Logo
শিরোনাম

জঙ্গি ও পাহাড়ি বিচ্ছিন্নতাবাদী ১০ জন গ্রেপ্তার

প্রকাশিত:শুক্রবার ২১ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৭৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নতুন জঙ্গি সংগঠন জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্বিয়ার সাত সদস্য ও পাহাড়ি তিন বিচ্ছিন্নতাবাদীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব)। বৃহস্পতিবার বান্দরবান ও রাঙ্গামাটিতে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমান অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে।

র‌্যাবের মুখপাত্র কমান্ডার খন্দকার আল মঈন ঢাকাটাইমসকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

র‌্যাবের মুখপাত্র জানান, বান্দরবান ও রাঙ্গামাটির বিভিন্ন অঞ্চল থেকে নতুন জঙ্গি সংগঠন জামাতুল আনসার ফিল হিন্দাল শারক্বিয়ার সাতজন এবং পাহাড়ি বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনের তিনজনসহ মোট ১০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ব্যাপারে পরে বিস্তারিত জানানো হবে।

এর আগে বুধবার দুপুরে খন্দকার আল মঈন বলেন, ১০ অক্টোবর থেকে পার্বত্য এলাকায় যৌথ অভিযান চলছে। অপারেশনে বেশ অগ্রগতি আছে। আমরা বেশকিছু দূর পর্যন্ত চলে এসেছি। আশা করছি কয়েকজনকে আইনের আওতায় আনতে পারব।’

সম্প্রতি উগ্রবাদে উদ্বুদ্ধ হয়ে’ স্বেচ্ছায় বাড়ি থেকে নিরুদ্দেশ হওয়া ১৯ জেলার ৩৮ তরুণের তালিকা প্রকাশ করে র‌্যাব। দুই দফায় পৃথক অভিযান চালিয়ে নিরুদ্দেশ ছয়জন তরুণসহ মোট ১২ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

র‌্যাব বলছে, অন্তত ৫৫ জন কথিত হিজরতের নামে বাড়ি থেকে নিরুদ্দেশ হয়েছেন। এদের মধ্যে ৩৮ জন পার্বত্য চট্টগ্রাম দুর্গম এলাকায় অবস্থান করছেন। তাদের অনেকে স্বশস্ত্র প্রশিক্ষণ ও বোমা বিস্ফোরণের প্রশিক্ষণ নিয়েছেন। গ্রেপ্তারদের জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে এমন তথ্য পাওয়া গেছে বলে দাবি বাহিনীটির।

জঙ্গি সম্পৃক্ততায় কুমিল্লা ও দেশের অন্যান্য অঞ্চল থেকে বাড়ি ছেড়ে যাওয়া তরুণদের সঙ্গে জড়িত সংগঠনের দাওয়াতি ও অন্যতম অর্থ সরবরাহকারী হাবিবুল্লাহ ও বাড়ি ছেড়ে যাওয়া তিনজনসহ মোট পাঁচজনকে গত ৯ অক্টোবর রাতে রাজধানী ঢাকার যাত্রাবাড়ী ও কেরানীগঞ্জ থেকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

গত ২৩ আগস্ট কুমিল্লা সদর এলাকা থেকে আট তরুণ নিখোঁজের ঘটনা ঘটে। একদিন পর (২৫ আগস্ট) কোতয়ালী থানায় সাধারণ ডায়েরি হয়, যা দেশজুড়ে চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। পরে র‍্যাব নিখোঁজদের উদ্ধারে ও জড়িতদের গ্রেপ্তারে গোয়েন্দা নজরদারি শুরু করে।

প্রাথমিকভাবে র‌্যাব জানতে পারে, জঙ্গিবাদে উদ্বুদ্ধ হয়ে তারা বাড়ি ছেড়েছিল। পরে ৬ সেপ্টেম্বর চার তরুণকে উদ্ধার করে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেয় র‍্যাব। তাছাড়া সামরিক জঙ্গি প্রশিক্ষণের সময় শারতাজ ইসলাম নিলয় নামে এক যুবক পটুয়াখালী থেকে পালিয়ে আসেন। হিজরতে থাকা বাকি তিন যুবক সেখানে প্রশিক্ষণ নেন। র‌্যাবের পৃথক অভিযানে তারাও গ্রেপ্তার হন।

কুমিল্লা থেকে নিখোঁজ যুবকরা স্থানীয় একটি মসজিদের ইমাম হাবিবুল্লাহর মাধ্যমেই প্রথমে নতুন জঙ্গি সংগঠন সম্পর্কে ধারণা পায়। এ সময় ওই যুবকদের পাশ্ববর্তী দেশে মুসলমানদের উপর নির্যাতনের বিষয়ে তাত্ত্বিক জ্ঞান প্রদান ও বিভিন্ন ভিডিও দেখানো হত। এভাবে তাদেরকে সশস্ত্র হামলার প্রস্তুতি পরিবার থেকে বিচ্ছিন্ন হওয়ার আগ্রহ তৈরি করা হয়।

হাবিবুল্লাহকে সম্প্রতি গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। কুমিল্লার স্থানীয় একটি মসজিদে ইমামতির পাশাপাশি তিনি পাহাড়ে একটি মাদ্রাসার পরিচালনা করেন। এই মাদ্রাসার নামে বিদেশ থেকে অর্থ আনতেন তিনি। পরে সেই অর্থ জঙ্গিবাদে খরচ করতেন। এছাড়া সংগ্রহ করা অর্থ বিচ্ছিন্নতাবাদিদের দিয়ে পাহাড়ে জঙ্গি প্রশিক্ষণ করানো হতো।


আরও খবর

দেশে ১০ মাসে ধর্ষণের শিকার ৮৩০

রবিবার ২৭ নভেম্বর ২০২২




যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে আজ বাস্তবে রুপ নিয়েছে কাতার বিশ্বকাপ

প্রকাশিত:সোমবার ২১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর 2০২2 | ২২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রবাসী শ্রমিকদের মানবাধিকার ক্ষুণ্ণ করেছে কাতার, এমন অভিযোগ এখনো কান পাতলেই শোনা যায়। কিন্তু গতকাল সেই শ্রমিকদের নিয়ে ভিন্ন দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করল কাতার।

যাদের অক্লান্ত পরিশ্রমে আজ বাস্তবে রুপ নিয়েছে কাতার বিশ্বকাপ।

ইন্ডাস্ট্রিয়াল এরিয়া ফ্যান জোনে গতকাল কাতার বনাম ইকুয়েডরের মধ্যকার বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচটি উপভোগ করেন হাজারো প্রবাসী শ্রমিক। পুরুষদের প্রায় বেশিরভাগই ছিলেন দক্ষিণ এশিয়ার কর্মী। কেউ বা ভারত, কেউ বা বাংলাদেশ, কেউ বা পাকিস্তান, আবার কেউ কেউ এসেছেন আফ্রিকা থেকে। বিশ্বকাপ মাঠে গড়ানোর পেছনের তাদের প্রত্যেকেরই কোনো না কোনো অবদান রয়েছে। 

উদ্বোধনী ম্যাচ দেখার পর নিজেদের শ্রম নিয়ে অতৃপ্তি কিংবা অসন্তুষ্টি থাকার কথা নয়। বিশ্বের অন্যান্য সমর্থকের মতো তারাও বুঁদ হয়েছিলেন খেলার ভেতরে। খেলা দেখার জন্য কেউ কাজ শেষ করে সরাসরি যোগ দিয়েছেন ফ্যান জোনে, আবার অনেকেই আগেই ছুটি নিয়েছিলেন কর্মস্থল থেকে। 

তাদেরই একজন বাংলাদেশের মোহাম্মদ হোসেন। বিশ্বকাপের বেশ কয়েকটি অবকাঠামো প্রকল্পের অংশ ছিলেন তিনি। বর্তমানে মেট্রো স্টেশনের দারোয়ান হিসেবে কাজ করছেন। উদ্বোধনী ম্যাচটি বেশ রোমাঞ্চ নিয়েই উপভোগ করেছেন ৪৫ বছর বয়সি হোসেন।

আল জাজিরাকে তিনি বলেন, ব্যক্তিগতভাবে বিশ্বকাপের অংশ হওয়াটা বড় ব্যাপার আমার জন্য। কারণ প্রথমবার একটি মুসলিম দেশ এর আয়োজন করছে। কখনো ভাবিনি এই দেশে এসে এমন গুরুত্বপূর্ণ কিছুর অংশীদার হব। আমার জীবদ্দশায়, আমার দেশের বিশ্বকাপে খেলা বা আয়োজন করার সুযোগই নেই।

মধ্যপ্রাচ্যের প্রথম দেশ হিসেবে ২০১০ সালে ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজকস্বত্ব পায় কাতার। ২৮ লাখ মানুষের দেশটির পক্ষে এমন কঠিন কাজ এককভাবে করা সহজ ছিল না। তাই প্রবাসী শ্রমিকদের জন্য দুয়ার খুলে দেয় তারা।

ভারতের পিটার বলেন, 'এখন যেমন মেট্রো বা বাস দেখছেন রাস্তায়, কাতারে এমনটা ছিল না। বিশ্বকাপ না হলে এইসব দালান, হাইওয়ে ও সড়কের হয়তো অস্তিত্বই থাকত না। আমি খুবই খুশি, আমরা (প্রবাসী শ্রমিক) বড় দায়িত্ব পালন করেছি।

তৃপ্তি ভরে উপভোগ

খেলা শুরু হওয়ার আগেই শ্রমিকরা ফ্যান জোনে ভিড় জমাতে শুরু করেন।  প্রাণবন্ত পরিবেশে সুস্বাদু বিরিয়ানির সুগন্ধ এক ভিন্ন মাত্রাই দিয়েছিল। কিন্তু রেফারীর বাঁশি বাজার পর থেকেই তাদের পুরো মনোযোগ চলে যায় বড় পর্দায়। স্বভাবতই কাতারের পক্ষেই গলা ফাটাচ্ছিলেন তারা। কিন্তু ইকুয়েডরের কাছে ২-০ গোলে হেরে তাদের হতাশ করে কাতার। 

টিকিটের চড়া দাম

আল জাজিরার সঙ্গে যারা কথা বলেছেন, তাদের সবারই স্টেডিয়ামে বসে খেলা দেখার সামর্থ্য। কেননা সর্বসাকুল্যে তাদের বেতন ২০০০ কাতারি রিয়ালের (প্রায় ৫৭ হাজার টাকা) কিছুটা বেশি। গ্রুপপর্বের ম্যাচগুলোর টিকিট মূল্য থেকে ৪০ কাতারি রিয়াল থেকে শুরু করে ৮০০ রিয়াল পর্যন্ত। ৪০ রিয়ালের মূল্যের টিকিট প্রচুর চেষ্টা করেও কিনতে পারেননি অনেকেই। 

পিটার বলেন, ফিফা ও সরকারের উচিত ছিল টিকিটের ১০ শতাংশ স্বল্প আয়ের মানুষদের জন্য। মোটা অংকের বেতন পাওয়া লোকেরাও সস্তা দামের টিকিট কিনছেন। প্রতিদিন চেষ্টা করেও আমি টিকিট পাইনি, তাই হাল ছেড়ে দিয়েছি।


আরও খবর

রোনালদোকে টপকে গেলেন মেসি

রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২




সাধারণ সম্পাদক পদে নিপুণের দায়িত্ব পালনে বাধা নেই

প্রকাশিত:সোমবার ২১ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০২ ডিসেম্বর 2০২2 | ৫১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচনে প্রাথমিকভাবে জয়ী জায়েদ খানের প্রার্থিতা বৈধ বলে দেওয়া হাইকোর্টের রায় স্থগিত করেছেন আপিল বিভাগ। একইসঙ্গে হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে নিপুণের লিভ টু আপিল গ্রহণ করেছেন আদালত।

আজ সোমবার (২১ নভেম্বর) প্রধান বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ এ আদেশ দেন। নিপুণের আইনজীবীরা জানান, এই আদেশের ফলে চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করবেন নিপুণ আক্তার।

এর আগে জায়েদ খানকে শিল্পী সমিতির সম্পাদক ঘোষণা করে রায় দেন হাইকোর্ট। পরবর্তী সময়ে তা স্থগিত করে স্থিতাবস্থা দেন চেম্বার আদালত। আজ হাইকোর্টের রায় স্থগিত রেখেছেন আপিল বিভাগ।


আরও খবর



ডেঙ্গুতে আরও একজনের মৃত্যু, হাসপাতালে ভর্তি ৬৮৫

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৭ নভেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | ৩৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে আরও ৬৮৫ জন নতুন রোগী দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। একই সময়ে আরও এক ডেঙ্গুরোগীর মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোলরুম থেকে পাঠানো ডেঙ্গু বিষয়ক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে আরও ৬৮৫ জন নতুন রোগী দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এর মধ্যে ঢাকায় ৩৫৩ জন ও ঢাকার বাইরে ৩৩২ জন। 

বর্তমানে সারা দেশে দুই হাজার ৭৫০ জন ডেঙ্গুরোগী হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। এর মধ্যে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে এক হাজার ৫২৪ জন ও ঢাকার বাইরে এক হাজার ২২৬ জন।

চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ১৭ নভেম্বর পর্যন্ত দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ৫১ হাজার ৪৪৪ জন। এর মধ্যে ঢাকায় ভর্তি রোগীর সংখ্যা ৩৩ হাজার ৩৫২ জন ও ঢাকার বাইরে ১৮ হাজার ৯২ জন।

একই সময়ে সারা দেশে ছাড়প্রাপ্ত রোগীর সংখ্যা ৪৮ হাজার ৪৭৭ জন। এর মধ্যে ঢাকায় ছাড়প্রাপ্ত রোগীর সংখ্যা ৩১ হাজার ৬৯৯ জন ও ঢাকার বাইরে ১৬ হাজার ৭৭৮ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে আরও একজন মারা গেছেন। চলতি বছরে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ২১৭ জন মারা গেছেন।

গত বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা ছিল ২৮ হাজার ৪২৯ জন। একই সময়ে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ২৮ হাজার ২৬৫ জন ও ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মারা যান ১০৫ জন।


আরও খবর



ডিপথেরিয়ায় পাকিস্তানে ৩৯ শিশুর মৃত্যু

প্রকাশিত:রবিবার ২০ নভেম্বর ২০22 | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ২৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

ডিপথেরিয়া রোগে আক্রান্ত হয়ে পাকিস্তানে ৩৯ জন শিশুর মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) ও জাতিসংঘের শিশুবিষয়ক সংস্থা ইউনিসেফের তরফে ডিপথেরিয়া প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় চিকিৎসাব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন দেশটির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

দেশটিতে নিয়মিত টিকাদানের হার বৃদ্ধির দাবি করা হলেও, অন্তত ৩৯ জন শিশুর মৃত্যু হলো। তাদের মধ্যে টিনএজাররাও রয়েছে। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, ইউনিসেফের পক্ষ থেকে রোগ প্রতিরোধী সিরাম দেওয়ার কথা বলা হয়েছে। ডব্লিউএইচও একই সহায়তার আশ্বাস দিয়েছে।

শিশুরোগ বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, প্যান্টাভ্যালেন্ট ভ্যাকসিন ও অ্যান্টি-ডিপথেরিয়া সিরামের অভাবে ডিপথেরিয়ার প্রাদুর্ভাব ঘটে। তারা বলছেন, বিশ্বজুড়ে রোগ নির্মূলে অ্যান্টি-ডিপথেরিয়া সিরাম খুব কম পরিমাণে তৈরি করা হয়।

পাকিস্তানের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসের এক কর্মকর্তা জানান, প্রতি সপ্তাহে পাকিস্তানের পাঞ্জাব, সিন্ধু, খাইবার পাখতুনখাওয়া ও বেলুচিস্তানে ডিপথেরিয়ায় আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে। পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীরেও আক্রান্ত হচ্ছে শিশুরা।

দেশটির চিকিৎসা সংশ্লিষ্টরা এমন পরিস্থিতির জন্য ফেডারেল ও প্রদেশিক সরকারকে দায়ী করেছেন। শিগগির ব্যবস্থা নেওয়ার আহ্বানও জানিয়েছেন তারা।

চিকিৎসা বিশেষজ্ঞদের মতে, ডিপথেরিয়া মানবদেহের শ্বসনতন্ত্রে এক ধরনের ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণজনিত রোগ। মানবদেহের শ্বসনতন্ত্র কিংবা ত্বক ও চোখের কনজাংটিভা এই রোগে আক্রান্ত হয়। সাধারণত আক্রান্ত ব্যক্তির হাঁচি-কাশির মাধ্যমে বা ত্বকে ডিপথেরিয়ায় আক্রান্ত ব্যক্তির সরাসরি সংস্পর্শে এলে এই রোগ দ্রুত ছড়ায়। সংক্রমণের ২ থেকে ৬ দিনের মধ্যে এর লক্ষণ বা উপসর্গ দেখা দেয়।

টিকার মাধ্যমে ডিপথেরিয়া প্রতিরোধ করা যায়। ডিপথেরিয়ার টিকাকে বলে ডিপিটি ভ্যাকসিন। এই টিকা দিলে শিশুর ডিপথেরিয়া, ধনুষ্টঙ্কারসহ বেশ কয়েকটি রোগ প্রতিরোধ করা সম্ভব হয়, বলছেন চিকিৎসা সংশ্লিষ্টরা।


আরও খবর



বিয়ে বাড়িতে সংঘর্ষে কনের দাদি নিহত, বরসহ আটক ১২

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ ডিসেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ ডিসেম্বর ২০২২ | ৪৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কুড়িগ্রামে বিয়ে বাড়িতে কনের গহনা নিয়ে বাকবিতণ্ডার সৃষ্টি হলে বর ও কনে পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে গুরুতর আহত হয়ে কনের দাদি মারা যান। এ ঘটনায় বর পক্ষের বরসহ ১২ জনকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার রাতে নাগেশ্বরী উপজেলার কচাকাটা থানার কেদার ইউনিয়নের গোলের হাট গ্রামে কনের বাড়িতে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, গোলেরহাট গ্রামের নূর জামাল ইসলামের মেয়ে জেসমিন আখতারের সঙ্গে ভূরুঙ্গামারী উপজেলার বঙ্গসোনাহাট ইউনিয়নের ঘুন্টিঘর এলাকার আলীফ উদ্দিনের ছেলে রাইসুল ইসলাম রিপনের বিয়ে ঠিক হয়।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বরযাত্রী কনের বাড়িতে আসার পর খাবার শেষে কনে সাজাতে গিয়ে বর পক্ষের দেয়া গহনা নিয়ে দুপক্ষের বাকবিতণ্ডার সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষে কনে পক্ষের বেশ কয়েকজন আহত হন। এর মধ্যে গুরুতর আহত অবস্থায় কনের দাদি তহুরন নেছাকে হাসপাতালে নেয়ার পথে তিনি মারা যান।

খবর পেয়ে রাতেই কচাকাটা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বরসহ ১২ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

কচাকাটা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম মর্তুজা বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। ১২ জনকে আটকও করা হয়েছে। আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।


আরও খবর