Logo
শিরোনাম

খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের ছেলে-মেয়েসহ ৯ আত্মীয়ের নিয়োগ বাতিল

প্রকাশিত:সোমবার ২৯ আগস্ট ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ৮৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক শহীদুর রহমান খানের ছেলে-মেয়েসহ ৯ আত্মীয়ের নিয়োগ বাতিল করা হয়েছে। আগামী ১১ সেপ্টেম্বর উপাচার্য হিসেবে শহীদুর রহমানের মেয়াদ শেষ হবে। শেষ হওয়ার প্রাক্কালে এমন সিদ্ধান্ত নিল শিক্ষা মন্ত্রণালয়।

সম্প্রতি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের উপ-সচিব মাহমুদুল আলমের সই করা এক চিঠিতে উপাচার্যকে এই বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। একই সঙ্গে বিষয় বিশেষজ্ঞ ছাড়া একই ব্যক্তিদের দিয়ে বাছাই বোর্ড গঠন করে ২০টি বিষয়ে নিয়োগ দেওয়া ৭৩ জন শিক্ষকের নিয়োগ বাতিল করতেও বলেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। এসব বিষয়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন আছে বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের চিঠিতে উল্লেখ করা হয়েছে।

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এই চিঠি পাওয়ার কথা নিশ্চিত করেছেন খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার খন্দকার মাজহারুল আনোয়ার।

অনিয়ম-স্বজনপ্রীতি করে খুলনা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে নিজের ছেলে, মেয়ে, শ্যালক-শ্যালিকার ছেলে ও ভাতিজাকে নিয়োগ দিয়েছেন শহীদুর। সব মিলিয়ে উপাচার্য নিজের পরিবারের সদস্য-আত্মীয়দের মধ্যে নয়জনকে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে নিয়োগ দিয়েছেন। তিনি তার স্ত্রীকেও বিশ্ববিদ্যালয়টিতে অধ্যাপক পদে নিয়োগ দেওয়ার চেষ্টা করেছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়টিতে নিয়োগে অনিয়মের এসব চিত্র বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) তদন্তে প্রমাণিত হয়েছে বলে জানা গেছে।


আরও খবর



উৎপাদনশীলতা বাড়াতে পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ০২ অক্টোবর 2০২2 | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ২৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দক্ষ জনশক্তি তৈরি ও কৌশলগত উৎপাদনশীলতা বাড়াতে পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে। চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের সুযোগ কাজে লাগাতে আমাদের প্রধান লক্ষ্য হতে হবে দক্ষ মানবসম্পদ সৃষ্টি। তবেই দেশের সামগ্রিক অর্থনীতিতে গতিশীলতা আসবে, বাড়বে উৎপাদনশীলতাও। রোববার (২ অক্টোবর) জাতীয় উৎপাদনশীলতা দিবস উপলক্ষে দেওয়া বাণীতে এসব কথা বলেন তিনি।

তিনি বলেন, প্রতি বছরের মতো এবারও ন্যাশনাল প্রোডাকটিভিটি অর্গানাইজেশন (এনপিও) দেশব্যাপী জাতীয় উৎপাদনশীলতা দিবস উদযাপন করছে জেনে আমি আনন্দিত। দিবসটির এবারের প্রতিপাদ্য চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় উৎপাদনশীলতা যুগোপযোগী ও যথার্থ হয়েছে বলে আমি মনে করি।

শেখ হাসিনা বলেন, বর্তমান বিশ্বে বহুল আলোচিত বিষয়ের মধ্যে চতুর্থ শিল্পবিপ্লব অন্যতম। চতুর্থ শিল্পবিপ্লব হলো আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে প্রচলিত উৎপাদন ও শিল্প ব্যবস্থার স্বয়ংক্রিয়করণের একটি চলমান প্রক্রিয়া। উৎপাদনশীলতাই উন্নয়নের গতিকে ত্বরান্বিত করে। বাংলাদেশকে চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের সুযোগ গ্রহণ করতে হলে এখন থেকেই প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে। দেশের প্রতিটি ক্ষেত্রে উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধির জন্য একযোগে কাজ করতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে শিল্পখাতের সব উৎপাদন কার্যক্রম আধুনিক প্রযুক্তিনির্ভর তথা চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা উপযোগী করার মাধ্যমে উৎপাদনশীলতা বাড়ানো প্রয়োজন। উৎপাদনশীলতার উন্নয়ন ঘটাতে হলে বাংলাদেশকে উন্নত দেশগুলোর মডেল অনুসরণের মাধ্যমে উৎপাদনশীলতার সংস্কৃতি চর্চা করতে হবে।

সরকারপ্রধান বলেন, বৈশ্বিক অগ্রযাত্রার সঙ্গে তালমিলিয়ে চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার জন্য দেশের সর্বক্ষেত্রে অর্থাৎ তথ্য ও প্রযুক্তি, অবকাঠামো ও উন্নয়ন এবং শিক্ষা ও গবেষণায় উন্নত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে আওয়ামী লীগ সরকার এতোমধ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। আমি জাতীয় উৎপাদনশীলতা দিবস ২০২২ এর সার্বিক সাফল্য কামনা করছি।


আরও খবর



মানসিক অবসাদে ভুগেছেন করন জোহর

প্রকাশিত:সোমবার ০৩ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | ২২জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জনপ্রিয় বলিউড নির্মাতা করন জোহর। ক্যামেরার সামনে সব সময় হাস্যজ্জ্বল থাকলেও টানা ৫ বছর ধরে অবসাদে ভুগেছেন তিনি। সম্প্রতি তার কফি উইথ করন টক শো-তে করন জোহর বলেন, আমি মানসিক অবসাদ ও হতাশায় ডুবে গিয়েছিলাম। টানা ৫ বছর ধরে এটির সঙ্গে লড়াই করেছি। চিকিৎসকের পরামর্শ নিতাম। আমাকে চিকিৎসক বলেছিলেন, আমি নাকি সবকিছুকে অনেক বেশি মজ্জাগত করে ফেলেছি। আমাকে সবকিছু থেকে বেরিয়ে আসতে বলেছিলেন।

এখন অনেকটাই সুস্থ বলে জানান করন। যতটা সম্ভব নেতিবাচকতাকে পাত্তা না দেওয়ার চেষ্টা করেন। তবে তার সন্তানদের নিয়ে কটাক্ষ করার বিষয়টি মেনে নিতে পারেন না তিনি। এই নির্মাতা বলেন, আমার সেক্সচুয়ালিটি নিয়ে লোকে ঠাট্টা করে। আমি এখন সব কটাক্ষকে উড়িয়ে দিই। কিন্তু আমার কষ্ট লাগে যখন দেখি আমার সন্তানদের নিয়েও কটাক্ষ করা বন্ধ হচ্ছে না। এটা আমাকে এখনো খুবই বিরক্ত করে।

সিনেমার পাশাপাশি ব্যক্তিগত নানা কারণেই আলোচনায় থাকেন করন জোহর। বিশেষ করে অভিনেতা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর পর তাকে ঘিরে স্বজনপ্রীতির অভিযোগ ওঠে। এজন্য প্রায়ই নেটিজেনদের রোষানলে পড়েন এই নির্মাতা। শুধু তাই নয়, বলিউডের প্রথম সারির অনেক তারকাও তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তোলেন।

নিউজ ট্যাগ: করন জোহর

আরও খবর

দুরন্তপনার ৫ বছর

বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২




মধ্যরাত থেকে ইলিশ শিকারে নিষেধাজ্ঞা

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | হালনাগাদ:শুক্রবার ০৭ অক্টোবর ২০২২ | ১৬জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

মা ইলিশ রক্ষায় বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) মধ্যরাত থেকে ২২ দিনের জন্য নদী ও সাগরে সব ধরনের মাছ শিকারে নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে সরকার। তাই দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তর মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র বরগুনার পাথরঘাটার বিএফডিসি ঘাটে ট্রলার নিয়ে ফিরছেন জেলেরা।

বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটেরর মৎস্য গবেষক ড. মো. আনিসুর রহমান বলেন, আশ্বিন মাসের বড় পূর্ণিমায় মা ইলিশ সবচেয়ে বেশি ও পরিপক্ব ডিম ছাড়ে। ওই বড় পূর্ণিমার দিন পড়েছে ৯ অক্টোবর। আবার একই মাসের অমাবস্যা বেশি ও পরিপক্ব ডিম ছাড়ে। ওই অমাবস্যা দিন পড়েছে ২৪ অক্টোবর। এ কারণে বড় পূর্ণিমা ও অমাবস্যা তারিখ ঠিক রেখে সরকার ৭ অক্টোবর থেকে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত মা ইলিশের ডিম ছাড়ার সময় নির্ধারণ করেছে। সে হিসেবে ২২ দিন মাছ ধরা নিষিদ্ধ।

জেলেরা জানান, আষাঢ়, শ্রাবণ, ভাদ্র ও আশ্বিন এ চার মাস ইলিশ শিকারের প্রধান মৌসুম। কিন্তু এর মধ্যে ৬৫ দিন মাছ ধরায় নিষেধাজ্ঞা ছিল। ঘূর্ণিঝড়সহ বেশ কয়েকটি নিম্নচাপও ছিল। তাই অল্প কিছুদিন ইলিশ শিকার করতে পারলেও লোকসানের মুখে পড়েছেন জেলে ও ট্রলার মালিকরা। নিষেধাজ্ঞার সময় বরগুনা উপকূলের প্রায় দেড় লাখ জেলে বেকার হয়ে পড়বেন। তাই পরিবার চালাতে চালের পাশাপাশি নগদ অর্থ সহায়তারও দাবি জানিয়েছেন তারা।

বাংলাদেশে মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা চৌধুরীর দাবি, ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞায় বাংলাদেশের জেলেরা মাছ না ধরলেও দেশের জলসীমায় অনুপ্রবেশ করে মাছ শিকার করবে ভারত ও মিয়ানমারের জেলেরা। তাই ভিনদেশি জেলেদের অনুপ্রবেশ বন্ধ করতে না পারলে ব্যর্থ হবে এ নিষেধাজ্ঞা।

বরগুনা জেলা মৎস্য কর্মকর্তা বিশ্বজিৎ কুমার দেব বলেন, ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুম সফল করতে তারা কঠোর অবস্থানে থাকবো। এ ২২ দিন কোনোভাবেই সাগর ও নদীতে কোনো জেলেকে মাছ শিকার করতে দেওয়া হবে না। পাশাপাশি নিষেধাজ্ঞার সুফল সম্পর্কে জেলেদের সঙ্গে মতবিনিময় করবো।


আরও খবর



রাবিতে বিশ্ব ফার্মাসিস্ট দিবস পালিত

প্রকাশিত:রবিবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:বৃহস্পতিবার ০৬ অক্টোবর ২০২২ | ৩৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

একটি স্বাস্থ্যকর বিশ্ব জন্য ফার্মেসি একত্রিত হয়েছে এ প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে নানা আয়োজনের মধ্য দিয়ে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) পালিত হয়েছে আন্তর্জাতিক ফার্মেসিস্ট দিবস। দিবসটি উপলক্ষে দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় ফার্মেসি বিভাগ।

রোববার সকাল ১০টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি বিভাগ সামনে দিনব্যাপী এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. গোলাম সাব্বির সাত্তার। উদ্বোধন শেষে দিবসটি উপলক্ষে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালির আয়োজন করা হয়। র‌্যালিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে ড. এম ওয়াজেদ মিয়া একাডেমিক ভবনের সামনে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হোন তারা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ফার্মেসি বিভাগের অধ্যাপক শাহনাজ পারভীনের সঞ্চালনায় বিশ্ব ফার্মাসিস্ট দিবসের তাৎপর্য, গুরত্ব ও প্রাসঙ্গিকতাকে তুলে ধরে উপাচার্য বলেন, ফার্মাসিস্টরা বাংলাদেশের ঔষধ শিল্পে একটা বড় ভুমিকা পালন করছেন। একটা নিদিষ্ট সময়ের পর আমরা ওষধের উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়ি। ঔষধ আমাদের প্রাণ রক্ষাকারী হিসেবে কাজ করে। ফার্মাসিস্টরা শুধু ঔষুধ উৎপাদন ও বিপণন করেন না ঔষুধের গুণগত মান নিয়ন্ত্রণ ও সঠিক পরিকল্পনা করে থাকেন। ফার্মাসিস্টরা রোগের কারণকে সামনে রেখেই ঔষুধ উৎপাদন করেন। তবে আমি লক্ষ করছি আমাদের বাংলাদেশের ডাক্তার ও ফার্মাসিস্টদের মধ্যে একটা ফারাক রয়ে গেছে। প্রত্যেক হাসপাতালে একজন ডাক্তারের পাশাপাশি একজন ফার্মাসিস্ট রাখা প্রয়োজন বলে মনে করি।

তিনি আরও বলেন, দেশের শিক্ষার্থীদের উন্নত গবেষণায় এগিয়ে আসতে হবে ফার্মেসি বিষয়ে জানার কোনো বিকল্প নেই। নতুন উদ্ভাবন দিয়ে ফার্মাসিস্টদের অর্জনকে সমৃদ্ধ করতে হবে। এসময় মেডিসিন সম্পর্কে সকলকে সচেতন করার বিভিন্ন পরামর্শ দেন এ উপাচার্য।

অনুষ্ঠানে এসময় ফার্মেসি বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক ড.আজিজ আব্দুর রহমানের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ প্রশাসক অধ্যাপক ড. প্রদীপ কুমার পান্ডে, সিন্ডিকেট সদস্য ও জোহা হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক একরামুল ইসলাম।

দিবসটি উপলক্ষে এদিন বিভাগের সামনে একটি মডেল মেডিসিন শপে ফ্রি স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করেন ফার্মেসি বিভাগের শিক্ষার্থীরা। সেখানে ফ্রিতে রক্তের গ্রুপ নির্ণয় , রক্তচাপ পরিমাপ করা হয়। এছাড়াও বিভিন্ন ঔষধ সম্পর্কে ধারণা দেন বিভাগের শিক্ষার্থীরা। এসময় ফার্মেসি পেশার প্রতি উদ্ভুদ্ধ করার জন্য ফার্মা অলিম্পিয়াড প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। দিনব্যাপী এ আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মেসি ও বিভিন্ন বিভাগের প্রায় ২ শতাধিক শিক্ষক-শিক্ষার্থী অংশ নেয়।

উল্লেখ্য, ফার্মেসি পেশায় কর্মরতদের উৎসাহ প্রদান এবং এ পেশা সম্পর্কে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে ২০১০ সাল থেকে সারাবিশ্বে এই দিবস পালিত হয়ে আসছে। ২০১৪ সাল থেকে বাংলাদেশে পালিত হচ্ছে এ দিবস। সাধারণ মানুষকে এ মহান পেশা সম্পর্কে জানাতে এবং এ পেশার মানকে উচ্চ মর্যাদার আসনে আসীন রাখতে সারা বিশ্বে এই দিবস পালিত হয়।


আরও খবর



নিজে ভালো বন্ধু হলে সবাই ভালো থাকবে : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত:বুধবার ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | হালনাগাদ:মঙ্গলবার ০৪ অক্টোবর ২০২২ | ৪৭জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

নিজে ভালো বন্ধু হলে সবাই ভালো থাকবে, আর নিজে যদি এদিক-ওদিক করেন, তাহলে তো সম্পর্ক ভালো থাকে না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ভারত সফর নিয়ে বুধবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেল সোয়া ৪টার দিকে গণভবনে এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, ভারত সফর বাংলাদেশের জন্য নতুন দিগন্তের সূচনা। সম্পর্ক সুসংহত করে এগিয়ে যেতে চাই।

তিনি বলেন, একটা দেশের সঙ্গে সমস্যা থাকতেই পারে, সেগুলো আলোচনার মাধ্যমে সমাধান হতে পারে। আমাদের নীতি সকলের সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারও সঙ্গে বৈরিতা নয়।

উল্লেখ্য, গত ৫ সেপ্টেম্বর চার দিনের সফরে ভারতে যান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সফরে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে তার বৈঠক হয়। এ ছাড়া ভারতের রাষ্ট্রপতি দ্রৌপদী মুর্মু ও উপরাষ্ট্রপতি জগদীপ ধনখারের সঙ্গেও পৃথক সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন শেখ হাসিনা।

সফরে যেসব বিষয়ে সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে-

অভিন্ন নদী কুশিয়ারা থেকে পানি প্রত্যাহার, ভারতে বাংলাদেশের রেলকর্মীদের প্রশিক্ষণ, বাংলাদেশ রেলওয়ের আইটি সিস্টেমে ভারতের সহযোগিতা, ভারতে বাংলাদেশ জুডিশিয়াল অফিসারদের প্রশিক্ষণ ও দক্ষতা বৃদ্ধি কর্মসূচি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিক্ষেত্রে সহযোগিতার বিষয়ে ভারতের কাউন্সিল ফর সায়েন্টিফিক অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিসার্চ (সিএসআইআর) ও বাংলাদেশের কাউন্সিল অব সায়েন্টিফিক অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিয়াল রিসার্চের (বিসিএসআইআর) মধ্যে সমঝোতা, মহাকাশপ্রযুক্তিতে সহযোগিতা এবং প্রসার ভারতী ও বাংলাদেশ টেলিভিশনের (বিটিভি) মধ্যে সম্প্রচার সহযোগিতা।

এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রীর এই সফরে বিনিয়োগ, ক্রমবর্ধমান বাণিজ্য সম্পর্ক, বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের সহযোগিতা, নিরাপত্তা সহযোগিতা, অভিন্ন নদীর পানি বণ্টন, পানিসম্পদ ব্যবস্থাপনা, সীমান্ত ব্যবস্থাপনা, মাদক চোরাচালান ও মানবপাচার রোধ-সংক্রান্ত বিষয়গুলো অগ্রাধিকার পায়।


আরও খবর