Logo
শিরোনাম

জনবল নিয়োগ দেবে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের কার্যালয়

প্রকাশিত:মঙ্গলবার ২২ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ১৩৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের কার্যালয় জনবল নিয়োগ দিচ্ছে। সাত পদে ১৪০ জনকে নিতে একটি নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে প্রতিষ্ঠানটি। আগ্রহীরা আগামী ১৮ জুলাই বিকাল ৫টা পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন করতে পারবেন। আবেদন করা যাবে ২৩ জুন থেকে।

পদের নাম : অফিস সহকারী-কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক (গ্রেড-১৬)

পদ সংখ্যা: ২৪ জন

আবেদনের যোগ্যতা: কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে উচ্চমাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় পাস। কম্পিউটার লিখনে পারদর্শী হতে হবে।

বেতন: ৯৩০০/- থেকে ২২৪৯০/-

পদের নাম: নাজির-কাম ক্যাশিয়ার (গ্রেড ১৬)

পদ সংখ্যা: ১৪ জন

আবেদনের যোগ্যতা: কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে মাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় পাস।

বেতন: ৯৩০০/- থেকে ২২৪৯০/-

পদের নাম: মিউটেশন-কাম সার্টিফিকেট সহকারী (গ্রেড ১৬)

পদ সংখ্যা: ১৩ জন

আবেদনের যোগ্যতা: কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে মাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় পাস।

বেতন: ৯৩০০/- থেকে ২২৪৯০/-

পদের নাম: সার্টিফিকেট পেশাকার (গ্রেড ১৬)

পদ সংখ্যা: ১৪ জন

আবেদনের যোগ্যতা: কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে মাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় পাস।

বেতন: ৯৩০০/- থেকে ২২৪৯০/-

পদের নাম: সার্টিফিকেট সহকারী (গ্রেড ১৬)

পদ সংখ্যা: ১৪ জন

আবেদনের যোগ্যতা: কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে মাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় পাস।

বেতন: ৯৩০০/- থেকে ২২৪৯০/-

পদের নাম: ক্রেডিট চেকিং-কাম সায়রাত সহকারী (গ্রেড ১৬)

পদ সংখ্যা: ১১ জন

আবেদনের যোগ্যতা: কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে মাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় পাস।

বেতন: ৯৩০০/- থেকে ২২৪৯০/-

পদের নাম: অফিস সহায়ক (গ্রেড ২০)

পদ সংখ্যা: ৫০ জন

আবেদনের যোগ্যতা: কোনো স্বীকৃত বোর্ড থেকে মাধ্যমিক বা সমমান পরীক্ষায় পাস।

বেতন: ৮২৫০/- থেকে ২০০১০/-

বয়স: আগ্রহী প্রার্থীর বয়স ২০২১ সালের ১৮ জুলাই তারিখ হিসাবে ১৮-৩০ বছরের মধ্যে হতে হবে; প্রতিবন্ধী ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের ক্ষেত্রে বয়স সর্বোচ্চ ৩২ বছর।

আবেদনের নিয়ম: আগ্রহী প্রার্থীরা http://dcctg.teletalk.com.bd -এ

ওয়েবসাইট থেকে আবেদন করতে পারবেন।


আরও খবর



শিমুলিয়া ঘাটে যাত্রীদের চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৫ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ২৫ জুলাই ২০২১ | ৫৪জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দক্ষিণবঙ্গের ২১ জেলার প্রবেশদ্বার হিসেবে পরিচিত মুন্সীগঞ্জের শিমুলিয়া ঘাটে আজ বৃহস্পতিবার যাত্রীর ভিড় স্বাভাবিক আছে। ফেরি ঘাটগুলোতে ছোট-বড় যানবাহনের কিছুটা চাপ থাকলেও, লঞ্চ চলাচল শুরু করায় ফেরি ঘাটে যাত্রীদের তেমন কোনো ভিড় নেই।

এদিকে, মহাসড়কগুলোতে দূরপাল্লার বাস চলাচল করতে দেখা গেছে। ঢাকা-মাওয়া মহাসড়ক এবং ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে বাস, ট্রাক, লেগুনা, সিএনজিচালিত এবং ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা ও মিশুক সকাল থেকে মহাসড়কে চলাচল করতে দেখা গেছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহণ করপোরেশনের (বিআইডব্লিউটিসি) শিমুলিয়া ঘাটের উপমহাব্যবস্থাপক (এজিএম) শফিকুল ইসলাম জানান, নৌরুটে ১০টি ফেরি চলছে। ঘাটে পদ্মা পারের অপেক্ষায় প্রায় ৩০০ ছোট-বড় যানবাহন রয়েছে। তবে, ফেরি ঘাটে যাত্রীদের কোনো ভিড় নেই।

এদিকে, শিমুলিয়া-বাংলাবাজার এবং শিমুলিয়া-মাঝিকান্দি নৌরুটে লঞ্চ চলাচল শুরু হয়েছে। লঞ্চে উভয়মুখী যাত্রীদের স্বাভাবিক চলাচল রয়েছে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহণ কর্তৃপক্ষ-এর (বিআইডব্লিউটিএ) শিমুলিয়া ঘাটের সহকারি পরিচালক সাহাদাত হোসেন জানান, এ রুটে মোট ৮৭টি লঞ্চের মধ্যে ৭৮টি লঞ্চ চলাচল করছে। বাকী লঞ্চগুলোর কাগজপত্র আপডেট করা নেই কর্তৃপক্ষ বলে চালাতে পারছে না। লঞ্চঘাটগুলোতে যাত্রীদের চাপ স্বাভাবিক রয়েছে।

করোনার কারণে ১৪ দিনের সরকারঘোষিত বিধিনিষেধ শেষে আজ বৃহস্পতিবার থেকে লঞ্চ ও গণপরিবহণ চলাচলের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

নিউজ ট্যাগ: শিমুলিয়া ঘাট

আরও খবর



রামেকে করোনা ইউনিটে আরও ১৭ জনের মৃত্যু

প্রকাশিত:শুক্রবার ০২ জুলাই 2০২1 | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ৭৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টার মধ্যে তারা মারা যান।

এর আগে গত সোমবার সকাল ৮টা থেকে মঙ্গলবার সকাল ৮টা পর্যন্ত সময়ের মধ্যে সর্বোচ্চ ২৫ জন মারা যান।

হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, নতুন করে মারা যাওয়া ১৭ জনের মধ্যে ১২ জন করোনা পজিটিভ ছিলেন। বাকি পাঁচজন মারা গেছেন করোনার উপসর্গ নিয়ে।

মৃত ১৭ জনের মধ্যে রাজশাহীর ১০ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের তিন, নাটোরের দুই, নওগাঁর এক এবং পাবনার একজন রোগী ছিলেন।

হাসপাতালটিতে এ মাসের দুদিনে ৩৯ জনের মৃত্যু হলো। এর আগে জুন মাসে করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ৩৫৪ জন।

শামীম ইয়াজদানী আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন সর্বোচ্চ ৭৬ জন। শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত এ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে ভর্তি ছিলেন সর্বোচ্চ ৪৬৮ জন। হাসপাতালে মোট করোনা ডেডিকেটেড শয্যার সংখ্যা এখন ৪০৫টি।


আরও খবর



বেনাপোলে দুই মাসে ফিরেছে ৫৬৬৬ বাংলাদেশি, পজিটিভ ১২৩

প্রকাশিত:শনিবার ২৬ জুন ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | ৮৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বেনাপোল প্রতিনিধি :

বেনাপোল আন্তর্জাতিক চেকপোস্ট দিয়ে দুই মাসে (গত ২৬ এপ্রিল থেকে ২৬ জুন পর্যন্ত) ভারতে আটকে পড়া পাঁচ হাজার ৬৬৬ জন বাংলাদেশি যাত্রী ফেরত এসেছেন। এদের মধ্যে ১২৩ জনের শরীরে করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে।

ভারত থেকে করোনা সংক্রমণ (পজিটিভ) নিয়ে এসেছেন ১৩ জন বাংলাদেশি যাত্রী। একই সময়ে ভারত থেকে এসেছে ৩৪ জনের মৃতদেহ। চিকিৎসা নিতে গিয়ে এসব বাংলাদেশিরা ভারতের বিভিন্ন হাসপাতালে মারা যান।

সর্বশেষ আজ শনিবার (বেলা ১২টা পর্যন্ত) দেশে ফিরেছেন ৫৭ জন যাত্রী। কোয়ারেন্টিনে অবস্থানকালীন অন্যান্য মারা গেছেন চারজন।

কলকাতার বাংলাদেশি উপহাইকমিশন থেকে অনাপত্তিপত্র (এনওসি) এবং করোনা পরীক্ষার নেগেটিভ সনদ নিয়ে ভারতে আটকে পড়া যাত্রীরা গত দুই মাস আগ থেকে বেনাপোল চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন দিয়ে দেশে ফেরত আসা শুরু করেন। বেনাপোল, ঝিকরগাছা ও যশোরের প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে আছেন ৬৮১ জন। যশোরের বাইরে অন্যান্য জেলায় আছেন ১১ জন। এদের মধ্যে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিন শেষে বাসায় ফিরে গেছেন চার হাজার ৪১৩ জন। করোনা পজিটিভ ২০৭ জনকে যশোর জেনারেল হাসপাতালের ডেডিকেটেড ইউনিটে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। যশোরের বাইরে অন্য হাসপাতালের করোনা জোনে পাঠানো হয়েছে ২৭৭ জনকে।

বেনাপোল ইমিগ্রেশনের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আহসান হাবিব জানান, বাংলাদেশ সরকার ভারতের করোনার নতুন ভেরিয়েন্ট সংক্রমণরোধে ২৬ এপ্রিল থেকে ভারত ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা জারি করে। এতে করে ভারতে আটকা পড়ে কয়েক হাজার বাংলাদেশি পাসপোর্টযাত্রী। সেসব আটকা পড়া পাসপোর্ট যাত্রীদের নিজ দেশে ফিরতে হলে কলকাতায় নিযুক্ত বাংলাদেশি উপহাইকমিশন থেকে এনওসি নিয়ে ও ৭২ ঘণ্টার মধ্যে আরটিপিসিআর ল্যাবের করোনা টেস্টের সনদ নিয়ে দেশে ফেরার নির্দেশনা দেন বাংলাদেশ সরকার। যেসব যাত্রী করোনায় আক্রান্ত বা উপসর্গ নিয়ে দেশে ফিরছেন উপজেলা প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের তত্বাবধানে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের ডেডিকেটেড ইউনিটে পাঠানো হচ্ছে।

যশোরের জেলা প্রশাসক মোঃ তমিজুল ইসলাম খান বলেন, ভারত থেকে আসা ৫ হাজার ৬৬৬ জনের মধ্যে ১২৩ জনের করোনা পজিটিভ এসেছে। তাদের নির্ধারিত আইসোলেশনে রাখা হয়েছে। শনিবার পর্যন্ত ৪ হাজার ৪৩১ জনকে নিজ নিজ বাড়িতে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর



করোনা: মৌলভীবাজারে শনাক্ত হার ১০০ শতাংশ

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ জুলাই ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ২৩ জুলাই ২০২১ | ৮৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেট বিভাগে ৫৯৫টি নমুনা পরীক্ষায় ২২৮ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এরমধ্যে ১৩৬ জন সিলেট জেলার

মৌলভীবাজারে গত ২৪ ঘণ্টায় ২১ জনের করোনা নমুনা পরীক্ষায় সবারই রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে। অর্থাৎ জেলাটিতে পরীক্ষা বিবেচনায় করোনাভাইরাসের শনাক্ত হার ১০০ শতাংশ।

রবিবার (৪ জুলাই) সন্ধ্যায় মৌলভীবাজার সিভিল সার্জন ডা. চৌধুরী জালাল উদ্দিন মুরশেদ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তবে পুরো সিলেট বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় শনাক্ত হার ৩৮.৩২ শতাংশ। এছাড়া বিভাগের ৪ জেলার মধ্যে মৌলভীবাজারেই সবচেয়ে কম নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। এদিকে সিলেট জেলায় শনাক্ত হার ৩৫.৩৭ শতাংশ, সুনামগঞ্জে ৪১.৪৬ শতাংশ ও হবিগঞ্জে ৩৭.৯৩ শতাংশ।

জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেট বিভাগে ৫৯৫টি নমুনা পরীক্ষায় ২২৮ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে। এরমধ্যে ১৩৬ জন সিলেট জেলার। সুনামগঞ্জ জেলার ১৭ জন, হবিগঞ্জের ২২ জন ও মৌলভীবাজারের ২১ জন। পাশাপাশি সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ৩২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেটে করোনায় আরও ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে সিলেটে মোট মৃত্যু বেড়ে ৪৮৩ জন হয়েছে। সর্বমোট সিলেটে ২৬ হাজার ৭১৪ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছে, যার মধ্যে ২৩ হাজার ৯৮০ জন সুস্থ হয়েছেন।

নিউজ ট্যাগ: মৌলভীবাজার

আরও খবর

বিরল প্রজাতির ২টি ‘ধুম কাছিম’ অবমুক্ত

মঙ্গলবার ০৫ জানুয়ারী ২০২১




বায়তুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত

প্রকাশিত:বুধবার ২১ জুলাই 20২১ | হালনাগাদ:শনিবার ২৪ জুলাই ২০২১ | ৬৯জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

আজ পবিত্র ঈদুল আজহা। মুসলিম উম্মাহর বৃহৎ ধর্মীয় উৎসব। পবিত্র ঈদ উদযাপনে দিনের প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে জাতীয় মসজিদ বাইতুল মোকাররমে। বুধবার (২১ জুলাই) সকাল ৭টায় প্রথম জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

বাইতুল মোকাররমে ঈদের প্রথম জামাতে ইমামতি করেন বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মাওলানা মো. মিজানুর রহমান। মুকাব্বির ছিলেন বায়তুল মুকাররমের মুয়াজ্জিন মো. আতাউর রহমান।

দ্বিতীয় জামাত হবে সকাল ৮টায়। এতে ইমাম থাকবেন বায়তুল মোকারমের পেশ ইমাম হাফেজ মুফতি মুহিব্বুল্লাহিল বাকী নদভী। মুকাব্বির থাকবেন মুয়াজ্জিন হাফেজ ক্বারী কাজী মাসুদুর রহমান। সকাল ৯টায় হবে ঈদের তৃতীয় জামাত। পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা এহসানুল হক এই জামাতে ইমামতি করবেন, মুকাব্বির থাকবেন হাফেজ ক্বারী হাবিবুর রহমান মেশকাত।

চতুর্থ জামাতে ইমামতি করবেন পেশ ইমাম মাওলানা মহিউদ্দীন কাসেম, মোকাব্বির হবেন মুয়াজ্জিন ক্বারী মো. ইসহাক। এই জামাতটি সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে। পঞ্চম ও শেষ জামাত হবে সকাল সাড়ে ১০টা ৪৫ মিনিটে। এতে ইমামতি করবেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মুহাদ্দিস হাফেজ মাওলানা ওয়ালিয়ূর রহমান খান। মুকাব্বির থাকবেন বায়তুল মোকাররমের প্রধান খাদেম মো. শহীদুল্লাহ।

বাকি চার জামাতের কোনো ইমাম অনুপস্থিত থাকলে বিকল্প ইমাম হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন মাওলানা মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, মুফতী, ইসলামিক ফাউন্ডেশন।


আরও খবর