুয়ালি এর উদ্বোধন করবেন।

এর আগে দুই দেশের মধ্যে দুটি রেল পরিষেবা চালু হয়। ২০০৮ সালের ১৪ এপ্রিল চালু হয় মৈত্রী এক্সপ্রেস। বন্ধন এক্সপ্রেস চালু হয় ২০১৭ সালের ৯ নভেম্বর। নতুন এই ট্রেনটি হবে দুই দেশের মধ্যে তৃতীয় ট্রেন।

Share

আরও খবর



দেশের প্রথম ৮ লেনের সেতু হবে গাবতলীতে: কাদের

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ০৭ মার্চ ২০২১ | ৭৭জন দেখেছেন
Share
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
সাভার অঞ্চলের যেসব স্থানে সড়ক মহাসড়কের ওপর বাজার রয়েছে সেসব স্থানে যানজট নিরসনে বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের গাবতলী থেকে সাভারের নবীনগর পর্যন্ত ১০ লেনে উন্নতিকরণের পরিকল্পনা হাতে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

এছাড়া রাজধানীর প্রবেশ মুখের ব্যস্ততম গাবতলী সেতুটিও বাংলাদেশের মধ্যে সর্বপ্রথম আট লেনের সেতু করা হবে। অতিদ্রুত সেতুর কাজ শুরু করা হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

আজ মঙ্গলবার সকালে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের দ্বিতীয় সালেহপুর সেতুর নির্মাণ কাজের সূচনা অনুষ্ঠানে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে যোগ দিয়ে তিনি এসব কথা জানান।

এ সময় তিনি আরও জানান, সাভার অঞ্চলের যেসব স্থানে সড়ক মহাসড়কের ওপর বাজার রয়েছে সেসব স্থানে যানজট নিরসনে বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। এছাড়া তিনি আরও বলেন, সড়ক মহাসড়কগুলো চার লেন, ছয় লেন বা আট লেন করা হলেও যদি সড়কের ব্যবস্থাপনা ও দক্ষতা বাড়ানো না হয় তাহলে সেগুলো কোনও কাজে আসবে না।

Share

আরও খবর