শিরোনাম

কক্সবাজারে দলবেঁধে ‘ধর্ষণ’ : গ্রেপ্তার ৫

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৯৩৩জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

কক্সবাজারে এক নারীকে দলবেঁধে ধর্ষণের মামলায় পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে কয়েকজন মামলার এজাহারনামীয় আসামি ও তাদের সহযোগী রয়েছেন।

কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের পুলিশ সুপার মো. জিল্লুর রহমান এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, তাদের আটকের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। তবে ধর্ষণকাণ্ডের মূল হোতা আশিক এখনও ধরাছোঁয়ার বাইরে। এ বিষয়ে দুপুরে একটি সংবাদ সম্মেলন করবে কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশ। সেখানে তাদের বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।

ওই নারী জানান, ঢাকার যাত্রাবাড়ী থেকে গত বুধবার সকালে স্বামী-সন্তানসহ কক্সবাজার বেড়াতে যান তিনি। ওঠেন শহরের হলিডে মোড়ের একটি হোটেলে।

সেখান থেকে বিকেলে যান সৈকতের লাবণী পয়েন্টে। সেখানে অপরিচিত এক যুবকের সঙ্গে তার স্বামীর ধাক্কা লাগলে কথা-কাটাকাটি হয়। এর জেরে সন্ধ্যার পর পর্যটন গলফ মাঠের সামনে থেকে তার ৮ মাসের সন্তান ও স্বামীকে সিএনজি অটোরিকশায় করে কয়েকজন তুলে নিয়ে যায়।

এ সময় আরেকটি অটোরিকশায় তাকে তুলে নেয় তিন যুবক। পর্যটন গলফ মাঠের পেছনে একটি ঝুপড়ি চায়ের দোকানের পেছনে নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে তিনজন।

ধর্ষণ শেষে তাকে নেওয়া হয় জিয়া গেস্ট ইন নামে একটি হোটেলে। সেখানে ইয়াবা সেবনের পর আরেক দফা তাকে ধর্ষণ করে ওই তিন যুবক। ঘটনা কাউকে জানালে সন্তান ও স্বামীকে হত্যা করা হবে জানিয়ে রুম বাইরে থেকে বন্ধ করে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে তারা।

ওই নারী আরও জানান, জিয়া গেস্ট ইনের তৃতীয় তলার জানালা দিয়ে এক যুবকের সহায়তায় কক্ষের দরজা খোলেন তিনি। তারপর ফোন দেন ৯৯৯-এ। পুলিশ তাকে থানায় সাধারণ ডায়েরি করার পরামর্শ দেয়।

হোটেলের ক্লোজড সার্কিট টেলিভিশন (সিসিটিভি) ক্যামেরার ফুটেজ দেখে এ ঘটনায় জড়িত দুজনকে আগেই শনাক্ত করার কথা জানায় র‍্যাব।

নিউজ ট্যাগ: কক্সবাজার

আরও খবর

এক জালে ৬ লাখ টাকার মাছ

সোমবার ১০ জানুয়ারী ২০২২




পরাজয় মেনে নিয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈমুর আলম

প্রকাশিত:রবিবার ১৬ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ১১জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

বহুল আলোচিত নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের (নাসিক) নির্বাচনে পরাজয় মেনে নিয়েছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার।

আজ রবিবার রাতে নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণার পর তাৎক্ষণিক এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এই কথা জানান তিনি।

এদিকে, বিপুল ভোটে জয় লাভ করেছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াৎ আইভী।

তৃতীয়বারের মতো নির্বাচন হলেন তিনি। এর আগের দুবারই মেয়র পদে বিজয়ী হয়েছিলেন সেলিনা হায়াৎ আইভী। এবার তিনি আওয়ামী লীগের মনোনয়ন নিয়ে নৌকা প্রতীকে লড়াইয়ে নেমেছিলেন।

নির্বাচনে ১৯২ কেন্দ্রে সেলিনা হায়াৎ আইভী পেয়েছেন ১ লাখ ৬১ হাজার ২৭৩ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী তৈমুর আলম খন্দকার পেয়েছেন ৯২ হাজার ১৭১ ভোট।

 


আরও খবর



নাটকীয় লড়াইয়ে বার্সাকে হারিয়ে ফাইনালে রিয়াল মাদ্রিদ

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ১৩ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৩৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

সুপার কোপা দে এস্পানার এল ক্ল্যাসিকো সেমিফাইনালে বার্সাকে ৩-২ গোলে হারিয়ে ফাইনালে রিয়াল। লা লিগায় চলতি মৌসুমটা একেবারেই ভালো যাচ্ছে না জাভির দলের। তারপরও স্প্যানিশ সুপার কাপে ঘুরে দাঁড়াতে চেয়েছিল বার্সেলোনা। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের কাছে হেরে স্প্যানিশ সুপার কাপের ফাইনাল থেকে বিদায় নিয়েছে বার্সা।

জমজমাট লড়াইয়ে প্রথমার্ধে দুই দলই একটি করে গোল করে। ভিনিসিউস জুনিয়রের গোলে বার্সেলোনা পিছিয়ে পড়ার পর সমতা ফেরান লুক ডি ইয়ং। করিম বেনজেমা আবারও রিয়ালকে এগিয়ে নেওয়ার পর আরেক দফায় সমতা টানেন ফাতি। আর অতিরিক্ত সময়ে ব্যবধান গড়ে দেন ফেদে ভালভেরদে। কিং ফাহাদ স্টেডিয়ামে নির্ধারিত ৯০ মিনিটের খেলা শেষ হয় ২-২ গোলে।

অতিরিক্ত সময়ের ৮ মিনিটের মাথায় ফেদেরিকো ভালভার্দের দুর্দান্ত গোলে এগিয়ে যায় রিয়াল। এরপরও হাল ছাড়েনি বার্সা। গোল শোধ করতে মরিয়া ছিলেন কাতালানরা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ক্লাসিকোর জয়টা পেলো রিয়ালই।

বৃহস্পতিবার রাতে দ্বিতীয় সেমি-ফাইনালে মুখোমুখি হবে অ্যাতলেতিকো মাদ্রিদ ও অ্যাথলেটিক বিলবাও।


আরও খবর

উন্মোচন করা হল ঢাকা দলের জার্সি

সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২




সরিষাবাড়ীতে আসামী ছিনতাইয়ের চেষ্টা: হামলায় ৬ পুলিশ আহত

প্রকাশিত:শুক্রবার ০৭ জানুয়ারী ২০২২ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৭০জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

জামালপুরের সরিষাবাড়ীতে এজাহারভুক্ত আসামী গ্রেফতারকে কেন্দ্র করে তারাকান্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় ৬ পুলিশ সদস্য আহত হয়েছে। শুক্রবার সকালে উপজেলার তারাকান্দি যমুনা সার কারখানা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এসময় হামলাকারীদের মধ্য থেকে একজনকে আটক করেছে পুলিশ।

তারাকান্দি পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র ও প্রতক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়, স্থানীয় এমপি ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানের বিরুদ্ধে তার স্ত্রী ধানমন্ডি থানায় জিডি করার পর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল ইসলামের লোকজন বৃহস্পতিবার রাতভর এলাকায় আতশবাজি ফোটায়। এ ঘটনার পর শুক্রবার সকালে তারাকান্দি যমুনা সার কারখানা এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করতে তারা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেয়। এসময় পুলিশ বাধা দিলে সংঘর্ষ বাধে। সংঘর্ষে রফিক গ্রুপে যুক্ত হওয়া ও বিএনপি নেতা এবং ৩ মামলার আসামী মোর্শেদকে আটক করে পুলিশ। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তারাকান্দি পুলিশ তদন্তকেন্দ্রে হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। এসময় তদন্ত কেন্দ্রের প্রধান গেট বন্ধ করে দিলেও উপর দিয়ে ইটপাটকেল নিক্ষেপ করা হয়। এতে তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ আব্দুল লতিফ, এসআই সোহাগ, এসআই সুলতান, এএসআই মেহেদী, কনস্টেবল খোকনুজ্জামান ও সোলায়মান আহত হয়।

এদিকে এ ঘটনার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন জেলা পুলিশ সুপার নাসির উদ্দিন আহমেদ। অপর দিকে আসামী ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকের বিরুদ্ধে এবং পুলিশ ফাড়িতে হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল করে সাবেক প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান এমপির সমর্থকরা।

এ বিষয়ে জেলা পুলিশ সুপার নাসির উদ্দিন আহমেদ বলেন, ৩টি মামলার আসামী মোর্শেদের নেতৃত্বে ৬০-৭০ জন লোক যমুনা সার কারখানা এলাকায় আধিপত্য বিস্তার করতে সকাল থেকে কারখানা এলাকায় দেশীয় অস্ত্র নিয়ে মহড়া দেওয়ার চেষ্টা করলে পুলিশ বাধা দেয়। এসময় পুলিশের উপর চড়াও হলে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে ও এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। দোষীদের সনাক্ত করে আইনের আওতায় আনা হবে।

এ বিষয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রফিকুল ইসলাম বলেন, আমার এসবের কিছু জানা নেই। আর আমার লোকেরা থানায় হামলা করবে কেন? যে গ্রেফতার হয়েছে সেও তো আমার লোক না। এলাকায় কোন ঘটনা হলেই আমার লোকের দোষ হয়। আমরা পরিচ্ছন্ন রাজনীতি করি। হামলা ভাংচুরের রাজনীতি করি না।

নিউজ ট্যাগ: জামালপুর

আরও খবর



অপচয়-দুর্নীতি ছাপিয়ে উন্নয়নের সূর্যোদয় হয়েছে: পরিকল্পনামন্ত্রী

প্রকাশিত:রবিবার ২৬ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৭৫জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image
পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সবকিছু আমাদের ঢাকায়, ঢাকায় অসহনীয় পরিবেশ। সবাই ঢাকায় আসতে চান

পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেছেন, প্রতি মঙ্গলবার আমরা একনেক সভায় বসি। সভায় অনেকগুলো গেম চেঞ্জিং প্রকল্প নেওয়া হচ্ছে। তবে অনেক অপচয় হচ্ছে, দুর্নীতিও হচ্ছে, এটা বলে লাভ নেই। কিন্তু সবকিছু ছাপিয়ে উন্নয়নের একটা সূর্যোদয় হয়েছে, একটা মহা উন্নয়ন দেখা দিচ্ছে।

রোববার (২৬ ডিসেম্বর) নগরীর ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালে মেজর সালেক চৌধুরী বীর উত্তম কানফারেন্স হলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, আমরা প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ১৫ বছর ধরে দেশের উন্নয়নে কাজ করছি। দেশের মানুষের সুখ-শান্তি দেখা তার শান্তি। সময় এখন আমাদের। আমরা স্বাধীনতার স্বাদ ভোগ করছি। সঠিক সময়ে আল্লাহ আমাদের বঙ্গবন্ধুকে দিয়েছিলেন। পাকিস্তান আমাদের শেষ করে গেছে। বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বাধীন দেশ দিয়েছেন। বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ করতে হবে। সব থেকে অপরাধবোধ তাকে আমরা হত্যা করেছি, এই অপরাধ বোধ সবসময় বয়ে বেড়াতে হবে। দেশে সম্পদ বেড়েছে। কোন দল করি এটা বড় বিষয় না, দেশ তো একটাই। দেশের উন্নয়নে আমাদের একটা ইউনিটি দরকার। এই দেশের মাটির স্বাধীনতায় ও জাতির পরিচয়ে আওয়ামী লীগ জড়িত। দলের একজন হতে পেরে আমি গর্বিত।

ঢাকায় চাপ বাড়ছে দাবি করে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, সবকিছু আমাদের ঢাকায়, ঢাকায় অসহনীয় পরিবেশ। সবাই ঢাকায় আসতে চান। গ্রামের প্রাইমারি স্কুলের টিচার, তিনিও ঢাকার ডিজি অফিসে আসতে চান। বদলি, প্রমোশন, বেতন বাড়ানো নানা কাজে ঢাকায় আসতে হয়। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, অন্যান্য প্রতিষ্ঠান, ডিজি ভূমি, অনেক কিছুই ঢাকায়। ক্ষমতার কেন্দ্রেীভূত করে আমরা ঢাকায় বসে আছি। মন্ত্রীরা, সচিবরা, ডিজিরা এমন অন্যান্য শ্রেণীর যারা আমরা কাজ করি সবাই ঢাকায়। এটার ভালো-মন্দ বলার ক্ষমতা আমার নেই বলাও উচিত না। আমাদের প্রধানমন্ত্রী খুবই ইনোভেটিভ পারসন, তিনি এটা ভাঙতে চান। তবে কারোর একার পক্ষে এটা সম্ভব না। সমাজের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

তিনি আরও বলেন, আমাদের গ্রামে কমিউনিটি ক্লিনিক ও প্রাইমারি স্কুল দেখি। এগুলোও উন্নত হচ্ছে। আমাদের মা-চাচিরা এই সুযোগ-সুবিধা পাননি। তবে এখন গ্রামের মায়েরা এই সুযোগ পাচ্ছেন। আমরা গ্রামের স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়ন করতে কাজ করছি। সেজন্য প্রয়োজনীয় কাজ করছি। গ্রামে গ্রামে স্কুল তৈরির হিড়িক পড়ে গেছে, মায়ের নামে বাবার নামে স্কুল করার জন্য আমার কাছে আসে। সবাই বলে এমপি সাব স্কুল করতে চান। এতে বোঝা যায় এটা ব্যবসায়ীক দিক নয়। এটা নিয়ে মানুষের আগ্রহ আছে। কিন্তু আজীবন এটাকে চালিয়ে নেওয়ার জন্য কাজ করতে হবে। হাইস্কুল, কলেজ, সেকেন্ডারি স্কুলগুলা বেতনভাতা দিয়ে চলে। কয়েক হাজার পেন্ডিংও আছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে। আমারও কিছু আবেদন আছে। গ্রামীণ উন্নয়নেও সবকিছুই হচ্ছে। সরকার গ্রামের উন্নয়নে নজর দিচ্ছে। গ্রামকে শহরে রূপ দিপে নানা পরিকল্পনা চলমান।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতাল অ্যান্ড রিসার্স ইনস্টিটিউটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা অধ্যাপক ডা. এম এ রশীদ। এ সময় আরও বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি জাতীয় অধ্যাপক একে আজাদ খান, বাংলাদেশ ডায়াবেটিক সমিতির মহাসচিব মোহাম্ম সাইফ উদ্দিন, ইব্রাহিম কার্ডিয়াক হাসপাতালের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মাহমুদুর রহমান প্রমুখ।


আরও খবর



বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক নিয়োগে নীতিমালা করতে বললেন রাষ্ট্রপতি

প্রকাশিত:বৃহস্পতিবার ৩০ ডিসেম্বর ২০২১ | হালনাগাদ:সোমবার ১৭ জানুয়ারী ২০২২ | ৫৮জন দেখেছেন
নিউজ পোস্ট ডেস্ক

Image

দেশের উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোর কাজে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিতে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনকে (ইউজিসি) নির্দেশ দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। একইসঙ্গে তিনি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষক নিয়োগে একটি নীতিমাল করারও তাগিদ দেন।

বৃহস্পতিবার (৩০ ডিসেম্বর) ইউজিসি চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. কাজী শহীদুল্লাহর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধিদল বঙ্গভবনে বার্ষিক প্রতিবেদন ২০২০ পেশ করতে গেলে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আচার্য আবদুল হামিদ এ তাগিদ দেন।

রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন গণমাধ্যমকে বলেন, রাষ্ট্রপতি ইউজিসিকে উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রমে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহি নিশ্চিত করতে ওয়াচডগ হিসেবে কাজ করার নির্দেশ দেন। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে শিক্ষক নিয়োগে একটি নীতিমালা প্রণয়নের তাগিদ দেন।

সাক্ষাতের সময় ইউজিসি চেয়ারম্যান প্রতিবেদনের বিভিন্ন দিক এবং ইউজিসির সার্বিক কর্মকাণ্ড সম্পর্কে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন।

প্রেস সচিব জানান, ইউজিসি চেয়ারম্যান বলেন, গবেষণা কার্যক্রমকে উৎসাহিত করতে এ সংক্রান্ত বাজেট দ্বিগুণ করা হয়েছে। এবছর ৩০টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতিতে ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

ইউজিসি চেয়ারম্যান স্ট্রাটেজিক প্ল্যান ফর হায়ার এডুকেশন ২০১৮-২০৩০ এর কার্যক্রম এগিয়ে যাচ্ছে বলে রাষ্ট্রপতিকে অবহিত করেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, বাংলাদেশ ইতোমধ্যে স্বল্পোন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে উন্নীত হয়েছে। দেশের উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত রাখতে গবেষণার কোনও বিকল্প নেই। উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে দেশ যাতে এগিয়ে যেতে পারে, সে জন্য উচ্চশিক্ষার মান বাড়ানো জরুরি।

রাষ্ট্রপতি যুগোপযোগী কারিকুলাম প্রণয়ন ও শিক্ষার মান উন্নয়নে কার্যকর পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর প্রতি আহ্বান জানান।

রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব সম্পদ বড়ুয়া, সামরিক সচিব মেজর জেনারেল এস এম সালাহ উদ্দিন ইসলাম, রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব মো. জয়নাল আবেদীন এবং সচিব (সংযুক্ত) মো. ওয়াহিদুল ইসলাম খান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

নিউজ ট্যাগ: ইউজিসি

আরও খবর