Logo
শিরোনাম

জোরপূর্বক তুলে এনে তরুণীকে গণধর্ষণ

প্রকাশিত:রবিবার ০৪ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৭৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
বরগুনা জেলার সদর থানার পরিরখাল গ্রামের পনু হাওলাদারের ছেলে বাবুল মিয়া ও ভোলা জেলার বোরহান উদ্দিন থানার খয়েরহাট গ্রামের রফিক মিয়ার ছেলে আমির হোসেন। তারা বর্তমানে চনপাড়া পুনর্বাসন

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার চনপাড়া পুনর্বাসন কেন্দ্র এলাকা থেকে এক তরুণীকে (২৪) গণধর্ষণের মামলায় দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে থানা পুলিশ। শনিবার (৩ এপ্রিল) রাত সাড়ে ৮টার দিকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন, বরগুনা জেলার সদর থানার পরিরখাল গ্রামের পনু হাওলাদারের ছেলে বাবুল মিয়া ও ভোলা জেলার বোরহান উদ্দিন থানার খয়েরহাট গ্রামের রফিক মিয়ার ছেলে আমির হোসেন। তারা বর্তমানে চনপাড়া পুনর্বাসন কেন্দ্রের মহি শিকদারের বাড়িতে বসবাস করে আসছেন।

রূপগঞ্জ থানা সূত্রে জানা গেছে, জেলার শান্তিগঞ্জ থানার ডুংলিয়া গ্রামের পরিবারের সদস্যদের সাথে ভুক্তভোগী ওই তরুণী রূপগঞ্জ উপজেলার কায়েতপাড়া ইউনিয়নের পূর্বগ্রাম এলাকার একটি বাড়িতে ভাড়ায় বসবাস করে আসছিলেন। গত ২৭ মার্চ রাতে আসামি বাবুল মিয়া ও আমির হোসেনসহ আরও কয়েকজন ওই তরুণীকে জোরপূর্বক তুলে এনে পূর্বগ্রাম এলাকার নির্জন স্থানে গণধর্ষণ করে। পরে এ ঘটনায় ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে রূপগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন।

রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসিম উদ্দিন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, দুই জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এ ঘটনার সাথে জড়িত অন্য আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান চলছে।


আরও খবর



অবশেষে ভাসানচর যাচ্ছেন জাতিসংঘ কর্মকর্তারা

প্রকাশিত:শনিবার ১৩ মার্চ ২০২১ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৯ এপ্রিল ২০২১ | ৯৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রায় এক বছরের অচলাবস্থার পর ভাসানচর পরিদর্শনের বিষয়ে সরকারের সঙ্গে ঐকমত্যে পৌঁছেছে জাতিসংঘ। আগামী সপ্তাহে সংস্থাটির একটি প্রতিনিধি দল রোহিঙ্গাদের জীবনযাপন দেখতে ভাসানচরে যাবেন।

সম্প্রতি পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং জাতিসংঘের ঢাকা মিশনের একটি বৈঠকে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে বলে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আনাদুলু এজেন্সি জানিয়েছে।

মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে নিপীড়ন নির্যাতন থেকে প্রাণে বাঁচতে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীরা ঠাঁই নিয়েছেন বাংলাদেশের কক্সবাজারের বিভিন্ন শিবিরে। বিপুল এ শরণার্থীদের মধ্যে ভাসানচরে যেতে আগ্রহী রোহিঙ্গাদের নোয়াখালীর অদূরে ভাসানচরে নিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। এরইমধ্যে কয়েক দফায় প্রায় ১৩ হাজার রোহিঙ্গাকে ভাসানচর স্থানান্তর করা হয়েছে।

রোহিঙ্গা শরণার্থীরা ভাসানচরে গিয়ে সুযোগ-সুবিধার জন্য সন্তোষ প্রকাশ করলেও শরণার্থীদের দ্বীপটিতে স্থানান্তরে জাতিসংঘসহ কয়েকটি সংস্থা শুরু থেকেই বিরোধিতা করে আসছিল। যদিও উন্নত জীবনযাপনের সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত অবকাঠামো থাকায় কক্সবাজারের জরাজীর্ণ শিবির থেকে ভাসানচর রোহিঙ্গাদের জন্য নিরাপদ হিসেবে উঠে এসেছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে।

জাতিসংঘ কর্মকর্তাদের আগামী সপ্তাহে এই সফরের বিস্তারিত জানা না গেলেও জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা-ইউএনএইচসিআরের ঢাকা কার্যালয়ের মুখপাত্র মোস্তফা মোহাম্মদ সাজ্জাদ আনাদোলুকে বলেছেন, সফরের বিস্তারিত ঠিক করতে আলোচনা চলছে।

অন্যদিকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালক (দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া) দেলোয়ার হোসেন জাতিসংঘ কর্মকর্তাদের সফরের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, গত সপ্তাহে আমাদের বৈঠক হয়েছে। জাতিসংঘের কর্মকর্তাদের সরাসরি পরিদর্শনে সহায়তা করতে অফিসিয়াল সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সামনের সপ্তাহের মাঝামাঝি সফরটি হতে পারে। আমরা তাদের সফরে টেকনিক্যাল সহায়তা দেবো।


আরও খবর



যেখানেই হেফাজত সেখানেই প্রতিরোধ: হানিফ

প্রকাশিত:বুধবার ০৭ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৭৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
ধর্ম ব্যবসায়ী মামুনুল তার স্ত্রীর নাম দিয়ে এখানে এসেছিলেন এবং অনৈতিক কাজে জড়িত ছিলেন বলেই সাধারণ মানুষ তাকে ধরেছে। এই বিষয়টি কেন্দ্র করে তথাকথিত ধর্ম ব্যবসায়ীরা

যেখানেই হেফাজত সেখানেই প্রতিরোধ গড়ে তুলতে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ। তিনি বলেন, হেফাজত কর্মীদের নাম ঠিকানা খুঁজে বের করুন।

আজ বুধবার দুপুর ১২টার দিকে সোনারগাঁও উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে স্থানীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে মতবিনিময় কালে এসব কথা বলেন তিনি।

মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, যেখানেই সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী হেফাজত ইসলাম ধর্মের নামে অরাজকতা সৃষ্টি করার অপচেষ্টা করবে সেখানেই প্রতিরোধ করতে হবে। যারা এই হামলার সঙ্গে জড়িত তাদের তালিকা করতে হবে। এদের বিরুদ্ধে সরকারিভাবে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

তিনি বলেন, একজন ধর্ম ব্যবসায়ীকে কেন্দ্র করে যে ঘটনা ঘটেছে। তাকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগের অফিস ভাঙচুর করা হয়েছে, যুবলীগ-ছাত্রলীগের নেতার বাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে, সাধারণ মানুষের ওপর অত্যাচার নির্যাতন করা হয়েছে। এই বিষয় পরিষ্কার ভাবে জানিয়ে দিতে চাই ধর্ম ব্যবসায়ী মামুনুল তার স্ত্রীর নাম দিয়ে এখানে এসেছিলেন এবং অনৈতিক কাজে জড়িত ছিলেন বলেই সাধারণ মানুষ তাকে ধরেছে। এই বিষয়টি কেন্দ্র করে তথাকথিত ধর্ম ব্যবসায়ীরা যে ভাঙচুর ও নির্যাতন করেছে তার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত সকলের নাম ঠিকানা সংগ্রহ করার জন্য আওয়ামী লীগের প্রতিটি নেতাকর্মীদের আহ্বান জানিয়ে হানিফ বলেন, যারা আওয়ামী লীগের অফিসে হামলা করেছে, আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বাড়িঘরে হামলা করেছে, মানুষের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা করেছে। এসব হামলার সঙ্গে যুক্তদের পরিচয় সংগ্রহ করুন। আমরা চাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ শান্তিপূর্ণ পরিবেশ উন্নয়ন অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকুক। কিন্তু ধর্মের নাম করে অধর্মের কাজ করা, ভাঙচুর করা বরদাস্ত করা হবে না।


আরও খবর



মোদির সফরের বিরোধিতা নিয়ে দুশ্চিন্তা নেই : মোমেন

প্রকাশিত:শনিবার ২০ মার্চ ২০21 | হালনাগাদ:রবিবার ০৪ এপ্রিল ২০২১ | ৭৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরের বিরোধিতা নিয়ে আমাদের দুশ্চিন্তা নেই। আমরা তাকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেব। আর মৌলবাদীদের বিরোধিতা নিয়ে আমরা চিন্তা করছি না। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জানেন, কীভাবে মৌলবাদীদের নিয়ন্ত্রণে রাখতে হয়।

শনিবার রাজধানীর ফরেন সার্ভিস একাডেমিতে শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী মাহিন্দা রাজাপক্ষের ঢাকা সফর নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

এক প্রশ্নের উত্তরে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, ভারতের প্রধানমন্ত্রী আসছেন, এটা আমাদের জন্য আনন্দের। কেউ কেউ বিরোধিতা করছেন, আমাদের দেশ গণতান্ত্রিক দেশ, এখানে নানা মতের লোক রয়েছেন। এ নিয়ে আমাদের দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই।

সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী আসছেন বঙ্গবন্ধুর প্রতি সম্মান জানাতে ও স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে। ডা. জাফরুল্লাহও তার সফর নিয়ে বিরোধিতা করেছেন। মোদি যখন প্রথমবার ক্ষমতায় আসেন, তখন বিএনপি অন্যরকম নয়েস তৈরির চেষ্টা করেছিল। আমরা অনুরোধ করবো, এই সফর নিয়ে কেউ যেন কোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা তৈরি না করেন।

সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্রসচিব মাসুদ বিন মোমেন, পররাষ্ট্র সচিব (পূর্ব) মাশফি বিনতে শামস উপস্থিত ছিলেন।



আরও খবর



প্রিন্স ফিলিপের সম্মানে যুক্তরাজ্যজুড়ে ‘গানস্যালুট’

প্রকাশিত:শনিবার ১০ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৫৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
আজ শনিবার স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায় লন্ডন, এডিনবরা, কার্ডিফ, বেলফাস্টসহ অন্যান্য ব্রিটিশ শহরে প্রতি মিনিটে একটি করে মোট ৪১টি গুলি ছোড়া হবে। সাগরে এইচএমএস ডায়ামন্ড ও এইচএমএস মনট্রোজসহ

রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের স্বামী ডিউক অব এডিনবরা প্রিন্স ফিলিপকে শেষ বিদায় দিতে সম্মানজনক গ্যানস্যালুটের আয়োজন করেছে যুক্তরাজ্য। গতকাল শুক্রবার উইন্ডসর ক্যাসেলে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। বয়স হয়েছিল ৯৯ বছর। ব্রিটিশ ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি দিন ধরে রয়্যাল কনসোর্ট ছিলেন তিনি।

বার্তা সংস্থা এএফপি ও ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসির খবরে বলা হয়, দেশজুড়ে গানস্যালুটের মাধ্যমে প্রিন্স ফিলিপের প্রতি শ্রদ্ধা জানানো হবে। স্পেনের দক্ষিণ উপকূলে যুক্তরাজ্যের অধীনে থাকা জিব্রলটার এবং সমুদ্রে থাকা যুদ্ধজাহাজগুলো থেকেও একইভাবে সম্মান জানানো হবে তাকে। ইতিমধ্যে সরকারি সব ভবনে জাতীয় পতাকা অর্ধনমিত রাখা হয়েছে এবং তার শেষকৃত্যের পরের দিন সকাল পর্যন্ত সেটি অর্ধনমিত থাকবে।

ব্রিটিশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, আজ শনিবার স্থানীয় সময় দুপুর ১২টায় লন্ডন, এডিনবরা, কার্ডিফ, বেলফাস্টসহ অন্যান্য ব্রিটিশ শহরে প্রতি মিনিটে একটি করে মোট ৪১টি গুলি ছোড়া হবে। সাগরে এইচএমএস ডায়ামন্ড ও এইচএমএস মনট্রোজসহ রয়্যাল নেভি অনলাইন ও টিভি চ্যানেলে এ গানস্যালুট সরাসরি সম্প্রচার করা হবে।

এর আগে ১৯০১ সালে ব্রিটিশ রানি ভিক্টোরিয়া ও ১৯৬৫ সালে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী উইন্সটন চার্চিলের মৃত্যুতে এ ধরনের গানস্যালুট দেওয়া হয়েছিল।

রয়্যাল কলেজ অব আর্মস সূত্রে জানা গেছে, উইন্ডসরের সেন্ট জর্জ চ্যাপেলে তাকে সমাহিত করা হবে। তবে কোন দিন তাকে সমাহিত করা হবে, সেটি এখনো জানানো হয়নি।

১৯৫২ সালে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ ব্রিটিশ সিংহাসনে আরোহণের পর ২০১৭ সাল পর্যন্ত নৌবাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা প্রিন্স ফিলিপ ২২ হাজার ২১৯টি একক সরকারি কর্মসূচিতে অংশ নেন। রয়্যাল মেরিনসহ ৭৮০টির বেশি প্রতিষ্ঠানের পৃষ্ঠপোষক, প্রেসিডেন্ট অথবা সদস্য প্রিন্স ফিলিপ ৬৩৭ বার বিদেশ সফর করেছেন এবং প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার বক্তব্য দিয়েছেন।


আরও খবর

মিয়ানমারে সেনা অভিযানে নিহত ৮২

রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১




সোমবার থেকে সারা দেশে যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচল বন্ধ

প্রকাশিত:শনিবার ০৩ এপ্রিল ২০২১ | হালনাগাদ:রবিবার ১১ এপ্রিল ২০২১ | ৮৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ পরিস্থিতি ক্রমাগত অবনতি হওয়ায় আগামী সোমবার থেকে এক সপ্তাহের জন্য সারা দেশে লকডাউন দিচ্ছে সরকার। লকডাউনে মালবা‌হী ছাড়া যাত্রীবাহী সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ থাকবে।

শনিবার বিআইডব্লিউটিএ'র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক যুগান্তরকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, লকডাউনের কারণে সোমবার সকাল ৬টা থেকে সারা দেশের সব ধরনের যাত্রীবাহী নৌযান বন্ধ থাকবে। তবে মালবাহী জাহাজ চলাচল করবে।

এর আগে সকালে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানান, মহামারি সামাল দিতে আবারও লকডাউনের ঘোষণা আসছে।  তিনি বলেছেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় সোমবার থেকে সারা দেশে এক সপ্তাহের জন্য লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

অপরদিকে জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন জানিয়েছেন, শিল্প কারখানা খোলা রেখে সোমবার কিংবা মঙ্গলবার থেকে সারা দেশে একযোগে লকডাউন দেওয়ার বিষয়ে কাজ চলছে। সন্ধ্যায় এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করা হতে পারে বলেও জানান তিনি।


আরও খবর