Logo
শিরোনাম

জলঘোলা করলে রাজপথে সমুচিত জবাব : কাদের

প্রকাশিত:বুধবার ০৯ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৮৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের এমপি বলেছেন, বিএনপির বহুদলীয় গণতন্ত্র ছিল বহুদলীয় তামাশা। ক্ষমতায় যেতে ফখরুল সাহেবরা রঙিন চশমার ফাঁক দিয়ে রঙিন খোয়াব দেখছেন।

তিনি বলেন, বিএনপি আন্দোলনের নামে সহিংসতা সৃষ্টি করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চাইলে সরকার রাজপথে সমুচিত জবাব দেবে।

আজ বুধবার (৯ জুন) সকালে তার সরকারি বাসভবনে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে তিনি এসব মন্তব্য করেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, দলীয় লোককে তত্তাবধায়ক সরকারের প্রধান করতে চেয়ে বিএনপি ওয়ান ইলেভেনের প্রধান কারণ সৃষ্টি করেছিলে। ২০০৬ সালে ১ কোটি ২৫ লাখ ভুয়া ভোটার দিয়ে বিএনপি গণতন্ত্রের কফিনে শেষ পেরেক মারতে চেয়েছিল। হ্যাঁ-না ভোটের মাধ্যমে বিএনপিই গণতন্ত্রকে হত্যা করেছিল।

১৯৭৮ সালে সামরিক উর্দি পরে অস্ত্রের মুখে বিচারপতি সায়েমকে সরিয়ে কে প্রশ্নবিদ্ধ নির্বাচন করে রাষ্ট্রপতি হয়েছিল, বিএনপি নেতাদের স্মরণ করে দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির গণতন্ত্র ছিল কারফিউ গণতন্ত্র। ১৫ ফেব্রুয়ারির ভোটারবিহীন নির্বাচন কোন গণতন্ত্র?

বিরোধী দল হিসেবে গণতন্ত্রের বিকাশে বিএনপি কি ভূমিকা রেখেছে জাতি তা জানতে চায় উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরও বলেন, সর্বশেষ নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়ে বিএনপি আবারও প্রমাণ করেছে, তারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না।

বিচারপতিদের বয়স বাড়িয়ে বিএনপি দলীয় লোক কে এম হাসানকে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের প্রধান করতে চেয়েছিল বিএনপি, জনগণকে স্মরণ করে দিয়ে ওবায়দুল কাদের জানান, সেই পরিস্থিতিই বাংলাদেশে ওয়ান ইলেভেন সৃষ্টির মূল কারণ।

ওবায়দুল কাদের বলেন, সংবিধান সম্মতভাবে পৃথিবীর অন্যান্য গণতান্ত্রিক দেশের মতো যথাসময়ে নির্বাচন হবে। অবাধ, নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে সরকার নির্বাচন কমিশনকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে। বিএনপি ক্ষমতার পরিবর্তন চাইলে আগামী নির্বাচনের জন্য অপেক্ষা করতে হবে। তারাতো গণ-অভ্যুত্থানের মাধ্যমে সরকার পরিবর্তনের দুঃস্বপ্ন দেখেছে?

ওবায়দুল কাদের বিএনপিকে আবারও হুঁশিয়ার করে বলেন, আন্দোলনের নামে সহিংসতা সৃষ্টি করে ঘোলা পানিতে মাছ শিকার করতে চাইলে, সরকার সমুচিত জবাব দিবে রাজপথে।


আরও খবর



পিরিয়ডের সময় জ্বরে যেসব খাবার খাবেন

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ১৫ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৫৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঋতু পরিবর্তনের এই সময়ে সাধারণ জ্বর হচ্ছে। জ্বর হলেই করোনা হয়েছে ভেবে ভয় পাওয়া বা অযথা আতঙ্কিত হওয়া উচিত নয়।

তবে জ্বর মানেই খাওয়ায় অরুচি। প্রিয় খাবারও জ্বরের সময় পানসে লাগে। জ্বর বেশি হলে হজম ক্ষমতা কমে যায় ও শরীর দুর্বল হয়ে পড়ে। তবে দ্রুত সুস্থতার জন্য এসময় সঠিক খাদ্যতালিকা মেনে চলা প্রয়োজন। 

ভিটামিন প্রোটিন জাতীয় খাবার বেশি করে খেতে হবে। সেই সঙ্গে খেতে হবে-

তুলসি, আদা, লেবু ও লবঙ্গ চা। এই চা গলা ব্যথা, খুসখুসে কাশি ও মাথাব্যথার ভেষজ ওষুধ হিসেবে কাজ করে। 

জ্বরের সময় প্রচুর পানি করা প্রয়োজন। পানির পাশাপাশি বিভিন্ন মৌসুমী ফলের জুসও খেতে পারেন। এসময় লেবু কমলা ও মালটার জুস খেলে দ্রুত মুখে রুচি ফিরে আসবে

বেশিরভাগ সময় ঠাণ্ডা থেকেই জ্বর হয়। জ্বরে আরাম পেতে দুবেলা টমেটো বা গাজরের স্যুপ খেতে পারেন। স্যুপ শরীরের ব্যাকটেরিয়া প্রতিরোধে সহায়তা করে। 

প্রায়ই বৃষ্টি হবে এখন থেকে। তাই করোনার এই সময়ে বাইরে গেলে ছাতার সঙ্গে অবশ্যই কাছে বাড়তি মাস্ক রাখতে হবে। কোনো কারণে বৃষ্টিতে ভিজে গেলে বা নষ্ট হলে বাড়তিটা কাজে দেবে। 

যদি জ্বর (১০০ ডিগ্রি ফারেনহাইটের বেশি) অনুভূত হয়, সঙ্গে মাথাব্যথা,  শরীরে ব্যথা, শ্বাসকষ্ট, গলায় ব্যথা করে বা চোখ লাল থাকে, তবে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ। 



আরও খবর

যে ৫ খাবার লিভারের চর্বি দূর করে

বৃহস্পতিবার ১৭ জুন ২০২১




করোনায় মৃত্যু আরও ৩০ জনের, শনাক্ত ১৯৭০

প্রকাশিত:সোমবার ০৭ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৮৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

করোনাভাইরাসে গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে।  এ নিয়ে দেশে করোনায় মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়াল ১২ হাজার ৮৬৯ জনে।

এই সময়ে নতুন করে করোনা আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১ হাজার ৯৭০। এ নিয়ে দেশে এ ভাইরাস শনাক্ত হওয়া মোট রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৮ লাখ ১২ হাজার ৯৬০ জনে।

সোমবার স্বাস্থ্য অধিদফতরের এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাতে রোগী শনাক্তের হার ১১ দশমিক ৪৭ শতাংশ আর এখন পর্যন্ত দেশে করোনাতে শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৪০ শতাংশ। শনাক্ত বিবেচনায় সুস্থতার হার ৯২ দশমিক ৬৫ শতাংশ আর শনাক্ত বিবেচনায় মৃত্যুহার এক দশমিক ৫৮ শতাংশ।

গত চব্বিশ ঘণ্টায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন এক হাজার ৯১৮ জন, তাদের নিয়ে দেশে করোনা থেকে সুস্থ হলেন সাত লাখ ৫৩ হাজার ২৪০ জন। এই সময়ে করোনার নমুনা সংগৃহীত হয়েছে ১৭ হাজার ৬৬৬টি আর নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ১৭ হাজার ১৬৯টি। দেশে এখন পর্যন্ত করোনার মোট নমুনা পরীক্ষা হয়েছে ৬০ লাখ ৬৭ হাজার ৪২টি। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ৪৪ লাখ ২৫ হাজার ৮২৮টি আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় পরীক্ষা হয়েছে ১৬ লাখ ৪১ হাজার ২১৪টি।


আরও খবর



গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ২২ জন

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ২৭ মে ২০২১ | হালনাগাদ:শনিবার ১৯ জুন ২০২১ | ১০৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বিশ্বব্যাপী তাণ্ডব চালানো মহামারি করোনাভাইরাসে দেশে গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ২২ জন। এ নিয়ে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৪৮০ জন। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে নতুন করে করোনা শনাক্ত হয়েছেন আরও ১ হাজার ২৯২ জন। দেশে এখন পর্যন্ত মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ লাখ ৯৪ হাজার ৯৮৫ জনে।

করোনাভাইরাস নিয়ে বৃহস্পতিবার (২৭ মে) বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে এ তথ্য জানানো হয়েছে। এ ছাড়া গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ১ হাজার ২৯১ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ হয়েছেন ৭ লাখ ৩৫ হাজার ১৫৭ জন। এদিন মোট করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে ১৫ হাজার ৯১৫ জনের।

এর আগে বুধবার (২৬ মে) দেশে করোনায় ১৭ জন মারা যান, আর নতুন করে শনাক্ত হয় ১ হাজার ৪৯৭ জন।

এদিকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডওমিটারের তথ্যানুযায়ী, বৃহস্পতিবার (২৭ মে) সকাল ৮টা পর্যন্ত পূর্ববর্তী ২৪ ঘণ্টায় বিশ্বে মারা গেছেন আরও প্রায় ১২ হাজার ৩২৭ জন মানুষ এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৫ লাখ ৫৮ হাজার ৪১৭ জন। এ নিয়ে বিশ্বে এখন পর্যন্ত মোট করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৩৫ লাখ ১২ হাজার ১৮৭ জনের এবং আক্রান্ত হয়েছেন ১৬ কোটি ৯০ লাখ ৭৬ হাজার ১৬৮ জন। এদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১৫ কোটি ৭ লাখ ২ হাজার ৮৭৭ জন।

করোনায় এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি সংক্রমণ ও মৃত্যু হয়েছে বিশ্বের ক্ষমতাধর দেশ যুক্তরাষ্ট্রে। তালিকায় শীর্ষে থাকা দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনা সংক্রমিত হয়েছেন ৩ কোটি ৩৯ লাখ ৭১ হাজার ২০৭ জন। মৃত্যু হয়েছে ৬ লাখ ৬ হাজার ১৭৯ জনের।

নিউজ ট্যাগ: করোনাভাইরাস

আরও খবর



ভাসানচর বিশ্বের জন্য উদাহরণ হতে পারে : জাতিসংঘ

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২৫ মে ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৭১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের জন্য তৈরি বাংলাদেশের ভাসানচর প্রকল্পকে বিশ্বের জন্য একটি উদাহরণ বলে বর্ণনা করেছে জাতিসংঘ। ঢাকা সফররত সংস্থাটির ৭৫তম অধিবেশনের সভাপতি ভলকান বাজকির আজ মঙ্গলবার (২৫ মে) এই মন্তব্য করেন।

রাজধানীর ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের সঙ্গে বৈঠক শেষে গণমাধ্যমে কথা বলেন ভলকান বাজকির। এ সময় শরণার্থীদের জন্য বাংলাদেশের উদ্যোগের ভূয়সী প্রশংসা করেন তিনি।

ভাসানচরে যেতে না পারলেও একটা ভিডিও দেখেছেন জানিয়ে ভলকান বাজকির বলেন, রোহিঙ্গাদের আশ্রয় দিয়ে সাহসী উদ্যোগ নিয়েছে ঢাকা। এ জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রশংসা করেন তিনি।

বিশ্বের জন্য বাংলাদেশের অগ্রগতি উদাহরণ হতে পারে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আর্থ-সামাজিক ও অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অনেক এগিয়ে গেছে বাংলাদেশ। এলডিজি অর্জনের মাধ্যমে বিশ্বে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। জলবায়ু ইস্যুতে বিশ্বকে আশা দেখাচ্ছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব।

গণমাধ্যমের স্বাধীনতার বিষয়ে ভলকান বাজকির বলেন, আরো স্বাধীনতা থাকা উচিত মুক্ত গণমাধ্যম ও সাংবাদিকদের। এ সময় বেলারুশের ভিন্নমতাবলম্বী সাংবাদিক রোমান প্রোতাসেভিচকে গ্রেপ্তারের তীব্র নিন্দাও জানান তিনি।

২ হাজার ৩১২ কোটি টাকা ব্যয়ে তৈরি ভাসানচর শিবিরে এক লাখের বেশি রোহিঙ্গার থাকার ব্যবস্থা রয়েছে। আন্তর্জাতিক মহলের আপত্তি সত্ত্বেও এরইমধ্যে সেখানে ৫ দফায় ১২ হাজার ২৮৪ রোহিঙ্গাকে স্থানান্তর করা হয়েছে।

প্রথমে ভাসানচরে রোহিঙ্গাদের স্থানান্তরের বিরোধিতা করে বিবৃতি দিয়েছিল জাতিসংঘ। পরে গত ১৭ মার্চ প্রকল্পটি পরিদর্শন করেন সংস্থাটির ১৮ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল।

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে কোনো অস্পষ্টতা থাকা ঠিক নয় উল্লেখ করে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের সভাপতি ভলকান বাজকির বলেন, ছয় সপ্তাহ আগে সাধারণ পরিষদে মিয়ানমার নিয়ে আলোচনা হলেও দ্বিধাবিভক্তি লক্ষ্য করা গেছে। আগামীকাল (২৬ মে) কক্সবাজারে গিয়ে মিয়ানমারের উদ্দেশে বার্তা দেবেন বলেও জানান তিনি।

বৈঠকের বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যু, জলবায়ু ইস্যু, এসডিজি অর্জনে টাকা-প্রযুক্তির প্রাপ্যতা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এ ছাড়া শান্তিরক্ষা মিশনে বাংলাদেশের কালচার অব পিসের ইভেন্ট আয়োজনের বিষয়েও কথা হয়।


আরও খবর



গুলশানে ক্লাবে ভাঙচুর করায় এবার পরীমনির বিরুদ্ধে জিডি

প্রকাশিত:বুধবার ১৬ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২০ জুন ২০21 | ৯০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ঢাকা বোট ক্লাবের ঘটনার আগের রাতে রাজধানীর গুলশানের অল কমিউনিটি ক্লাবে ভাঙচুরের অভিযোগে চিত্রনায়িকা পরীমনির বিরুদ্ধে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়েছে। গুলশান থানায় করা জিডির বিষয়টি আজ বুধবার গণমাধ্যকে জানান অল কমিউনিটি ক্লাবের প্রেসিডেন্ট কে এম আলমগীর।

এ বিষয়ে গুলশান থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আমিনুল ইসলাম আজ সন্ধ্যায় গণমাধ্যমকে বলেন, গত ৭ জুন গভীর রাতে ৯৯৯-এ একটি কলে গুলশান থানা-পুলিশের একটি দল অল কমিউনিটি ক্লাবে যায়। সেখানে গিয়ে দেখা যায়, কথা-কাটাকাটির জেরে ক্লাবে গ্লাস ভাঙচুর করেছেন পরীমনি।

ঘটনার বিবরণ দিয়ে অল কমিউনিটি ক্লাবের প্রেসিডেন্ট কে এম আলমগীর বলেন, ক্লাবের কিছু নিয়মকানুন আছে। কোনো মেল (পুরুষ) যদি ক্লাবে আসে, তাকে ড্রেস কোড মেইনটেইন করতে হয়। কিন্তু সেই মেল ভদ্রলোক হাপপ্যান্ট ও স্যান্ডেল পরে এসেছেন। তখন বেরিয়ে যাচ্ছিলেন আমাদের ফুড অ্যান্ড বেভারেজের ডিরেক্টর এবং ক্লাবের অ্যাডমিন। উনারা ওটা দেখে বলেছেন, আপনি তো ক্লাব রুল ভায়োলেট করেছেন। আপনি তো হাফপ্যান্ট পরে আসতে পারেন না। তো উনারা ক্ষিপ্ত হয়ে যান। ক্ষিপ্ত হয়ে যাওয়ায় উনাদের আচার-আচরণ গ্রহণযোগ্য না হওয়ায় উনারা (ক্লাব কর্তৃপক্ষ) বলেন, রাত হয়েছে আপনারা চলে যান। কিন্তু উনারা চলে যাচ্ছিল না দেখে আমাদের পরিচালকই ক্লাব থেকে চলে যান।

কে এম আলমগীর আরও বলেন, এরপরে ওই সদস্য যার মাধ্যমে উনারা এসেছিলেন, উনিও উনাদেরকে চলে যাওয়ার জন্য অনেক অনুরোধ করেন। কিন্তু উনারা চলে যাচ্ছিল না দেখে ওই সদস্যও চলে যান। তারপর উনারা অকস্মাৎ ক্ষিপ্ত হয়ে যান। চেঁচামেচি শুরু করেন।

আজ বুধবার এ বিষয়ে জানতে যোগাযোগ করা হলে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি পরীমনি। এরপর ফোন কেটে দেন। তারপর থেকেই তার ব্যবহৃত মুঠোফোন নম্বরটি বন্ধ পাওয়া যাচ্ছে।

ঢাকার বোট ক্লাবের ঘটনায় আলোচনায় আসেন পরীমনি। এ ঘটনায় আবাসন ব্যবসায়ী নাসির উদ্দিন মাহমুদ, অমিসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে ধর্ষণ ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মামলা দায়ের করেন চিত্রনায়িকা পরীমনি। মামলায় এখন পর্যন্ত পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।


আরও খবর